শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৮:২১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, December 13, 2016 5:52 pm
A- A A+ Print

পর্নো সাইটে প্রবেশকারীদের নামের তালিকা হবে না: তারানা

33

ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, ‘পর্নো সাইটে প্রবেশকারীদের নামের তালিকা করার কোনো কথা কখনই বলিনি। এটি হবেও না। টেকনিক্যালিও সম্ভব নয়। মানুষের পরিচয় তথা ব্যক্তিগত তথ্যের সুরক্ষা দিতে আমরা বাধ্য ও বদ্ধপরিকর।’ আজ মঙ্গলবার দুপুরে ফেসবুকের ভেরিফাইড পেজে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে এসব কথা বলেন তিনি। গতকাল সোমবার সরকারি বার্তা সংস্থা বাসসের খবরে বলা হয়, ‘তারানা হালিম বলেছেন, ইন্টারনেট সেবাদানকারীদের দেশের ভেতরে পরিচালিত পর্নো সাইটগুলো বন্ধ করতে হবে। কিন্তু আন্তর্জাতিক সাইটগুলোর ক্ষেত্রে আমরা এমন একটি কৌশল গ্রহণের ওপর গুরুত্ব দিচ্ছি, যাতে ওই সব সাইটে প্রবেশকারীদের পরিচয় আমাদের কাছে প্রকাশ পাবে। তাই পরিচয় প্রকাশিত হওয়ার ভয়ে পর্নো সাইটে প্রবেশ থেকে অনেকে বিরত থাকবে।’ এ খবর প্রকাশিত হওয়ার পর প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়। এ বিষয়ে স্ট্যাটাসে তারানা হালিম বলেন, ‘দুঃখ এটিই যে এমন তালিকা করা হবে, এ ধরনের ভিত্তিহীন রটনা পড়ে সত্যাসত্য যাচাই না করেই নিজ নিজ ফেসবুক আইডিতে কিছু কিছু ব্যক্তি নেতিবাচক পোস্ট দিতে শুরু করলেন, ট্রল করা শুরু করলেন। সভ্যতা, ভব্যতার মাত্রাও অতিক্রম করলেন অনেকেই। আমরা হয়তো কোনো পদে আছি—কিন্তু তারও আগে আমরা মানুষ। আপনাদের সবার মতো কষ্ট-দুঃখ, মান-অপমানবোধ আমাদেরও আছে। আমরা ভিন গ্রহের বাসিন্দা নই। রক্ত-মাংসের মানবিকবোধসম্পন্ন আবেগময় মানুষ আমরাও। সেটি কি ভাবেন?’ তারানা হালিম আরও লিখেছেন, ‘মানুষের মতপ্রকাশের স্বাধীনতা আছে। আমাদের কাজের ভুল-ত্রুটি ধরিয়ে দেওয়ার অধিকারও আছে। কিন্তু সত্য না জেনে কাউকে অপমান করার অধিকার যেমন আমার নেই, তেমনি আপনারও নেই। সত্য হচ্ছে, আমরা দেশের ভেতরের পর্নো সাইট বন্ধের উদ্দেশ্যে কমিটি করেছি। তারা দেশের ভেতরের পর্নো সাইটগুলোর তালিকা দেবে (কোনো ব্যক্তির নয়)। দেশের ভেতরের পর্নো সাইটগুলো বন্ধ করতে আইএসপি ও আইইজি পদক্ষেপ নেবে। যদিও রিপোর্টটি এখনো হাতে পাইনি। বাইরে থেকে জেনারেটেড বা ইউটিউবে এসব কনটেন্ট পুরোপুরি ব্লক করা যায় না—যদি ৭০ ভাগও করা যায়, মানুষ উপকৃত হবে।’ পর্নো আসক্ত ব্যক্তিরা অপরাধে জড়িয়ে পড়েছে—উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমি কতগুলো কাজের কথা বলেছি, সবই কিন্তু করেছি, করছি। এটাও করতে চাইছি। কারণ একাধিক পত্রিকার খবরে দেখলাম, দেশের জনগোষ্ঠীর একটা অংশ পর্নো-আসক্তির কারণে নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। কিন্তু কারও নামের তালিকা প্রকাশের প্রশ্নই আসে না। যারা আমাকে নিয়ে ট্রল করছেন, তাদের অনুরোধ করছি, আপনাদের গুরুত্বপূর্ণ মতামত জানান। পর্নো সাইটগুলো নিয়ন্ত্রিত হোক, তা কি আপনারা চান, নাকি চান না? না চাইলে দৃঢ়ভাবে বলুন, চান না।’ এর সঙ্গে তিনি যোগ করেন, ‘ফেসবুক একটি জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। এখানে প্রত্যেকেই নিজে নিজ রাজ্যের রাজা। কিন্তু রাজা হলেই জুলুম করা যায় না। কলম থাকলেই সাংবাদিক হওয়া যায় না। দু-এক দিন মিছিলে গেলেই রাজনীতিবিদ হওয়া যায় না। জন্ম নিলেই মানুষ হওয়া যায় না। আসুন, আমরা মানুষ হই। কাউকে ছোট করে কিছু লেখার আগে শতবার ভাবি। কারণ, মানুষ হওয়াই সবচেয়ে কঠিন কাজ। চলুন, এ কাজটি করি সবার আগে। সবাইকে ধন্যবাদ।’

Comments

Comments!

 পর্নো সাইটে প্রবেশকারীদের নামের তালিকা হবে না: তারানাAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

পর্নো সাইটে প্রবেশকারীদের নামের তালিকা হবে না: তারানা

Tuesday, December 13, 2016 5:52 pm
33

ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, ‘পর্নো সাইটে প্রবেশকারীদের নামের তালিকা করার কোনো কথা কখনই বলিনি। এটি হবেও না। টেকনিক্যালিও সম্ভব নয়। মানুষের পরিচয় তথা ব্যক্তিগত তথ্যের সুরক্ষা দিতে আমরা বাধ্য ও বদ্ধপরিকর।’ আজ মঙ্গলবার দুপুরে ফেসবুকের ভেরিফাইড পেজে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে এসব কথা বলেন তিনি।

গতকাল সোমবার সরকারি বার্তা সংস্থা বাসসের খবরে বলা হয়, ‘তারানা হালিম বলেছেন, ইন্টারনেট সেবাদানকারীদের দেশের ভেতরে পরিচালিত পর্নো সাইটগুলো বন্ধ করতে হবে। কিন্তু আন্তর্জাতিক সাইটগুলোর ক্ষেত্রে আমরা এমন একটি কৌশল গ্রহণের ওপর গুরুত্ব দিচ্ছি, যাতে ওই সব সাইটে প্রবেশকারীদের পরিচয় আমাদের কাছে প্রকাশ পাবে। তাই পরিচয় প্রকাশিত হওয়ার ভয়ে পর্নো সাইটে প্রবেশ থেকে অনেকে বিরত থাকবে।’ এ খবর প্রকাশিত হওয়ার পর প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়।

এ বিষয়ে স্ট্যাটাসে তারানা হালিম বলেন, ‘দুঃখ এটিই যে এমন তালিকা করা হবে, এ ধরনের ভিত্তিহীন রটনা পড়ে সত্যাসত্য যাচাই না করেই নিজ নিজ ফেসবুক আইডিতে কিছু কিছু ব্যক্তি নেতিবাচক পোস্ট দিতে শুরু করলেন, ট্রল করা শুরু করলেন। সভ্যতা, ভব্যতার মাত্রাও অতিক্রম করলেন অনেকেই। আমরা হয়তো কোনো পদে আছি—কিন্তু তারও আগে আমরা মানুষ। আপনাদের সবার মতো কষ্ট-দুঃখ, মান-অপমানবোধ আমাদেরও আছে। আমরা ভিন গ্রহের বাসিন্দা নই। রক্ত-মাংসের মানবিকবোধসম্পন্ন আবেগময় মানুষ আমরাও। সেটি কি ভাবেন?’

তারানা হালিম আরও লিখেছেন, ‘মানুষের মতপ্রকাশের স্বাধীনতা আছে। আমাদের কাজের ভুল-ত্রুটি ধরিয়ে দেওয়ার অধিকারও আছে। কিন্তু সত্য না জেনে কাউকে অপমান করার অধিকার যেমন আমার নেই, তেমনি আপনারও নেই। সত্য হচ্ছে, আমরা দেশের ভেতরের পর্নো সাইট বন্ধের উদ্দেশ্যে কমিটি করেছি। তারা দেশের ভেতরের পর্নো সাইটগুলোর তালিকা দেবে (কোনো ব্যক্তির নয়)। দেশের ভেতরের পর্নো সাইটগুলো বন্ধ করতে আইএসপি ও আইইজি পদক্ষেপ নেবে। যদিও রিপোর্টটি এখনো হাতে পাইনি। বাইরে থেকে জেনারেটেড বা ইউটিউবে এসব কনটেন্ট পুরোপুরি ব্লক করা যায় না—যদি ৭০ ভাগও করা যায়, মানুষ উপকৃত হবে।’

পর্নো আসক্ত ব্যক্তিরা অপরাধে জড়িয়ে পড়েছে—উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমি কতগুলো কাজের কথা বলেছি, সবই কিন্তু করেছি, করছি। এটাও করতে চাইছি। কারণ একাধিক পত্রিকার খবরে দেখলাম, দেশের জনগোষ্ঠীর একটা অংশ পর্নো-আসক্তির কারণে নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। কিন্তু কারও নামের তালিকা প্রকাশের প্রশ্নই আসে না। যারা আমাকে নিয়ে ট্রল করছেন, তাদের অনুরোধ করছি, আপনাদের গুরুত্বপূর্ণ মতামত জানান। পর্নো সাইটগুলো নিয়ন্ত্রিত হোক, তা কি আপনারা চান, নাকি চান না? না চাইলে দৃঢ়ভাবে বলুন, চান না।’ এর সঙ্গে তিনি যোগ করেন, ‘ফেসবুক একটি জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। এখানে প্রত্যেকেই নিজে নিজ রাজ্যের রাজা। কিন্তু রাজা হলেই জুলুম করা যায় না। কলম থাকলেই সাংবাদিক হওয়া যায় না। দু-এক দিন মিছিলে গেলেই রাজনীতিবিদ হওয়া যায় না। জন্ম নিলেই মানুষ হওয়া যায় না। আসুন, আমরা মানুষ হই। কাউকে ছোট করে কিছু লেখার আগে শতবার ভাবি। কারণ, মানুষ হওয়াই সবচেয়ে কঠিন কাজ। চলুন, এ কাজটি করি সবার আগে। সবাইকে ধন্যবাদ।’

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X