সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ২:০৪
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, December 2, 2016 10:17 am
A- A A+ Print

বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রে কাজ বন্ধ

rangpur1480650158

দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের নির্মাণাধীন তৃতীয় ইউনিটের শ্রমিকরা বেতন-ভাতা বৃদ্ধিসহ পাঁচ দফা দাবিতে কাজ বন্ধ রেখে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু করেছে। শ্রমিকরা জানিয়েছেন, দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শ্রমিকেরা কাজে যোগ না দিয়ে আন্দোলন করায় বিদ্যুৎকেন্দ্রের নির্মাণ কাজ বন্ধ হয়ে গেছে। শুক্রবারও চলছে এই আন্দোলন।  আন্দোলনরত শ্রমিকরা জানান, বিদ্যুৎকেন্দ্রে তৃতীয় ইউনিটের নির্মাণ কাজের জন্য পাঁচটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের অধীনে ১৫০০ শ্রমিক প্রতিদিনে ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা হাজিরা চুক্তিতে কাজ করছে। ঝুঁকিপূর্ণ এ কাজ করতে গিয়ে অনেকে আহত হয়েছে। অথচ একই কাজ করে চীনা শ্রমিকেরা তাদের থেকে ২০ গুণ বেতন পাচ্ছে। শ্রমিকদের অভিযোগ, তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রটির ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চিনা হারজিং মেশিনারি কোম্পানির কাছ থেকে শ্রমিকের জন্য বেশি বেতন নিয়ে জনবল সরবরাহকারী দেশীয় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলো কম পারিশ্রমিকে শ্রমিক নিয়োগ করেছে। কোনো শ্রমিক তাদের এই অনৈতিক কাজের প্রতিবাদ করলে চাকরিচ্যুত করা হচ্ছে। এই জন্য শ্রমিকেরা আন্দোলন করলেও কেউ নাম প্রকাশ করতে চান না। শ্রমিকরা জানান, পত্রিকায় তাদের নাম প্রকাশ হলে সেই শ্রমিককে বহিষ্কার করা হয়। এই বিষয়ে বিদ্যুৎকেন্দ্রে তৃতীয় ইউনিটের প্রকল্প পরিচালক চৌধুরী মো. নুরুজ্জামানের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি ঠিকাদারি চিনা কোম্পানি ও তাদের জনবল সরবরাহকারী ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের। শ্রমিকরা সকলে অস্থায়ী ও তৃতীয়পক্ষের অধিনে। জনবল সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান মেসাস জহির ট্রেডার্সের ব্যবসায়ী সহযোগী লুৎফর রহমান বলেন, শ্রমিকদের চাকরি দেওয়ার সময় চুক্তি করে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।  নিয়োগের চুক্তি অনুযায়ী তাদের বেতন ভাতা পরিশোধ করা হচ্ছে। শ্রমিকরা অভিযোগ করে বলেন, জনবল সরবরাহকারী ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলো কথায় কথায় শ্রমিক ছাটাই করছে। আর শ্রমিক নিয়োগের নামে তাদের কাছ থেকে জামানত বাবদ মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।  

Comments

Comments!

 বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রে কাজ বন্ধAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রে কাজ বন্ধ

Friday, December 2, 2016 10:17 am
rangpur1480650158

দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের নির্মাণাধীন তৃতীয় ইউনিটের শ্রমিকরা বেতন-ভাতা বৃদ্ধিসহ পাঁচ দফা দাবিতে কাজ বন্ধ রেখে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু করেছে। শ্রমিকরা জানিয়েছেন, দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শ্রমিকেরা কাজে যোগ না দিয়ে আন্দোলন করায় বিদ্যুৎকেন্দ্রের নির্মাণ কাজ বন্ধ হয়ে গেছে। শুক্রবারও চলছে এই আন্দোলন।  আন্দোলনরত শ্রমিকরা জানান, বিদ্যুৎকেন্দ্রে তৃতীয় ইউনিটের নির্মাণ কাজের জন্য পাঁচটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের অধীনে ১৫০০ শ্রমিক প্রতিদিনে ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা হাজিরা চুক্তিতে কাজ করছে। ঝুঁকিপূর্ণ এ কাজ করতে গিয়ে অনেকে আহত হয়েছে। অথচ একই কাজ করে চীনা শ্রমিকেরা তাদের থেকে ২০ গুণ বেতন পাচ্ছে।

শ্রমিকদের অভিযোগ, তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রটির ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চিনা হারজিং মেশিনারি কোম্পানির কাছ থেকে শ্রমিকের জন্য বেশি বেতন নিয়ে জনবল সরবরাহকারী দেশীয় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলো কম পারিশ্রমিকে শ্রমিক নিয়োগ করেছে। কোনো শ্রমিক তাদের এই অনৈতিক কাজের প্রতিবাদ করলে চাকরিচ্যুত করা হচ্ছে।

এই জন্য শ্রমিকেরা আন্দোলন করলেও কেউ নাম প্রকাশ করতে চান না। শ্রমিকরা জানান, পত্রিকায় তাদের নাম প্রকাশ হলে সেই শ্রমিককে বহিষ্কার করা হয়।

এই বিষয়ে বিদ্যুৎকেন্দ্রে তৃতীয় ইউনিটের প্রকল্প পরিচালক চৌধুরী মো. নুরুজ্জামানের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি ঠিকাদারি চিনা কোম্পানি ও তাদের জনবল সরবরাহকারী ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের। শ্রমিকরা সকলে অস্থায়ী ও তৃতীয়পক্ষের অধিনে।

জনবল সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান মেসাস জহির ট্রেডার্সের ব্যবসায়ী সহযোগী লুৎফর রহমান বলেন, শ্রমিকদের চাকরি দেওয়ার সময় চুক্তি করে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।  নিয়োগের চুক্তি অনুযায়ী তাদের বেতন ভাতা পরিশোধ করা হচ্ছে।

শ্রমিকরা অভিযোগ করে বলেন, জনবল সরবরাহকারী ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলো কথায় কথায় শ্রমিক ছাটাই করছে। আর শ্রমিক নিয়োগের নামে তাদের কাছ থেকে জামানত বাবদ মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X