মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৩:২৮
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, September 27, 2016 7:20 am | আপডেটঃ September 27, 2016 8:54 AM
A- A A+ Print

পাস্পরিক দোষারোপের মধ্য দিয়ে শেষ হলো হিলারি-ট্রাম্প প্রথম টেলিভিশন বিতর্ক

tramp1474944267-1

এনবিসি টেলিভিশনের উপস্থাপক লেস্টার হল্টের সঞ্চালনায় বাংলাদেশ সময় ৭ টায় প্রথমবারের মত সরাসরি টেলিভিশন বিতর্কে মুখোমুখি হয়েছেন মার্কিন নির্বাচনের দুই প্রধান প্রতিদ্বন্ধী হিলারি ক্লিনটন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প। দেড় ঘন্টাব্যাপি এই বিতর্ক প্রায় ১০ কোটি আমেরিকান দর্শক দেখছেন। নিউইয়র্কের হাফট্রা বিশ্ববিদ্যালয়ে দেড় ঘন্টার জন্য ক্লিনটন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প মুখোমুখি হয়েছেন। টেলিভিশনের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি দেখা বিতর্ক এর আগে ৮ কোটি দর্শক দেখেছিল একটি বিতর্ক। কিভাবে মার্কিনীদের পকেটে টাকা আসবে ও কর্মক্ষেত্র তৈরি করা হবে এই প্রশ্ন দিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। দুইজনই দুই মিনিটের মধ্যে উত্তর দেন। হিলারি তার নাতনির জন্ম দিনের কথা উল্লেখ করে লিঙ্গ বৈষম্যের ব্যবধান কমানো ও পরিবার ত্যাগের জন্য অর্থ দেওয়ার কথা জানান। অন্যদিকে ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ ও ব্যবসায় চুরির জন্য চীন ও মেক্সিকোকে দায়ী করেছেন। আমরা মধ্যবিত্তের জন্য যত কিছু করতে পারবো তত যুক্তরাষ্ট্রের জন্য মঙ্গলজনক বলে জানান হিলারি। ব্যবসায়ীদের ওপর ট্যাক্স চাপানো উচিত হচ্ছে না ট্রাম্পের এমন মন্তব্যের পর হিলারি বলেন, আপনি কত টাকা ট্যাক্স প্রদান করেছেন? এখনও কেউ জানে না আপনার ট্যাক্স হিসেব। দ্রুত ট্যাক্স হিসেব প্রদান করুন। কারণ আপনার আগের সকল প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী সবার আগে এই কাজটি করেছে। উত্তরে ট্রাম্প বলেন, হিলারি যত দ্রুত তার ইমেল প্রকাশ করবে, আমিও তত দ্রুত ট্যাক্সের হিসেব প্রকাশ করব। অর্থনৈতিক পরিকল্পনা বিষয়ক বিতর্কে হিলারি বলেন, নতুন চাকরীর সুযোগ সৃষ্টি করব আমরা, নতুন কাজ শুরু করব। বড় কোম্পানিগুলো তাদের লভ্যাংশ ভাগ করে নেব। শুধু উচ্চ পর্যায়ের এক্সিকিউটিভদের সঙ্গে নয়। বরং সবার সঙ্গে। ট্রাম্প বলেন, আমাদের চাকরির সুযোগ বিদেশিরা চুরি করছে। সেই সঙ্গে বিদেশিদের কাছ থেকে আমাদের কোম্পানিগুলোকে রক্ষা করতে হবে। বিদেশি কোম্পানিগুলো ও আমাদের ট্যাক্স ব্যবস্থা এক হতে পারে না। হিলারি বলেন, আমরা ট্রাম্পের অর্থনীতির এই মতবাদকে ‘ট্রাম্পড আপ ট্রিকেল ডাউন’ নাম দিয়েছি। কারণ এভাবে অর্থনৈতিক অবস্থার উন্নতি করা খুব একটা সম্ভব হবে না বলে মনে হয়। তার পরিবর্তে আমরা যদি মধ্য আয়ের মানুষগুলোকে নিয়ে ভাবি। আমরা যদি তাদের জন্য নতুন নতুন চাকরীর সুযোগ তৈরি করতে পারি, তাহলে সেটি হবে কার্যকর ব্যবস্থা। ট্রাম্প তার উত্তরে বলেন, না, শুধু চাকরীর সুযোগ সৃষ্টি করলেই হবে না। সেই সুযোগগুলো রক্ষা করতে হবে। সেই সঙ্গে আমাদের দেশের ব্যবসাগুলোকে চীনের ব্যবসা থেকে রক্ষা করতে হবে। যা গত ৮ বছর ধরে করা সম্ভব হচ্ছে না। হিলারি এর উত্তরে বলেন, বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দার মধ্যে সেটি করা সম্ভব হয়নি। ট্রাম্প জানান, এটি গত ৩০ বছরে সম্ভব হবে না। এখনও হিলারির পলিসিতে সম্ভব হবে না। ট্রাম্প বাস্তবতার মুখোমুখি না হয়ে আলোচনা করছে বলে অভিযোগ করেন হিলারি। এর উত্তরে ট্রাম্প জানতে চান, অর্থনৈতিক এমন সমস্যার জন্য কি ওবামা সরকার দায়ী? সূত্র: সিএনএন ও এবিসি নিউজ

Comments

Comments!

 পাস্পরিক দোষারোপের মধ্য দিয়ে শেষ হলো হিলারি-ট্রাম্প প্রথম টেলিভিশন বিতর্কAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

পাস্পরিক দোষারোপের মধ্য দিয়ে শেষ হলো হিলারি-ট্রাম্প প্রথম টেলিভিশন বিতর্ক

Tuesday, September 27, 2016 7:20 am | আপডেটঃ September 27, 2016 8:54 AM
tramp1474944267-1

এনবিসি টেলিভিশনের উপস্থাপক লেস্টার হল্টের সঞ্চালনায় বাংলাদেশ সময় ৭ টায় প্রথমবারের মত সরাসরি টেলিভিশন বিতর্কে মুখোমুখি হয়েছেন মার্কিন নির্বাচনের দুই প্রধান প্রতিদ্বন্ধী হিলারি ক্লিনটন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প। দেড় ঘন্টাব্যাপি এই বিতর্ক প্রায় ১০ কোটি আমেরিকান দর্শক দেখছেন।

নিউইয়র্কের হাফট্রা বিশ্ববিদ্যালয়ে দেড় ঘন্টার জন্য ক্লিনটন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প মুখোমুখি হয়েছেন। টেলিভিশনের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি দেখা বিতর্ক এর আগে ৮ কোটি দর্শক দেখেছিল একটি বিতর্ক।

কিভাবে মার্কিনীদের পকেটে টাকা আসবে ও কর্মক্ষেত্র তৈরি করা হবে এই প্রশ্ন দিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। দুইজনই দুই মিনিটের মধ্যে উত্তর দেন। হিলারি তার নাতনির জন্ম দিনের কথা উল্লেখ করে লিঙ্গ বৈষম্যের ব্যবধান কমানো ও পরিবার ত্যাগের জন্য অর্থ দেওয়ার কথা জানান।

অন্যদিকে ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ ও ব্যবসায় চুরির জন্য চীন ও মেক্সিকোকে দায়ী করেছেন। আমরা মধ্যবিত্তের জন্য যত কিছু করতে পারবো তত যুক্তরাষ্ট্রের জন্য মঙ্গলজনক বলে জানান হিলারি।

ব্যবসায়ীদের ওপর ট্যাক্স চাপানো উচিত হচ্ছে না ট্রাম্পের এমন মন্তব্যের পর হিলারি বলেন, আপনি কত টাকা ট্যাক্স প্রদান করেছেন? এখনও কেউ জানে না আপনার ট্যাক্স হিসেব। দ্রুত ট্যাক্স হিসেব প্রদান করুন। কারণ আপনার আগের সকল প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী সবার আগে এই কাজটি করেছে। উত্তরে ট্রাম্প বলেন, হিলারি যত দ্রুত তার ইমেল প্রকাশ করবে, আমিও তত দ্রুত ট্যাক্সের হিসেব প্রকাশ করব।

অর্থনৈতিক পরিকল্পনা বিষয়ক বিতর্কে হিলারি বলেন, নতুন চাকরীর সুযোগ সৃষ্টি করব আমরা, নতুন কাজ শুরু করব। বড় কোম্পানিগুলো তাদের লভ্যাংশ ভাগ করে নেব। শুধু উচ্চ পর্যায়ের এক্সিকিউটিভদের সঙ্গে নয়। বরং সবার সঙ্গে।

ট্রাম্প বলেন, আমাদের চাকরির সুযোগ বিদেশিরা চুরি করছে। সেই সঙ্গে বিদেশিদের কাছ থেকে আমাদের কোম্পানিগুলোকে রক্ষা করতে হবে। বিদেশি কোম্পানিগুলো ও আমাদের ট্যাক্স ব্যবস্থা এক হতে পারে না।

হিলারি বলেন, আমরা ট্রাম্পের অর্থনীতির এই মতবাদকে ‘ট্রাম্পড আপ ট্রিকেল ডাউন’ নাম দিয়েছি। কারণ এভাবে অর্থনৈতিক অবস্থার উন্নতি করা খুব একটা সম্ভব হবে না বলে মনে হয়। তার পরিবর্তে আমরা যদি মধ্য আয়ের মানুষগুলোকে নিয়ে ভাবি। আমরা যদি তাদের জন্য নতুন নতুন চাকরীর সুযোগ তৈরি করতে পারি, তাহলে সেটি হবে কার্যকর ব্যবস্থা।

ট্রাম্প তার উত্তরে বলেন, না, শুধু চাকরীর সুযোগ সৃষ্টি করলেই হবে না। সেই সুযোগগুলো রক্ষা করতে হবে। সেই সঙ্গে আমাদের দেশের ব্যবসাগুলোকে চীনের ব্যবসা থেকে রক্ষা করতে হবে। যা গত ৮ বছর ধরে করা সম্ভব হচ্ছে না। হিলারি এর উত্তরে বলেন, বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দার মধ্যে সেটি করা সম্ভব হয়নি।

ট্রাম্প জানান, এটি গত ৩০ বছরে সম্ভব হবে না। এখনও হিলারির পলিসিতে সম্ভব হবে না। ট্রাম্প বাস্তবতার মুখোমুখি না হয়ে আলোচনা করছে বলে অভিযোগ করেন হিলারি। এর উত্তরে ট্রাম্প জানতে চান, অর্থনৈতিক এমন সমস্যার জন্য কি ওবামা সরকার দায়ী?

সূত্র: সিএনএন ও এবিসি নিউজ

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X