মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সন্ধ্যা ৭:৩২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, September 10, 2016 6:53 pm
A- A A+ Print

বঙ্গোপসাগরে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ

8888888

বঙ্গোপসাগরে জেলেদের জালে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ। বরগুনার জেলে পল্লীগুলোতে তাই হঠাৎ করেই যেন খুশির জোয়ার বইছে। গত ৫/৬ দিন ধরে মাছ ধরার ট্রলারগুলো গভীর সমুদ্র থেকে ইলিশ বোঝাই করে তীরে ফিরে আসছে। ফলে বরগুনা ও পাথরঘাটার মৎস্যবন্দরের জেলে, আড়ৎদার ও মৎস্যজীবিদের মুখে হাসি ফুটেছে। ব্যস্ত সময় পার করছে জেলে পাড়ার মানুষেরা। সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, বরগুনা ও পাথরঘাটা, কুয়াকাটা, আলীপুর ও মহিপুরের মৎস্যআড়ৎ গুলোতে এখন উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। সংশ্লিষ্ট শ্রমিকদের হাতে যেন একদম সময় নেই। কেউ বরফ ভাঙ্গছেন আবার কেউ মাছ প্যাকেট করছে দেশের বিভিন্ন মোকামে পাঠানোর জন্য। অপরদিকে মাছ সরবরাহের জন্য সারিসারি পিকআপ ও ট্রাক অপেক্ষায় রয়েছে। এছাড়া দুরদুরান্তের পরিবহনের ছাদেও ককসিট বোঝাই করে ইলিশ বহন করতে দেখা গেছে। বরগুনা জেলার কমিশন এজেন্ট ব্যবসায়ীরা জানান, বর্তমানে স্থানীয় আড়ৎগুলোতে ৮’শ থেকে ৯’শ গ্রামের প্রতিমন ইলিশ ২০- ২৫ হাজার টাকায়, ৭’শ থেকে ৮’শ গ্রামের প্রতিমন ইলিশ ১৯ হাজার টাকায় ও ৪’শ থেকে ৫’শ গ্রামের প্রতিমন ১২-১৫ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অগভীর সমুদ্রের খুটা জালেও প্রচুর ইলিশ ধরা পরছে। বৃহস্পতিবার রাতে এফবি টিপু নামের একটি ট্রলার ১৫৮ মন ইলিশ নিয়ে মহিপুর ঘাটে এসে প্রায় ২৫ লাখ টাকায় বিক্রি করে। মহিপুর শাহিনা ফিসের মালিক মোঃ ইলিয়াস রেজা বলেন, গত কয়েক দিন ধরে ছোট বড় সব মাছ ধরার ট্রলারই প্রচুর মাছ নিয়ে ঘাটে আসছে। বিগত কয়েক বছর এরকম মাছ ধরা পড়েনি। এবছর মনে হয় ভালই লাভ করতে পারব। মাছের দামও তুলনা মূলক কম বলে তিনি জানান। মহিপুর মৎস্য আড়তদার সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক নিমাই চন্দ্র দাস জানান, ভালই মাছ ধরা পরছে। এভাবে মাছ ধরা পড়লে জেলেরা লাভবান হবে। ইলিশের দাম কিছুটা কম হলেও জেলেরা খুশি। গভীর সাগর থেকে প্রতিটি ট্রলার কম বেশি মাছ নিয়ে ঘাটে আসছে। এ কারণে মৎস্যবন্দরের প্রাণ ফিরে এসেছে। মহিপুর মৎস্য আড়তদার সমবায় সমিতির সভাপতি মো.ফজলু গাজী জানান, এবছর শুধুমাত্র মহিপুর থেকে গত ৪/৫ দিনে দেশের বিভিন্ন মোকামে প্রায় তিন হাজার মন ইলিশ মাছ চালান হয়েছে। কোস্টগার্ড পাথরঘাটা স্টেশন কমান্ডার লে. এফ এ রউফ নয়াদিগন্তকে বলেন, ইতিমধ্যে সাগরে মাছধরা পড়তে শুরু করেছে। গভীর সমুদ্রে নৌবাহিনীর টহল অব্যাহত রয়েছে। বরগুনা জেলা ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরি বলেন, গভীর ও অগভীর সমুদ্রে বেশ ইলিশ ধরা পড়ছে। মৎস্য অধিদফতরের কার্যকরী পদক্ষেপ ও পরিকল্পণা কারণেই (প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ রক্ষা, জাটকা সংরক্ষণ, জেলেদের ভিজিএফ/পুর্ণবাসন) ইলিশ উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে। - See more at: http://www.dailynayadiganta.com/detail/news/152438#sthash.N02M5e12.dpuf

Comments

Comments!

 বঙ্গোপসাগরে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

বঙ্গোপসাগরে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ

Saturday, September 10, 2016 6:53 pm
8888888

বঙ্গোপসাগরে জেলেদের জালে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ। বরগুনার জেলে পল্লীগুলোতে তাই হঠাৎ করেই যেন খুশির জোয়ার বইছে। গত ৫/৬ দিন ধরে মাছ ধরার ট্রলারগুলো গভীর সমুদ্র থেকে ইলিশ বোঝাই করে তীরে ফিরে আসছে। ফলে বরগুনা ও পাথরঘাটার মৎস্যবন্দরের জেলে, আড়ৎদার ও মৎস্যজীবিদের মুখে হাসি ফুটেছে। ব্যস্ত সময় পার করছে জেলে পাড়ার মানুষেরা। সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, বরগুনা ও পাথরঘাটা, কুয়াকাটা, আলীপুর ও মহিপুরের মৎস্যআড়ৎ গুলোতে এখন উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। সংশ্লিষ্ট শ্রমিকদের হাতে যেন একদম সময় নেই। কেউ বরফ ভাঙ্গছেন আবার কেউ মাছ প্যাকেট করছে দেশের বিভিন্ন মোকামে পাঠানোর জন্য। অপরদিকে মাছ সরবরাহের জন্য সারিসারি পিকআপ ও ট্রাক অপেক্ষায় রয়েছে। এছাড়া দুরদুরান্তের পরিবহনের ছাদেও ককসিট বোঝাই করে ইলিশ বহন করতে দেখা গেছে। বরগুনা জেলার কমিশন এজেন্ট ব্যবসায়ীরা জানান, বর্তমানে স্থানীয় আড়ৎগুলোতে ৮’শ থেকে ৯’শ গ্রামের প্রতিমন ইলিশ ২০- ২৫ হাজার টাকায়, ৭’শ থেকে ৮’শ গ্রামের প্রতিমন ইলিশ ১৯ হাজার টাকায় ও ৪’শ থেকে ৫’শ গ্রামের প্রতিমন ১২-১৫ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অগভীর সমুদ্রের খুটা জালেও প্রচুর ইলিশ ধরা পরছে। বৃহস্পতিবার রাতে এফবি টিপু নামের একটি ট্রলার ১৫৮ মন ইলিশ নিয়ে মহিপুর ঘাটে এসে প্রায় ২৫ লাখ টাকায় বিক্রি করে। মহিপুর শাহিনা ফিসের মালিক মোঃ ইলিয়াস রেজা বলেন, গত কয়েক দিন ধরে ছোট বড় সব মাছ ধরার ট্রলারই প্রচুর মাছ নিয়ে ঘাটে আসছে। বিগত কয়েক বছর এরকম মাছ ধরা পড়েনি। এবছর মনে হয় ভালই লাভ করতে পারব। মাছের দামও তুলনা মূলক কম বলে তিনি জানান। মহিপুর মৎস্য আড়তদার সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক নিমাই চন্দ্র দাস জানান, ভালই মাছ ধরা পরছে। এভাবে মাছ ধরা পড়লে জেলেরা লাভবান হবে। ইলিশের দাম কিছুটা কম হলেও জেলেরা খুশি। গভীর সাগর থেকে প্রতিটি ট্রলার কম বেশি মাছ নিয়ে ঘাটে আসছে। এ কারণে মৎস্যবন্দরের প্রাণ ফিরে এসেছে। মহিপুর মৎস্য আড়তদার সমবায় সমিতির সভাপতি মো.ফজলু গাজী জানান, এবছর শুধুমাত্র মহিপুর থেকে গত ৪/৫ দিনে দেশের বিভিন্ন মোকামে প্রায় তিন হাজার মন ইলিশ মাছ চালান হয়েছে। কোস্টগার্ড পাথরঘাটা স্টেশন কমান্ডার লে. এফ এ রউফ নয়াদিগন্তকে বলেন, ইতিমধ্যে সাগরে মাছধরা পড়তে শুরু করেছে। গভীর সমুদ্রে নৌবাহিনীর টহল অব্যাহত রয়েছে। বরগুনা জেলা ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরি বলেন, গভীর ও অগভীর সমুদ্রে বেশ ইলিশ ধরা পড়ছে। মৎস্য অধিদফতরের কার্যকরী পদক্ষেপ ও পরিকল্পণা কারণেই (প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ রক্ষা, জাটকা সংরক্ষণ, জেলেদের ভিজিএফ/পুর্ণবাসন) ইলিশ উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে। – See more at: http://www.dailynayadiganta.com/detail/news/152438#sthash.N02M5e12.dpuf

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X