রবিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৯:৫৬
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, September 15, 2016 2:43 pm
A- A A+ Print

মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভারের দ্বিতীয় অংশ চালু

1

মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভারের ইস্কাটন থেকে মগবাজার ওয়্যারলেস গেট পর্যন্ত এক কিলোমিটার যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভার প্রকল্পের এই অংশের উদ্বোধন করেন। এর মাধ্যমে ইস্কাটন থেকে মগবাজার ওয়্যারলেস গেট পর্যন্ত ফ্লাইওভারের এই অংশের যাত্রা শুরু হলো। উদ্বোধনের সময় মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ইতিমধ্যে এ ফ্লাইওভার উদ্বোধন করে দিয়েছেন।  আজ আরো একটি অংশের উদ্বোধন করলাম। আশা করি পুরো ফ্লাইওভারের কাজ শেষ হয়ে গেলে যানজট নিরসনে ভূমিকা রাখবে।’ তিনি বলেন, ‘যে অংশটার উদ্বোধন হলো  সেটার দৈর্ঘ্য এক কিলোমিটার। অগামী জুন-জুলাইয়ের মধ্যে বাকি অংশের উদ্বোধন করতে সক্ষম হবো, ইনশা আল্লাহ।’ এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন এলজিআরডি সচিব আব্দুল মালেক, প্রধান প্রকৌশলী শ্যামা প্রসাদ অধিকারী প্রমুখ। এই ফ্লাইওভার নির্মাণে প্রতি মিটারে সাড়ে ১৩ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে বলে জানা যায়। এর আগে ফ্লাইওভারটির প্রথমাংশ সাতরাস্তা থেকে রমনা থানা পর্যন্ত উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ফ্লাইওভারটির তৃতীয় অংশ ওয়্যারলেস গেট থেকে মৌচাক হয়ে রামপুরা পর্যন্ত যাবে। এ অংশের এক পাশ যাবে রাজারবাগ, এক পাশ যাবে শান্তিনগর। এর নির্মাণকাজ চলতি বছরের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। ২০১১ সালের ৮ মার্চ জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে (একনেক) অনুমোদন হয় মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভার প্রকল্পটি। তিন অংশে বিভক্ত ফ্লাইওভারের কাজ দেওয়া হয় ভারতের সিমপ্লেক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেড ও নাভানার যৌথ উদ্যোগের প্রতিষ্ঠান ‘সিমপ্লেক্স নাভানা জেভি’ এবং চীনা প্রতিষ্ঠান দ্য নাম্বার ফোর মেটালার্জিক্যাল কনস্ট্রাকশন ওভারসিজ কোম্পানি (এমসিসিসি) ও তমা কনস্ট্রাকশন লিমিটেডকে। এ কোম্পানিগুলো স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে ২০১৩ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি নির্মাণকাজ শুরু করে। প্রথমে ২০১৩ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে কাজ শেষ করার কথা ছিল। তখন নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছিল ৭৭২ কোটি ৭০ লাখ টাকা। তবে নির্ধারিত সময়ে শেষ করতে না পারায় পর্যায়ক্রমে দুবার প্রকল্পের সময় ও ব্যয় বাড়ানো হয়। বাড়ানো সময়ের প্রথম দফায় কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল ২০১৪ সালের মধ্যে। পরে দ্বিতীয় দফায় ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে কাজ শেষ করে চালু করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তাও সম্ভব হয়নি। এর মধ্যে ঠিকাদার ও তত্ত্বাবধায়ক প্রতিষ্ঠানের ব্যর্থতার কারণে তিন দফায় সময় বাড়ানোর পর এখন ২০১৭ সালের জুনের মধ্যে পুরো প্রকল্পের কাজ শেষ করার আশ্বাস দেওয়া হচ্ছে। মেয়াদ বাড়ার সমান্তরালে প্রকল্পের ব্যয়ও প্রায় ৫৮ শতাংশ বাড়িয়ে ১ হাজার ২১৯ কোটি টাকা করা হয়।  

Comments

Comments!

 মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভারের দ্বিতীয় অংশ চালুAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভারের দ্বিতীয় অংশ চালু

Thursday, September 15, 2016 2:43 pm
1

মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভারের ইস্কাটন থেকে মগবাজার ওয়্যারলেস গেট পর্যন্ত এক কিলোমিটার যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভার প্রকল্পের এই অংশের উদ্বোধন করেন।

এর মাধ্যমে ইস্কাটন থেকে মগবাজার ওয়্যারলেস গেট পর্যন্ত ফ্লাইওভারের এই অংশের যাত্রা শুরু হলো।

উদ্বোধনের সময় মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ইতিমধ্যে এ ফ্লাইওভার উদ্বোধন করে দিয়েছেন।  আজ আরো একটি অংশের উদ্বোধন করলাম। আশা করি পুরো ফ্লাইওভারের কাজ শেষ হয়ে গেলে যানজট নিরসনে ভূমিকা রাখবে।’

তিনি বলেন, ‘যে অংশটার উদ্বোধন হলো  সেটার দৈর্ঘ্য এক কিলোমিটার। অগামী জুন-জুলাইয়ের মধ্যে বাকি অংশের উদ্বোধন করতে সক্ষম হবো, ইনশা আল্লাহ।’

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন এলজিআরডি সচিব আব্দুল মালেক, প্রধান প্রকৌশলী শ্যামা প্রসাদ অধিকারী প্রমুখ।

এই ফ্লাইওভার নির্মাণে প্রতি মিটারে সাড়ে ১৩ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে বলে জানা যায়। এর আগে ফ্লাইওভারটির প্রথমাংশ সাতরাস্তা থেকে রমনা থানা পর্যন্ত উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ফ্লাইওভারটির তৃতীয় অংশ ওয়্যারলেস গেট থেকে মৌচাক হয়ে রামপুরা পর্যন্ত যাবে। এ অংশের এক পাশ যাবে রাজারবাগ, এক পাশ যাবে শান্তিনগর। এর নির্মাণকাজ চলতি বছরের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

২০১১ সালের ৮ মার্চ জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে (একনেক) অনুমোদন হয় মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভার প্রকল্পটি। তিন অংশে বিভক্ত ফ্লাইওভারের কাজ দেওয়া হয় ভারতের সিমপ্লেক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেড ও নাভানার যৌথ উদ্যোগের প্রতিষ্ঠান ‘সিমপ্লেক্স নাভানা জেভি’ এবং চীনা প্রতিষ্ঠান দ্য নাম্বার ফোর মেটালার্জিক্যাল কনস্ট্রাকশন ওভারসিজ কোম্পানি (এমসিসিসি) ও তমা কনস্ট্রাকশন লিমিটেডকে।

এ কোম্পানিগুলো স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে ২০১৩ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি নির্মাণকাজ শুরু করে। প্রথমে ২০১৩ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে কাজ শেষ করার কথা ছিল। তখন নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছিল ৭৭২ কোটি ৭০ লাখ টাকা।

তবে নির্ধারিত সময়ে শেষ করতে না পারায় পর্যায়ক্রমে দুবার প্রকল্পের সময় ও ব্যয় বাড়ানো হয়। বাড়ানো সময়ের প্রথম দফায় কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল ২০১৪ সালের মধ্যে। পরে দ্বিতীয় দফায় ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে কাজ শেষ করে চালু করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তাও সম্ভব হয়নি। এর মধ্যে ঠিকাদার ও তত্ত্বাবধায়ক প্রতিষ্ঠানের ব্যর্থতার কারণে তিন দফায় সময় বাড়ানোর পর এখন ২০১৭ সালের জুনের মধ্যে পুরো প্রকল্পের কাজ শেষ করার আশ্বাস দেওয়া হচ্ছে।

মেয়াদ বাড়ার সমান্তরালে প্রকল্পের ব্যয়ও প্রায় ৫৮ শতাংশ বাড়িয়ে ১ হাজার ২১৯ কোটি টাকা করা হয়।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X