শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১০:০৪
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, December 29, 2016 9:22 am | আপডেটঃ December 29, 2016 12:42 PM
A- A A+ Print

ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় সিরিজ হারল বাংলাদেশ

newzeland1482992064

ক্রাইস্টচার্চে প্রথম ওয়ানডেতে হারের পর সিরিজে টিকে থাকতে আজ জয়ের বিকল্প ছিল না বাংলাদেশের। স্যাক্সটন ওভালে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে টস জিতে ফিল্ডিং বেছে নিয়ে সেই কাজটা ভালোই করেছিল মাশরাফি-তাসকিন-সাকিবরা। আগে ব্যাট করতে নামা নিউজিল্যান্ডকে দুর্দান্ত বোলিংয়ে ২৫১ রানেই বেঁধে ফেলেছিল বাংলাদেশি বোলাররা। জবাবে ব্যাট করতে নেমে মিডল অর্ডারের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ৪২.৪ ওভারে ১৮৪ রান করতেই অলআউট বাংলাদেশ। ফলে এই ম্যাচে ৬৭ রানের হারে তিন ম্যাচ ওয়ানডেতে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ খোয়াল টাইগাররা। সিরিজে সমতায় ফিরতে নেলসনে ২৫২ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ের শুরুটা ভালোই হয় বাংলাদেশের। নিজেদের ইনিংসের শুরুতে দলীয় ৩০ রানের সময় তামিমকে হারায় মাশরাফির দল। দেশসেরা এ ওপেনারকে শুরুতে হারালেও ইমরুল কায়েস ও সাব্বির রহমানের ব্যাটে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় টাইগাররা। তবে রানআউটের খড়্গে পড়ে হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান সাব্বিরের আউটের পরই যেন সব এলোমেলো হয়ে যায় বাংলাদেশের। মিডল অর্ডারে মাহমুদউল্লাহ-সাকিব-মোসাদ্দেকদের ব্যর্থতায় কঠিন চাপে পড়ে সফরকারীরা।   দলীয় ৩০ রানে তামিমের আউটের পর ৭৫ রানের চমৎকার জুটিতে বাংলাদেশকে অনেক দূর টেনে আনেন ইমরুল ও সাব্বির। টিম সাউদির বলে টম ল্যাথামকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ওপেনার তামিম। ২৩ বলে তিনটি চারে ১৬ রান করেন এ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।   বাংলাদেশের দলীয় শতক আসে ২২তম ওভারে। যেখানে পৌঁছাতে ২৩ ওভার লেগেছিল নিউজিল্যান্ডের। তবে দলীয় শতরানের পরই ২২তম ওভারে ভুল বোঝাবুঝির কারণে রান আউটের শিকার হন সাব্বির রহমান। ৪৯ বলে দুটি চার ও তিন ছক্কায় ৩৮ রান আসে হার্ডহিটার এ ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে।   গত বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডে ব্যাট হাতে ঝলক দেখালেও প্রথম ম্যাচের মতো দ্বিতীয় ম্যাচেও ব্যর্থ হয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। লকি ফার্গুসনের বলে ব্যক্তিগত ১ রানে বোল্ড হন অভিজ্ঞ এ ব্যাটসম্যান। এরপর ২৯তম ওভারে বিদায় নেন সাকিব আল হাসান। কেন উইলিয়ামসনের বলে ৭ রানে নেইল ব্রুমকে ক্যাচ দিয়ে আউট হন তিনি।   দলের ব্যর্থতার দিনে ভরসা ছিল তরুণ ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেকের ওপর। কিন্তু আগের ম্যাচে ফিফটি করা মোসাদ্দেক উইলিয়ামসনের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফেরেন ব্যক্তিগত ৩ রানে। এরপর ৩২তম ওভারে ইমরুল কায়েস ৫৯ রানে ফিরে গেলে জয়ের স্বপ্ন ফিকে হতে শুরু করে বাংলাদেশের। ৮৯ বলে ছয়টি চারে এ ইনিংস সাজানোর পর টিম সাউদির বলে ব্রুমের হাতে ধরা পড়েন এ ওপেনার।   bangladesh   এই ম্যাচে অভিষিক্ত তিন ক্রিকেটারের তেমন কেউই চমক দেখাতে পারেননি। বোলিংয়ে অনুজ্জ্বলের পর ব্যাট হাতে মাত্র দুই রানে উইলিয়ামসনের তৃতীয় শিকার হন তানভীর হায়দার। এরপর শেষ দিকে ঝড় তুলতে গিয়ে ব্যক্তিগত ১৭ রানে ফেরেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। ট্রেন্ট বোল্টের বলে ব্রুমের হাতে ক্যাচ হয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি।   এরপর মিচেল স্ট্যান্টনারের বলে এগিয়ে খেলতে এসে শূন্য রানে স্ট্যাম্পিং হয়ে ফেরেন তাসিকন আহমেদ। আর শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে নুরুল হাসান বোল্টের দ্বিতীয় শিকার হওয়ার আগে ২৪ রান করেন।   নিউজিল্যান্ডের হয়ে কেন উইলিয়ামসন সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট নেন। ২টি করে উইকেট পান ট্রেন্ট বোল্ট ও টিম সাউদি।   এর আগে টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান নেইল ব্রুমের ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরিতে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২৫১ রান করে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড। স্বাগতিকদের হয়ে লুক রঞ্চি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৫ এবং আগের ম্যাচে সেঞ্চুরি করা টম লাথাম করেন ২২ রান।   বল হাতে মাশরাফি ৪৯ রানে নেন ৩ উইকেট। ২টি করে উইকেট নেন সাকিব, তাসকিন। এ ছাড়া ১টি করে উইকেট নেন শুভাশীষ ও মোসাদ্দেক।   বাংলাদেশ ইনিংস   নিউজিল্যান্ডের অষ্টম শিকার মাশরাফি: এর আগে টানা উইকেট হারালেও নুরুল হাসানকে নিয়ে কিছুটা প্রতিরোধের চেষ্টা করেছিলেন টাইগার দলপতি মাশরাফি। তবে ৩৭ তম ওভারের চতুর্থ বলে ব্যক্তিগত ১৭ রান করে বোল্টের বলে উইলিয়ামসনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন মাশরাফি।   অভিষেকে অনুজ্জ্বল তানভীর: ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার দিনে দলের বিপর্যয় এড়াতে কোনো ভূমিকা রাখতে পারেননি অভিষিক্ত ক্রিকেটার তানভীর হায়দার। ৩৩ তম ওভারের চতুর্থ বলে উইকেট বিলিয়ে দিয়ে এসে দলকে আরও বিপদে ফেলেন তিনি। উইলিয়ামসনের বলে লুক রঞ্চির হাতে স্ট্যাম্পিং হওয়ার আগে মাত্র ২ রান করেন তিনি।   হতাশ করলেন ইমরুলও: দুইবার লাইফ পেয়ে ব্যক্তিগত সংগ্রহ ফিফটি ছাড়িয়ে বাংলাদেশকে আশা দেখাচ্ছিলেন ইমরুল কায়েস। দলের দুঃসময়ে সৌম্যের পরিবর্তে আসা এই ওপেনারের উপর অনেক প্রত্যাশা ছিল টাইগার সমর্থকদের। কিন্তু ৩২ তম ওভারের তৃতীয় বলে টিম সাউদির বলে নেইল ব্রুমের হাতে ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি। আউট হওয়ার আগে ৮৯ বলে ৬ চারে ৫৯ রানের ইনিংসটি খেলেন তিনি।   উইলিয়ামসনের দ্বিতীয় শিকার মোসাদ্দেক: নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ফিফটি করে অপরাজিত ছিলেন মোসাদ্দেক। নেলসনে এই ম্যাচেও তার উপর প্রত্যাশার আলো ছিল। কিন্তু ৩১তম ওভারের চতুর্থ বলে উইলিয়ামসনের বলে নিসামের হাতে ক্যাচ দিয়ে মাত্র ৩রানে ফেরেন মোসাদ্দেক।   উইলিয়ামসনের বলে কট সাকিব: কেন উইলিয়ামসনের বলে নেইল ব্রুমের হাতে ক্যাচ হয়ে ফেরেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের অভিজ্ঞ এ অলরাউন্ডার আউট হওয়ার আগে ১০ বল মোকাবেলা করে মাত্র ৭ রান করেন।   ইমরুলের হাফসেঞ্চুরি: ফার্গুসনের অফস্ট্যাম্পের বাইরের বল কাট করে ডিপ ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্ট দিয়ে বাউন্ডারিতে পাঠালেন ইমরুল কায়েস। ৪৯ থেকে ইমরুল পৌঁছে গেলেন ৫৩ এ। ক্যারিয়ারের ১৩তম হাফসেঞ্চুরির স্বাদ নিলেন বাঁহাতি ওপেনার। ৭৯ বলে ৬ বাউন্ডারিতে হাফসেঞ্চুরি তুলেন ইমরুল।   দারুণ ইয়র্কারে বোল্ড মাহমুদউল্লাহ: কিছু বুঝে উঠার আগেই বোল্ড মাহমুদউল্লাহ। ফার্গুসনের দ্রুত গতির ইয়র্কার সোজা আঘাত করে মাহমুদউল্লাহর টো’র ওপর। ব্যাট নামিয়ে বল ব্লক করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু ততক্ষণে অনেক দেরী হয়ে গেছে! প্রথম ম্যাচে ভালো করতে না পারা মাহমুদউল্লাহ এ ম্যাচেও ফ্লপ। তার ব্যাট থেকে এল মাত্র ১ রান।     রান আউট সাব্বির: ইমরুল কায়েসের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউটের শিকার সাব্বির রহমান। রান আউট হওয়ার আগে দারুণ ব্যাট চালাচ্ছিলেন সাব্বির।  ৩৯ বলে ২ চার ও ৩ ছক্কায় সাব্বির করেছিলেন ৩৮ রান।  দ্বিতীয় উইকেটে ইমরুল ও সাব্বির স্কোরবোর্ডে যোগ করেছিলেন ৭৫ রান।   সেঞ্চুরি: ১২.৫ ওভারে দলীয় হাফসেঞ্চুরি তুলে নেওয়ার পর ২১.৫ ওভারে সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ। সাব্বির রহমান ও ইমরুল কায়েসের ব্যাটে চড়ে সেঞ্চুরির স্বাদ পেয়েছে বাংলাদেশ।   ফ্রি হিটে সাব্বিরের ছক্কা: ফার্গুসনের করা ১৬তম ওভারে ফ্রি হিট পেয়েছিলেন সাব্বির রহমান। সাব্বির ফ্রি হিট থেকে ছক্কা আদায় করে নেন। ডাউন দ্যা উইকেটে বেরিয়ে ‘বেসবল’র মত হিটে লং অন দিয়ে বল বাউন্ডারির বাইরে পাঠান সাব্বির।   হাফসেঞ্চুরি: ১২.৫ ওভারে দলীয় হাফসেঞ্চুরির দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ।  তামিম ফিরে যাবার পর ইমরুল ও সাব্বির প্রতিরোধ গড়ে তুলে রানের চাকা সচল রেখেছেন।   উইকেট বিলিয়ে এলেন তামিম: ২৫২ রানের লক্ষ্যে প্রথম দুই ওভারে বাংলাদেশের রান ১৮। ৭ ওভারে দুই বাঁহাতি ওপেনার তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েস স্কোরবোর্ডে ৩০ রান যোগ করেন। তবে অষ্টম ওভারের দ্বিতীয় বলে তামিম ভুল শটে নিজের উইকেট বিলিয়ে আসেন। টিম সাউদির বলে ডাউন দ্যা উইকেটে এসে মারতে গিয়ে কাভারে ক্যাচ দেন ১৬ রান করা তামিম।     নিউজিল্যান্ড ইনিংস সেরা বোলিং: বল হাতে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট নিয়েছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। সাকিব আল হাসান ও তাসকিন আহমেদ ২টি করে এবং শুভাশীষ রায় ও মোসাদ্দেক হোসেন ১টি করে উইকেট নেন।   নেইল ব্রুমের সেঞ্চুরি: ব্যাট হাতে দারুণ সেঞ্চুরি তুলে নিউজিল্যান্ডের হয়ে বাংলাদেশের বোলারদের বিপক্ষে একাই লড়াই করেছেন নেইল ব্রুম। চারে নেমে ইনিংসের শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ডানহাতি এ ব্যাটসম্যান। ১০৭ বলে ৮ চার ও ৪ ছক্কায় ব্রুমের ব্যাট থেকে আসে ১০৯ রান। এটি তার ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি।   উইকেটের খাতা খুললেন শুভাশীষ: চতুর্থ ওভারেই পেতে পারতেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথম উইকেটের স্বাদ। কিন্তু নিজের ভুল অপেক্ষা বাড়ে ডানহাতি এ পেসারের। অবশেষে আসল সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। মিচেল স্যান্টনারকে আউট করে শুভাশীষ উইকেটের খাতা খুলেন। শর্ট বল পুল করতে গিয়ে মাশরাফির হাতে ক্যাচ দেন স্যান্টনার (৯)।   তাসকিনের দ্বিতীয় সাফল্য:  তাসকিন আহমেদের গতির কাছে হার মানলেন লুক রনকি। ব্যক্তিগত ৩৫ রানে শর্ট মিড উইকেটে তানভীরের হাতে ক্যাচ দেন কিউই উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান। প্রথম ম্যাচেও রনকির উইকেট নিয়েছিলেন তাসকিন।   মাশরাফির দ্বিতীয় শিকার কলিন মানরো: দারুণ এক ইনসুইংয়ে কলিন মানরোকে ৩ রানে বোল্ড করেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। প্রথম স্পেলে প্রথম ওভারে সাফল্য পাওয়ার পর দ্বিতীয় স্পেলের দ্বিতীয় ওভারে দলকে আনন্দের জোয়ারে ভাসান টাইগার দলপতি। এর আগে ইনিংসের শুরুতে আউট করেছিলেন মার্টিন গাপটিলকে।   কিউই প্রতিরোধ ভাঙেন মোসাদ্দেক: ৪৭ রানে ৩ উইকেট হারানো নিউজিল্যান্ড চতুর্থ উইকেটে প্রতিরোধ গড়ে তুলে। জেমস নিশাম ও নেইল ব্রুম বাংলাদেশের পেসার ও স্পিনারদের দেখে-শুনে খেলে দলের পুঁজি বাড়ান। বিপদজনক হয়ে উঠা জুটি ৯৮ রানে ভাঙেন স্পিনার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। বাঁহাতি ব্যাটসম্যান জেমস নিশাম (২৮) মোসাদ্দেকের বলে এগিয়ে এসে মারতে গিয়ে স্ট্যাম্পড হন। উইকেটের পিছনে ক্যারিয়ারের প্রথম ডিসমিসালের সুযোগ হাতছাড়া করেননি নুরুল হাসান। সাকিবের শিকার লাথাম: সাকিব করা ১৪তম ওভারের প্রথম বল সুইপ করতে চেয়েছিলেন টম লাথাম। কিন্তু সাকিবের ফ্লাইটে বল মিস করেন লাথাম। বল আঘাত করে লাথামের প্যাডে। ক্যারিয়ারের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচে আম্পায়ারিং করতে নামা ক্রিস ব্রাউন সাকিবের আবেদনে আঙুল তুলে দেন। লাথাম রিভিউ নিয়ে বাঁচতে চেয়েছিলেন। কিন্তু দ্বিতীয় জীবন পাননি প্রথম ম্যাচের নায়ক। প্রথম ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ানের ইনিংস আজ ২২ রানে থেমে যায়।   তাসকিন ফেরান উইলিয়ামসনকে: প্রথম ওয়ানডের মত দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনকে সাজঘরে ফেরত পাঠান তাসকিন আহমেদ। তাসকিনের বলে অন সাইড ফ্লিক করতে গিয়ে মিড অনে সাকিবের হাতে ক্যাচ দেন কিউই অধিনায়ক। ১৪ রানে সাজঘরে ফিরেন তিনি। ১৩ রানে শুভাশিষের হাতে জীবন পেয়েছেন উইলিয়ামসন।   কেন উইলিয়ামসনের ক্যাচ মিস: আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিজের চতুর্থ ওভারেই উইকেটের স্বাদ পেতে পারতেন শুভাশীষ রায়। কিন্তু নিজের ভুলেই পারেননি ! ব্যক্তিগত ১৩ রানে নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক উইলিয়ামসন শুভাশীষকে ফিরতি ক্যাচ দিয়েছিলেন। কিন্তু বল তালুবন্দি করতে ব্যর্থ হন ডানহাতি পেসার।   মাশরাফির আঘাত: নিউজিল্যান্ডের ওপেনার মার্টিন গাপটিলকে প্রথম ওভারে সাজঘরের পথ দেখান মাশরাফি বিন মুর্তজা। প্রথম ওভারের চতুর্থ বলে এলবিডাব্লিউ’র শিকার হন গাপটিল। তৃতীয় বলেও মাশরাফি এলবিডাব্লিউ’র আবেদন করেছিলেন। কিন্তু আম্পায়ার সাড়া দেননি। মাশরাফি রিভিউ নিলে তা বাংলাদেশের পক্ষে আসেনি। তৃতীয় আম্পায়ার জানান, বলের ইমপ্যাক্ট অফ স্ট্যাম্পের বাইরে ছিল।   টস: টস জিতে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা নিউজিল্যান্ডকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান।   টস জিতে ফিল্ডিং কেন? নেলসনে ফল হওয়া ৫টি ম্যাচেই হেরেছে আগে ব্যাট করা দল। এই মাঠে রান তাড়া করা বেশ সহজ।  বাংলাদেশ সর্বোচ্চ ৩১৯ রান চেজ করে জিতেছে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে।   বাংলাদেশ দলে তিন পরিবর্তন: বাংলাদেশ দলে তিনটি পরিবর্তন আনা হয়েছে। চোট পাওয়া মুশফিকুর রহিমের পরিবর্তে অভিষেক হয়েছে কাজী নুুরুল হাসান সোহানের। মুস্তাফিজুর রহমানকে বিশ্রামে রাখা হয়েছে। তার পরিবর্তে খেলছেন শুভাশীষ রায়। বাজে পারফরম্যান্সের কারণে সৌম্য সরকারকে বাদ দেয়া হয়েছে। একাদশের নতুন মুখ তানভীর হায়দার। তিন ক্রিকেটারের আজ ওয়ানডে অভিষেক হল।   নিউজিল্যান্ড: নিউজিল্যান্ড দলে কোনো পরিবর্তন আনা হয়নি। প্রথম ওয়ানডের একাদশ নিয়ে মাঠে নেমেছে স্বাগতিক দল।   সিরিজ: সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ৭৭ রানের হারে ১-০ তে পিছিয়ে বাংলাদেশ। আজ হারলেই সিরিজ হারাবে বাংলাদেশ। অন্যদিকে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করবে কিউইরা।   অতীত স্মৃতি: নেলসনে এর আগে একবার খেলেছিল বাংলাদেশ। ২০১৫ বিশ্বকাপে এখানে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ছিল স্কটল্যান্ড। আগে ব্যাটিং করে স্কটল্যান্ড ৮ উইকেটে ৩১৮ রান করে। জবাবে ৩১৯ চেজ করে ১১ বল হাতে রেখে ৬ উইকেটের জয় নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। সেই জয়ের সুখস্মৃতি থেকেই আজ সিরিজে ফেরার প্রেরণা পাচ্ছে বাংলাদেশ দল।

Comments

Comments!

 ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় সিরিজ হারল বাংলাদেশAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় সিরিজ হারল বাংলাদেশ

Thursday, December 29, 2016 9:22 am | আপডেটঃ December 29, 2016 12:42 PM
newzeland1482992064

ক্রাইস্টচার্চে প্রথম ওয়ানডেতে হারের পর সিরিজে টিকে থাকতে আজ জয়ের বিকল্প ছিল না বাংলাদেশের। স্যাক্সটন ওভালে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে টস জিতে ফিল্ডিং বেছে নিয়ে সেই কাজটা ভালোই করেছিল মাশরাফি-তাসকিন-সাকিবরা।

আগে ব্যাট করতে নামা নিউজিল্যান্ডকে দুর্দান্ত বোলিংয়ে ২৫১ রানেই বেঁধে ফেলেছিল বাংলাদেশি বোলাররা। জবাবে ব্যাট করতে নেমে মিডল অর্ডারের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ৪২.৪ ওভারে ১৮৪ রান করতেই অলআউট বাংলাদেশ। ফলে এই ম্যাচে ৬৭ রানের হারে তিন ম্যাচ ওয়ানডেতে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ খোয়াল টাইগাররা।

সিরিজে সমতায় ফিরতে নেলসনে ২৫২ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ের শুরুটা ভালোই হয় বাংলাদেশের। নিজেদের ইনিংসের শুরুতে দলীয় ৩০ রানের সময় তামিমকে হারায় মাশরাফির দল। দেশসেরা এ ওপেনারকে শুরুতে হারালেও ইমরুল কায়েস ও সাব্বির রহমানের ব্যাটে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় টাইগাররা।

তবে রানআউটের খড়্গে পড়ে হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান সাব্বিরের আউটের পরই যেন সব এলোমেলো হয়ে যায় বাংলাদেশের। মিডল অর্ডারে মাহমুদউল্লাহ-সাকিব-মোসাদ্দেকদের ব্যর্থতায় কঠিন চাপে পড়ে সফরকারীরা।

 

দলীয় ৩০ রানে তামিমের আউটের পর ৭৫ রানের চমৎকার জুটিতে বাংলাদেশকে অনেক দূর টেনে আনেন ইমরুল ও সাব্বির। টিম সাউদির বলে টম ল্যাথামকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ওপেনার তামিম। ২৩ বলে তিনটি চারে ১৬ রান করেন এ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

 

বাংলাদেশের দলীয় শতক আসে ২২তম ওভারে। যেখানে পৌঁছাতে ২৩ ওভার লেগেছিল নিউজিল্যান্ডের। তবে দলীয় শতরানের পরই ২২তম ওভারে ভুল বোঝাবুঝির কারণে রান আউটের শিকার হন সাব্বির রহমান। ৪৯ বলে দুটি চার ও তিন ছক্কায় ৩৮ রান আসে হার্ডহিটার এ ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে।

 

গত বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডে ব্যাট হাতে ঝলক দেখালেও প্রথম ম্যাচের মতো দ্বিতীয় ম্যাচেও ব্যর্থ হয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। লকি ফার্গুসনের বলে ব্যক্তিগত ১ রানে বোল্ড হন অভিজ্ঞ এ ব্যাটসম্যান। এরপর ২৯তম ওভারে বিদায় নেন সাকিব আল হাসান। কেন উইলিয়ামসনের বলে ৭ রানে নেইল ব্রুমকে ক্যাচ দিয়ে আউট হন তিনি।

 

দলের ব্যর্থতার দিনে ভরসা ছিল তরুণ ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেকের ওপর। কিন্তু আগের ম্যাচে ফিফটি করা মোসাদ্দেক উইলিয়ামসনের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফেরেন ব্যক্তিগত ৩ রানে। এরপর ৩২তম ওভারে ইমরুল কায়েস ৫৯ রানে ফিরে গেলে জয়ের স্বপ্ন ফিকে হতে শুরু করে বাংলাদেশের। ৮৯ বলে ছয়টি চারে এ ইনিংস সাজানোর পর টিম সাউদির বলে ব্রুমের হাতে ধরা পড়েন এ ওপেনার।

 

bangladesh

 

এই ম্যাচে অভিষিক্ত তিন ক্রিকেটারের তেমন কেউই চমক দেখাতে পারেননি। বোলিংয়ে অনুজ্জ্বলের পর ব্যাট হাতে মাত্র দুই রানে উইলিয়ামসনের তৃতীয় শিকার হন তানভীর হায়দার। এরপর শেষ দিকে ঝড় তুলতে গিয়ে ব্যক্তিগত ১৭ রানে ফেরেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। ট্রেন্ট বোল্টের বলে ব্রুমের হাতে ক্যাচ হয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি।

 

এরপর মিচেল স্ট্যান্টনারের বলে এগিয়ে খেলতে এসে শূন্য রানে স্ট্যাম্পিং হয়ে ফেরেন তাসিকন আহমেদ। আর শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে নুরুল হাসান বোল্টের দ্বিতীয় শিকার হওয়ার আগে ২৪ রান করেন।

 

নিউজিল্যান্ডের হয়ে কেন উইলিয়ামসন সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট নেন। ২টি করে উইকেট পান ট্রেন্ট বোল্ট ও টিম সাউদি।

 

এর আগে টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান নেইল ব্রুমের ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরিতে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২৫১ রান করে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড। স্বাগতিকদের হয়ে লুক রঞ্চি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৫ এবং আগের ম্যাচে সেঞ্চুরি করা টম লাথাম করেন ২২ রান।

 

বল হাতে মাশরাফি ৪৯ রানে নেন ৩ উইকেট। ২টি করে উইকেট নেন সাকিব, তাসকিন। এ ছাড়া ১টি করে উইকেট নেন শুভাশীষ ও মোসাদ্দেক।

 

বাংলাদেশ ইনিংস

 

নিউজিল্যান্ডের অষ্টম শিকার মাশরাফি: এর আগে টানা উইকেট হারালেও নুরুল হাসানকে নিয়ে কিছুটা প্রতিরোধের চেষ্টা করেছিলেন টাইগার দলপতি মাশরাফি। তবে ৩৭ তম ওভারের চতুর্থ বলে ব্যক্তিগত ১৭ রান করে বোল্টের বলে উইলিয়ামসনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন মাশরাফি।

 

অভিষেকে অনুজ্জ্বল তানভীর: ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার দিনে দলের বিপর্যয় এড়াতে কোনো ভূমিকা রাখতে পারেননি অভিষিক্ত ক্রিকেটার তানভীর হায়দার। ৩৩ তম ওভারের চতুর্থ বলে উইকেট বিলিয়ে দিয়ে এসে দলকে আরও বিপদে ফেলেন তিনি। উইলিয়ামসনের বলে লুক রঞ্চির হাতে স্ট্যাম্পিং হওয়ার আগে মাত্র ২ রান করেন তিনি।

 

হতাশ করলেন ইমরুলও: দুইবার লাইফ পেয়ে ব্যক্তিগত সংগ্রহ ফিফটি ছাড়িয়ে বাংলাদেশকে আশা দেখাচ্ছিলেন ইমরুল কায়েস। দলের দুঃসময়ে সৌম্যের পরিবর্তে আসা এই ওপেনারের উপর অনেক প্রত্যাশা ছিল টাইগার সমর্থকদের। কিন্তু ৩২ তম ওভারের তৃতীয় বলে টিম সাউদির বলে নেইল ব্রুমের হাতে ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি। আউট হওয়ার আগে ৮৯ বলে ৬ চারে ৫৯ রানের ইনিংসটি খেলেন তিনি।

 

উইলিয়ামসনের দ্বিতীয় শিকার মোসাদ্দেক: নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ফিফটি করে অপরাজিত ছিলেন মোসাদ্দেক। নেলসনে এই ম্যাচেও তার উপর প্রত্যাশার আলো ছিল। কিন্তু ৩১তম ওভারের চতুর্থ বলে উইলিয়ামসনের বলে নিসামের হাতে ক্যাচ দিয়ে মাত্র ৩রানে ফেরেন মোসাদ্দেক।

 

উইলিয়ামসনের বলে কট সাকিব: কেন উইলিয়ামসনের বলে নেইল ব্রুমের হাতে ক্যাচ হয়ে ফেরেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের অভিজ্ঞ এ অলরাউন্ডার আউট হওয়ার আগে ১০ বল মোকাবেলা করে মাত্র ৭ রান করেন।

 

ইমরুলের হাফসেঞ্চুরি: ফার্গুসনের অফস্ট্যাম্পের বাইরের বল কাট করে ডিপ ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্ট দিয়ে বাউন্ডারিতে পাঠালেন ইমরুল কায়েস। ৪৯ থেকে ইমরুল পৌঁছে গেলেন ৫৩ এ। ক্যারিয়ারের ১৩তম হাফসেঞ্চুরির স্বাদ নিলেন বাঁহাতি ওপেনার। ৭৯ বলে ৬ বাউন্ডারিতে হাফসেঞ্চুরি তুলেন ইমরুল।

 

দারুণ ইয়র্কারে বোল্ড মাহমুদউল্লাহ: কিছু বুঝে উঠার আগেই বোল্ড মাহমুদউল্লাহ। ফার্গুসনের দ্রুত গতির ইয়র্কার সোজা আঘাত করে মাহমুদউল্লাহর টো’র ওপর। ব্যাট নামিয়ে বল ব্লক করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু ততক্ষণে অনেক দেরী হয়ে গেছে! প্রথম ম্যাচে ভালো করতে না পারা মাহমুদউল্লাহ এ ম্যাচেও ফ্লপ। তার ব্যাট থেকে এল মাত্র ১ রান।

 

 

রান আউট সাব্বির: ইমরুল কায়েসের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউটের শিকার সাব্বির রহমান। রান আউট হওয়ার আগে দারুণ ব্যাট চালাচ্ছিলেন সাব্বির।  ৩৯ বলে ২ চার ও ৩ ছক্কায় সাব্বির করেছিলেন ৩৮ রান।  দ্বিতীয় উইকেটে ইমরুল ও সাব্বির স্কোরবোর্ডে যোগ করেছিলেন ৭৫ রান।

 

সেঞ্চুরি: ১২.৫ ওভারে দলীয় হাফসেঞ্চুরি তুলে নেওয়ার পর ২১.৫ ওভারে সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ। সাব্বির রহমান ও ইমরুল কায়েসের ব্যাটে চড়ে সেঞ্চুরির স্বাদ পেয়েছে বাংলাদেশ।

 

ফ্রি হিটে সাব্বিরের ছক্কা: ফার্গুসনের করা ১৬তম ওভারে ফ্রি হিট পেয়েছিলেন সাব্বির রহমান। সাব্বির ফ্রি হিট থেকে ছক্কা আদায় করে নেন। ডাউন দ্যা উইকেটে বেরিয়ে ‘বেসবল’র মত হিটে লং অন দিয়ে বল বাউন্ডারির বাইরে পাঠান সাব্বির।

 

হাফসেঞ্চুরি: ১২.৫ ওভারে দলীয় হাফসেঞ্চুরির দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ।  তামিম ফিরে যাবার পর ইমরুল ও সাব্বির প্রতিরোধ গড়ে তুলে রানের চাকা সচল রেখেছেন।

 

উইকেট বিলিয়ে এলেন তামিম: ২৫২ রানের লক্ষ্যে প্রথম দুই ওভারে বাংলাদেশের রান ১৮। ৭ ওভারে দুই বাঁহাতি ওপেনার তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েস স্কোরবোর্ডে ৩০ রান যোগ করেন। তবে অষ্টম ওভারের দ্বিতীয় বলে তামিম ভুল শটে নিজের উইকেট বিলিয়ে আসেন। টিম সাউদির বলে ডাউন দ্যা উইকেটে এসে মারতে গিয়ে কাভারে ক্যাচ দেন ১৬ রান করা তামিম।

 

 

নিউজিল্যান্ড ইনিংস

সেরা বোলিং: বল হাতে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট নিয়েছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। সাকিব আল হাসান ও তাসকিন আহমেদ ২টি করে এবং শুভাশীষ রায় ও মোসাদ্দেক হোসেন ১টি করে উইকেট নেন।

 

নেইল ব্রুমের সেঞ্চুরি: ব্যাট হাতে দারুণ সেঞ্চুরি তুলে নিউজিল্যান্ডের হয়ে বাংলাদেশের বোলারদের বিপক্ষে একাই লড়াই করেছেন নেইল ব্রুম। চারে নেমে ইনিংসের শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ডানহাতি এ ব্যাটসম্যান। ১০৭ বলে ৮ চার ও ৪ ছক্কায় ব্রুমের ব্যাট থেকে আসে ১০৯ রান। এটি তার ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি।

 

উইকেটের খাতা খুললেন শুভাশীষ: চতুর্থ ওভারেই পেতে পারতেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথম উইকেটের স্বাদ। কিন্তু নিজের ভুল অপেক্ষা বাড়ে ডানহাতি এ পেসারের। অবশেষে আসল সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। মিচেল স্যান্টনারকে আউট করে শুভাশীষ উইকেটের খাতা খুলেন। শর্ট বল পুল করতে গিয়ে মাশরাফির হাতে ক্যাচ দেন স্যান্টনার (৯)।

 

তাসকিনের দ্বিতীয় সাফল্য:  তাসকিন আহমেদের গতির কাছে হার মানলেন লুক রনকি। ব্যক্তিগত ৩৫ রানে শর্ট মিড উইকেটে তানভীরের হাতে ক্যাচ দেন কিউই উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান। প্রথম ম্যাচেও রনকির উইকেট নিয়েছিলেন তাসকিন।

 

মাশরাফির দ্বিতীয় শিকার কলিন মানরো: দারুণ এক ইনসুইংয়ে কলিন মানরোকে ৩ রানে বোল্ড করেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। প্রথম স্পেলে প্রথম ওভারে সাফল্য পাওয়ার পর দ্বিতীয় স্পেলের দ্বিতীয় ওভারে দলকে আনন্দের জোয়ারে ভাসান টাইগার দলপতি। এর আগে ইনিংসের শুরুতে আউট করেছিলেন মার্টিন গাপটিলকে।

 

কিউই প্রতিরোধ ভাঙেন মোসাদ্দেক: ৪৭ রানে ৩ উইকেট হারানো নিউজিল্যান্ড চতুর্থ উইকেটে প্রতিরোধ গড়ে তুলে। জেমস নিশাম ও নেইল ব্রুম বাংলাদেশের পেসার ও স্পিনারদের দেখে-শুনে খেলে দলের পুঁজি বাড়ান। বিপদজনক হয়ে উঠা জুটি ৯৮ রানে ভাঙেন স্পিনার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। বাঁহাতি ব্যাটসম্যান জেমস নিশাম (২৮) মোসাদ্দেকের বলে এগিয়ে এসে মারতে গিয়ে স্ট্যাম্পড হন। উইকেটের পিছনে ক্যারিয়ারের প্রথম ডিসমিসালের সুযোগ হাতছাড়া করেননি নুরুল হাসান।

সাকিবের শিকার লাথাম: সাকিব করা ১৪তম ওভারের প্রথম বল সুইপ করতে চেয়েছিলেন টম লাথাম। কিন্তু সাকিবের ফ্লাইটে বল মিস করেন লাথাম। বল আঘাত করে লাথামের প্যাডে। ক্যারিয়ারের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচে আম্পায়ারিং করতে নামা ক্রিস ব্রাউন সাকিবের আবেদনে আঙুল তুলে দেন। লাথাম রিভিউ নিয়ে বাঁচতে চেয়েছিলেন। কিন্তু দ্বিতীয় জীবন পাননি প্রথম ম্যাচের নায়ক। প্রথম ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ানের ইনিংস আজ ২২ রানে থেমে যায়।

 

তাসকিন ফেরান উইলিয়ামসনকে: প্রথম ওয়ানডের মত দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনকে সাজঘরে ফেরত পাঠান তাসকিন আহমেদ। তাসকিনের বলে অন সাইড ফ্লিক করতে গিয়ে মিড অনে সাকিবের হাতে ক্যাচ দেন কিউই অধিনায়ক। ১৪ রানে সাজঘরে ফিরেন তিনি। ১৩ রানে শুভাশিষের হাতে জীবন পেয়েছেন উইলিয়ামসন।

 

কেন উইলিয়ামসনের ক্যাচ মিস: আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিজের চতুর্থ ওভারেই উইকেটের স্বাদ পেতে পারতেন শুভাশীষ রায়। কিন্তু নিজের ভুলেই পারেননি ! ব্যক্তিগত ১৩ রানে নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক উইলিয়ামসন শুভাশীষকে ফিরতি ক্যাচ দিয়েছিলেন। কিন্তু বল তালুবন্দি করতে ব্যর্থ হন ডানহাতি পেসার।

 

মাশরাফির আঘাত: নিউজিল্যান্ডের ওপেনার মার্টিন গাপটিলকে প্রথম ওভারে সাজঘরের পথ দেখান মাশরাফি বিন মুর্তজা। প্রথম ওভারের চতুর্থ বলে এলবিডাব্লিউ’র শিকার হন গাপটিল। তৃতীয় বলেও মাশরাফি এলবিডাব্লিউ’র আবেদন করেছিলেন। কিন্তু আম্পায়ার সাড়া দেননি। মাশরাফি রিভিউ নিলে তা বাংলাদেশের পক্ষে আসেনি। তৃতীয় আম্পায়ার জানান, বলের ইমপ্যাক্ট অফ স্ট্যাম্পের বাইরে ছিল।

 

টস: টস জিতে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা নিউজিল্যান্ডকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান।

 

টস জিতে ফিল্ডিং কেন? নেলসনে ফল হওয়া ৫টি ম্যাচেই হেরেছে আগে ব্যাট করা দল। এই মাঠে রান তাড়া করা বেশ সহজ।  বাংলাদেশ সর্বোচ্চ ৩১৯ রান চেজ করে জিতেছে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে।

 

বাংলাদেশ দলে তিন পরিবর্তন: বাংলাদেশ দলে তিনটি পরিবর্তন আনা হয়েছে। চোট পাওয়া মুশফিকুর রহিমের পরিবর্তে অভিষেক হয়েছে কাজী নুুরুল হাসান সোহানের। মুস্তাফিজুর রহমানকে বিশ্রামে রাখা হয়েছে। তার পরিবর্তে খেলছেন শুভাশীষ রায়। বাজে পারফরম্যান্সের কারণে সৌম্য সরকারকে বাদ দেয়া হয়েছে। একাদশের নতুন মুখ তানভীর হায়দার। তিন ক্রিকেটারের আজ ওয়ানডে অভিষেক হল।

 

নিউজিল্যান্ড: নিউজিল্যান্ড দলে কোনো পরিবর্তন আনা হয়নি। প্রথম ওয়ানডের একাদশ নিয়ে মাঠে নেমেছে স্বাগতিক দল।

 

সিরিজ: সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ৭৭ রানের হারে ১-০ তে পিছিয়ে বাংলাদেশ। আজ হারলেই সিরিজ হারাবে বাংলাদেশ। অন্যদিকে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করবে কিউইরা।

 

অতীত স্মৃতি: নেলসনে এর আগে একবার খেলেছিল বাংলাদেশ। ২০১৫ বিশ্বকাপে এখানে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ছিল স্কটল্যান্ড। আগে ব্যাটিং করে স্কটল্যান্ড ৮ উইকেটে ৩১৮ রান করে। জবাবে ৩১৯ চেজ করে ১১ বল হাতে রেখে ৬ উইকেটের জয় নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। সেই জয়ের সুখস্মৃতি থেকেই আজ সিরিজে ফেরার প্রেরণা পাচ্ছে বাংলাদেশ দল।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X