রবিবার, ১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৬ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ভোর ৫:০১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, December 30, 2016 11:31 pm
A- A A+ Print

ভোটাধিকার হরণকারীদের রাজপথে নামতে দেবে না জনগণ’

দেশের জনগণ আগামী ৫ জানুয়ারি ভোটাধিকার হরণকারী বিএনপি-জামায়াত জোটকে রাজপথে কোনো কর্মসূচি পালন করতে দেবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের যৌথসভায় তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন। আগামী ১০ জানুয়ারি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের জনসভা সফল করতে এই যৌথসভা অনুষ্ঠিত হয়। হানিফ বলেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নিয়ে ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। নির্দিষ্ট সময়ে জাতীয় নির্বাচন না হলে দেশে সাংবিধানিক শূন্যতার সৃষ্টি হয়। এ কারণে ৫ জানুয়ারি নির্বাচন থেকে পিছিয়ে আসার কোনো সুযোগ ছিল না। তিনি বলেন, 'আমরা বিএনপিকে নির্বাচনে আহ্বান জানিয়েছিলাম, কিন্তু তারা অংশ নেয়নি। তারা নির্বাচনকে প্রতিহতের ঘোষণা দিয়েছিল।' আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, 'বিএনপি জনগণের ভোটাধিকার হরণের জন্য এটা করেছিল। সেই তারা এখন ৫ জানুয়ারিতে গণতন্ত্রের হত্যা দিবস পালন করবে। গণতন্ত্র হত্যার প্রচেষ্টা যদি কেউ করে থাকে, সেটা বিএনপি-জামায়াত করেছে। আওয়ামী লীগ নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নির্বাচন করে গণতন্ত্র রক্ষা করেছিল, এদিন আসলে গণতন্ত্রের বিজয় দিবস।' তিনি বলেন, 'পত্রিকায় দেখলাম- বিএনপি বলেছে, তারা গণতন্ত্র হত্যা দিবস পালন করবে। দেশের জনগণ এটা কখনো মেনে নেবে না। জনগণের ভোটাধিকার হরণের জন্য সেই দিন যারা ৪৭ জন সাধারণ মানুষ এবং দুজন প্রিসাইডিং অফিসারকে হত্যা করেছিল, হাজার মানুষকে আহত করেছিল। পাঁচশ ভোট কেন্দ্র পুড়িয়ে দিয়েছিল, সেই ভোটাধিকার হরণকারীদের এদেশের জনগণ ৫ জানুয়ারি রাজপথে কোনো কর্মসূচি পালন করতে দেবে না।' বিএনপিকে ভুল রাজনীতির ধারা থেকে বেরিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে হানিফ বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময়ে বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রীর অধীনেই হবে। আপনারা সে নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য এখন থেকে প্রস্তুতি নিন। ভুল রাজনীতি করে দলটাকে আর ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাবেন না। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, সহ-সভাপতি হুমায়ুন কবির, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিলীপ রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আশরাফ তালুকদার প্রমুখ।

Comments

Comments!

 ভোটাধিকার হরণকারীদের রাজপথে নামতে দেবে না জনগণ’AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ভোটাধিকার হরণকারীদের রাজপথে নামতে দেবে না জনগণ’

Friday, December 30, 2016 11:31 pm

দেশের জনগণ আগামী ৫ জানুয়ারি ভোটাধিকার হরণকারী বিএনপি-জামায়াত জোটকে রাজপথে কোনো কর্মসূচি পালন করতে দেবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ।

শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের যৌথসভায় তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন।

আগামী ১০ জানুয়ারি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের জনসভা সফল করতে এই যৌথসভা অনুষ্ঠিত হয়।

হানিফ বলেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নিয়ে ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। নির্দিষ্ট সময়ে জাতীয় নির্বাচন না হলে দেশে সাংবিধানিক শূন্যতার সৃষ্টি হয়। এ কারণে ৫ জানুয়ারি নির্বাচন থেকে পিছিয়ে আসার কোনো সুযোগ ছিল না।

তিনি বলেন, ‘আমরা বিএনপিকে নির্বাচনে আহ্বান জানিয়েছিলাম, কিন্তু তারা অংশ নেয়নি। তারা নির্বাচনকে প্রতিহতের ঘোষণা দিয়েছিল।’

আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বিএনপি জনগণের ভোটাধিকার হরণের জন্য এটা করেছিল। সেই তারা এখন ৫ জানুয়ারিতে গণতন্ত্রের হত্যা দিবস পালন করবে। গণতন্ত্র হত্যার প্রচেষ্টা যদি কেউ করে থাকে, সেটা বিএনপি-জামায়াত করেছে। আওয়ামী লীগ নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নির্বাচন করে গণতন্ত্র রক্ষা করেছিল, এদিন আসলে গণতন্ত্রের বিজয় দিবস।’

তিনি বলেন, ‘পত্রিকায় দেখলাম- বিএনপি বলেছে, তারা গণতন্ত্র হত্যা দিবস পালন করবে। দেশের জনগণ এটা কখনো মেনে নেবে না। জনগণের ভোটাধিকার হরণের জন্য সেই দিন যারা ৪৭ জন সাধারণ মানুষ এবং দুজন প্রিসাইডিং অফিসারকে হত্যা করেছিল, হাজার মানুষকে আহত করেছিল। পাঁচশ ভোট কেন্দ্র পুড়িয়ে দিয়েছিল, সেই ভোটাধিকার হরণকারীদের এদেশের জনগণ ৫ জানুয়ারি রাজপথে কোনো কর্মসূচি পালন করতে দেবে না।’

বিএনপিকে ভুল রাজনীতির ধারা থেকে বেরিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে হানিফ বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময়ে বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রীর অধীনেই হবে। আপনারা সে নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য এখন থেকে প্রস্তুতি নিন। ভুল রাজনীতি করে দলটাকে আর ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাবেন না।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, সহ-সভাপতি হুমায়ুন কবির, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিলীপ রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আশরাফ তালুকদার প্রমুখ।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X