মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৫:২১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, January 28, 2017 8:58 am
A- A A+ Print

বিয়ের দাবিতে প্রেমিক চেয়ারম্যানের বাড়িতে গিয়ে রক্তাক্ত প্রেমিকা

6

লক্ষীপুর: বিয়ের দাবিতে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দিঘলী ইউপি চেয়ারম্যান শেখ মজিবুর রহমানের বাড়িতে গিয়ে রক্তাক্ত হলেন প্রেমিকা ফাতেমাতুজ জোহরা নিলু। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। ২৫ জানুয়ারী বুধবার সকালে প্রেমিক চেয়ারম্যান শেখ মজিবুর রহমানের বাড়িতে ঘটনাটি ঘটে। বিচারের দাবিতে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন প্রেমিকা নিলু ও তার পরিবার। অপরদিকে চেয়ারম্যানের লেলিয়ে দেয়া ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের ভয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন প্রেমিকা ও তারা পরিবার। জানা যায়, দিঘলী ইউনিয়নের পশ্চিম দিঘলী গ্রামের পাঠান বাড়ির মৃত শামসুল হক খাঁনের পুত্র শেখ মজিবুর রহমানের সাথে একই ইউনিয়নের পূর্ব দিঘলী গ্রামের নুরুল আমিনের মেয়ে ফাতেমাতুজ জোহরা নিলুর মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ২০০৩ সাল থেকে। ভালোবাসার সূত্র ধরে দু’জনে অনেক কাছাকাছি আসলেও জীবনটাকে ঘুঁচিয়ে নিয়ে নিলুকে বিয়ে করার আশ্বাস দেয় প্রেমিক শেখ মজিব। পরবর্তীতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের জেলা সম্মেলন এবং ইউপি নির্বাচনের দোহাই দিয়ে বিয়ে করতে কালক্ষেপণের আশ্রয় নেয় মজিব। এ দিকে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে নিলুর পরিবারের কাছ থেকে ২০ লক্ষ টাকা হাওলাত নেন শেখ মজিব। মূলত নিলুর টাকা দিয়েই নির্বাচনী প্রচারণা শেষ করেন শেখ মজিব। ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে জয়লাভের পর মজিব এবার বোল পাল্টে নিলুর সাথে প্রতারণার আশ্রয় নেয়। চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে নিজেকে অনেক ক্ষমতাবান মনে করতে শুরু করেন শেখ মজিব। প্রেমিকা ফাতেমাতুজ জোহরা নিলু ও তার পরিবার জানায়, গত ২৪ জানুয়ারী ঢাকা থেকে বাড়িতে আসেন নিলু। পরদিন (২৫ জানুয়ারী) বুধবার মা ও ভাইদের সাথে পরিচয় করে দেওয়ার কথা বলে নিলুকে তার বাড়িতে ডেকে নেন চেয়ারম্যান মজিব। ওইদিন সকালে নিলু শেখ মজিবের বাড়িতে গেলে তার ভাই ফারুক নিলুকে দেখেই গালমন্দ শুরু করেন। এ সময় শেখ মজিব বলেন, আমি তাকে খবর দিই নাই। নিলু প্রতিবাদ করলে শেখ মজিব তার বাড়ি ত্যাগ করার জন্য প্রেমিকা নিলুকে নির্দেশ দেয়। এতে নিলু বিয়ের দাবিতে শক্ত অবস্থান নিলে শেখ মজিব নিলুকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেন এবং তাকে শারীরিকভাবে নির্যাতন চালান। একপর্যায়ে শেখ মজিবের ভাই এলাকায় সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত ফারুক তার হাতে থাকা রড দিয়ে নিলুর মাথায় আঘাত করলে তার মাথা ফেটে যায় এবং সে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। পরে নিলুকে সিএনজিযোগে স্থানীয় দিঘলী বাজারে একটি ফার্মেসীতে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয় তার স্বজনরা। পরে নিলুর শারীরিক অবস্থা খারাপ হতে থাকলে তাকে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি ঘটলে নিলুকে নোয়াখালী সরকারি হাসপাতালে রেফার করা হয়। বর্তমানে নিলু নোয়াখালীর ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ দিকে ঘটনার পর থেকে নিলুকে নষ্টা মেয়ে হিসেবে চিহ্নিত করতে বিভিন্ন ধরণের কল্পকাহিনী সাজাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন চেয়ারম্যান শেখ মজিব ও তার লোকজন। অন্যদিকে ভালোবাসার মানুষের সাথে একের পর এক প্রতারণা ও শেষ পর্যন্ত প্রেমিকা নিলুকে রক্তাক্ত জখম করার ঘটনায় ক্ষোভে ফুসে ওঠেছেন এলাকাবাসী।
 

Comments

Comments!

 বিয়ের দাবিতে প্রেমিক চেয়ারম্যানের বাড়িতে গিয়ে রক্তাক্ত প্রেমিকাAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

বিয়ের দাবিতে প্রেমিক চেয়ারম্যানের বাড়িতে গিয়ে রক্তাক্ত প্রেমিকা

Saturday, January 28, 2017 8:58 am
6

লক্ষীপুর: বিয়ের দাবিতে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দিঘলী ইউপি চেয়ারম্যান শেখ মজিবুর রহমানের বাড়িতে গিয়ে রক্তাক্ত হলেন প্রেমিকা ফাতেমাতুজ জোহরা নিলু। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

২৫ জানুয়ারী বুধবার সকালে প্রেমিক চেয়ারম্যান শেখ মজিবুর রহমানের বাড়িতে ঘটনাটি ঘটে।

বিচারের দাবিতে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন প্রেমিকা নিলু ও তার পরিবার। অপরদিকে চেয়ারম্যানের লেলিয়ে দেয়া ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের ভয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন প্রেমিকা ও তারা পরিবার।

জানা যায়, দিঘলী ইউনিয়নের পশ্চিম দিঘলী গ্রামের পাঠান বাড়ির মৃত শামসুল হক খাঁনের পুত্র শেখ মজিবুর রহমানের সাথে একই ইউনিয়নের পূর্ব দিঘলী গ্রামের নুরুল আমিনের মেয়ে ফাতেমাতুজ জোহরা নিলুর মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ২০০৩ সাল থেকে।

ভালোবাসার সূত্র ধরে দু’জনে অনেক কাছাকাছি আসলেও জীবনটাকে ঘুঁচিয়ে নিয়ে নিলুকে বিয়ে করার আশ্বাস দেয় প্রেমিক শেখ মজিব। পরবর্তীতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের জেলা সম্মেলন এবং ইউপি নির্বাচনের দোহাই দিয়ে বিয়ে করতে কালক্ষেপণের আশ্রয় নেয় মজিব।

এ দিকে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে নিলুর পরিবারের কাছ থেকে ২০ লক্ষ টাকা হাওলাত নেন শেখ মজিব। মূলত নিলুর টাকা দিয়েই নির্বাচনী প্রচারণা শেষ করেন শেখ মজিব। ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে জয়লাভের পর মজিব এবার বোল পাল্টে নিলুর সাথে প্রতারণার আশ্রয় নেয়। চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে নিজেকে অনেক ক্ষমতাবান মনে করতে শুরু করেন শেখ মজিব।

প্রেমিকা ফাতেমাতুজ জোহরা নিলু ও তার পরিবার জানায়, গত ২৪ জানুয়ারী ঢাকা থেকে বাড়িতে আসেন নিলু। পরদিন (২৫ জানুয়ারী) বুধবার মা ও ভাইদের সাথে পরিচয় করে দেওয়ার কথা বলে নিলুকে তার বাড়িতে ডেকে নেন চেয়ারম্যান মজিব।

ওইদিন সকালে নিলু শেখ মজিবের বাড়িতে গেলে তার ভাই ফারুক নিলুকে দেখেই গালমন্দ শুরু করেন। এ সময় শেখ মজিব বলেন, আমি তাকে খবর দিই নাই। নিলু প্রতিবাদ করলে শেখ মজিব তার বাড়ি ত্যাগ করার জন্য প্রেমিকা নিলুকে নির্দেশ দেয়। এতে নিলু বিয়ের দাবিতে শক্ত অবস্থান নিলে শেখ মজিব নিলুকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেন এবং তাকে শারীরিকভাবে নির্যাতন চালান।

একপর্যায়ে শেখ মজিবের ভাই এলাকায় সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত ফারুক তার হাতে থাকা রড দিয়ে নিলুর মাথায় আঘাত করলে তার মাথা ফেটে যায় এবং সে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। পরে নিলুকে সিএনজিযোগে স্থানীয় দিঘলী বাজারে একটি ফার্মেসীতে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয় তার স্বজনরা।

পরে নিলুর শারীরিক অবস্থা খারাপ হতে থাকলে তাকে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি ঘটলে নিলুকে নোয়াখালী সরকারি হাসপাতালে রেফার করা হয়। বর্তমানে নিলু নোয়াখালীর ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ দিকে ঘটনার পর থেকে নিলুকে নষ্টা মেয়ে হিসেবে চিহ্নিত করতে বিভিন্ন ধরণের কল্পকাহিনী সাজাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন চেয়ারম্যান শেখ মজিব ও তার লোকজন।

অন্যদিকে ভালোবাসার মানুষের সাথে একের পর এক প্রতারণা ও শেষ পর্যন্ত প্রেমিকা নিলুকে রক্তাক্ত জখম করার ঘটনায় ক্ষোভে ফুসে ওঠেছেন এলাকাবাসী।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X