শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১:৪৯
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Wednesday, November 2, 2016 11:56 am
A- A A+ Print

পালংশাক জানাবে ল্যান্ডমাইনের উপস্থিতি

top_palonshak1477984942

শীতের সবজি হিসেবে পালংশাক আমাদের দেশে বেশ জনপ্রিয়। পালংশাক খেতে যেমন দারুণ তেমনি এর পুষ্টিগুণও অনেক। কিন্তু সম্প্রতি এই পালংশাকের অন্য আরেক গুণের কথাও জানা গেল। এটা এমন এক গুণ যা বিশ্বে চমক সৃষ্টি করেছে। তবে এর সঙ্গে বেশকিছু প্রযুক্তিগত ব্যাপারও যুক্ত হয়েছে। বিজ্ঞানীরা পালংশাকের সঙ্গে কিছু রাসায়নিক টিউব যা কার্বন ন্যানো টিউব নামে পরিচিত, যুক্ত করে একে ল্যান্ডমাইন বা মাটিতে পুঁতে রাখা বোমা শনাক্তকরণের উপযুক্ত করে তুলেছেন। ফলে যুদ্ধক্ষেত্রে বা অন্যান্য শত্রুতার কারণে কেউ যদি ল্যান্ডমাইন পুঁতে রাখে আর সেখানে যদি লাগানো থাকে এই ‘বায়োনিক’ পালংশাক তবে এই পালংশাক আপনার হাতে থাকা বিশেষ ডিভাইস কিংবা স্মার্টফোনে সিগন্যাল দেবে অমুক জায়গায় মাইন পোঁতা আছে। বিখ্যাত টেকনোলজি ইনস্টিটিউট ‘ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি’ যা বিশ্বজুড়ে এমআইটি নামে পরিচিত, তাদের গবেষকরা আবিষ্কার করেছেন এই অভুতপূর্ব প্রযুক্তি। গবেষকরা এর নাম দিয়েছেন প্লান্ট ন্যানোবায়োনিকস। কেননা একে বায়োনিক শাকই বলা চলে। এই শাকের পাতায় বিজ্ঞানীরা খুব ছোট ছোট কার্বন ন্যানো টিউব স্থাপন করেছেন, যা মাটির পানিতে থাকা বিশেষ একটি রাসায়নিককে শনাক্ত করতে পারে। আর এই রাসায়নিকই সাধারণত থাকে ল্যান্ডমাইনে বা অন্যান্য পুঁতে রাখা বোমায়। যা নাইট্রোঅ্যারোমেটিক নামে পরিচিত। অর্থাৎ মাটিতে পুঁতে রাখা বোমায় অবশ্যই নাইট্রোঅ্যারোমেটিক থাকে যা মাটির পানিতে মিশে থাকে। আর বায়োনিক পালংশাকে স্থাপন করা কার্বন ন্যানো টিউব এবং অন্যান্য প্রযুক্তি এই নাইট্রোঅ্যারোমেটিক শনাক্ত করতে পারে। ফলে এটা ইনফ্রারেডের সহায়তায় একটি সিগন্যাল পাঠাবে আপনার ডিভাইসে। যা আপনাকে অনেক বড় দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা করতে সক্ষম।
Inner_palonshak অনেক সময় আমরা দেখি কোনো কোনো কনসার্টে বা মাহফিলে অথবা রাজনৈতিক কোনো সমাবেশে এ ধরনের বোমার ব্যবহার। ডগ স্কোয়াড বা অন্যান্য বোমা ডিটেকশন যন্ত্র হয়তো সকল জায়গায় নেয়া সম্ভব হয় না। বিশেষ করে প্রত্যন্ত অঞ্চলে। সেসব অঞ্চলে যদি এ ধরনের বায়োনিক পালংশাক চাষ করা যায়, তবে ভালো ফল পাওয়া সম্ভব। তবে এই গবেষণার মূল বিষয় ছিল ন্যানো টিউবের ব্যবহার। আসলে এই ন্যানো টিউবের ব্যবহার সম্ভাবনার নতুন দ্বার খুলে দিচ্ছে। ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র এই ন্যানো টিউব এরপর থেকে অনেক সূক্ষ্ম কাজে ব্যবহার করা যাবে। কেননা একে প্রকৃতি এবং প্রযুক্তির এক যুগান্তকারী মেলবন্ধন হিসেবে দেখা হচ্ছে। প্রাকৃতিক পাতায় প্রযুক্তির ব্যবহার মানুষকে যদি এই ধরনের সুবিধা এনে দিতে পারে। তবে সামনে এর বিশাল ব্যবহার হয়তো আমাদের আরো বিস্ময় উপহার দেবে। সত্যি বলতে কি, ন্যানো টিউব একসময় আমাদের প্রযুক্তি সম্পর্কে ধারণাই বদলে দেবে। তা সেটা চিকিৎসা ক্ষেত্রেই হোক কিংবা অন্য কোনো ক্ষেত্রে। অনাগত ভবিষ্যতে এর অপার বিস্ময় দেখার জন্যে অপেক্ষায় থাকুন। মাইকেল স্ট্র্যানো, এই গবেষণার নেতা এবং এমআইটির রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক বলেন, এই প্রযুক্তি অনেক মহৎ কাজেও ব্যবহার করা যাবে। যেমন, গাছের বা পাতার শক্তি ব্যবহার করে আমরা আরো অনেক তথ্য পেতে পারি। এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে খরা। তাই সত্যি সত্যি মানুষ যদি আগে থেকে খরা বা বৃষ্টিহীনতার আভাস পায় তবে সে ব্যাপারে আগে থেকেই সচেতন হতে পারবে এবং তা নিবারণের ব্যবস্থাও নিতে পারবে।   এখন দেখা যাক, এই প্রযুক্তি আমাদের আর কি কি বিস্ময় উপহার দেয়।  

Comments

Comments!

 পালংশাক জানাবে ল্যান্ডমাইনের উপস্থিতিAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

পালংশাক জানাবে ল্যান্ডমাইনের উপস্থিতি

Wednesday, November 2, 2016 11:56 am
top_palonshak1477984942

শীতের সবজি হিসেবে পালংশাক আমাদের দেশে বেশ জনপ্রিয়। পালংশাক খেতে যেমন দারুণ তেমনি এর পুষ্টিগুণও অনেক। কিন্তু সম্প্রতি এই পালংশাকের অন্য আরেক গুণের কথাও জানা গেল।

এটা এমন এক গুণ যা বিশ্বে চমক সৃষ্টি করেছে। তবে এর সঙ্গে বেশকিছু প্রযুক্তিগত ব্যাপারও যুক্ত হয়েছে। বিজ্ঞানীরা পালংশাকের সঙ্গে কিছু রাসায়নিক টিউব যা কার্বন ন্যানো টিউব নামে পরিচিত, যুক্ত করে একে ল্যান্ডমাইন বা মাটিতে পুঁতে রাখা বোমা শনাক্তকরণের উপযুক্ত করে তুলেছেন। ফলে যুদ্ধক্ষেত্রে বা অন্যান্য শত্রুতার কারণে কেউ যদি ল্যান্ডমাইন পুঁতে রাখে আর সেখানে যদি লাগানো থাকে এই ‘বায়োনিক’ পালংশাক তবে এই পালংশাক আপনার হাতে থাকা বিশেষ ডিভাইস কিংবা স্মার্টফোনে সিগন্যাল দেবে অমুক জায়গায় মাইন পোঁতা আছে।

বিখ্যাত টেকনোলজি ইনস্টিটিউট ‘ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি’ যা বিশ্বজুড়ে এমআইটি নামে পরিচিত, তাদের গবেষকরা আবিষ্কার করেছেন এই অভুতপূর্ব প্রযুক্তি। গবেষকরা এর নাম দিয়েছেন প্লান্ট ন্যানোবায়োনিকস। কেননা একে বায়োনিক শাকই বলা চলে।

এই শাকের পাতায় বিজ্ঞানীরা খুব ছোট ছোট কার্বন ন্যানো টিউব স্থাপন করেছেন, যা মাটির পানিতে থাকা বিশেষ একটি রাসায়নিককে শনাক্ত করতে পারে। আর এই রাসায়নিকই সাধারণত থাকে ল্যান্ডমাইনে বা অন্যান্য পুঁতে রাখা বোমায়। যা নাইট্রোঅ্যারোমেটিক নামে পরিচিত। অর্থাৎ মাটিতে পুঁতে রাখা বোমায় অবশ্যই নাইট্রোঅ্যারোমেটিক থাকে যা মাটির পানিতে মিশে থাকে।

আর বায়োনিক পালংশাকে স্থাপন করা কার্বন ন্যানো টিউব এবং অন্যান্য প্রযুক্তি এই নাইট্রোঅ্যারোমেটিক শনাক্ত করতে পারে। ফলে এটা ইনফ্রারেডের সহায়তায় একটি সিগন্যাল পাঠাবে আপনার ডিভাইসে। যা আপনাকে অনেক বড় দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা করতে সক্ষম।

Inner_palonshak
অনেক সময় আমরা দেখি কোনো কোনো কনসার্টে বা মাহফিলে অথবা রাজনৈতিক কোনো সমাবেশে এ ধরনের বোমার ব্যবহার। ডগ স্কোয়াড বা অন্যান্য বোমা ডিটেকশন যন্ত্র হয়তো সকল জায়গায় নেয়া সম্ভব হয় না। বিশেষ করে প্রত্যন্ত অঞ্চলে। সেসব অঞ্চলে যদি এ ধরনের বায়োনিক পালংশাক চাষ করা যায়, তবে ভালো ফল পাওয়া সম্ভব।

তবে এই গবেষণার মূল বিষয় ছিল ন্যানো টিউবের ব্যবহার। আসলে এই ন্যানো টিউবের ব্যবহার সম্ভাবনার নতুন দ্বার খুলে দিচ্ছে। ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র এই ন্যানো টিউব এরপর থেকে অনেক সূক্ষ্ম কাজে ব্যবহার করা যাবে। কেননা একে প্রকৃতি এবং প্রযুক্তির এক যুগান্তকারী মেলবন্ধন হিসেবে দেখা হচ্ছে।

প্রাকৃতিক পাতায় প্রযুক্তির ব্যবহার মানুষকে যদি এই ধরনের সুবিধা এনে দিতে পারে। তবে সামনে এর বিশাল ব্যবহার হয়তো আমাদের আরো বিস্ময় উপহার দেবে। সত্যি বলতে কি, ন্যানো টিউব একসময় আমাদের প্রযুক্তি সম্পর্কে ধারণাই বদলে দেবে। তা সেটা চিকিৎসা ক্ষেত্রেই হোক কিংবা অন্য কোনো ক্ষেত্রে। অনাগত ভবিষ্যতে এর অপার বিস্ময় দেখার জন্যে অপেক্ষায় থাকুন।

মাইকেল স্ট্র্যানো, এই গবেষণার নেতা এবং এমআইটির রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক বলেন, এই প্রযুক্তি অনেক মহৎ কাজেও ব্যবহার করা যাবে। যেমন, গাছের বা পাতার শক্তি ব্যবহার করে আমরা আরো অনেক তথ্য পেতে পারি। এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে খরা। তাই সত্যি সত্যি মানুষ যদি আগে থেকে খরা বা বৃষ্টিহীনতার আভাস পায় তবে সে ব্যাপারে আগে থেকেই সচেতন হতে পারবে এবং তা নিবারণের ব্যবস্থাও নিতে পারবে।

 

এখন দেখা যাক, এই প্রযুক্তি আমাদের আর কি কি বিস্ময় উপহার দেয়।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X