রবিবার, ১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৬ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৫:০১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, January 28, 2017 12:16 pm
A- A A+ Print

বাংলাদেশিদের যুক্তরাষ্ট্র না ছাড়ার পরামর্শ

28

পরিবর্তিত রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে আতঙ্কিত হয়ে বাংলাদেশিদের যুক্তরাষ্ট্র ছেড়ে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন আইনজীবীরা। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিবাসন সংস্কার ও বিতাড়ন প্রক্রিয়ার ঘোষণার বাস্তবতায় এ ধরনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। আইনজীবীরা বলছেন, ‘যতই ঝড়ঝাঞ্ঝা আসুক না কেন, যুক্তরাষ্ট্র ছেড়ে আপনারা যাবেন না। আপনারা আইনি লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত হোন।’ স্থানীয় সময় গতকাল শুক্রবার নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের জুইশ সেন্টারে আয়োজিত সেমিনারে বাংলাদেশি এবং মার্কিন আইনজীবীরা এই পরামর্শ দেন। তাঁরা বলেন, ২০০১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন বাস্তবতায় যেসব বাংলাদেশিরা নিবন্ধনের ভয়ে চলে গিয়েছিলেন তাঁরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। নানা চেষ্টা করেও তাঁরা আর যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করতে পারেননি। এখন যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে তাতে আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই। আয়োজকেরা বলেন, এর মধ্যে নিউইয়র্ককে ‘গ্রিন জোন’ ঘোষণা করা হয়েছে। নিউইয়র্ক স্টেট গভর্নর এন্ড্রো কুমো এবং মেয়র বিল ডি ব্লাজিও বলেছেন, ‘ট্রাম্প প্রশাসন মুসলিমদের নিবন্ধন শুরু করলে আমরাই আগে সেই নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় মুসলিম হিসেবে নিবন্ধিত হব।’ নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের জুইশ সেন্টারে অভিবাসন বিষয়ক সেমিনারে পরামর্শ দিতে আসা কয়েকজন অ্যাটর্নি। ছবি: প্রথম আলোগভর্নর এন্ড্রু কুমো এও বলেছেন, ‘নিউইয়র্ক থেকে একজন অভিবাসীকে ফেরত পাঠাতে হলে আগে আমাকে হাতকড়া পরিয়ে ফেরত পাঠাতে হবে।’ আয়োজকেরা আরও বলেন, তাঁরা গভর্নর ও মেয়রের এ ধরনের বক্তব্যে আশাবাদী হতে চান। পরামর্শ দিতে চান কোনো বাংলাদেশি যেন নিবন্ধনের ভয়ে যুক্তরাষ্ট্র ছেড়ে না যান। সবকিছুর জন্য যেন তাঁরা আইনি পরামর্শ নেন। সেমিনারে পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে বাংলাদেশিদের নির্ভয়ে থাকার পরামর্শ দেন অ্যাটর্নি বেরি সিলভার ও আইনজীবী মোহাম্মদ এন মজুমদার। মোহাম্মদ এন মজুমদার ট্রাম্প প্রশাসন ও নতুন অভিবাসন আইনের ব্যাখ্যা দেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রে ব্যবসা করে কীভাবে গ্রিন কার্ড পাওয়া যায়, পুরোনো মামলা কীভাবে পুনরুজ্জীবিত করে গ্রিন কার্ড পাওয়া যায়, তা নিয়ে আলোচনা করেন। গৃহবিবাদ, বিবাহবিচ্ছেদ, সম্পত্তির ভাগ-বাঁটোয়ারা নিয়েও বিশদ আলোচনা করেন। সেমিনারে অংশগ্রহণকারীরা। ছবি: প্রথম আলোকীভাবে ট্যাক্স ফাইল করতে হবে এবং কী কী তথ্য দিতে হবে-তার ওপর ধারণা দেন এয়াকুব খান সিপিএ। এ ছাড়া ইনস্যুরেন্স বিষয়ে ধারণা দেন, এনওআই ইনস্যুরেন্সের প্রেসিডেন্ট ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ নেওয়াজ। ওই সেমিনারের আয়োজন করে বেরি সিলভার ল ফার্ম।

Comments

Comments!

 বাংলাদেশিদের যুক্তরাষ্ট্র না ছাড়ার পরামর্শAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

বাংলাদেশিদের যুক্তরাষ্ট্র না ছাড়ার পরামর্শ

Saturday, January 28, 2017 12:16 pm
28

পরিবর্তিত রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে আতঙ্কিত হয়ে বাংলাদেশিদের যুক্তরাষ্ট্র ছেড়ে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন আইনজীবীরা। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিবাসন সংস্কার ও বিতাড়ন প্রক্রিয়ার ঘোষণার বাস্তবতায় এ ধরনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

আইনজীবীরা বলছেন, ‘যতই ঝড়ঝাঞ্ঝা আসুক না কেন, যুক্তরাষ্ট্র ছেড়ে আপনারা যাবেন না। আপনারা আইনি লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত হোন।’

স্থানীয় সময় গতকাল শুক্রবার নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের জুইশ সেন্টারে আয়োজিত সেমিনারে বাংলাদেশি এবং মার্কিন আইনজীবীরা এই পরামর্শ দেন। তাঁরা বলেন, ২০০১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন বাস্তবতায় যেসব বাংলাদেশিরা নিবন্ধনের ভয়ে চলে গিয়েছিলেন তাঁরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। নানা চেষ্টা করেও তাঁরা আর যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করতে পারেননি। এখন যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে তাতে আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই।

আয়োজকেরা বলেন, এর মধ্যে নিউইয়র্ককে ‘গ্রিন জোন’ ঘোষণা করা হয়েছে। নিউইয়র্ক স্টেট গভর্নর এন্ড্রো কুমো এবং মেয়র বিল ডি ব্লাজিও বলেছেন, ‘ট্রাম্প প্রশাসন মুসলিমদের নিবন্ধন শুরু করলে আমরাই আগে সেই নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় মুসলিম হিসেবে নিবন্ধিত হব।’

নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের জুইশ সেন্টারে অভিবাসন বিষয়ক সেমিনারে পরামর্শ দিতে আসা কয়েকজন অ্যাটর্নি। ছবি: প্রথম আলোগভর্নর এন্ড্রু কুমো এও বলেছেন, ‘নিউইয়র্ক থেকে একজন অভিবাসীকে ফেরত পাঠাতে হলে আগে আমাকে হাতকড়া পরিয়ে ফেরত পাঠাতে হবে।’

আয়োজকেরা আরও বলেন, তাঁরা গভর্নর ও মেয়রের এ ধরনের বক্তব্যে আশাবাদী হতে চান। পরামর্শ দিতে চান কোনো বাংলাদেশি যেন নিবন্ধনের ভয়ে যুক্তরাষ্ট্র ছেড়ে না যান। সবকিছুর জন্য যেন তাঁরা আইনি পরামর্শ নেন।

সেমিনারে পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে বাংলাদেশিদের নির্ভয়ে থাকার পরামর্শ দেন অ্যাটর্নি বেরি সিলভার ও আইনজীবী মোহাম্মদ এন মজুমদার।

মোহাম্মদ এন মজুমদার ট্রাম্প প্রশাসন ও নতুন অভিবাসন আইনের ব্যাখ্যা দেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রে ব্যবসা করে কীভাবে গ্রিন কার্ড পাওয়া যায়, পুরোনো মামলা কীভাবে পুনরুজ্জীবিত করে গ্রিন কার্ড পাওয়া যায়, তা নিয়ে আলোচনা করেন। গৃহবিবাদ, বিবাহবিচ্ছেদ, সম্পত্তির ভাগ-বাঁটোয়ারা নিয়েও বিশদ আলোচনা করেন।

সেমিনারে অংশগ্রহণকারীরা। ছবি: প্রথম আলোকীভাবে ট্যাক্স ফাইল করতে হবে এবং কী কী তথ্য দিতে হবে-তার ওপর ধারণা দেন এয়াকুব খান সিপিএ। এ ছাড়া ইনস্যুরেন্স বিষয়ে ধারণা দেন, এনওআই ইনস্যুরেন্সের প্রেসিডেন্ট ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ নেওয়াজ। ওই সেমিনারের আয়োজন করে বেরি সিলভার ল ফার্ম।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X