বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৩:২৪
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, July 28, 2017 10:52 am
A- A A+ Print

ব্রিটেনে সীমান্ত নিয়ন্ত্রণে কড়াকড়ি শুরু হচ্ছে

11

ঢাকা: ব্রিটেনে ইউরোপীয় ইউনিয়নের নাগরিকদের অবাধ যাতায়াত দু বছরের মধ্যে বন্ধ হয়ে যাবে। ব্রিটেনের অভিবাসন বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ব্র্যান্ডন লিউয়িস বলেছেন ২০১৯ এর মার্চের মধ্যে ইইউ নাগরিকদের অবাধ যাতায়াত বন্ধ হবে। কারণ, তার ভাষায়, গত বছর ব্রেক্সিটের ওপর গণভোটের অন্যতম প্রধান ইস্যুই ছিল অবাধ যাতায়াত বন্ধ। ব্রিটেনের অভিবাসন বা ইমিগ্রেশন প্রতিমন্ত্রীর এই ঘোষণা এমন এক সময়ে এল যখন ইউরোপীয় অভিবাসীদের মাধ্যমে ব্রিটেন কতখানি উপকৃত হচ্ছে বা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তা খতিয়ে দেখার জন্য সরকার একটি সমীক্ষা চালানোর আদেশ দিয়েছে। ব্রেক্সিট অর্থাৎ ইউরোপ থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে যাওয়ার ছয় মাস আগে ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে এই সমীক্ষার ফলাফল জানা যাবে। বিবিসির সাথে এক সাক্ষাৎকারে ইমিগ্রেশন প্রতিমন্ত্রী ব্র্যান্ডন লিউয়িস ব্যাখ্যা করেছেন ব্রেক্সিটের আগে ব্রিটেন কেন এই সমীক্ষা চালাচ্ছে। ব্র্যান্ডন লুইস বলেছেন ‘যেটা করার চেষ্টা হচ্ছে তা হলো মাইগ্রেশন অ্যাডভাইজরি কমিটি আজ গঠন করা হলো। এর দায়িত্ব হবে শ্রম বাজারের প্রয়োজন সম্পর্কে সরকারকে অবহিত করা, ইউ মাইগ্রেশনের প্রভাব কী হতে পারে তা দেখা, যার ওপর ভিত্তি করে সরকার ভবিষ্যতে তার নীতিমালা তৈরি করতে পারে।’ তবে ব্রেক্সিটের পর অভিবাসন কীভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হবে লিউয়িস সে সম্পর্কে পরিষ্কারভাবে কিছুই বলতে রাজি হননি। তিনি শুধু এটুকুই বলেছেন যে চলতি বছরের শেষ নাগাদ সরকার এ সম্পর্কে একটি শ্বেতপত্র প্রকাশ করবে যাতে বিস্তারিত থাকবে। ব্রিটেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের অংশ হয়ে থাকবে কি না, তার ওপর গত বছর যে গণভোট হয়, তার একটি মূল বিষয় ছিল অভিবাসন। ব্রেক্সিট নিয়ে দরকষাকষি চলার ওই সময়েই সরকারের মন্ত্রীরা বলেছেন, যুক্তরাজ্যের সীমান্তের নিয়ন্ত্রণ তার নিজেদের হাতে ফিরিয়ে আনতে চান। বর্তমানে প্রতিবছর প্রায় আড়াই লক্ষ অভিবাসী ব্রিটেনে ঢোকে। ইমিগ্রেশন প্রতিমন্ত্রী লিউয়িস জানাচ্ছেন তারা সেটাকে কয়েক হাজারে নামিয়ে আনতে চান। সূত্র: বিবিসি।

Comments

Comments!

 ব্রিটেনে সীমান্ত নিয়ন্ত্রণে কড়াকড়ি শুরু হচ্ছেAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ব্রিটেনে সীমান্ত নিয়ন্ত্রণে কড়াকড়ি শুরু হচ্ছে

Friday, July 28, 2017 10:52 am
11

ঢাকা: ব্রিটেনে ইউরোপীয় ইউনিয়নের নাগরিকদের অবাধ যাতায়াত দু বছরের মধ্যে বন্ধ হয়ে যাবে। ব্রিটেনের অভিবাসন বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ব্র্যান্ডন লিউয়িস বলেছেন ২০১৯ এর মার্চের মধ্যে ইইউ নাগরিকদের অবাধ যাতায়াত বন্ধ হবে। কারণ, তার ভাষায়, গত বছর ব্রেক্সিটের ওপর গণভোটের অন্যতম প্রধান ইস্যুই ছিল অবাধ যাতায়াত বন্ধ।

ব্রিটেনের অভিবাসন বা ইমিগ্রেশন প্রতিমন্ত্রীর এই ঘোষণা এমন এক সময়ে এল যখন ইউরোপীয় অভিবাসীদের মাধ্যমে ব্রিটেন কতখানি উপকৃত হচ্ছে বা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তা খতিয়ে দেখার জন্য সরকার একটি সমীক্ষা চালানোর আদেশ দিয়েছে।

ব্রেক্সিট অর্থাৎ ইউরোপ থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে যাওয়ার ছয় মাস আগে ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে এই সমীক্ষার ফলাফল জানা যাবে। বিবিসির সাথে এক সাক্ষাৎকারে ইমিগ্রেশন প্রতিমন্ত্রী ব্র্যান্ডন লিউয়িস ব্যাখ্যা করেছেন ব্রেক্সিটের আগে ব্রিটেন কেন এই সমীক্ষা চালাচ্ছে।

ব্র্যান্ডন লুইস বলেছেন ‘যেটা করার চেষ্টা হচ্ছে তা হলো মাইগ্রেশন অ্যাডভাইজরি কমিটি আজ গঠন করা হলো। এর দায়িত্ব হবে শ্রম বাজারের প্রয়োজন সম্পর্কে সরকারকে অবহিত করা, ইউ মাইগ্রেশনের প্রভাব কী হতে পারে তা দেখা, যার ওপর ভিত্তি করে সরকার ভবিষ্যতে তার নীতিমালা তৈরি করতে পারে।’

তবে ব্রেক্সিটের পর অভিবাসন কীভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হবে লিউয়িস সে সম্পর্কে পরিষ্কারভাবে কিছুই বলতে রাজি হননি। তিনি শুধু এটুকুই বলেছেন যে চলতি বছরের শেষ নাগাদ সরকার এ সম্পর্কে একটি শ্বেতপত্র প্রকাশ করবে যাতে বিস্তারিত থাকবে।

ব্রিটেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের অংশ হয়ে থাকবে কি না, তার ওপর গত বছর যে গণভোট হয়, তার একটি মূল বিষয় ছিল অভিবাসন। ব্রেক্সিট নিয়ে দরকষাকষি চলার ওই সময়েই সরকারের মন্ত্রীরা বলেছেন, যুক্তরাজ্যের সীমান্তের নিয়ন্ত্রণ তার নিজেদের হাতে ফিরিয়ে আনতে চান।

বর্তমানে প্রতিবছর প্রায় আড়াই লক্ষ অভিবাসী ব্রিটেনে ঢোকে। ইমিগ্রেশন প্রতিমন্ত্রী লিউয়িস জানাচ্ছেন তারা সেটাকে কয়েক হাজারে নামিয়ে আনতে চান।

সূত্র: বিবিসি।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X