শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৪:১৩
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, July 3, 2017 7:02 pm
A- A A+ Print

ফরহাদ মজহার সরকারের টার্গেট ছিল : রিজভী

232633_129

বিশিষ্ট কবি, বুদ্ধিজীবী ও রাষ্ট্র চিন্তক ফরহাদ মজহার সরকারের টার্গেট ছিল বলে মন্তব্য করেছে বিএনপি। তাকে অপহরণের সাথে সরকারের কোনো এজেন্সি জড়িত বলে দলটির সন্দেহ। আজ সোমবার বিকেলে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এই অভিযোগ করেন। তিনি বলেন- এদেশের প্রখ্যাত কলামিস্ট, গবেষক, কবি এবং প্রতিথযশা বুদ্ধিজীবী ফরহাদ মজহার ভোর ৫টায় তার বাসা থেকে বের হওয়ার কিছুক্ষণ পরই তাকে অপহরণ করা হয়েছে। পরিবার সংশ্লিষ্টদের সাথে যোগাযোগ করে যে তথ্য পেয়েছি, তা হৃদয়বিদারক, অমানবিক এবং সারা জাতির জন্য ভীতি ও শঙ্কার। আমরা যেটা মনে করি, সরকারের অজান্তে এ ঘটনা ঘটেনি। সরকারের কোনো এজেন্সি বা কোনো টিম এ ঘটনার সাথে জড়িত। আমি বিএনপির পক্ষ থেকে এই ঘৃণ্য অপহরণের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। রিজভী বলেন, অপহরণের ২৪ মিনিট পরে তার (ফরহাদ মজহার) পরিবার ও স্ত্রীর সাথে যোগাযোগ করে এবং তাকে ফরহাদ মজহারকে দিয়ে বলা হয়, আপনারা টাকা যোগাড় করেন এবং সেই টাকা দিলে পরে ছেড়ে দেয়া হবে। একজন সাংবাদিক জানিয়েছেন এই টাকার পরিমাণ প্রায় ৩৫ লাখ টাকা। আমি এখনো যথার্থভাবে তার পরিবারের কাছ থেকে জানতে পারিনি, কত টাকা চেয়েছেন। এ হচ্ছে পরিস্থিতি। এরপর পুলিশকে ঘটনা জানানো হলে তারা যে মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করেছেন, তা ট্র্যাক করার চেষ্টা করে। তারা ট্র্যাক করে দেখেছেন যে, কখনো গাড়িটি মানিকগঞ্জের দিকে আছে, আবার পরবর্তিতে বলেছেন যে মাগুরা-যশোরের দিকে আছে। বিষয়টা রহস্যজনক। তিনি বলেন, আমরা মনে করি, এই অপহরণের উদ্দেশ্য হচ্ছে আর যাতে কেউ কলম না ধরতে পারে, আর যাতে অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে না পারে, দুঃশাসনের বিরুদ্ধে মানুষের ক্ষোভ যে গুমরে গুমরে মরছে, এটা যেন বানময় হয়ে খবরে কাগজে অথবা অন্য কোথাও প্রকাশিত হতে না পারে। নিস্তব্ধ নিরব হয়ে যায় যেন মানুষ।আর তাই পরিতৃপ্তি সহকারে এই দুঃশাসনের অধিকর্ত্রী হিসেবে প্রধানমন্ত্রী রাজত্ব করে যাবেন। আমি আবারো বলছি ফরহাদ মজহারকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিন। নইলে এদেশের মানুষ ক্ষোভে প্রতিবাদে ফেটে পড়বে। রিজভী অভিযোগ করে বলেন, ফরহাদ মজহারের মতো একজন বিদগ্ধ মানুষ, একজন শুভচিন্তক মানুষ এই দুর্বিসহ সময়ের মধ্যেও যার ক্ষুরধার লেখনি আজকের সংগ্রামরত-আন্দোলনরত মানুষকে উদ্ধুদ্ধ করছে, তাকে এমনি সামাজিক কোনো মুক্তিপণের আদায়ে কোনো সন্ত্রাসী গোষ্ঠী অপরহরণকারী গোষ্ঠী এটা করতে পারে না। সরকার তার যে লেখনি, তা যে চিন্তা, তার যে মনন, এটিকে ভয় পেয়ে অনেকদিন ধরেই মনে হয় টার্গেট করেছিল, আজকে সেই টার্গেটটা সম্পন্ন করার তারা চেষ্টা চালিয়েছে। রুহুল কবির রিজভী বলেন, সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী সুপ্রিম কোর্ট অবৈধ ঘোষণা করেছেন এর ফলে জনগণের মধ্যে যে আশাবাদ গভীরভাবে প্রতিথ হয়েছে। সামনের দিনের গণতন্ত্র এবং ন্যায় বিচার নিশ্চয়তার জন্য মানুষের মধ্যে যে তীব্র অনুভুতি তৈরি হয়েছে- এটাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য, চোখটাকে অন্যদিকে সরিয়ে দেয়া কারণ হতে পারে। অথবা গতকাল মাহমুদুর রহমান ও ফরহাদ মজহার সাহেবরা যে ন্যায় সঙ্গত বিষয়ে যে বক্তব্য তুলে ধরেছেন এটাও কারণ হতে পারে অথবা দীর্ঘদিনের যে টার্গেট তাকে বাস্তবায়ন করার জন্য আজকে এই জঘন্য অমানবিক দুরাচারমূলক কাজ করেছে। অপহরণে সরকারের কোন এজেন্সিকে আপনি সন্দেহ করছেন প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, এটা তো আমরা বলতে পারব না। এ ধরনের ঘটনাগুলো আমরা এর আগেও দেখেছি যে অপহরণের সাধারণ যে বৈশিষ্ট্য বা প্রকৃতি একই রকম। আপনারা দেখুন এম ইলিয়াস আলী, সাইফুল ইসলাম হীরু, চৌধুরী আলমের কথাই বলুন-ন্যাচারটা এই রকমই। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মাইক্রোবাসে নিয়ে যাচ্ছেন, কালো গ্লাস ঢাকা মাইক্রোবাসে তারা তুলে নিচ্ছে, তারা আবার অস্বীকার করছে। তারা আবার নাটক করে দেখাচ্ছেন দেখি আমরা খোঁজ নিচ্ছি, খোঁজ করছি। নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই জরুরি সংবাদ সম্মেলন হয়। এসময় দলের যুগ্মমহাসচিব মাহবুবউদ্দিন খোকন, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন

Comments

Comments!

 ফরহাদ মজহার সরকারের টার্গেট ছিল : রিজভীAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ফরহাদ মজহার সরকারের টার্গেট ছিল : রিজভী

Monday, July 3, 2017 7:02 pm
232633_129

বিশিষ্ট কবি, বুদ্ধিজীবী ও রাষ্ট্র চিন্তক ফরহাদ মজহার সরকারের টার্গেট ছিল বলে মন্তব্য করেছে বিএনপি। তাকে অপহরণের সাথে সরকারের কোনো এজেন্সি জড়িত বলে দলটির সন্দেহ।

আজ সোমবার বিকেলে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এই অভিযোগ করেন।

তিনি বলেন- এদেশের প্রখ্যাত কলামিস্ট, গবেষক, কবি এবং প্রতিথযশা বুদ্ধিজীবী ফরহাদ মজহার ভোর ৫টায় তার বাসা থেকে বের হওয়ার কিছুক্ষণ পরই তাকে অপহরণ করা হয়েছে। পরিবার সংশ্লিষ্টদের সাথে যোগাযোগ করে যে তথ্য পেয়েছি, তা হৃদয়বিদারক, অমানবিক এবং সারা জাতির জন্য ভীতি ও শঙ্কার। আমরা যেটা মনে করি, সরকারের অজান্তে এ ঘটনা ঘটেনি। সরকারের কোনো এজেন্সি বা কোনো টিম এ ঘটনার সাথে জড়িত। আমি বিএনপির পক্ষ থেকে এই ঘৃণ্য অপহরণের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।

রিজভী বলেন, অপহরণের ২৪ মিনিট পরে তার (ফরহাদ মজহার) পরিবার ও স্ত্রীর সাথে যোগাযোগ করে এবং তাকে ফরহাদ মজহারকে দিয়ে বলা হয়, আপনারা টাকা যোগাড় করেন এবং সেই টাকা দিলে পরে ছেড়ে দেয়া হবে। একজন সাংবাদিক জানিয়েছেন এই টাকার পরিমাণ প্রায় ৩৫ লাখ টাকা। আমি এখনো যথার্থভাবে তার পরিবারের কাছ থেকে জানতে পারিনি, কত টাকা চেয়েছেন। এ হচ্ছে পরিস্থিতি। এরপর পুলিশকে ঘটনা জানানো হলে তারা যে মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করেছেন, তা ট্র্যাক করার চেষ্টা করে। তারা ট্র্যাক করে দেখেছেন যে, কখনো গাড়িটি মানিকগঞ্জের দিকে আছে, আবার পরবর্তিতে বলেছেন যে মাগুরা-যশোরের দিকে আছে। বিষয়টা রহস্যজনক।

তিনি বলেন, আমরা মনে করি, এই অপহরণের উদ্দেশ্য হচ্ছে আর যাতে কেউ কলম না ধরতে পারে, আর যাতে অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে না পারে, দুঃশাসনের বিরুদ্ধে মানুষের ক্ষোভ যে গুমরে গুমরে মরছে, এটা যেন বানময় হয়ে খবরে কাগজে অথবা অন্য কোথাও প্রকাশিত হতে না পারে। নিস্তব্ধ নিরব হয়ে যায় যেন মানুষ।আর তাই পরিতৃপ্তি সহকারে এই দুঃশাসনের অধিকর্ত্রী হিসেবে প্রধানমন্ত্রী রাজত্ব করে যাবেন। আমি আবারো বলছি ফরহাদ মজহারকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিন। নইলে এদেশের মানুষ ক্ষোভে প্রতিবাদে ফেটে পড়বে।

রিজভী অভিযোগ করে বলেন, ফরহাদ মজহারের মতো একজন বিদগ্ধ মানুষ, একজন শুভচিন্তক মানুষ এই দুর্বিসহ সময়ের মধ্যেও যার ক্ষুরধার লেখনি আজকের সংগ্রামরত-আন্দোলনরত মানুষকে উদ্ধুদ্ধ করছে, তাকে এমনি সামাজিক কোনো মুক্তিপণের আদায়ে কোনো সন্ত্রাসী গোষ্ঠী অপরহরণকারী গোষ্ঠী এটা করতে পারে না। সরকার তার যে লেখনি, তা যে চিন্তা, তার যে মনন, এটিকে ভয় পেয়ে অনেকদিন ধরেই মনে হয় টার্গেট করেছিল, আজকে সেই টার্গেটটা সম্পন্ন করার তারা চেষ্টা চালিয়েছে।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী সুপ্রিম কোর্ট অবৈধ ঘোষণা করেছেন এর ফলে জনগণের মধ্যে যে আশাবাদ গভীরভাবে প্রতিথ হয়েছে। সামনের দিনের গণতন্ত্র এবং ন্যায় বিচার নিশ্চয়তার জন্য মানুষের মধ্যে যে তীব্র অনুভুতি তৈরি হয়েছে- এটাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য, চোখটাকে অন্যদিকে সরিয়ে দেয়া কারণ হতে পারে। অথবা গতকাল মাহমুদুর রহমান ও ফরহাদ মজহার সাহেবরা যে ন্যায় সঙ্গত বিষয়ে যে বক্তব্য তুলে ধরেছেন এটাও কারণ হতে পারে অথবা দীর্ঘদিনের যে টার্গেট তাকে বাস্তবায়ন করার জন্য আজকে এই জঘন্য অমানবিক দুরাচারমূলক কাজ করেছে।

অপহরণে সরকারের কোন এজেন্সিকে আপনি সন্দেহ করছেন প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, এটা তো আমরা বলতে পারব না। এ ধরনের ঘটনাগুলো আমরা এর আগেও দেখেছি যে অপহরণের সাধারণ যে বৈশিষ্ট্য বা প্রকৃতি একই রকম। আপনারা দেখুন এম ইলিয়াস আলী, সাইফুল ইসলাম হীরু, চৌধুরী আলমের কথাই বলুন-ন্যাচারটা এই রকমই।
আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মাইক্রোবাসে নিয়ে যাচ্ছেন, কালো গ্লাস ঢাকা মাইক্রোবাসে তারা তুলে নিচ্ছে, তারা আবার অস্বীকার করছে। তারা আবার নাটক করে দেখাচ্ছেন দেখি আমরা খোঁজ নিচ্ছি, খোঁজ করছি।

নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই জরুরি সংবাদ সম্মেলন হয়।

এসময় দলের যুগ্মমহাসচিব মাহবুবউদ্দিন খোকন, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X