বৃহস্পতিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ২:৪৫
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, September 3, 2016 3:07 pm
A- A A+ Print

ফাঁসি কার্যকরের চিঠি কাশিমপুরে

240518_1

জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীর দণ্ড কার্যকরের চিঠি পৌঁছেছে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে। বেলা দেড়টার কিছু পর কারা কর্তৃপক্ষের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক ইকবাল হাসান এই চিঠি নিয়ে কাশিমপুর যান বলে নিশ্চিত করেছে কর্তৃপক্ষ। তাহলে আজই কি ফাঁসি কার্যকর হচ্ছে?-জানতে চাইলে কাশিমপুর কারাগারের জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বণিক ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘আপনারা বুঝতেই পারছেন।’ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাও আজ রাতের মধ্যেই ঢাকাটাইমসকে মীর কাসেম আলীর ফাঁসি কার্যকরের কথা জানিয়েছেন। সকাল থেকেই কাশিমপুর কারাগারের আশেপাশে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। বন্ধ করে দেয়া হয় দর্শণার্থী প্রবেশ। ডেকে পাঠানো হয় মীর কাসেমের পরিবারের সদস্যদের। কারা কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ডাক পেয়ে জামায়াত নেতার পরিবারের সদস্যরাও কাশিমপুরের উদ্দেশে রওয়ানা হন দুপুরের আগেই। তার আগে জামায়াত নেতার মেয়ে সুমাইয়া রাবেয়া তার ফেসবুকে লিখেন, ‘আব্বুকে শেষ বারের মত দেখতে যাচ্ছি।’ সকালে কাশিমপুর কারাগারেই ফাঁসির মহড়া দেয়া হয় বলে নিশ্চিত করেছে কারাগারের ভেতরের একাধিক সূত্র। নির্বাচন করা হয় জল্লাদদের। এসবই ফাঁসির দণ্ড কার্যকরের লক্ষণ হিসেবেই দেখা হচ্ছে। মানবতাবিরোধী অপরাধে এখন পর্যন্ত কার্যকর হওয়া পাঁচটি ফাঁসি কার্যকরের দিনও একই ঘটনাচিত্র ছিল ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের আশেপাশে। এবার পার্থক্য শুধু কারাগারের স্থানে। আগের পাঁচটি দণ্ডই কার্যকর হয়েছে নাজিমউদ্দিন রোডে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে। আর মীর কাসেম আলীর দণ্ড কার্যকরের প্রস্তুতি চলছে কাশিমপুরে। মানবতাবিরোধী অপরাধে এখন পর্যন্ত প্রতিটি ফাঁসির দণ্ডই কার্যকর হয়েছে রাতে। তবে মীর কাসেম আলীর দণ্ড কখন কার্যকর হবে, সে বিষয়ে কারা কর্তৃপক্ষ এখনও কিছু জানায়নি। মুক্তিযুদ্ধের সময় চট্টগ্রামে নির্যাতনকেন্দ্র খুলে কিশোর মুক্তিযোদ্ধা জসিম উদ্দিনকে হত্যার দায়ে মীর কাসেম আলীকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের পর আপিল বিভাগ মৃত্যুদণ্ড দেয়। এই রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন গত মঙ্গলবার নাকচ করে আপিল বিভাগ। আইন অনুযায়ী আপিল বিভাগের রায়ের পর মীর কাসেমের সামনে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করার সুযোগ ছিল। তবে তিনি সে সুযোগ নিতে চাননি। আপিল বিভাগে রিভিউয়ের আবেদন নাকচ হয়ে যাওয়ার পর দুইদিন সিদ্ধান্ত ঝুলিয়ে রাখেন মীর কাসেম। তবে শুক্রবার কারা মহাপরিদর্শক সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন গণমাধ্যমকে জানান, জামায়াত নেতা রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইবেন না। এরপর থেকেই মীর কাসেমের দণ্ড কার্যকর কেবল সময়ের অপেক্ষা।

Comments

Comments!

 ফাঁসি কার্যকরের চিঠি কাশিমপুরেAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ফাঁসি কার্যকরের চিঠি কাশিমপুরে

Saturday, September 3, 2016 3:07 pm
240518_1

জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীর দণ্ড কার্যকরের চিঠি পৌঁছেছে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে। বেলা দেড়টার কিছু পর কারা কর্তৃপক্ষের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক ইকবাল হাসান এই চিঠি নিয়ে কাশিমপুর যান বলে নিশ্চিত করেছে কর্তৃপক্ষ।

তাহলে আজই কি ফাঁসি কার্যকর হচ্ছে?-জানতে চাইলে কাশিমপুর কারাগারের জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বণিক ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘আপনারা বুঝতেই পারছেন।’ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাও আজ রাতের মধ্যেই ঢাকাটাইমসকে মীর কাসেম আলীর ফাঁসি কার্যকরের কথা জানিয়েছেন।

সকাল থেকেই কাশিমপুর কারাগারের আশেপাশে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। বন্ধ করে দেয়া হয় দর্শণার্থী প্রবেশ। ডেকে পাঠানো হয় মীর কাসেমের পরিবারের সদস্যদের।

কারা কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ডাক পেয়ে জামায়াত নেতার পরিবারের সদস্যরাও কাশিমপুরের উদ্দেশে রওয়ানা হন দুপুরের আগেই। তার আগে জামায়াত নেতার মেয়ে সুমাইয়া রাবেয়া তার ফেসবুকে লিখেন, ‘আব্বুকে শেষ বারের মত দেখতে যাচ্ছি।’

সকালে কাশিমপুর কারাগারেই ফাঁসির মহড়া দেয়া হয় বলে নিশ্চিত করেছে কারাগারের ভেতরের একাধিক সূত্র। নির্বাচন করা হয় জল্লাদদের। এসবই ফাঁসির দণ্ড কার্যকরের লক্ষণ হিসেবেই দেখা হচ্ছে।

মানবতাবিরোধী অপরাধে এখন পর্যন্ত কার্যকর হওয়া পাঁচটি ফাঁসি কার্যকরের দিনও একই ঘটনাচিত্র ছিল ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের আশেপাশে। এবার পার্থক্য শুধু কারাগারের স্থানে। আগের পাঁচটি দণ্ডই কার্যকর হয়েছে নাজিমউদ্দিন রোডে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে। আর মীর কাসেম আলীর দণ্ড কার্যকরের প্রস্তুতি চলছে কাশিমপুরে।

মানবতাবিরোধী অপরাধে এখন পর্যন্ত প্রতিটি ফাঁসির দণ্ডই কার্যকর হয়েছে রাতে। তবে মীর কাসেম আলীর দণ্ড কখন কার্যকর হবে, সে বিষয়ে কারা কর্তৃপক্ষ এখনও কিছু জানায়নি।

মুক্তিযুদ্ধের সময় চট্টগ্রামে নির্যাতনকেন্দ্র খুলে কিশোর মুক্তিযোদ্ধা জসিম উদ্দিনকে হত্যার দায়ে মীর কাসেম আলীকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের পর আপিল বিভাগ মৃত্যুদণ্ড দেয়। এই রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন গত মঙ্গলবার নাকচ করে আপিল বিভাগ। আইন অনুযায়ী আপিল বিভাগের রায়ের পর মীর কাসেমের সামনে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করার সুযোগ ছিল। তবে তিনি সে সুযোগ নিতে চাননি।

আপিল বিভাগে রিভিউয়ের আবেদন নাকচ হয়ে যাওয়ার পর দুইদিন সিদ্ধান্ত ঝুলিয়ে রাখেন মীর কাসেম। তবে শুক্রবার কারা মহাপরিদর্শক সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন গণমাধ্যমকে জানান, জামায়াত নেতা রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইবেন না। এরপর থেকেই মীর কাসেমের দণ্ড কার্যকর কেবল সময়ের অপেক্ষা।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X