সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৯:৫৪
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, November 1, 2016 11:00 am
A- A A+ Print

বীরের বেশে মায়ের কোলে ফিরলেন মিরাজ

158140_1

   
ঢাকা: মেহেদী হাসান মিরাজ নামটা খুলনার কাছে নতুন নয়। এই বছরের শুরুতে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে দেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় হওয়ার পর তারকাখ্যাতিটা বেড়েছিল। কিন্তু কিছুদিন আগে বাড়ি থেকে ঢাকায় গিয়েছিলেন ঘরের তারকা হিসেবেই। সেই মিরাজ সোমবার বাড়ি ফিরলেন দেশের নায়ক হয়ে। জাতীয় বীর হয়ে। ফিরলেন মমতাময়ী মায়ের বুকে।
আরেকটু বাড়িয়ে বললে ফিরলেন আসলে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক টেস্ট বিজয়ের মহানায়ক হিসেবে। খুলনার খালিশপুরের বিআইডিসি সড়কের দক্ষিণ কাশিপুর এলাকায় মেহেদীদের বাস। ওটাকে শিল্প এলাকা বলা হয়। বরিশালে জন্ম। কিন্তু ১৬ বছর ধরে খুলনায় বসবাস। বাবা জালাল হোসেন। পেশায় ছিলেন ড্রাইভার। মা মিনারা বেগম গৃহিণী। ৩ বছরের আদরের ছোট বোন রুমানা আক্তার। ওই কাশিপুরে সাধারণ একটি দো চালা ঘরে মেহেদীদের বসবাস। যেখানে রবিবার বিকেল থেকে চলছে ঈদ আনন্দ! ঈদ মানে তো খুশি। সেই খুশি মেহেদীর বাড়ি ও তার এলাকা থেকে মিলিয়ে যেতে সময় লাগবে। ১৯ বছরের ছেলেটি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট সিরিজের দুই ম্যাচে ১৯ উইকেট নিয়েছেন। ১২৯ বছরের রেকর্ড ভেঙেছেন। দ্বিতীয় টেস্টের তৃতীয় দিনে ইংলিশদের দ্বিতীয় ইনিংস ১৬৪ রান গুঁড়িয়ে দেওয়ার পথে নিয়েছেন ৬ উইকেট। ১০৮ রানের ঐতিহাসিক জয়ের ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় হয়েছেন ম্যাচে ১২ উইকেট নিয়ে। সিরিজের সেরাও তিনি। দুই ম্যাচের সিরিজটা তার কীর্তিতে ১-১ এ ড্র। আন্তর্জাতিক অভিষেকেই যে এমন কীর্তির আর রেকর্ডের মেলা সাজিয়ে বসে সেই মেহেদী তো মহানায়কই! তো খুলনার ছেলেটি সোমবার বাড়ি ফিরে দেখলেন তারই কীর্তিতে পুরো বদলে যাওয়া এলাকাকে। সেখানে তার অপেক্ষায় মানুষ আর মানুষ। এলাকায় ফিরতেই তাকে কাঁধে নিয়ে উন্মাতাল আনন্দ। আনন্দ মিছিল। রবিবার থেকেই তাদের ছোট্ট বাড়ির আঙিনায় বড় বড় মানুষের ঢল। সেই ঢল থামে না। পরিবার ক্লান্তির মাঝেও হাসিমুখে সবাইকে বরণ করেন। আর মেহেদীকে পেয়েই মায়ের বুকটা ভরে ওঠে পুরোপুরি। আনন্দাশ্রু তো মা-বোন-বাবার চোখ থেকে মেহেদীর চোখেও। বীর ছেলে তখন তো আর বিশাল হয়ে ওঠা কেউ না! ও যে সেই ছোট্টোখাট্টো ছেলেমানুষ মিরাজ। এটাই তো তার ডাকনাম। ওটাই ঘরের নাম। ওটাই আদরের ডাক। মিরাজের আগমনে ঘর-বাড়ি-এলাকা আলোকিত হয়ে ওঠে। মেহেদীর আন্তর্জাতিক উত্থানের সাথে মুস্তাফিজুর রহমানের অনেক মিল। গত বছর অভিষেক ওয়ানডে সিরিজে ভারতের বিপক্ষে ৩ ম্যাচে ১৩ উইকেট নিয়েছিলেন কাটার মাস্টার। ২ ম্যাচে ৫ উইকেট। ২ ম্যাচে সেরা খেলোয়াড়। ভারতকে ২-১ এ হারানো সিরিজের সেরা খেলোয়াড়ও হয়েছিলেন। সেই মুস্তাফিজ ইনজুরির কারণে এখন পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায়। সোমবার সকালে মিরপুর স্টেডিয়ামে তার সাথেও দেখা হয় মেহেদীর। মেহেদীর কাঁধে তখন ব্যাগ। বাড়ি ফেরার প্রস্তুতি। দুজন এক সাথে খেলেছেন বয়সভিত্তিক আসরে। ক’দিন পর বাংলাদেশের দুই বিস্ময় জাতীয় দলেও খেলবেন এক সাথে। বাড়ি ফেরার আগে মুস্তাফিজের কাছ থেকে নিশ্চয়ই এই স্টারডমের চাপের ব্যাপারে কিছু টিপস নিয়ে ফিরেছেন মেহেদী!

Comments

Comments!

 বীরের বেশে মায়ের কোলে ফিরলেন মিরাজAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

বীরের বেশে মায়ের কোলে ফিরলেন মিরাজ

Tuesday, November 1, 2016 11:00 am
158140_1

 

 

ঢাকা: মেহেদী হাসান মিরাজ নামটা খুলনার কাছে নতুন নয়। এই বছরের শুরুতে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে দেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন।

টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় হওয়ার পর তারকাখ্যাতিটা বেড়েছিল। কিন্তু কিছুদিন আগে বাড়ি থেকে ঢাকায় গিয়েছিলেন ঘরের তারকা হিসেবেই।

সেই মিরাজ সোমবার বাড়ি ফিরলেন দেশের নায়ক হয়ে। জাতীয় বীর হয়ে। ফিরলেন মমতাময়ী মায়ের বুকে।

আরেকটু বাড়িয়ে বললে ফিরলেন আসলে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক টেস্ট বিজয়ের মহানায়ক হিসেবে।

খুলনার খালিশপুরের বিআইডিসি সড়কের দক্ষিণ কাশিপুর এলাকায় মেহেদীদের বাস। ওটাকে শিল্প এলাকা বলা হয়। বরিশালে জন্ম। কিন্তু ১৬ বছর ধরে খুলনায় বসবাস। বাবা জালাল হোসেন। পেশায় ছিলেন ড্রাইভার। মা মিনারা বেগম গৃহিণী।

৩ বছরের আদরের ছোট বোন রুমানা আক্তার। ওই কাশিপুরে সাধারণ একটি দো চালা ঘরে মেহেদীদের বসবাস। যেখানে রবিবার বিকেল থেকে চলছে ঈদ আনন্দ!

ঈদ মানে তো খুশি। সেই খুশি মেহেদীর বাড়ি ও তার এলাকা থেকে মিলিয়ে যেতে সময় লাগবে। ১৯ বছরের ছেলেটি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট সিরিজের দুই ম্যাচে ১৯ উইকেট নিয়েছেন। ১২৯ বছরের রেকর্ড ভেঙেছেন। দ্বিতীয় টেস্টের তৃতীয় দিনে ইংলিশদের দ্বিতীয় ইনিংস ১৬৪ রান গুঁড়িয়ে দেওয়ার পথে নিয়েছেন ৬ উইকেট।

১০৮ রানের ঐতিহাসিক জয়ের ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় হয়েছেন ম্যাচে ১২ উইকেট নিয়ে। সিরিজের সেরাও তিনি। দুই ম্যাচের সিরিজটা তার কীর্তিতে ১-১ এ ড্র। আন্তর্জাতিক অভিষেকেই যে এমন কীর্তির আর রেকর্ডের মেলা সাজিয়ে বসে সেই মেহেদী তো মহানায়কই!

তো খুলনার ছেলেটি সোমবার বাড়ি ফিরে দেখলেন তারই কীর্তিতে পুরো বদলে যাওয়া এলাকাকে। সেখানে তার অপেক্ষায় মানুষ আর মানুষ। এলাকায় ফিরতেই তাকে কাঁধে নিয়ে উন্মাতাল আনন্দ। আনন্দ মিছিল।

রবিবার থেকেই তাদের ছোট্ট বাড়ির আঙিনায় বড় বড় মানুষের ঢল। সেই ঢল থামে না। পরিবার ক্লান্তির মাঝেও হাসিমুখে সবাইকে বরণ করেন। আর মেহেদীকে পেয়েই মায়ের বুকটা ভরে ওঠে পুরোপুরি। আনন্দাশ্রু তো মা-বোন-বাবার চোখ থেকে মেহেদীর চোখেও। বীর ছেলে তখন তো আর বিশাল হয়ে ওঠা কেউ না!

ও যে সেই ছোট্টোখাট্টো ছেলেমানুষ মিরাজ। এটাই তো তার ডাকনাম। ওটাই ঘরের নাম। ওটাই আদরের ডাক। মিরাজের আগমনে ঘর-বাড়ি-এলাকা আলোকিত হয়ে ওঠে।

মেহেদীর আন্তর্জাতিক উত্থানের সাথে মুস্তাফিজুর রহমানের অনেক মিল। গত বছর অভিষেক ওয়ানডে সিরিজে ভারতের বিপক্ষে ৩ ম্যাচে ১৩ উইকেট নিয়েছিলেন কাটার মাস্টার। ২ ম্যাচে ৫ উইকেট। ২ ম্যাচে সেরা খেলোয়াড়। ভারতকে ২-১ এ হারানো সিরিজের সেরা খেলোয়াড়ও হয়েছিলেন।

সেই মুস্তাফিজ ইনজুরির কারণে এখন পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায়। সোমবার সকালে মিরপুর স্টেডিয়ামে তার সাথেও দেখা হয় মেহেদীর। মেহেদীর কাঁধে তখন ব্যাগ। বাড়ি ফেরার প্রস্তুতি। দুজন এক সাথে খেলেছেন বয়সভিত্তিক আসরে। ক’দিন পর বাংলাদেশের দুই বিস্ময় জাতীয় দলেও খেলবেন এক সাথে। বাড়ি ফেরার আগে মুস্তাফিজের কাছ থেকে নিশ্চয়ই এই স্টারডমের চাপের ব্যাপারে কিছু টিপস নিয়ে ফিরেছেন মেহেদী!

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X