সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১৪ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১:০৪
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, October 9, 2017 9:29 pm
A- A A+ Print

ভারতকে ঐতিহাসিক সীমান্ত চুক্তি মেনে চলার আহ্বান চীনের

182659_1

বেইজিং: ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারাম নাথু লা সীমান্ত ফাঁড়ি পরিদর্শন করে আসার এক দিনের মাথায় বেইজিং ১৮৯০ সালের যুক্তরাজ্য-চীন সীমান্ত চুক্তি মেনে চলতে দিল্লির প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। এই চুক্তি চীন-ভারত সীমান্তের সিকিম সেক্টরের সীমানা নির্ধারণ করেছে। সীতারামনের সিকিম পরিদর্শনের পর এক প্রতিক্রিয়ায় চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলে, চীন-ভারত ঐতিহাসিক সীমান্ত চুক্তি দ্বারা সিকিম সেক্টরের সীমানা নির্ধারিত হয়েছে। ঐতিহাসিক সীমান্ত চুক্তি সংক্রান্ত বাস্তবতা ভারত যেন মেনে নেয়। আর সীমান্তে যেন চীনের সঙ্গে শান্তি বজায় রাখতে সাহায্য করে। ডোকলাম সংঘাত চলাকালেও বারবার এই চুক্তির প্রসঙ্গ তোলে চীন। সীতারামন শনিবার চীন-ভারত সীমান্তে নাথু লা এলাকা পরিদর্শন করেন এবং ভারত-তিব্বত সীমান্তে নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেন। ডোকলামে ভারত ও চীনা সেনাদের মধ্যে ৭৩-দিনের অচলাবস্থা অবসানের পর ওই এলাকায় এটি প্রথম উচ্চ পর্যায়ের সফর। নাথু লা ভারতের সিকিম ও চীনের তিব্বতকে আলাদা করে রেখেছে। জম্মু ও কাশ্মীর থেকে অরুণাচল প্রদেশ পর্যন্ত ভারত ও চীনের মধ্যে ৩,৪৮৮ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্তের ২২০ কিলোমিটার পড়েছে সিকিম সেকশনে। এই সীমান্তে বিরোধের সমাধান করতে দুই পক্ষ এখন পর্যন্ত ১৯টি বিশেষ প্রতিনিধি-বৈঠক করেছে। গত ১৬ জুন থেকে ডোকলামে ভারত-চীন অচলাবস্থা শুরু হয়। চীনা সেনাবাহিনী সীমান্ত অঞ্চলে রাস্তা নির্মাণ শুরু করলে ভারতীয়রা তাতে বাঁধা দিলে অচলাবস্থা শুরু হয়। দীর্ঘ দু’মাস ভারত ও চীনের সেনাবাহিনী মুখোমুখি অবস্থানে ছিলো ওই অংশে। চীন-ভারত-ভুটান ত্রিমুখী জংশনের মত কৌশলগত গুরুত্বপূর্ণ ওই এলাকায় রাস্তা নির্মাণ করা হলে তা ভারতের উত্তরপূর্ব রাজ্যগুলোর সংযোগস্থল ‘চিকেন নেক’ এর জন্য নিরাপত্তা হুমকি হবে বলে দিল্লি মনে করে। ডোকলাম অচলাবস্থার সময় চীন নাথু লা গিরিপথ বন্ধ করে দেয় এবং এখনো তা খোলা হয়নি। ভারতীয় তীর্থযাত্রীরা কৈলাশ এবং মানসসরোবর ভ্রমণের জন্য দীর্ঘদিন ধরে এই পথ ব্যবহার করছে।

Comments

Comments!

 ভারতকে ঐতিহাসিক সীমান্ত চুক্তি মেনে চলার আহ্বান চীনেরAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ভারতকে ঐতিহাসিক সীমান্ত চুক্তি মেনে চলার আহ্বান চীনের

Monday, October 9, 2017 9:29 pm
182659_1

বেইজিং: ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারাম নাথু লা সীমান্ত ফাঁড়ি পরিদর্শন করে আসার এক দিনের মাথায় বেইজিং ১৮৯০ সালের যুক্তরাজ্য-চীন সীমান্ত চুক্তি মেনে চলতে দিল্লির প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। এই চুক্তি চীন-ভারত সীমান্তের সিকিম সেক্টরের সীমানা নির্ধারণ করেছে।

সীতারামনের সিকিম পরিদর্শনের পর এক প্রতিক্রিয়ায় চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলে, চীন-ভারত ঐতিহাসিক সীমান্ত চুক্তি দ্বারা সিকিম সেক্টরের সীমানা নির্ধারিত হয়েছে। ঐতিহাসিক সীমান্ত চুক্তি সংক্রান্ত বাস্তবতা ভারত যেন মেনে নেয়। আর সীমান্তে যেন চীনের সঙ্গে শান্তি বজায় রাখতে সাহায্য করে।

ডোকলাম সংঘাত চলাকালেও বারবার এই চুক্তির প্রসঙ্গ তোলে চীন।

সীতারামন শনিবার চীন-ভারত সীমান্তে নাথু লা এলাকা পরিদর্শন করেন এবং ভারত-তিব্বত সীমান্তে নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেন। ডোকলামে ভারত ও চীনা সেনাদের মধ্যে ৭৩-দিনের অচলাবস্থা অবসানের পর ওই এলাকায় এটি প্রথম উচ্চ পর্যায়ের সফর। নাথু লা ভারতের সিকিম ও চীনের তিব্বতকে আলাদা করে রেখেছে।

জম্মু ও কাশ্মীর থেকে অরুণাচল প্রদেশ পর্যন্ত ভারত ও চীনের মধ্যে ৩,৪৮৮ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্তের ২২০ কিলোমিটার পড়েছে সিকিম সেকশনে। এই সীমান্তে বিরোধের সমাধান করতে দুই পক্ষ এখন পর্যন্ত ১৯টি বিশেষ প্রতিনিধি-বৈঠক করেছে।

গত ১৬ জুন থেকে ডোকলামে ভারত-চীন অচলাবস্থা শুরু হয়। চীনা সেনাবাহিনী সীমান্ত অঞ্চলে রাস্তা নির্মাণ শুরু করলে ভারতীয়রা তাতে বাঁধা দিলে অচলাবস্থা শুরু হয়। দীর্ঘ দু’মাস ভারত ও চীনের সেনাবাহিনী মুখোমুখি অবস্থানে ছিলো ওই অংশে। চীন-ভারত-ভুটান ত্রিমুখী জংশনের মত কৌশলগত গুরুত্বপূর্ণ ওই এলাকায় রাস্তা নির্মাণ করা হলে তা ভারতের উত্তরপূর্ব রাজ্যগুলোর সংযোগস্থল ‘চিকেন নেক’ এর জন্য নিরাপত্তা হুমকি হবে বলে দিল্লি মনে করে।

ডোকলাম অচলাবস্থার সময় চীন নাথু লা গিরিপথ বন্ধ করে দেয় এবং এখনো তা খোলা হয়নি। ভারতীয় তীর্থযাত্রীরা কৈলাশ এবং মানসসরোবর ভ্রমণের জন্য দীর্ঘদিন ধরে এই পথ ব্যবহার করছে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X