বুধবার, ১৮ই অক্টোবর, ২০১৭ ইং, ৩রা কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৮:৪৩
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Wednesday, October 11, 2017 9:29 pm
A- A A+ Print

ব্লু হোয়েল থেকে যেভাবে রক্ষা পেল ছাত্রটি

899a1ec30407cf544f1e8fe5ce67ff09-59dcb74b4320f

ধাপে ধাপে প্ররোচিত করে আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দেওয়ার কথিত অনলাইন গেম ব্লু হোয়েলে (নীল তিমি) আসক্ত হয়ে পড়েছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্র। চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ বিষয়টি জানতে পেরে তাঁকে কাউন্সেলিং করা শুরু করে। এরপর তিনি গেমটি না খেলার জন্য মনস্থির করেন। আগামী ছয় মাস ছাত্রটির অনলাইন ব্যবহার পর্যবেক্ষণ করবে পুলিশ। চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার (উত্তর) মো. মশিউদ্দৌলা রেজা  বুধবার  বলেন, ৫ অক্টোবর রাতে হলে থাকা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক প্রথম বর্ষের এক ছাত্র কৌতুহলবশত তাঁর মেসেঞ্জারে আসা লিংকে ক্লিক করেন। এরপর তাঁর মুঠোফোনে ব্লু হোয়েল গেমটি ডাউনলোড করেন। এরপর তিনি চারটি ধাপ খেলেন। তাঁর আচরণে সন্দেহ হওয়ায় একই হলের আরেক ছাত্র এই পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তিনি গতকাল মঙ্গলবার ছাত্রটিকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে যান। এরপর ছাত্রটিকে কাউন্সেলিং করেন। ছাত্রটি নিজের ভুল বুঝতে পারেন। আজ বিকেলে নগরের হালিশহরে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে ছাত্রটি সাংবাদিকদের বলেন, কৌতুহলবশত লিংকটিতে ক্লিক করে গেমটি ডাউনলোড করেছিলেন তিনি। এখন নিজের ভুল বুঝতে পেরেছেন। কেউ যাতে এটা না খেলেন, সে আহ্বান জানান তিনি। তাঁর হাতে ব্লেড দিয়ে নীল তিমি আঁকা দেখা গেছে। এই পুলিশ কর্মকর্তা মুঠোফোন, ট্যাব, ল্যাপটপ ও ইন্টারনেট ব্যবহারে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, সন্তানদের আচরণে সন্দেহজনক কোনো কিছু দেখলে পুলিশকে অবহিত করতে হবে। অভিভাবক থেকে শুরু করে সমাজের বিভিন্ন স্তরের দায়িত্বশীল ব্যক্তি এ বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারেন। যে ব্যক্তি আত্মহত্যার চেষ্টা করে বা উদ্যোগ গ্রহণ করেন, তিনি এক বছরের কারাদণ্ড কিংবা অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন। ব্লু হোয়েল অন্য গেমগুলোর মতো ইন্টারঅ্যাকটিভ নয়। এই গেমে খেলোয়াড়ের কাছে লিখিত বার্তায় গেম প্রশাসকের নির্দেশনা আসে। সেখানে একটা একটা করে কাজের নির্দেশ বা চ্যালেঞ্জ থাকে। সে কাজটা করার পর ছবি তুলে বা ভিডিও করে গেম প্রশাসককে পাঠাতে হয়। এভাবে ৫০তম ধাপ বা ৫০তম দিনে সবশেষ নির্দেশটি আসে। এই নির্দেশ হলো আত্মহত্যা করার।

Comments

Comments!

 ব্লু হোয়েল থেকে যেভাবে রক্ষা পেল ছাত্রটিAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ব্লু হোয়েল থেকে যেভাবে রক্ষা পেল ছাত্রটি

Wednesday, October 11, 2017 9:29 pm
899a1ec30407cf544f1e8fe5ce67ff09-59dcb74b4320f

ধাপে ধাপে প্ররোচিত করে আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দেওয়ার কথিত অনলাইন গেম ব্লু হোয়েলে (নীল তিমি) আসক্ত হয়ে পড়েছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্র। চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ বিষয়টি জানতে পেরে তাঁকে কাউন্সেলিং করা শুরু করে। এরপর তিনি গেমটি না খেলার জন্য মনস্থির করেন। আগামী ছয় মাস ছাত্রটির অনলাইন ব্যবহার পর্যবেক্ষণ করবে পুলিশ।

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার (উত্তর) মো. মশিউদ্দৌলা রেজা  বুধবার  বলেন, ৫ অক্টোবর রাতে হলে থাকা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক প্রথম বর্ষের এক ছাত্র কৌতুহলবশত তাঁর মেসেঞ্জারে আসা লিংকে ক্লিক করেন। এরপর তাঁর মুঠোফোনে ব্লু হোয়েল গেমটি ডাউনলোড করেন। এরপর তিনি চারটি ধাপ খেলেন। তাঁর আচরণে সন্দেহ হওয়ায় একই হলের আরেক ছাত্র এই পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তিনি গতকাল মঙ্গলবার ছাত্রটিকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে যান। এরপর ছাত্রটিকে কাউন্সেলিং করেন। ছাত্রটি নিজের ভুল বুঝতে পারেন।

আজ বিকেলে নগরের হালিশহরে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে ছাত্রটি সাংবাদিকদের বলেন, কৌতুহলবশত লিংকটিতে ক্লিক করে গেমটি ডাউনলোড করেছিলেন তিনি। এখন নিজের ভুল বুঝতে পেরেছেন। কেউ যাতে এটা না খেলেন, সে আহ্বান জানান তিনি। তাঁর হাতে ব্লেড দিয়ে নীল তিমি আঁকা দেখা গেছে।

এই পুলিশ কর্মকর্তা মুঠোফোন, ট্যাব, ল্যাপটপ ও ইন্টারনেট ব্যবহারে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, সন্তানদের আচরণে সন্দেহজনক কোনো কিছু দেখলে পুলিশকে অবহিত করতে হবে। অভিভাবক থেকে শুরু করে সমাজের বিভিন্ন স্তরের দায়িত্বশীল ব্যক্তি এ বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারেন। যে ব্যক্তি আত্মহত্যার চেষ্টা করে বা উদ্যোগ গ্রহণ করেন, তিনি এক বছরের কারাদণ্ড কিংবা অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন।

ব্লু হোয়েল অন্য গেমগুলোর মতো ইন্টারঅ্যাকটিভ নয়। এই গেমে খেলোয়াড়ের কাছে লিখিত বার্তায় গেম প্রশাসকের নির্দেশনা আসে। সেখানে একটা একটা করে কাজের নির্দেশ বা চ্যালেঞ্জ থাকে। সে কাজটা করার পর ছবি তুলে বা ভিডিও করে গেম প্রশাসককে পাঠাতে হয়। এভাবে ৫০তম ধাপ বা ৫০তম দিনে সবশেষ নির্দেশটি আসে। এই নির্দেশ হলো আত্মহত্যা করার।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X