রবিবার, ১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৬ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৯:১৬
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, September 4, 2017 11:04 pm
A- A A+ Print

প্রথম দিনের খেলা শেষে টাইগারদের সংগ্রহ ২৫৩/৬

181021_1

প্রথম দিনটা পুরোপুরি নিজেদের করে নেওয়ার সুযোগ ছিল বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া দুই দলের সামনেই। কিন্তু দিন শেষে কোন দল এগিয়ে, সেটি সোজাসাপটা বলে দেওয়া যাচ্ছে না। নাথান লায়নের আরও একটি ৫ উইকেট-কীর্তিতে অস্ট্রেলিয়া তুলে নিয়েছে বাংলাদেশের ৬ উইকেট। বাংলাদেশও মুশফিকুর রহিম আর সাব্বির রহমানের ব্যাটে তুলেছে ২৫৩ রান। অস্ট্রেলিয়া যদি আর একটি উইকেট নিত অথবা সাব্বিরের উইকেটটি যদি অক্ষত থাকত, তাহলে অন্য কিছু হলেও হতে পারত। আপাতত বলা যেতে পারে চট্টগ্রাম টেস্টে দুই দলের অবস্থানই সমান। কাল দ্বিতীয় দিনের সকাল তাই খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই জায়গা থেকে ঘটে যেতে পারে অনেক কিছু। বাংলাদেশ নিজেদের সংগ্রহটাকে আরও বাড়িয়ে নিতে পারে, অস্ট্রেলিয়াও বাংলাদেশকে গুটিয়ে দিতে পারে দ্রুতই। বাংলাদেশকে ম্যাচে ফিরিয়েছেন সাব্বির ও মুশফিক। ছবি: শামসুল হকআপাতত মুশফিক-সাব্বিরের ওই জুটিটাকে ধন্যবাদ দিয়ে দেওয়া যাক। ১১৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের সামনে যখন দ্রুত গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কা, ঠিক তখনই দাঁড়িয়ে যান মুশফিক-সাব্বির। এ জুটি স্কোরবোর্ডে যোগ করেন ১০৫ রান। সাব্বির তাঁর স্বভাবসুলভ ব্যাটিং করেছেন। কিন্তু সেটা হিসাব কষে। মুশফিক তো ছিলেন বরাবরই ধীর-স্থির। সাব্বির ৬৬ রান করে লায়নের বলে শরীরের ভারসাম্য হারিয়ে স্টাম্পিংয়ের শিকার না হলে বাংলাদেশের সংগ্রহটা আরও বাড়তে পারত। মুশফিক অবশ্য ১৪৯ বল খেলে ৬২ রান করে দিনটা পার করেই এসেছেন। সাব্বিরের বিদায়ের পর নাসির হোসেনের অপরাজিত ১৯ রানে (৩৩ বলে) বাংলাদেশ দেখছে মোটামুটি বড় সংগ্রহের স্বপ্ন। অথচ সকালটা অন্য রকম ছিল বাংলাদেশের জন্য। লায়নের ঘূর্ণিতে দলীয় ১৩ রানের মাথায় তামিম ইকবাল আর ২১ রানে ইমরুল কায়েস এলবিডব্লুর ফাঁদে পড়লে শুরুটা ছিল বিপর্যয়কর। ওই লায়ন পরে তুলে নেন সৌম্য সরকার (৩৩) আর মুমিনুল হকের (৩১) দুটি উইকেট। তাঁরাও এলবিডব্লু। এ দিয়েই একটি রেকর্ডই গড়ে ফেললেন এই অফস্পিনার। টেস্ট ইতিহাসে প্রথম বোলার হিসেবে প্রতিপক্ষের প্রথম চার ব্যাটসম্যানকে এলবিডব্লু  করলেন লায়ন। বাংলাদেশের টপ অর্ডারকে একাই ধসিয়ে দিয়েছেন লায়ন। ছবি: শামসুল হকএমন একটা পরিস্থিতিতে সাকিব আল হাসানের ওপর ভরসা ছিল। তিনি বেশ খেলছিলেনও। ২৪ রান করে অ্যাশটন অ্যাগারের বলে উইকেটের পেছনে ম্যাথু ওয়েডকে ক্যাচ দিয়ে ফিরলেন তিনি। ১১৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ তখন ধুঁকছে। আউট হওয়ার আগে অধিনায়ক মুশফিকের সঙ্গে ৪৯ রানের জুটি গড়েছিলেন। সাকিবকে হারিয়ে চট্টগ্রামের জহুর আহমদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে যখন রাজ্যের আক্ষেপ, মুশফিক সামনে থেকে নেতৃত্ব দিলেন ঠিক সেই সময়। সাব্বিরও তাঁকে সঙ্গ দিলেন। রান তোলায় মুশফিকের চেয়ে এগিয়েও ছিলেন। তবে শেষ বিকেলে লায়নের পঞ্চম উইকেট হয়ে হয়েছেন হরিষে-বিষাদ। ঢাকা টেস্টে বাংলাদেশের স্পিনারদের হাতে নাকাল হতে দেখেই অস্ট্রেলিয়া আজ নিজেদের একাদশ সাজিয়েছিল একজন পেসারকে নিয়ে। ১৯৭৮ সালের পর এমনটা এই প্রথমই। ১৯৩৮ সালের পর এই প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসেই স্পিন দিয়ে শুরু করেছিল বোলিং আক্রমণ। দিন শেষে নিজেদের পরিকল্পনাটা কাজে আসায় খুশি হতেই পারেন কোচ ড্যারেন লেম্যান। তবে দিন শেষে চিন্তিত তিনি হবেন। মুশফিক-নাসিরের জুটিটা বিচ্ছিন্ন না করা পর্যন্ত চট্টগ্রাম টেস্টের নিয়ন্ত্রণটা যে অস্ট্রেলিয়ার হাতে উঠছে না কিছুতেই। বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, সাব্বির রহমান, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, নাসির হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান, মুমিনুল হক। অস্ট্রেলিয়ার একাদশ: স্টিভেন স্মিথ (অধিনায়ক), ডেভিড ওয়ার্নার, ম্যাথু রেনশ, হিল্টন কার্টরাইট, পিটার হ্যান্ডসকম্ব, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, ম্যাথু ওয়েড, অ্যাস্টন অ্যাগার, প্যাট কামিন্স, ন্যাথান লায়ন, স্টিভেন ও’কিফ।
 

Comments

Comments!

 প্রথম দিনের খেলা শেষে টাইগারদের সংগ্রহ ২৫৩/৬AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

প্রথম দিনের খেলা শেষে টাইগারদের সংগ্রহ ২৫৩/৬

Monday, September 4, 2017 11:04 pm
181021_1

প্রথম দিনটা পুরোপুরি নিজেদের করে নেওয়ার সুযোগ ছিল বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া দুই দলের সামনেই। কিন্তু দিন শেষে কোন দল এগিয়ে, সেটি সোজাসাপটা বলে দেওয়া যাচ্ছে না। নাথান লায়নের আরও একটি ৫ উইকেট-কীর্তিতে অস্ট্রেলিয়া তুলে নিয়েছে বাংলাদেশের ৬ উইকেট। বাংলাদেশও মুশফিকুর রহিম আর সাব্বির রহমানের ব্যাটে তুলেছে ২৫৩ রান।
অস্ট্রেলিয়া যদি আর একটি উইকেট নিত অথবা সাব্বিরের উইকেটটি যদি অক্ষত থাকত, তাহলে অন্য কিছু হলেও হতে পারত। আপাতত বলা যেতে পারে চট্টগ্রাম টেস্টে দুই দলের অবস্থানই সমান। কাল দ্বিতীয় দিনের সকাল তাই খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই জায়গা থেকে ঘটে যেতে পারে অনেক কিছু। বাংলাদেশ নিজেদের সংগ্রহটাকে আরও বাড়িয়ে নিতে পারে, অস্ট্রেলিয়াও বাংলাদেশকে গুটিয়ে দিতে পারে দ্রুতই।
বাংলাদেশকে ম্যাচে ফিরিয়েছেন সাব্বির ও মুশফিক। ছবি: শামসুল হকআপাতত মুশফিক-সাব্বিরের ওই জুটিটাকে ধন্যবাদ দিয়ে দেওয়া যাক। ১১৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের সামনে যখন দ্রুত গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কা, ঠিক তখনই দাঁড়িয়ে যান মুশফিক-সাব্বির। এ জুটি স্কোরবোর্ডে যোগ করেন ১০৫ রান। সাব্বির তাঁর স্বভাবসুলভ ব্যাটিং করেছেন। কিন্তু সেটা হিসাব কষে। মুশফিক তো ছিলেন বরাবরই ধীর-স্থির। সাব্বির ৬৬ রান করে লায়নের বলে শরীরের ভারসাম্য হারিয়ে স্টাম্পিংয়ের শিকার না হলে বাংলাদেশের সংগ্রহটা আরও বাড়তে পারত। মুশফিক অবশ্য ১৪৯ বল খেলে ৬২ রান করে দিনটা পার করেই এসেছেন। সাব্বিরের বিদায়ের পর নাসির হোসেনের অপরাজিত ১৯ রানে (৩৩ বলে) বাংলাদেশ দেখছে মোটামুটি বড় সংগ্রহের স্বপ্ন।
অথচ সকালটা অন্য রকম ছিল বাংলাদেশের জন্য। লায়নের ঘূর্ণিতে দলীয় ১৩ রানের মাথায় তামিম ইকবাল আর ২১ রানে ইমরুল কায়েস এলবিডব্লুর ফাঁদে পড়লে শুরুটা ছিল বিপর্যয়কর। ওই লায়ন পরে তুলে নেন সৌম্য সরকার (৩৩) আর মুমিনুল হকের (৩১) দুটি উইকেট। তাঁরাও এলবিডব্লু। এ দিয়েই একটি রেকর্ডই গড়ে ফেললেন এই অফস্পিনার। টেস্ট ইতিহাসে প্রথম বোলার হিসেবে প্রতিপক্ষের প্রথম চার ব্যাটসম্যানকে এলবিডব্লু  করলেন লায়ন।
বাংলাদেশের টপ অর্ডারকে একাই ধসিয়ে দিয়েছেন লায়ন। ছবি: শামসুল হকএমন একটা পরিস্থিতিতে সাকিব আল হাসানের ওপর ভরসা ছিল। তিনি বেশ খেলছিলেনও। ২৪ রান করে অ্যাশটন অ্যাগারের বলে উইকেটের পেছনে ম্যাথু ওয়েডকে ক্যাচ দিয়ে ফিরলেন তিনি। ১১৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ তখন ধুঁকছে। আউট হওয়ার আগে অধিনায়ক মুশফিকের সঙ্গে ৪৯ রানের জুটি গড়েছিলেন। সাকিবকে হারিয়ে চট্টগ্রামের জহুর আহমদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে যখন রাজ্যের আক্ষেপ, মুশফিক সামনে থেকে নেতৃত্ব দিলেন ঠিক সেই সময়। সাব্বিরও তাঁকে সঙ্গ দিলেন। রান তোলায় মুশফিকের চেয়ে এগিয়েও ছিলেন। তবে শেষ বিকেলে লায়নের পঞ্চম উইকেট হয়ে হয়েছেন হরিষে-বিষাদ।
ঢাকা টেস্টে বাংলাদেশের স্পিনারদের হাতে নাকাল হতে দেখেই অস্ট্রেলিয়া আজ নিজেদের একাদশ সাজিয়েছিল একজন পেসারকে নিয়ে। ১৯৭৮ সালের পর এমনটা এই প্রথমই। ১৯৩৮ সালের পর এই প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসেই স্পিন দিয়ে শুরু করেছিল বোলিং আক্রমণ। দিন শেষে নিজেদের পরিকল্পনাটা কাজে আসায় খুশি হতেই পারেন কোচ ড্যারেন লেম্যান। তবে দিন শেষে চিন্তিত তিনি হবেন। মুশফিক-নাসিরের জুটিটা বিচ্ছিন্ন না করা পর্যন্ত চট্টগ্রাম টেস্টের নিয়ন্ত্রণটা যে অস্ট্রেলিয়ার হাতে উঠছে না কিছুতেই।

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, সাব্বির রহমান, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, নাসির হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান, মুমিনুল হক।

অস্ট্রেলিয়ার একাদশ: স্টিভেন স্মিথ (অধিনায়ক), ডেভিড ওয়ার্নার, ম্যাথু রেনশ, হিল্টন কার্টরাইট, পিটার হ্যান্ডসকম্ব, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, ম্যাথু ওয়েড, অ্যাস্টন অ্যাগার, প্যাট কামিন্স, ন্যাথান লায়ন, স্টিভেন ও’কিফ।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X