সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ২:০৩
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, May 5, 2017 11:13 am
A- A A+ Print

‘বাংলাদেশ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে ভারতকেও টেক্কা দেবে’

9

অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে বাংলাদেশ ভারতকেও টেক্কা দেবে বলে আশা ব্যক্ত করেছেন এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট তাকিহিকা নাকাও। বৃহস্পতিবার এডিবির বার্ষিক সভার উদ্বোধনী সংবাদ সম্মেলনে এমন উচ্চাশার কথা শুনিয়েছেন তিনি। এ ছাড়া সদস্য দেশে দায়মুক্তি থাকার পরও ক্ষেত্র বিশেষে নানাভাবে এডিবির কর্মকাণ্ড নিয়ে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে, কাজেই এডিবির কার্যকর দায়মুক্তিও চেয়েছেন তিনি। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) ৫০তম বার্ষিক সম্মেলনে বাংলাদেশের ১৪ সদস্যের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। জাপানের শিল্পনগরী ইয়োকোহামায় ৪ মে শুরু হয় এ সম্মেলন। চলবে ৭ মে পর্যন্ত। এবারের সম্মেলনে যোগ দিতে এডিবির সদস্য দেশগুলো থেকে প্রায় ৩ হাজার প্রতিনিধি জাপানে উপস্থিত হয়েছেন। অর্থমন্ত্রী ব্যাংক অব জাপানের গভর্নর হারুহিকো কুরোডা এবং জাইকার প্রেসিডেন্ট সিনিচি কিটাওকার সঙ্গে বৈঠক করেন। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন অর্থমন্ত্রী। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক দিক থেকে শক্ত অবস্থানে পৌঁছাচ্ছে। আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্বজুড়ে অতি দারিদ্র্য দূর করার যে কর্মপরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে বাংলাদেশও তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে কাজ করছে। আশা করছি, আমরা তাতে সফল হবো। বাংলাদেশ থেকে অতি দারিদ্র্য দূর হবে। তিনি বলেন, এডিবির সঙ্গে চলমান সুসম্পর্ক বজায় রাখাই তার মূল উদ্দেশ্য। ৬০ এর দশকের শুরুতেই আঞ্চলিক উন্নয়ন ব্যাংক হিসেবে এডিবি প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেওয়া হয়। ১৯৬৫ সালে ম্যানিলায় সদর দপ্তর স্থাপনের মধ্য দিয়ে কার্যক্রম শুরু হয় সংস্থাটির। বর্তমানে এর সদস্য সংখ্যা ৬৭। চীনের নেতৃত্বে এশিয়ায় আরো একটি উন্নয়ন ব্যাংক চালু হয়েছে, তবে প্রতিদ্বন্দ্বী না হয়ে নতুন ব্যাংকটিকে সহযাত্রী হিসেবেই দেখছে এডিবি। এডিবির প্রেসিডেন্ট তাকিহিকো নাকাও বলেন, ভারতকে বলা হয় দক্ষিণ এশিয়ার গ্রোথ চ্যাম্পিয়ন, এটা বাংলাদেশ হয়ে যাবে। প্রবৃদ্ধি সঞ্চারি প্রকল্পে এডিবির বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা পালনের কথা জানান বহুজাতিক সংস্থাটিতে বাংলাদেশের বিকল্প নির্বাহী পরিচালক মাহবুব আহমেদ।

Comments

Comments!

 ‘বাংলাদেশ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে ভারতকেও টেক্কা দেবে’AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

‘বাংলাদেশ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে ভারতকেও টেক্কা দেবে’

Friday, May 5, 2017 11:13 am
9

অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে বাংলাদেশ ভারতকেও টেক্কা দেবে বলে আশা ব্যক্ত করেছেন এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট তাকিহিকা নাকাও।

বৃহস্পতিবার এডিবির বার্ষিক সভার উদ্বোধনী সংবাদ সম্মেলনে এমন উচ্চাশার কথা শুনিয়েছেন তিনি।

এ ছাড়া সদস্য দেশে দায়মুক্তি থাকার পরও ক্ষেত্র বিশেষে নানাভাবে এডিবির কর্মকাণ্ড নিয়ে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে, কাজেই এডিবির কার্যকর দায়মুক্তিও চেয়েছেন তিনি।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) ৫০তম বার্ষিক সম্মেলনে বাংলাদেশের ১৪ সদস্যের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

জাপানের শিল্পনগরী ইয়োকোহামায় ৪ মে শুরু হয় এ সম্মেলন। চলবে ৭ মে পর্যন্ত। এবারের সম্মেলনে যোগ দিতে এডিবির সদস্য দেশগুলো থেকে প্রায় ৩ হাজার প্রতিনিধি জাপানে উপস্থিত হয়েছেন।

অর্থমন্ত্রী ব্যাংক অব জাপানের গভর্নর হারুহিকো কুরোডা এবং জাইকার প্রেসিডেন্ট সিনিচি কিটাওকার সঙ্গে বৈঠক করেন। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন অর্থমন্ত্রী।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক দিক থেকে শক্ত অবস্থানে পৌঁছাচ্ছে। আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্বজুড়ে অতি দারিদ্র্য দূর করার যে কর্মপরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে বাংলাদেশও তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে কাজ করছে। আশা করছি, আমরা তাতে সফল হবো। বাংলাদেশ থেকে অতি দারিদ্র্য দূর হবে।

তিনি বলেন, এডিবির সঙ্গে চলমান সুসম্পর্ক বজায় রাখাই তার মূল উদ্দেশ্য।

৬০ এর দশকের শুরুতেই আঞ্চলিক উন্নয়ন ব্যাংক হিসেবে এডিবি প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেওয়া হয়। ১৯৬৫ সালে ম্যানিলায় সদর দপ্তর স্থাপনের মধ্য দিয়ে কার্যক্রম শুরু হয় সংস্থাটির। বর্তমানে এর সদস্য সংখ্যা ৬৭। চীনের নেতৃত্বে এশিয়ায় আরো একটি উন্নয়ন ব্যাংক চালু হয়েছে, তবে প্রতিদ্বন্দ্বী না হয়ে নতুন ব্যাংকটিকে সহযাত্রী হিসেবেই দেখছে এডিবি।

এডিবির প্রেসিডেন্ট তাকিহিকো নাকাও বলেন, ভারতকে বলা হয় দক্ষিণ এশিয়ার গ্রোথ চ্যাম্পিয়ন, এটা বাংলাদেশ হয়ে যাবে।

প্রবৃদ্ধি সঞ্চারি প্রকল্পে এডিবির বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা পালনের কথা জানান বহুজাতিক সংস্থাটিতে বাংলাদেশের বিকল্প নির্বাহী পরিচালক মাহবুব আহমেদ।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X