শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৪:১৪
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Wednesday, January 4, 2017 4:31 pm
A- A A+ Print

বাঙালি সম্পর্কে আপত্তিকর শব্দ : গাইবান্ধার এসপিকে ফের আদালতে হাজিরের নির্দেশ

%e0%a7%a7%e0%a7%a9

একটি প্রতিবেদনে বাঙালি সম্পর্কে আপত্তিকর শব্দ ব্যবহারের ঘটনায় গাইবান্ধার পুলিশ সুপার (এসপি) মো. আশরাফুল আলমকে আবারো হাইকোর্টে হাজিরের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আগামী ৮ জানুয়ারি গাইবান্ধার এসপিকে হাজির হতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আজ বুধবার  বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন। এর আগে হাইকোর্টের এই বেঞ্চের তলবের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২ জানুয়ারি আদালতে হাজির হয়েছিলেন এসপি মো. আশরাফুল আলম। তবে সেদিন একজন বিচারপতির মৃত্যুতে সুপ্রিম কোর্টের উভয় বিভাগে ছুটি ঘোষণা করা হয়েছিল। তাই তিনি আদালতে উপস্থিত হওয়ার বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের মাধ্যমে আদালতকে বিষয়টি অবহিত করেন। রেজিস্ট্রার জেনারেল বরাবর করা আবেদনে পুলিশ সুপার বলেন, ‘গত ১২ ডিসেম্বর তারিখের আদেশ মোতাবেক আমি অদ্য ২ জানুয়ারি সকাল সাড়ে ১০টায় অত্র আদালতে স্বশরীরে উপস্থিত আছি। অতএব, মহোদয় সমীপে নিবেদন, আমার অদ্য তারিখে মহামান্য আদালতে স্বশরীরে উপস্থিত থাকার বিষয়টি মহোদয়ের অবগতির জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্ত বিনীত অনুরোধ করছি।’ মো. আশরাফুল আলমের এই লিখিত বক্তব্য আজ আদালতে উপস্থাপন করা হলে আগামী ৮ জানুয়ারি আবারও তাঁকে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। অবকাশের পর হাইকোর্টের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথের বেঞ্চকে রিটের পরিবর্তে ফৌজদারি মামলা শুনানির এখতিয়ার দেওয়া হয়েছে। তবে এখতিয়ার পরিবর্তন সত্ত্বেও এই মামলাটি প্রধান বিচারপতি এই বেঞ্চকে শুনানি গ্রহণের জন্য অনুমতি দিয়েছেন। গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে চিনিকলের জমিতে আখ কাটা নিয়ে সংঘর্ষের জেরে সাঁওতালদের ওপর হামলার ঘটনায় বর্তমানে দুটি রিটের ওপর শুনানি চলছে। এসব রিটের শুনানিতে সংঘর্ষের ঘটনা নিয়ে দাখিল করা এক প্রতিবেদনে বাঙালি শব্দের আগে ‘দুষ্কৃতকারী’ শব্দটি ব্যবহার করেন গাইবান্ধার জেলা প্রশাসক (ডিসি)। এর পরিপ্রেক্ষিতে তাঁকে আদালতে তলব করা হয়। গত ১২ ডিসেম্বর জেলা প্রশাসক আদালতে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে রেহাই পান। তবে এ সময় আদালতকে তিনি জানান যে, পুলিশের দেওয়া এক প্রতিবেদনের ভিত্তিতেই তিনি এইটি শব্দ ব্যবহার করেছেন। এ কারণে সেদিনই গাইবান্ধার পুলিশ সুপারকে তলব করেন হাইকোর্ট। গত ৬ নভেম্বর গোবিন্দগঞ্জে রংপুর চিনিকলের জমিতে আখ কাটাকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারীদের সঙ্গে সাঁওতালদের সংঘর্ষ হয়। এতে তিন সাঁওতালের মৃত্যু হয়। পুলিশসহ উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হন। সেই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে আদালতে মোট তিনটি রিট দায়ের করা হয়। সেসব রিটের পরিপ্রেক্ষিতেই গত ১৭ নভেম্বর সাঁওতালদের ধান কাটার সুযোগ দিতে অথবা ধান কেটে সাঁওতালদের বুঝিয়ে দিতে চিনিকল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে সাঁওতালদের অবাধে চলাফেরার অধিকার নিশ্চিতে নির্দেশ দেওয়া হয়।

Comments

Comments!

 বাঙালি সম্পর্কে আপত্তিকর শব্দ : গাইবান্ধার এসপিকে ফের আদালতে হাজিরের নির্দেশAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

বাঙালি সম্পর্কে আপত্তিকর শব্দ : গাইবান্ধার এসপিকে ফের আদালতে হাজিরের নির্দেশ

Wednesday, January 4, 2017 4:31 pm
%e0%a7%a7%e0%a7%a9

একটি প্রতিবেদনে বাঙালি সম্পর্কে আপত্তিকর শব্দ ব্যবহারের ঘটনায় গাইবান্ধার পুলিশ সুপার (এসপি) মো. আশরাফুল আলমকে আবারো হাইকোর্টে হাজিরের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আগামী ৮ জানুয়ারি গাইবান্ধার এসপিকে হাজির হতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আজ বুধবার  বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

এর আগে হাইকোর্টের এই বেঞ্চের তলবের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২ জানুয়ারি আদালতে হাজির হয়েছিলেন এসপি মো. আশরাফুল আলম। তবে সেদিন একজন বিচারপতির মৃত্যুতে সুপ্রিম কোর্টের উভয় বিভাগে ছুটি ঘোষণা করা হয়েছিল। তাই তিনি আদালতে উপস্থিত হওয়ার বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের মাধ্যমে আদালতকে বিষয়টি অবহিত করেন।

রেজিস্ট্রার জেনারেল বরাবর করা আবেদনে পুলিশ সুপার বলেন, ‘গত ১২ ডিসেম্বর তারিখের আদেশ মোতাবেক আমি অদ্য ২ জানুয়ারি সকাল সাড়ে ১০টায় অত্র আদালতে স্বশরীরে উপস্থিত আছি। অতএব, মহোদয় সমীপে নিবেদন, আমার অদ্য তারিখে মহামান্য আদালতে স্বশরীরে উপস্থিত থাকার বিষয়টি মহোদয়ের অবগতির জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্ত বিনীত অনুরোধ করছি।’

মো. আশরাফুল আলমের এই লিখিত বক্তব্য আজ আদালতে উপস্থাপন করা হলে আগামী ৮ জানুয়ারি আবারও তাঁকে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

অবকাশের পর হাইকোর্টের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথের বেঞ্চকে রিটের পরিবর্তে ফৌজদারি মামলা শুনানির এখতিয়ার দেওয়া হয়েছে। তবে এখতিয়ার পরিবর্তন সত্ত্বেও এই মামলাটি প্রধান বিচারপতি এই বেঞ্চকে শুনানি গ্রহণের জন্য অনুমতি দিয়েছেন।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে চিনিকলের জমিতে আখ কাটা নিয়ে সংঘর্ষের জেরে সাঁওতালদের ওপর হামলার ঘটনায় বর্তমানে দুটি রিটের ওপর শুনানি চলছে। এসব রিটের শুনানিতে সংঘর্ষের ঘটনা নিয়ে দাখিল করা এক প্রতিবেদনে বাঙালি শব্দের আগে ‘দুষ্কৃতকারী’ শব্দটি ব্যবহার করেন গাইবান্ধার জেলা প্রশাসক (ডিসি)। এর পরিপ্রেক্ষিতে তাঁকে আদালতে তলব করা হয়। গত ১২ ডিসেম্বর জেলা প্রশাসক আদালতে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে রেহাই পান। তবে এ সময় আদালতকে তিনি জানান যে, পুলিশের দেওয়া এক প্রতিবেদনের ভিত্তিতেই তিনি এইটি শব্দ ব্যবহার করেছেন। এ কারণে সেদিনই গাইবান্ধার পুলিশ সুপারকে তলব করেন হাইকোর্ট।

গত ৬ নভেম্বর গোবিন্দগঞ্জে রংপুর চিনিকলের জমিতে আখ কাটাকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারীদের সঙ্গে সাঁওতালদের সংঘর্ষ হয়। এতে তিন সাঁওতালের মৃত্যু হয়। পুলিশসহ উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হন।

সেই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে আদালতে মোট তিনটি রিট দায়ের করা হয়। সেসব রিটের পরিপ্রেক্ষিতেই গত ১৭ নভেম্বর সাঁওতালদের ধান কাটার সুযোগ দিতে অথবা ধান কেটে সাঁওতালদের বুঝিয়ে দিতে চিনিকল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে সাঁওতালদের অবাধে চলাফেরার অধিকার নিশ্চিতে নির্দেশ দেওয়া হয়।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X