মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১২:০৬
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, December 1, 2016 7:46 am
A- A A+ Print

পাহাড়ে শান্তি চাইলে অবৈধ অস্ত্র ছাড়ুন: ওবায়দুল কাদের

14

রাঙামাটি: পাহাড়ে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হলে অবৈধ অস্ত্র থেকে বেরিয়ে আসতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক যোগাযোগ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়নের জন্য কোনো আন্দোলনের প্রয়োজন নেই। বর্তমান সরকার এ চুক্তি অক্ষরে অক্ষরে বাস্তবায়ন করবে। বুধবার সকালে রাঙামাটি পৌসভা চত্বরে রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত এক গণসংবর্ধনায় তিনি এ মন্তব্য করেন।
মন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার পার্বত্য চুক্তি করেছে, আওয়ামী লীগেরই দায়িত্ব চুক্তি বাস্তবায়ন করা। তিনি চুক্তি স্বাক্ষরকারী পাহাড়িদের আঞ্চলিক দলের প্রতি ইঙ্গিত করে বলেন, আপনারা অস্ত্র জমা দিয়েছেন বলে পাহাড়ের মানুষ শান্তিতে ঘুমোতে পারছে। কিন্তু সময়ে সময়ে পাহাড় অশান্ত হয়ে উঠে, তা হয় একমাত্র অবৈধ অস্ত্রের কারণে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের উপর পাহাড়ি বাঙ্গালী সকলকে আস্থা ও বিশ্বাস রাখতে হবে। এ সরকার পাহাড়ের মানুষের বিশ্বাসের মর্যাদা রাখবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাহাড়ের মানুষের পরম বন্ধু উল্লেখ করে তিনি বলেন, শেখ হাসিনা আপনাদের ভালোবাসেন বলে গত ১৯ বছরে পার্বত্য চট্টগ্রামে ব্যাপক উন্নয়নের মাধ্যমে চিত্র পাল্টে দিয়েছেন। উন্নয়ন ও শান্তি পেতে হলে পাহাড়ের মানুষকে শেখ হাসিনার সাথে থাকার আহবান জানান ওবায়দুল কাদের। চুক্তিতে স্বাক্ষরকারী সন্তু লারমার দৃষ্টি আকর্ষন করে মন্ত্রী বলেন, সমস্যা থাকলে আলোচনা করতে হবে। তবে ষড়যন্ত্রকারী ও উস্কানিদাতাদের পশ্রয় দেয়া যাবে না। বিএনপির আন্দোলন সম্পর্কে মন্তব্য করে তিনি বলেন, বিএনপির আন্দোলনে আর জোয়ার আসবে না। বিএনপি এখন নালিশ পার্টিতে পরিণত হয়েছে। রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দীপংকর তালুকদারের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, মহিলা সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনির সম্পাদক এনামুল হক শামীম। রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. মুছা মাতব্বর অনুষ্ঠানে সঞ্চালনা করেন। অনুষ্ঠানে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা, পার্বত্য জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাজী মো. কামাল উদ্দিন, রাঙামাটি পৌর সভার মেয়র মো. আকবর হোসেন চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Comments

Comments!

 পাহাড়ে শান্তি চাইলে অবৈধ অস্ত্র ছাড়ুন: ওবায়দুল কাদেরAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

পাহাড়ে শান্তি চাইলে অবৈধ অস্ত্র ছাড়ুন: ওবায়দুল কাদের

Thursday, December 1, 2016 7:46 am
14

রাঙামাটি: পাহাড়ে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হলে অবৈধ অস্ত্র থেকে বেরিয়ে আসতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক যোগাযোগ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়নের জন্য কোনো আন্দোলনের প্রয়োজন নেই। বর্তমান সরকার এ চুক্তি অক্ষরে অক্ষরে বাস্তবায়ন করবে।

বুধবার সকালে রাঙামাটি পৌসভা চত্বরে রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত এক গণসংবর্ধনায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

মন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার পার্বত্য চুক্তি করেছে, আওয়ামী লীগেরই দায়িত্ব চুক্তি বাস্তবায়ন করা।

তিনি চুক্তি স্বাক্ষরকারী পাহাড়িদের আঞ্চলিক দলের প্রতি ইঙ্গিত করে বলেন, আপনারা অস্ত্র জমা দিয়েছেন বলে পাহাড়ের মানুষ শান্তিতে ঘুমোতে পারছে। কিন্তু সময়ে সময়ে পাহাড় অশান্ত হয়ে উঠে, তা হয় একমাত্র অবৈধ অস্ত্রের কারণে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের উপর পাহাড়ি বাঙ্গালী সকলকে আস্থা ও বিশ্বাস রাখতে হবে। এ সরকার পাহাড়ের মানুষের বিশ্বাসের মর্যাদা রাখবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাহাড়ের মানুষের পরম বন্ধু উল্লেখ করে তিনি বলেন, শেখ হাসিনা আপনাদের ভালোবাসেন বলে গত ১৯ বছরে পার্বত্য চট্টগ্রামে ব্যাপক উন্নয়নের মাধ্যমে চিত্র পাল্টে দিয়েছেন। উন্নয়ন ও শান্তি পেতে হলে পাহাড়ের মানুষকে শেখ হাসিনার সাথে থাকার আহবান জানান ওবায়দুল কাদের।

চুক্তিতে স্বাক্ষরকারী সন্তু লারমার দৃষ্টি আকর্ষন করে মন্ত্রী বলেন, সমস্যা থাকলে আলোচনা করতে হবে। তবে ষড়যন্ত্রকারী ও উস্কানিদাতাদের পশ্রয় দেয়া যাবে না।

বিএনপির আন্দোলন সম্পর্কে মন্তব্য করে তিনি বলেন, বিএনপির আন্দোলনে আর জোয়ার আসবে না। বিএনপি এখন নালিশ পার্টিতে পরিণত হয়েছে।

রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দীপংকর তালুকদারের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, মহিলা সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনির সম্পাদক এনামুল হক শামীম।

রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. মুছা মাতব্বর অনুষ্ঠানে সঞ্চালনা করেন।

অনুষ্ঠানে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা, পার্বত্য জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাজী মো. কামাল উদ্দিন, রাঙামাটি পৌর সভার মেয়র মো. আকবর হোসেন চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X