শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সন্ধ্যা ৬:৩০
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, June 2, 2017 7:20 pm
A- A A+ Print

ব্যাংক খাতে সব দেশেই চুরি হয় : অর্থমন্ত্রী

photo-1496404593 (1)

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ‘ব্যাংক খাতে সব দেশেই চুরি হয়। আমাদের দেশে একটু বেশি হয়েছে। এখন আমরা চেষ্টা করছি এটার রাশ টেনে ধরার।’ আজ শুক্রবার বাজেট-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন আবুল মাল আবদুল মুহিত। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের জন্য বাজেট পেশ করেন অর্থমন্ত্রী। সংবাদ সম্মেলনে অর্থমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হয়, ‘সরকারি ব্যাংকগুলো লুটপাটের মাধ্যমে দেউলিয়া করে দেওয়া হয়েছে। সরকার এখন বেসরকারি ব্যাংকগুলোর ওপর হাত দিচ্ছে। আপনি ব্যাংক খাতে সুশাসনের কথা বলেছেন। ব্যাংক লুটপাট হলে ওই সুশাসন হবে কি না?’ অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘ব্যাংকে সুশাসন প্রতিষ্ঠা না হলে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি আসবে না। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ৮০ ভাগ আসে বেসরকারি খাত থেকে। ২০ ভাগ আসে সরকারি খাত থেকে। কাজেই বেসরকারি খাতকে শক্তিশালী হবে না।’ অর্থমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হয়, বিএনপির মতো রাজনৈতিক দল সংসদের বাইরে, এ রাজনৈতিক ঘাটতি রেখে বাজেটের ঘাটতি পূরণ সম্ভব কি না। জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘বাজেটে আওয়ামী লীগের নীতি-আদর্শের প্রতিফলন হয়েছে। তবে বাজেট হল জনগণের জন্য। কেউই জনগণের বাইরে নয়। তবে রাজনৈতিক ঐক্য অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্য জরুরি। রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা, জ্বালাও, পোড়াও কর্মসূচি কোনোভাবেই কাম্য নয়।’ মুহিত বলেন, ‘২০১৪-১৫ সালে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার কারণে বিদেশি বিনিয়োগ কম হয়েছে। তবে এখন রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা আসায় বিনিয়োগে ভালো রেজাল্ট পাচ্ছি।’ জ্বালানি তেলের ব্যাপারে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘জ্বালানি তেলের দাম কমে না, এটা ঠিক নয়। তবে যে পরিমাণ কমানোর দরকার ততটা হয়নি। ধীরে ধীরে সমন্বয় করা হবে।’ কোন খাতে বরাদ্দ বেশি রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘নিঃসন্দেহে জ্বালানি, সড়ক ও অবকাঠামো খাতে বেশি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।’ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল ও অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান।

Comments

Comments!

 ব্যাংক খাতে সব দেশেই চুরি হয় : অর্থমন্ত্রীAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ব্যাংক খাতে সব দেশেই চুরি হয় : অর্থমন্ত্রী

Friday, June 2, 2017 7:20 pm
photo-1496404593 (1)

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ‘ব্যাংক খাতে সব দেশেই চুরি হয়। আমাদের দেশে একটু বেশি হয়েছে। এখন আমরা চেষ্টা করছি এটার রাশ টেনে ধরার।’

আজ শুক্রবার বাজেট-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন আবুল মাল আবদুল মুহিত। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের জন্য বাজেট পেশ করেন অর্থমন্ত্রী।

সংবাদ সম্মেলনে অর্থমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হয়, ‘সরকারি ব্যাংকগুলো লুটপাটের মাধ্যমে দেউলিয়া করে দেওয়া হয়েছে। সরকার এখন বেসরকারি ব্যাংকগুলোর ওপর হাত দিচ্ছে। আপনি ব্যাংক খাতে সুশাসনের কথা বলেছেন। ব্যাংক লুটপাট হলে ওই সুশাসন হবে কি না?’

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘ব্যাংকে সুশাসন প্রতিষ্ঠা না হলে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি আসবে না। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ৮০ ভাগ আসে বেসরকারি খাত থেকে। ২০ ভাগ আসে সরকারি খাত থেকে। কাজেই বেসরকারি খাতকে শক্তিশালী হবে না।’

অর্থমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হয়, বিএনপির মতো রাজনৈতিক দল সংসদের বাইরে, এ রাজনৈতিক ঘাটতি রেখে বাজেটের ঘাটতি পূরণ সম্ভব কি না।

জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘বাজেটে আওয়ামী লীগের নীতি-আদর্শের প্রতিফলন হয়েছে। তবে বাজেট হল জনগণের জন্য। কেউই জনগণের বাইরে নয়। তবে রাজনৈতিক ঐক্য অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্য জরুরি। রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা, জ্বালাও, পোড়াও কর্মসূচি কোনোভাবেই কাম্য নয়।’

মুহিত বলেন, ‘২০১৪-১৫ সালে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার কারণে বিদেশি বিনিয়োগ কম হয়েছে। তবে এখন রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা আসায় বিনিয়োগে ভালো রেজাল্ট পাচ্ছি।’

জ্বালানি তেলের ব্যাপারে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘জ্বালানি তেলের দাম কমে না, এটা ঠিক নয়। তবে যে পরিমাণ কমানোর দরকার ততটা হয়নি। ধীরে ধীরে সমন্বয় করা হবে।’

কোন খাতে বরাদ্দ বেশি রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘নিঃসন্দেহে জ্বালানি, সড়ক ও অবকাঠামো খাতে বেশি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল ও অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X