শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ১০:১৩
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, January 15, 2017 8:49 pm
A- A A+ Print

পুঁতে রাখা গণধর্ষিত শিশুর সন্ধান দিল বিড়াল!

৪৪

নয়াদিল্লি: সন্ধ্যায় নিজ বাড়ির সামনেই খেলছিল চার বছরের ছোট্ট মেয়েটি। আর এই ছোট্ট শিশুটির ওপর নজর পড়ল এলাকার এক পরিচিত ব্যক্তির। বিকৃত কামনা চেপে বসেছিল ঘাতকের মাথায়। চকোলেটের লোভ দেখিয়ে শিশুটিকে বাড়ির অদূরে একটি জঙ্গলে নিয়ে যায় ওই দুর্বৃত্ত। তার বিকৃত চিন্তা এখানেই থেমে থাকেনি; সে আরো তিনজনকে সঙ্গী করেছিল। এরপর শুরু পৈশাচিকতা। সঙ্গীদের নিয়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করে ওই পরিচিত। ভয়াবহ অত্যাচারের পর তাদেরই কেউ একজন ভারী কিছু দিয়ে শিশুর মাথা থেঁতলে দেয়। সঙ্গে সঙ্গে মারা যায় শিশুটি। প্রমাণ লুকাতে সামনের জঙ্গলেই তার দেহ পুঁতে দেয় ঘাতকরা। গত ৯ জানুয়ারি থেকে নিখোঁজ ছিল মুম্বাইয়ের আন্ধেরির আজাদনগর এলাকার শিশুটি। সারারাত আশপাশে খোঁজাখুঁজি করেও তার দেখা মেলেনি। পরদিনই পুলিশে অভিযোগ দায়ের করে তার পরিবার। পেশায় টেম্পোচালক শিশুর বাবা বলেন, ‘সেদিন সন্ধ্যার সময় বাড়ির বাইরেই খেলছিল আমার মেয়ে। এরপর আর তাকে দেখতে পাইনি।’ নিখোঁজ শিশুটির পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে এলাকায় তল্লাশি শুরু করে পুলিশ। আজাদনগর থানার এক শীর্ষ কর্মকর্তা মহেশ পাতিল বলেন, ‘গত ১২ জানুয়ারি সন্ধ্যায় খবর পাই- সামনের জঙ্গলে মানুষের পায়ের অংশ চিবিয়ে খাচ্ছে একটি বিড়াল। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, ওটা একটি শিশুর দেহ। এরপর সেই মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।’ শিশুটিকে গণধর্ষণের পর এলাকা থেকে পালিয়ে যান অভিযুক্ত চার ব্যক্তি। রোববার অভিযুক্ত তিনজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। একজন এখনো পলাতক রয়েছে। পুলিশি তদন্তে উঠে আসে অনেক চাঞ্চল্যকর তথ্য। ঘটনার পর এলাকারই একটি রেস্তোরাঁয় নিশ্চিন্তে মাছ-ভাত দিয়ে রাতের খাওয়া সারে পেশায় দিনমজুর ওই চার ঘাতক।
 

Comments

Comments!

 পুঁতে রাখা গণধর্ষিত শিশুর সন্ধান দিল বিড়াল!AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

পুঁতে রাখা গণধর্ষিত শিশুর সন্ধান দিল বিড়াল!

Sunday, January 15, 2017 8:49 pm
৪৪

নয়াদিল্লি: সন্ধ্যায় নিজ বাড়ির সামনেই খেলছিল চার বছরের ছোট্ট মেয়েটি। আর এই ছোট্ট শিশুটির ওপর নজর পড়ল এলাকার এক পরিচিত ব্যক্তির। বিকৃত কামনা চেপে বসেছিল ঘাতকের মাথায়।

চকোলেটের লোভ দেখিয়ে শিশুটিকে বাড়ির অদূরে একটি জঙ্গলে নিয়ে যায় ওই দুর্বৃত্ত। তার বিকৃত চিন্তা এখানেই থেমে থাকেনি; সে আরো তিনজনকে সঙ্গী করেছিল।

এরপর শুরু পৈশাচিকতা। সঙ্গীদের নিয়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করে ওই পরিচিত। ভয়াবহ অত্যাচারের পর তাদেরই কেউ একজন ভারী কিছু দিয়ে শিশুর মাথা থেঁতলে দেয়। সঙ্গে সঙ্গে মারা যায় শিশুটি। প্রমাণ লুকাতে সামনের জঙ্গলেই তার দেহ পুঁতে দেয় ঘাতকরা।

গত ৯ জানুয়ারি থেকে নিখোঁজ ছিল মুম্বাইয়ের আন্ধেরির আজাদনগর এলাকার শিশুটি। সারারাত আশপাশে খোঁজাখুঁজি করেও তার দেখা মেলেনি। পরদিনই পুলিশে অভিযোগ দায়ের করে তার পরিবার।

পেশায় টেম্পোচালক শিশুর বাবা বলেন, ‘সেদিন সন্ধ্যার সময় বাড়ির বাইরেই খেলছিল আমার মেয়ে। এরপর আর তাকে দেখতে পাইনি।’

নিখোঁজ শিশুটির পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে এলাকায় তল্লাশি শুরু করে পুলিশ।

আজাদনগর থানার এক শীর্ষ কর্মকর্তা মহেশ পাতিল বলেন, ‘গত ১২ জানুয়ারি সন্ধ্যায় খবর পাই- সামনের জঙ্গলে মানুষের পায়ের অংশ চিবিয়ে খাচ্ছে একটি বিড়াল। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, ওটা একটি শিশুর দেহ। এরপর সেই মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।’

শিশুটিকে গণধর্ষণের পর এলাকা থেকে পালিয়ে যান অভিযুক্ত চার ব্যক্তি। রোববার অভিযুক্ত তিনজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। একজন এখনো পলাতক রয়েছে।

পুলিশি তদন্তে উঠে আসে অনেক চাঞ্চল্যকর তথ্য। ঘটনার পর এলাকারই একটি রেস্তোরাঁয় নিশ্চিন্তে মাছ-ভাত দিয়ে রাতের খাওয়া সারে পেশায় দিনমজুর ওই চার ঘাতক।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X