শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৮:০৯
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, January 6, 2017 1:46 pm
A- A A+ Print

বাংলাদেশে ফের ভ্রমণ সতর্কতা বৃটেনের

47887_uk

ফের বাংলাদেশে ভ্রমণ সতর্কতা দিয়েছে বৃটিশ সরকার। ঢাকায় অনুষ্ঠেয় বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে দেশটির নাগরিকদের সতর্ক হয়ে চলতে বলা হয়েছে। বলা হয়েছে, এখনও আল কায়েদা ইন দ্য ইন্ডিয়ান সাব-কন্টিনেন্ট (একিউআইএস)-এর সঙ্গে সম্পৃক্ত গ্রুপগুলো এখনও সক্রিয়। এর আগের সন্ত্রাসী হামলাগুলোর প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের নিরাপত্তা রক্ষাকারীরা রয়েছে উচ্চ সতর্কতায়। ৫ই জানুয়ারি বৃটিশ সরকারের ওয়েবসাইটে এক সতর্কবার্তায় এসব কথা বলা হয়েছে। এতে বলা হয়, ১৩ থেকে ১৫ই জানুয়ারি এবং ২০ থেকে ২২শে জানুয়ারি দু’দফায় টঙ্গির তুরাগ নদীর পাড়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বিশ্ব ইজতেমা। এ সময় ইজতেমায় যোগ দেয়া মানুষের ব্যাপক চাপ থাকতে পারে প্রায় সব সড়কে। মহাখালি, কাকলি, নিকুঞ্জ, বিশ্বরোড, খিলখেত, উত্তরা ও টঙ্গিতে। ঢাকায় শাহজালাল (র.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাওয়া-আসা বিঘিœত হতে পারে। ওই সতর্কবার্তা আরও বলা হয়েছে, ২০১৬ সালের ১লা জুলাই ঢাকায় সন্ত্রাসী হামলা হয়। এতে ২০ জিম্মি ও ২ পুলিশ কর্মকর্তাকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনার প্রেক্ষিতে বৃটিশ নাগরিকদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। তাদেরকে আরও বলা হয়েছে, স্থানীয় মিডিয়া অনুসরণ করে চলাচল করতে। সুনির্দিষ্ট কিছু এলাকা, যার বিষয়ে স্থানীয় নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষ বিশেষ পরামর্শ দিয়েছেন বা দেবেন তা এড়িয়ে চলা উচিত। বৃটিশ সরকারের ওই সতর্কবার্তায় আরও বলা হয়েছে, ১লা জুলাই সন্ত্রাসী হামলার দায় স্বীকার করেছে দায়েশ বা আইসিল। তারা ২০০৫ সালের সেপ্টেম্বর থেকে বেশ কিছু সন্ত্রাসী হামলার দায় স্বীকার করেছে। ইসলামের সঙ্গে সাংঘর্ষিক এমন জীবনধারায় বিশ্বাসী এমন অনেক মানুষকে হত্যার দায় স্বীকার করেছে তারা। সাম্প্রতিক হামলাগুলোর প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের নিরাপত্তা রক্ষাকারীরা রয়েছে উচ্চ সতর্ক। আরও সন্ত্রাসী হামলার উচ্চ মাত্রার ঝুঁকি রয়েছে। বিশেষ করে বিদেশীদের টার্গেট করে হামলা হতে পারে। যেসব স্থানে পশ্চিমারা সমবেতন হন এমন লোকজনে পূর্ণ এলাকা রয়েছে হামলার উচ্চ ঝুঁকিতে। এসব এলাকায় সর্বনি¤œ পর্যায়ে বৃটিশ নাগরিকদের উপস্থিতি জানান দিতে বলা হয়েছে। চলাচল করতে বলা হয়েছে সতর্কতার সঙ্গে। আগেভাগে নিতে বলা হয়েছে নিরাপত্তা বিষয়ক সতর্কতা। ঢাকায় আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তা বিষয়ে মূল্যায়ন প্রকাশ করেছে ইউকে ডিপার্টমেন্ট ফর ট্রান্সপোর্ট। এরপর বলা হয়েছে, ঢাকা বিমনান্দরেরর নিরাপত্তার মান আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন নয়। যাতে এসব মান নিশ্চিত করা যায় সে জন্য বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সহযোগিতামুলক কাজ করছে বৃটিশ সরকার।

Comments

Comments!

 বাংলাদেশে ফের ভ্রমণ সতর্কতা বৃটেনেরAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

বাংলাদেশে ফের ভ্রমণ সতর্কতা বৃটেনের

Friday, January 6, 2017 1:46 pm
47887_uk

ফের বাংলাদেশে ভ্রমণ সতর্কতা দিয়েছে বৃটিশ সরকার। ঢাকায় অনুষ্ঠেয় বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে দেশটির নাগরিকদের সতর্ক হয়ে চলতে বলা হয়েছে। বলা হয়েছে, এখনও আল কায়েদা ইন দ্য ইন্ডিয়ান সাব-কন্টিনেন্ট (একিউআইএস)-এর সঙ্গে সম্পৃক্ত গ্রুপগুলো এখনও সক্রিয়। এর আগের সন্ত্রাসী হামলাগুলোর প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের নিরাপত্তা রক্ষাকারীরা রয়েছে উচ্চ সতর্কতায়। ৫ই জানুয়ারি বৃটিশ সরকারের ওয়েবসাইটে এক সতর্কবার্তায় এসব কথা বলা হয়েছে। এতে বলা হয়, ১৩ থেকে ১৫ই জানুয়ারি এবং ২০ থেকে ২২শে জানুয়ারি দু’দফায় টঙ্গির তুরাগ নদীর পাড়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বিশ্ব ইজতেমা। এ সময় ইজতেমায় যোগ দেয়া মানুষের ব্যাপক চাপ থাকতে পারে প্রায় সব সড়কে। মহাখালি, কাকলি, নিকুঞ্জ, বিশ্বরোড, খিলখেত, উত্তরা ও টঙ্গিতে। ঢাকায় শাহজালাল (র.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাওয়া-আসা বিঘিœত হতে পারে। ওই সতর্কবার্তা আরও বলা হয়েছে, ২০১৬ সালের ১লা জুলাই ঢাকায় সন্ত্রাসী হামলা হয়। এতে ২০ জিম্মি ও ২ পুলিশ কর্মকর্তাকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনার প্রেক্ষিতে বৃটিশ নাগরিকদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। তাদেরকে আরও বলা হয়েছে, স্থানীয় মিডিয়া অনুসরণ করে চলাচল করতে। সুনির্দিষ্ট কিছু এলাকা, যার বিষয়ে স্থানীয় নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষ বিশেষ পরামর্শ দিয়েছেন বা দেবেন তা এড়িয়ে চলা উচিত। বৃটিশ সরকারের ওই সতর্কবার্তায় আরও বলা হয়েছে, ১লা জুলাই সন্ত্রাসী হামলার দায় স্বীকার করেছে দায়েশ বা আইসিল। তারা ২০০৫ সালের সেপ্টেম্বর থেকে বেশ কিছু সন্ত্রাসী হামলার দায় স্বীকার করেছে। ইসলামের সঙ্গে সাংঘর্ষিক এমন জীবনধারায় বিশ্বাসী এমন অনেক মানুষকে হত্যার দায় স্বীকার করেছে তারা। সাম্প্রতিক হামলাগুলোর প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের নিরাপত্তা রক্ষাকারীরা রয়েছে উচ্চ সতর্ক। আরও সন্ত্রাসী হামলার উচ্চ মাত্রার ঝুঁকি রয়েছে। বিশেষ করে বিদেশীদের টার্গেট করে হামলা হতে পারে। যেসব স্থানে পশ্চিমারা সমবেতন হন এমন লোকজনে পূর্ণ এলাকা রয়েছে হামলার উচ্চ ঝুঁকিতে। এসব এলাকায় সর্বনি¤œ পর্যায়ে বৃটিশ নাগরিকদের উপস্থিতি জানান দিতে বলা হয়েছে। চলাচল করতে বলা হয়েছে সতর্কতার সঙ্গে। আগেভাগে নিতে বলা হয়েছে নিরাপত্তা বিষয়ক সতর্কতা। ঢাকায় আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তা বিষয়ে মূল্যায়ন প্রকাশ করেছে ইউকে ডিপার্টমেন্ট ফর ট্রান্সপোর্ট। এরপর বলা হয়েছে, ঢাকা বিমনান্দরেরর নিরাপত্তার মান আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন নয়। যাতে এসব মান নিশ্চিত করা যায় সে জন্য বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সহযোগিতামুলক কাজ করছে বৃটিশ সরকার।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X