সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ভোর ৫:৫৭
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, January 3, 2017 9:45 pm
A- A A+ Print

প্রাথমিক শিক্ষক বদলিতে মন্ত্রণালয়ের ক্ষমতা স্থগিত

education1483443755

অবশেষে শিক্ষক বদলিতে গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ক্ষমতা স্থগিত করা হয়েছে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বদলি নির্দেশিকার দুটি ধারা স্থগিত করে আদেশ জারি করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয়-২ শাখা থেকে মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করা হয়েছে। আদেশে বলা হয়েছে, ‘সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বদলি নির্দেশিকা, ২০১৫’-এর ১.২ এবং ২.৮ নির্দেশিকাটি পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত স্থগিত করা হলো। নির্দেশিকার ১.১ ধারা অনুযায়ী, সাধারণভাবে প্রতি শিক্ষাবছরের জানুয়ারি-মার্চের মধ্যে একই উপজেলা/থানা, আন্তঃউপজেলা/থানা, আন্তঃজেলা, আন্তঃসিটি করপোরেশন ও আন্তঃবিভাগ বদলি করা যায়। আর ১.২ ধারায় বলা হয়েছে, যুক্তিসঙ্গত কারণে ১.১ অনুচ্ছেদ বর্ণিত সময়ের মধ্যে বদলি সম্পন্ন করা না গেলে মন্ত্রণালয় কর্তৃক যেকোনো সময়ের মধ্যে বদলি করতে পারবে। ২.৮ ধারা অনুযায়ী, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় জনস্বার্থে যেকোনো কারণে যেকোনো শিক্ষককে যেকোনো সময়ে বদলি করতে পারবে। নতুন আদেশ জারির পর শিক্ষক বদলিতে মন্ত্রণালয়ের ক্ষমতা স্থগিত হয়ে গেল। মন্ত্রণালয়ের আদেশে বলা হয়েছে, নির্দেশিকার অন্তর্ভুক্ত অন্যান্য নির্দেশনার আলোকে একই উপজেলা/থানা, আন্তঃবিদ্যালয়, আন্তঃউপজেলা/আন্তঃথানা, আন্তঃজেলা, আন্তঃসিটি করপোরেশন এবং আন্তঃবিভাগ বদলি অধিক্ষেত্র অনুযায়ী সম্পাদন করতে হবে। অন্যথায় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে  উল্লেখ করে আদেশে বলা হয়েছে, ‘বদলি সম্পাদনের ফলোআপ আদেশ জারির সাতদিনের মধ্যে মন্ত্রণালয়কে অবহিত করতে হবে। বদলির প্রক্রিয়ায় কোনো ব্যত্যয় ঘটলে অধিক্ষেত্রের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা দায়ী থাকবেন এবং বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’ বছরের প্রথম তিন মাস বদলির জন্য গত কয়েকদিনে মন্ত্রীর সুপারিশ নিতে প্রার্থীরা ভিড় জমান মন্ত্রণালয়ে। এ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা সৃষ্টি হয়। এদিকে মন্ত্রণালয়ের ক্ষমতা স্থগিত করার কথা সোমবার জানিয়েছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার। এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, সোমবার অনুষ্ঠিত মন্ত্রিপরিষদ সভাশেষে অনির্ধারিত আলোচনায় শিক্ষক বদলিতে অনিয়মের বিষয়টি উঠে আসে। মন্ত্রণালয়ের কিছু ব্যক্তির সমালোচনা করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয়ের ক্ষমতা স্থগিত করা হয়েছে।  

Comments

Comments!

 প্রাথমিক শিক্ষক বদলিতে মন্ত্রণালয়ের ক্ষমতা স্থগিতAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

প্রাথমিক শিক্ষক বদলিতে মন্ত্রণালয়ের ক্ষমতা স্থগিত

Tuesday, January 3, 2017 9:45 pm
education1483443755

অবশেষে শিক্ষক বদলিতে গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ক্ষমতা স্থগিত করা হয়েছে।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বদলি নির্দেশিকার দুটি ধারা স্থগিত করে আদেশ জারি করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয়-২ শাখা থেকে মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করা হয়েছে।

আদেশে বলা হয়েছে, ‘সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বদলি নির্দেশিকা, ২০১৫’-এর ১.২ এবং ২.৮ নির্দেশিকাটি পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত স্থগিত করা হলো।

নির্দেশিকার ১.১ ধারা অনুযায়ী, সাধারণভাবে প্রতি শিক্ষাবছরের জানুয়ারি-মার্চের মধ্যে একই উপজেলা/থানা, আন্তঃউপজেলা/থানা, আন্তঃজেলা, আন্তঃসিটি করপোরেশন ও আন্তঃবিভাগ বদলি করা যায়।

আর ১.২ ধারায় বলা হয়েছে, যুক্তিসঙ্গত কারণে ১.১ অনুচ্ছেদ বর্ণিত সময়ের মধ্যে বদলি সম্পন্ন করা না গেলে মন্ত্রণালয় কর্তৃক যেকোনো সময়ের মধ্যে বদলি করতে পারবে।

২.৮ ধারা অনুযায়ী, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় জনস্বার্থে যেকোনো কারণে যেকোনো শিক্ষককে যেকোনো সময়ে বদলি করতে পারবে।

নতুন আদেশ জারির পর শিক্ষক বদলিতে মন্ত্রণালয়ের ক্ষমতা স্থগিত হয়ে গেল।

মন্ত্রণালয়ের আদেশে বলা হয়েছে, নির্দেশিকার অন্তর্ভুক্ত অন্যান্য নির্দেশনার আলোকে একই উপজেলা/থানা, আন্তঃবিদ্যালয়, আন্তঃউপজেলা/আন্তঃথানা, আন্তঃজেলা, আন্তঃসিটি করপোরেশন এবং আন্তঃবিভাগ বদলি অধিক্ষেত্র অনুযায়ী সম্পাদন করতে হবে।

অন্যথায় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে  উল্লেখ করে আদেশে বলা হয়েছে, ‘বদলি সম্পাদনের ফলোআপ আদেশ জারির সাতদিনের মধ্যে মন্ত্রণালয়কে অবহিত করতে হবে। বদলির প্রক্রিয়ায় কোনো ব্যত্যয় ঘটলে অধিক্ষেত্রের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা দায়ী থাকবেন এবং বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

বছরের প্রথম তিন মাস বদলির জন্য গত কয়েকদিনে মন্ত্রীর সুপারিশ নিতে প্রার্থীরা ভিড় জমান মন্ত্রণালয়ে। এ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা সৃষ্টি হয়।

এদিকে মন্ত্রণালয়ের ক্ষমতা স্থগিত করার কথা সোমবার জানিয়েছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার।

এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, সোমবার অনুষ্ঠিত মন্ত্রিপরিষদ সভাশেষে অনির্ধারিত আলোচনায় শিক্ষক বদলিতে অনিয়মের বিষয়টি উঠে আসে। মন্ত্রণালয়ের কিছু ব্যক্তির সমালোচনা করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয়ের ক্ষমতা স্থগিত করা হয়েছে।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X