সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১:৫৮
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, May 14, 2017 10:37 pm | আপডেটঃ May 14, 2017 10:39 PM
A- A A+ Print

পুকুরে বিদ্যুতায়িত ২ শিশু, বাঁচাতে গিয়ে মা-ছেলেরও মৃত্যু

bhola_pic-004__14.5.17_47138_1494771762

ভোলার দৌলতখান উপজেলায় পুকুরে গোসল করতে গিয়ে বিদ্যুতায়িত হয়ে মা ও ছেলেসহ চারজন নিহত হয়েছে। আজ রোববার বিকেল ৪টায় দৌলতখান উপজেলার উত্তর জয়নগর গ্রামের মুন্সি ব্যাপারী বাড়ির একটি পুকুরে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয় লোকজন জানায়, বিকেলে গ্রামের শাজাহানের ছেলে কোরআনে হাফেজ রহমত উল্ল্যাহ (১১) এবং আরেকজনের মেয়ে সুইটি (১৩) মুন্সি ব্যাপারী বাড়ির ওই পুকুরে গোসল করতে নামলে তারা বিদ্যুতায়িত হয়। এ সময় তাদের চিৎকার শুনে বাঁচাতে গিয়ে সুফিয়া বেগম (৩৫) ও তাঁর ছেলে ফয়েজ (১৫) বিদ্যুতায়িত হয়ে মারা যান। এ ঘটনার পর স্থানীয় লোকজন তাদের দ্রুত উদ্ধার করে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় নিহতদের গ্রামে শোকের ছায়া নেমে আসে। নিহত ফয়েজের ভাবি নাজমা বেগম অভিযোগ করেন, ওই পুকুরে পল্লী বিদ্যুতের তার ছিড়ে পড়লেও তা কেউ খেয়াল করেনি। এ অবস্থায় দুই শিশু গোসল করতে নামলে বিদ্যুতায়িত হয়। তাদের উদ্ধার করতে গিয়ে মারা যান দুজন। নিহত রহমত উল্ল্যাহর চাচাতো ভাই মো. খোকন জানান, এত বড় ঘটনার পরও পল্লী বিদ্যুতের কেউ দেখতে আসেনি। তারা খোঁজ-খবর পর্যন্ত নেয়নি। এদিকে স্ত্রী ও সন্তান হারিয়ে বাকরুদ্ধ সুফিয়া বেগমের স্বামী আবদুল মালেক। তাঁর চোখে শুধুই অন্ধকার। তাঁর স্ত্রী ও ছেলে অপর দুজনকে বাঁচাতে পুকুরে নেমেছিল। এদিকে এ ঘটনার পর দৌলতখান উপজেলার উত্তর জয়নগর গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, সেখানকার মানুষের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। একই সঙ্গে চরম ক্ষোভ দেখা যায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লোকজনের ওপর। দৌলতখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এনায়েত হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশগুলোর মধ্যে তিনটি ভোলা সদর হাসপাতালে এবং একটি বাড়িতে রয়েছে। আইনি ব্যবস্থা শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে।

Comments

Comments!

 পুকুরে বিদ্যুতায়িত ২ শিশু, বাঁচাতে গিয়ে মা-ছেলেরও মৃত্যুAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

পুকুরে বিদ্যুতায়িত ২ শিশু, বাঁচাতে গিয়ে মা-ছেলেরও মৃত্যু

Sunday, May 14, 2017 10:37 pm | আপডেটঃ May 14, 2017 10:39 PM
bhola_pic-004__14.5.17_47138_1494771762

ভোলার দৌলতখান উপজেলায় পুকুরে গোসল করতে গিয়ে বিদ্যুতায়িত হয়ে মা ও ছেলেসহ চারজন নিহত হয়েছে।

আজ রোববার বিকেল ৪টায় দৌলতখান উপজেলার উত্তর জয়নগর গ্রামের মুন্সি ব্যাপারী বাড়ির একটি পুকুরে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় লোকজন জানায়, বিকেলে গ্রামের শাজাহানের ছেলে কোরআনে হাফেজ রহমত উল্ল্যাহ (১১) এবং আরেকজনের মেয়ে সুইটি (১৩) মুন্সি ব্যাপারী বাড়ির ওই পুকুরে গোসল করতে নামলে তারা বিদ্যুতায়িত হয়। এ সময় তাদের চিৎকার শুনে বাঁচাতে গিয়ে সুফিয়া বেগম (৩৫) ও তাঁর ছেলে ফয়েজ (১৫) বিদ্যুতায়িত হয়ে মারা যান। এ ঘটনার পর স্থানীয় লোকজন তাদের দ্রুত উদ্ধার করে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় নিহতদের গ্রামে শোকের ছায়া নেমে আসে।

নিহত ফয়েজের ভাবি নাজমা বেগম অভিযোগ করেন, ওই পুকুরে পল্লী বিদ্যুতের তার ছিড়ে পড়লেও তা কেউ খেয়াল করেনি। এ অবস্থায় দুই শিশু গোসল করতে নামলে বিদ্যুতায়িত হয়। তাদের উদ্ধার করতে গিয়ে মারা যান দুজন।

নিহত রহমত উল্ল্যাহর চাচাতো ভাই মো. খোকন জানান, এত বড় ঘটনার পরও পল্লী বিদ্যুতের কেউ দেখতে আসেনি। তারা খোঁজ-খবর পর্যন্ত নেয়নি।

এদিকে স্ত্রী ও সন্তান হারিয়ে বাকরুদ্ধ সুফিয়া বেগমের স্বামী আবদুল মালেক। তাঁর চোখে শুধুই অন্ধকার। তাঁর স্ত্রী ও ছেলে অপর দুজনকে বাঁচাতে পুকুরে নেমেছিল।

এদিকে এ ঘটনার পর দৌলতখান উপজেলার উত্তর জয়নগর গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, সেখানকার মানুষের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। একই সঙ্গে চরম ক্ষোভ দেখা যায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লোকজনের ওপর।

দৌলতখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এনায়েত হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশগুলোর মধ্যে তিনটি ভোলা সদর হাসপাতালে এবং একটি বাড়িতে রয়েছে। আইনি ব্যবস্থা শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X