শনিবার, ২১শে অক্টোবর, ২০১৭ ইং, ৬ই কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৪:০৮
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, August 12, 2017 11:49 am
A- A A+ Print

ভারতকে ফের চীনের হুমকি

china_54894_1502398367

ডোকলাম নিয়ে ভারত ও চীনের মধ্যে কয়েক মাস ধরে উত্তেজনা ও অচলাবস্থার মধ্যে সীমানে্ত সৈন্য সমাবেশ শুরু করেছে চীন। একই সঙ্গে চীন বলেছে, ভারতের সঙ্গে যুদ্ধের দিন গণনা শুরু হয়ে গেছে। ডোকলাম থেকে ভারতের এখনই সেনা প্রত্যাহার করতে হবে। চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম গে্লাবাল টাইমসে বুধবার একথা বলা হয়েছে। গে্লাবাল টাইমসের সম্পাদকীয়তে বলা হয়েছে, ভারত চীনের কঠিন হুশিয়ারি অগ্রাহ্য করেছে এবং এখন তাদের ভয়ানক পরিণতি বরণ করার জন্য প্রস্তুত হওয়া উচিত। এতে আরও বলা হয়, ডোকলাম থেকে ভারত যদি সেনা প্রত্যাহার না করে, তাহলে ভয়ানক পরিণতির জন্য তাদের নিজেদের দুষতে হবে। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানায়, বিতর্কিত ডোকলামে বর্তমানে চীনের প্রায় ৩০০ সেনা রয়েছে। বিপরীতে ৩০টি তঁাবুতে ৩৫০ জন ভারতীয় সৈন্য মোতায়েন রয়েছে। তবে এখন চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি (পিএলএ) ডোকলাম থেকে এক কিলোমিটার দূরত্বে ৮০টি তঁাবু খাটিয়েছে। এসব তঁাবুতে ৮০০-এর মতো চীনা সেনা অবস্থান করছে। এটাকে ভারতের জন্য Èরেড অ্যালার্ট' বর্ণনা করেছে ফিন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেস। চীন দাবি করেছে, তাদের ভূখণ্ডের মধ্যে ভারতের এখনও ৫৭ সেনা ও একটি বুলডোজার রয়েছে। এদিকে ডোকলামকে ঘিরে চীন ও ভারতের অচলাবস্থা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এক প্রভাবশালী মার্কিন আইনপ্রণেতা ডোকলামে উসকানিমূলক পদক্ষেপ নেয়ার জন্য বেইজিংকে অভিযুক্ত করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনোয়িস রাজ্যের কংগ্রেস সদস্য রাজা কৃষ্ঞমূর্তি বলেন, Èডোকলাম অঞ্চলে যা ঘটছে সে ব্যাপারে আমি খুবই উদ্বিগ্ন। আমি মনে করি যে, এ ব্যাপারে চীন বেশ উসকানিমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে, যা এ অঞ্চলে সীমান্ত উত্তেজনা আরও বাড়িয়েছে। ভারতে এক সংক্ষপ্তি সফর শেষে দেশে ফিরে তিনি একথা বলেন। চলতি সপ্তাহে ভারত সফরে এসে তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করেন এবং বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। তবে ডোকলামের অচলাবস্থা নিয়ে তাদের মধ্যে কোনো আলোচনা হয়নি বলে জানান তিনি। এ ব্যাপারে নিজের মতামত জানিয়ে কৃষ্ঞমূর্তি বলেন, Èআমি এ ব্যাপারে একটি শানি্তপূর্ণ কূটনৈতিক সমাধানের আহ্বান জানিয়েছি। এ ব্যাপারে আমি আশাবাদী।' ডোকলাম নিয়ে চীন-ভারত উত্তেজনায় যুক্তরাষ্ট্র বরাবর নীরব থাকার নীতি নিলেও এই প্রথম কোনো মার্কিন কর্মকর্তা এ ব্যাপারে কথা বললেন। এদিকে আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, ডোকলামের পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে সীমান্ত লাগোয়া ভারতীয় গ্রামগুলোকে খালি করে দিতে বলেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। সেনাবাহিনীর পরামর্শ মেনে গ্রাম খালি করে দেয়ার প্রস্তুতিও শুরু হয়ে গেছে ভারত-ভুটান-চীন সীমান্তবর্তী নাথাং এলাকায়। ডোকলাম থেকে ৩৫ কিলোমিটার দূরে নাথাং। ছোট্ট ওই গ্রামে সব মিলিয়ে শ'খানেক মানুষের বাস। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব গ্রাম খালি করে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই গ্রাম খালি করার কাজ শুরু হয়েছে। সেখানকার বাসিন্দারা জানিয়েছেন, সেনাবাহিনীর নির্দেশ মেনেই নিরাপদ জায়গায় সরে যাচ্ছেন তারা। গ্রামের মধ্য দিয়ে সেনা কনভয়ের যাতায়াত হঠাত্ করে অনেকটাই বেড়ে গেছে বলে তাদের দাবি। এদিকে সম্প্রতি সুকনার সেনা ছাউনি থেকে যে কয়েক হাজার সেনা ডোকলামে পাঠানো হয়েছে। তাদের থাকার ব্যবস্থা করতেই কি সীমান্তবর্তী গ্রাম খালি করে দেয়া হচ্ছে, নাকি পরিস্থিতির অবনতি হলে সাধারণ নাগরিকদের ক্ষয়ক্ষতির কথা মাথায় রেখেই এ ব্যবস্থা∏ সেটা এখনও পরিষ্কার নয়। এদিকে ডোকলামের মালিকানার ব্যাপারে চীনের দাবি নাকচ করে দিয়ে ভুটান বলেছে, ডোকলামের মালিকানা ভুটানের।  ডোকলামকে চীনের এলাকা বলে মেনে নিয়েছে ভুটান, বুধবার এমন দাবি করে চীন। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সীমান্ত ও সমুদ্র বিষয়ক বিভাগের ডেপুটি পরিচালক ওয়াং ওয়েনলি ভারতীয় সাংবাদিকদের একথা বলেন। বৃহস্পতিবার চীনের ওই দাবি নাকচ করে দেয় ভুটান। বিতর্কিত সীমান্ত নিয়ে ভারত ও চীনের মধ্যে যে টানাপোড়েন চলছে, ভুটানের এ বক্তব্য সেই টানাপোড়েনের ক্ষেত্রে ভারতের অবস্থানকে আরও মজবুত করেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

Comments

Comments!

 ভারতকে ফের চীনের হুমকিAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ভারতকে ফের চীনের হুমকি

Saturday, August 12, 2017 11:49 am
china_54894_1502398367

ডোকলাম নিয়ে ভারত ও চীনের মধ্যে কয়েক মাস ধরে উত্তেজনা ও অচলাবস্থার মধ্যে সীমানে্ত সৈন্য সমাবেশ শুরু করেছে চীন। একই সঙ্গে চীন বলেছে, ভারতের সঙ্গে যুদ্ধের দিন গণনা শুরু হয়ে গেছে।

ডোকলাম থেকে ভারতের এখনই সেনা প্রত্যাহার করতে হবে। চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম গে্লাবাল টাইমসে বুধবার একথা বলা হয়েছে।

গে্লাবাল টাইমসের সম্পাদকীয়তে বলা হয়েছে, ভারত চীনের কঠিন হুশিয়ারি অগ্রাহ্য করেছে এবং এখন তাদের ভয়ানক পরিণতি বরণ করার জন্য প্রস্তুত হওয়া উচিত।

এতে আরও বলা হয়, ডোকলাম থেকে ভারত যদি সেনা প্রত্যাহার না করে, তাহলে ভয়ানক পরিণতির জন্য তাদের নিজেদের দুষতে হবে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানায়, বিতর্কিত ডোকলামে বর্তমানে চীনের প্রায় ৩০০ সেনা রয়েছে। বিপরীতে ৩০টি তঁাবুতে ৩৫০ জন ভারতীয় সৈন্য মোতায়েন রয়েছে।

তবে এখন চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি (পিএলএ) ডোকলাম থেকে এক কিলোমিটার দূরত্বে ৮০টি তঁাবু খাটিয়েছে। এসব তঁাবুতে ৮০০-এর মতো চীনা সেনা অবস্থান করছে। এটাকে ভারতের জন্য Èরেড অ্যালার্ট’ বর্ণনা করেছে ফিন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেস। চীন দাবি করেছে, তাদের ভূখণ্ডের মধ্যে ভারতের এখনও ৫৭ সেনা ও একটি বুলডোজার রয়েছে।

এদিকে ডোকলামকে ঘিরে চীন ও ভারতের অচলাবস্থা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এক প্রভাবশালী মার্কিন আইনপ্রণেতা ডোকলামে উসকানিমূলক পদক্ষেপ নেয়ার জন্য বেইজিংকে অভিযুক্ত করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনোয়িস রাজ্যের কংগ্রেস সদস্য রাজা কৃষ্ঞমূর্তি বলেন, Èডোকলাম অঞ্চলে যা ঘটছে সে ব্যাপারে আমি খুবই উদ্বিগ্ন।

আমি মনে করি যে, এ ব্যাপারে চীন বেশ উসকানিমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে, যা এ অঞ্চলে সীমান্ত উত্তেজনা আরও বাড়িয়েছে। ভারতে এক সংক্ষপ্তি সফর শেষে দেশে ফিরে তিনি একথা বলেন।

চলতি সপ্তাহে ভারত সফরে এসে তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করেন এবং বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। তবে ডোকলামের অচলাবস্থা নিয়ে তাদের মধ্যে কোনো আলোচনা হয়নি বলে জানান তিনি।

এ ব্যাপারে নিজের মতামত জানিয়ে কৃষ্ঞমূর্তি বলেন, Èআমি এ ব্যাপারে একটি শানি্তপূর্ণ কূটনৈতিক সমাধানের আহ্বান জানিয়েছি।

এ ব্যাপারে আমি আশাবাদী।’ ডোকলাম নিয়ে চীন-ভারত উত্তেজনায় যুক্তরাষ্ট্র বরাবর নীরব থাকার নীতি নিলেও এই প্রথম কোনো মার্কিন কর্মকর্তা এ ব্যাপারে কথা বললেন।

এদিকে আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, ডোকলামের পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে সীমান্ত লাগোয়া ভারতীয় গ্রামগুলোকে খালি করে দিতে বলেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী।

সেনাবাহিনীর পরামর্শ মেনে গ্রাম খালি করে দেয়ার প্রস্তুতিও শুরু হয়ে গেছে ভারত-ভুটান-চীন সীমান্তবর্তী নাথাং এলাকায়। ডোকলাম থেকে ৩৫ কিলোমিটার দূরে নাথাং।

ছোট্ট ওই গ্রামে সব মিলিয়ে শ’খানেক মানুষের বাস। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব গ্রাম খালি করে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই গ্রাম খালি করার কাজ শুরু হয়েছে।

সেখানকার বাসিন্দারা জানিয়েছেন, সেনাবাহিনীর নির্দেশ মেনেই নিরাপদ জায়গায় সরে যাচ্ছেন তারা। গ্রামের মধ্য দিয়ে সেনা কনভয়ের যাতায়াত হঠাত্ করে অনেকটাই বেড়ে গেছে বলে তাদের দাবি।

এদিকে সম্প্রতি সুকনার সেনা ছাউনি থেকে যে কয়েক হাজার সেনা ডোকলামে পাঠানো হয়েছে। তাদের থাকার ব্যবস্থা করতেই কি সীমান্তবর্তী গ্রাম খালি করে দেয়া হচ্ছে, নাকি পরিস্থিতির অবনতি হলে সাধারণ নাগরিকদের ক্ষয়ক্ষতির কথা মাথায় রেখেই এ ব্যবস্থা∏ সেটা এখনও পরিষ্কার নয়।

এদিকে ডোকলামের মালিকানার ব্যাপারে চীনের দাবি নাকচ করে দিয়ে ভুটান বলেছে, ডোকলামের মালিকানা ভুটানের।  ডোকলামকে চীনের এলাকা বলে মেনে নিয়েছে ভুটান, বুধবার এমন দাবি করে চীন।

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সীমান্ত ও সমুদ্র বিষয়ক বিভাগের ডেপুটি পরিচালক ওয়াং ওয়েনলি ভারতীয় সাংবাদিকদের একথা বলেন। বৃহস্পতিবার চীনের ওই দাবি নাকচ করে দেয় ভুটান।

বিতর্কিত সীমান্ত নিয়ে ভারত ও চীনের মধ্যে যে টানাপোড়েন চলছে, ভুটানের এ বক্তব্য সেই টানাপোড়েনের ক্ষেত্রে ভারতের অবস্থানকে আরও মজবুত করেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X