সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১৪ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১:৪০
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, September 9, 2016 1:56 pm
A- A A+ Print

বিপর্যয়ের কবলে মার্কিন কূটনীতি

8

ওয়াশিংটন: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট কোনো দেশ সফরে গেলে তাদেরকে সাধারণত রাজকীয় কায়দায় অর্ভ্যথনা জানানো হয়। তারা যেকোনো দেশ সফরে গেলে, সেখানে স্বাভাবিকভাবেই হূলস্থূল অবস্থার সৃষ্টি হয়। কিন্তু মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এবারের এশিয়া সফরে ভিন্নরকম অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছেন। তার এবারের এশিয়া সফরে এমন কিছু তিক্ত অভিজ্ঞতা হয়েছে যা কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্টের ক্ষেত্রে বিরল। জি-২০ সম্মেলনে অংশ নিতে ওবামা গত সপ্তাহে চীনে গেলে তাকে লাল-গালিচা সংবর্ধনা দেয়া হয়নি। এটি সাধারণত অকূটনৈতিক আচরণ বলে বিবেচনা করা হয়। ওই সম্মেলনে আগত অন্য দেশের নেতাদের প্রথা অনুযায়ী লাল গালিচা সংবর্ধনা দেয়া হলেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ওবামাকে এ সম্মাননা দেয়া হয়নি। এ নিয়ে বিমানবন্দরে প্রকাশ্যেই চীনা ও মার্কিন কর্মকর্তারা বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। অন্যদিকে, আপত্তিকর, অশ্লীল ও অবমাননাকর মন্তব্য করায় ফিলিপাইনের বহু বিতর্কিত প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো ডুটেরটের সঙ্গে বৈঠক বাতিল করেছেন ওবামা।হোয়াইট হাউজ এক বিবৃতিতে বলেছে,বারাক ওবামাকে ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট ডুটেরটে ‘সান অব এ বিচ’ বলে গালি দিয়েছেন। যার বাংলা অর্থ ভীষণ অশ্লীল শোনায়। ওই গালি দেয়ার কারণে প্রেসিডেন্ট ওবামা পূর্ব নির্ধারিত ওই বৈঠক বাতিল করেছেন। এ দু’টি অভিজ্ঞতা ওবামার এবারের এশিয়া সফরের কূটনৈতিক অর্জনকে ম্লান করে দিয়েছে। অবশ্য চলতি বছরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট কূটনৈতিকভাবে আরো কয়েকটি দেশে অসৌজন্যতা পেয়েছেন। মার্কিন মিত্র বলে কূটনৈতিক মহলে পরিচিত প্রভাবশালী ৩ টি দেশ সফরে গিয়ে ওবামা ও ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন অসৌজন্য মূলক আচরণ পেয়েছেন। দেশ ৩ টি হলো- সৌদি আরব, ইসরাইল ও তুরস্ক। ৯/১১ হামলার জন্য সৌদিকে আর্থিক জরিমানা করা, চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ইরানের ওপর থেকে মার্কিন অবরোধ প্রত্যাহার করা এবং ইরানের সাথে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের পরামর্শ দেয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের ওপর দারুণ চটেছিল সৌদি আরব। এমতাবস্থায় চলতি বছরের এপ্রিলে ওবামা রিয়াদ সফরকালে তাকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানাতে আসেন রিয়াদ শহরের ডেপুটি গভর্ণর। অন্যান্য সময় ওবামাকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানাতে স্বয়ং সৌদি বাদশা ফুল হাতে অপেক্ষা করতেন। তুরস্কে ব্যর্থ অভ্যুথানের পর থেকে ওয়াশিংটন-আঙ্কারা সম্পর্কের চরম অবনতি ঘটে। এই সম্পর্ক মেরামতের লক্ষ্যে গত মাসে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আঙ্কারা সফরে যান। অন্য সময় তাকে স্বাগত জানাতে প্রধানমন্ত্রী বা পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকলেও এবার তাকে স্বাগত জানানোর জন্য বিমানবন্দরে উপস্থিত হয়েছিলেন আঙ্কারার ডেপুটি মেয়র। একইভাবে, ইরানের ওপর থেকে অবরোধ প্রত্যাহার করায় ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু তার পূর্বনির্ধারিত ওয়াশিংটন সফর বাতিল করেন। সেখানে প্রেসিডেন্ট ওবামার সাথে তার বৈঠকে মিলিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু নেতানিয়াহু তার সফর বাতিল করার কথা হোয়াইট হাউজকে না জানিয়ে সংবাদ মাধ্যমকে জানান, যা কূটনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত। শত্রু-মিত্র সকলের নিকট থেকে অকূটনৈতিক আচরণ পেয়ে বিশ্ব রাজনীতিতে নিজেদের অবস্থানের ব্যাপারে নতুন করে ভাবতে হচ্ছে মার্কিন থিংকট্যাঙ্কদের। এখন দেখার বিষয় নিজেদের অবস্থান ফিরে পেতে কি পদক্ষেপ গ্রহণ করে মার্কিন সরকার। সূত্র: সিএনএন

Comments

Comments!

 বিপর্যয়ের কবলে মার্কিন কূটনীতিAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

বিপর্যয়ের কবলে মার্কিন কূটনীতি

Friday, September 9, 2016 1:56 pm
8

ওয়াশিংটন: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট কোনো দেশ সফরে গেলে তাদেরকে সাধারণত রাজকীয় কায়দায় অর্ভ্যথনা জানানো হয়। তারা যেকোনো দেশ সফরে গেলে, সেখানে স্বাভাবিকভাবেই হূলস্থূল অবস্থার সৃষ্টি হয়।

কিন্তু মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এবারের এশিয়া সফরে ভিন্নরকম অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছেন। তার এবারের এশিয়া সফরে এমন কিছু তিক্ত অভিজ্ঞতা হয়েছে যা কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্টের ক্ষেত্রে বিরল।

জি-২০ সম্মেলনে অংশ নিতে ওবামা গত সপ্তাহে চীনে গেলে তাকে লাল-গালিচা সংবর্ধনা দেয়া হয়নি। এটি সাধারণত অকূটনৈতিক আচরণ বলে বিবেচনা করা হয়।

ওই সম্মেলনে আগত অন্য দেশের নেতাদের প্রথা অনুযায়ী লাল গালিচা সংবর্ধনা দেয়া হলেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ওবামাকে এ সম্মাননা দেয়া হয়নি। এ নিয়ে বিমানবন্দরে প্রকাশ্যেই চীনা ও মার্কিন কর্মকর্তারা বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন।

অন্যদিকে, আপত্তিকর, অশ্লীল ও অবমাননাকর মন্তব্য করায় ফিলিপাইনের বহু বিতর্কিত প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো ডুটেরটের সঙ্গে বৈঠক বাতিল করেছেন ওবামা।হোয়াইট হাউজ এক বিবৃতিতে বলেছে,বারাক ওবামাকে ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট ডুটেরটে ‘সান অব এ বিচ’ বলে গালি দিয়েছেন। যার বাংলা অর্থ ভীষণ অশ্লীল শোনায়। ওই গালি দেয়ার কারণে প্রেসিডেন্ট ওবামা পূর্ব নির্ধারিত ওই বৈঠক বাতিল করেছেন।

এ দু’টি অভিজ্ঞতা ওবামার এবারের এশিয়া সফরের কূটনৈতিক অর্জনকে ম্লান করে দিয়েছে। অবশ্য চলতি বছরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট কূটনৈতিকভাবে আরো কয়েকটি দেশে অসৌজন্যতা পেয়েছেন।

মার্কিন মিত্র বলে কূটনৈতিক মহলে পরিচিত প্রভাবশালী ৩ টি দেশ সফরে গিয়ে ওবামা ও ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন অসৌজন্য মূলক আচরণ পেয়েছেন। দেশ ৩ টি হলো- সৌদি আরব, ইসরাইল ও তুরস্ক।

৯/১১ হামলার জন্য সৌদিকে আর্থিক জরিমানা করা, চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ইরানের ওপর থেকে মার্কিন অবরোধ প্রত্যাহার করা এবং ইরানের সাথে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের পরামর্শ দেয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের ওপর দারুণ চটেছিল সৌদি আরব।

এমতাবস্থায় চলতি বছরের এপ্রিলে ওবামা রিয়াদ সফরকালে তাকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানাতে আসেন রিয়াদ শহরের ডেপুটি গভর্ণর। অন্যান্য সময় ওবামাকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানাতে স্বয়ং সৌদি বাদশা ফুল হাতে অপেক্ষা করতেন।

তুরস্কে ব্যর্থ অভ্যুথানের পর থেকে ওয়াশিংটন-আঙ্কারা সম্পর্কের চরম অবনতি ঘটে। এই সম্পর্ক মেরামতের লক্ষ্যে গত মাসে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আঙ্কারা সফরে যান।

অন্য সময় তাকে স্বাগত জানাতে প্রধানমন্ত্রী বা পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকলেও এবার তাকে স্বাগত জানানোর জন্য বিমানবন্দরে উপস্থিত হয়েছিলেন আঙ্কারার ডেপুটি মেয়র।

একইভাবে, ইরানের ওপর থেকে অবরোধ প্রত্যাহার করায় ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু তার পূর্বনির্ধারিত ওয়াশিংটন সফর বাতিল করেন। সেখানে প্রেসিডেন্ট ওবামার সাথে তার বৈঠকে মিলিত হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু নেতানিয়াহু তার সফর বাতিল করার কথা হোয়াইট হাউজকে না জানিয়ে সংবাদ মাধ্যমকে জানান, যা কূটনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত।

শত্রু-মিত্র সকলের নিকট থেকে অকূটনৈতিক আচরণ পেয়ে বিশ্ব রাজনীতিতে নিজেদের অবস্থানের ব্যাপারে নতুন করে ভাবতে হচ্ছে মার্কিন থিংকট্যাঙ্কদের। এখন দেখার বিষয় নিজেদের অবস্থান ফিরে পেতে কি পদক্ষেপ গ্রহণ করে মার্কিন সরকার।

সূত্র: সিএনএন

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X