সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৬:২২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, November 12, 2016 9:09 am | আপডেটঃ November 12, 2016 10:32 AM
A- A A+ Print

পল্লবীতে পুলিশের এসআই’র ঝুলন্ত লাশ

images

রাজধানীর পল্লবীতে নিজ বাসা থেকে এক এসআই’র ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার নাম মোমেন হাসনাইন রাব্বানী (৩৮)। তিনি পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগে (সিআইডি) কর্মরত ছিলেন। শুক্রবার রাত ৭টার দিকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়। পল্লবী থানার ওসি দাদন ফকির যুগান্তরকে জানান, পল্লবীর সেকশন ১১/এ-এর ৮ নম্বর রোডের ৫ নম্বর বাড়ির চতুর্থ তলায় স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ভাড়া থাকতেন এসআই মোমেন। পারিবারিক কলহের জের ধরে তিন দিন আগে তার স্ত্রী দুই সন্তানকে নিয়ে গ্রামের বাড়িতে চলে যান। শুক্রবার মোমেন ক্ষুদে বার্তায় তার স্ত্রীর বড় ভাই রফিক মিয়াকে জানান, তিনি আত্মহত্যা করবেন। বার্তা পাওয়ার সঙ্গেই রফিক যশোর থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন। সন্ধ্যায় পল্লবীর ওই বাসায় পৌঁছে দেখেন দরজা ভেতর থেকে বন্ধ। এরপর রফিক মিয়া পল্লবী থানায় খবর দেন। এসআই সুলতান আলীর নেতৃত্বে পুলিশ দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় মোমেনের লাশ উদ্ধার করে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, তিনি আত্মহত্যা করেছেন। ময়নাতদন্তের জন্য রাতেই লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।ওই বাড়ির মালিক মাহমুদুল হকের স্ত্রী জেরিন হক শুক্রবার রাতে  জানান, মাগরিবের আজানের ঠিক আগে এসআই মোমেনের স্ত্রীর বড় ভাই রফিক মিয়া এসে তাদের বলেন, মোমেন তাকে ক্ষুদে বার্তায় জানিয়েছেন, তিনি আত্মহত্যা করবেন। দরজায় ধাক্কা দেয়ার পরও তিনি দরজা খোলেননি। এর পর রফিক তাদের কাছে চাবি চান। এরপর তিনি একটি চাবি দেন। চাবি দিয়ে চেষ্টা করেও দরজা খোলা যায়নি। কারণ দরজা ভেতর থেকে লাগানো ছিল। এরপর পল্লবী থানায় যোগাযোগ করলে পুলিশ এসে দরজা ভেঙে মোমেনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে। এসআই মোমেন দুই সন্তানের জনক। তার মেয়ে শেফার বয়স ১০ বছর ও ছেলে ইয়ামিনের সাড়ে তিন বছর। তার স্ত্রীর নাম শিমু আক্তার। গত জুলাইয়ে তিনি এ বাসা ভাড়া নেন।এসআই মোমেনের স্ত্রীর বড় ভাই রফিক  জানান, বৃহস্পতিবার রাত ৯টা ৫৫ মিনিটে তার মোবইলে একটি ক্ষুদে বার্তা পাঠায় মোমেন। বার্তায় লেখা ছিল- ‘শিমু খুব ভালো মেয়ে। ওকে আমি ভালোবাসতাম, ভালোবাসি। তুমি আমার ভাইয়ের মতো। তুমি ওকে দেখে রেখ। আর আমার ছেলেকে মাদ্রাসায় পড়াবে।’

Comments

Comments!

 পল্লবীতে পুলিশের এসআই’র ঝুলন্ত লাশAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

পল্লবীতে পুলিশের এসআই’র ঝুলন্ত লাশ

Saturday, November 12, 2016 9:09 am | আপডেটঃ November 12, 2016 10:32 AM
images
রাজধানীর পল্লবীতে নিজ বাসা থেকে এক এসআই’র ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার নাম মোমেন হাসনাইন রাব্বানী (৩৮)। তিনি পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগে (সিআইডি) কর্মরত ছিলেন। শুক্রবার রাত ৭টার দিকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়।
পল্লবী থানার ওসি দাদন ফকির যুগান্তরকে জানান, পল্লবীর সেকশন ১১/এ-এর ৮ নম্বর রোডের ৫ নম্বর বাড়ির চতুর্থ তলায় স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ভাড়া থাকতেন এসআই মোমেন। পারিবারিক কলহের জের ধরে তিন দিন আগে তার স্ত্রী দুই সন্তানকে নিয়ে গ্রামের বাড়িতে চলে যান। শুক্রবার মোমেন ক্ষুদে বার্তায় তার স্ত্রীর বড় ভাই রফিক মিয়াকে জানান, তিনি আত্মহত্যা করবেন। বার্তা পাওয়ার সঙ্গেই রফিক যশোর থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন। সন্ধ্যায় পল্লবীর ওই বাসায় পৌঁছে দেখেন দরজা ভেতর থেকে বন্ধ। এরপর রফিক মিয়া পল্লবী থানায় খবর দেন। এসআই সুলতান আলীর নেতৃত্বে পুলিশ দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় মোমেনের লাশ উদ্ধার করে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, তিনি আত্মহত্যা করেছেন। ময়নাতদন্তের জন্য রাতেই লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।ওই বাড়ির মালিক মাহমুদুল হকের স্ত্রী জেরিন হক শুক্রবার রাতে  জানান, মাগরিবের আজানের ঠিক আগে এসআই মোমেনের স্ত্রীর বড় ভাই রফিক মিয়া এসে তাদের বলেন, মোমেন তাকে ক্ষুদে বার্তায় জানিয়েছেন, তিনি আত্মহত্যা করবেন। দরজায় ধাক্কা দেয়ার পরও তিনি দরজা খোলেননি। এর পর রফিক তাদের কাছে চাবি চান। এরপর তিনি একটি চাবি দেন। চাবি দিয়ে চেষ্টা করেও দরজা খোলা যায়নি। কারণ দরজা ভেতর থেকে লাগানো ছিল। এরপর পল্লবী থানায় যোগাযোগ করলে পুলিশ এসে দরজা ভেঙে মোমেনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে। এসআই মোমেন দুই সন্তানের জনক। তার মেয়ে শেফার বয়স ১০ বছর ও ছেলে ইয়ামিনের সাড়ে তিন বছর। তার স্ত্রীর নাম শিমু আক্তার। গত জুলাইয়ে তিনি এ বাসা ভাড়া নেন।এসআই মোমেনের স্ত্রীর বড় ভাই রফিক  জানান, বৃহস্পতিবার রাত ৯টা ৫৫ মিনিটে তার মোবইলে একটি ক্ষুদে বার্তা পাঠায় মোমেন। বার্তায় লেখা ছিল- ‘শিমু খুব ভালো মেয়ে। ওকে আমি ভালোবাসতাম, ভালোবাসি। তুমি আমার ভাইয়ের মতো। তুমি ওকে দেখে রেখ। আর আমার ছেলেকে মাদ্রাসায় পড়াবে।’

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X