মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১২:০৭
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, June 8, 2017 9:01 am
A- A A+ Print

মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতি নতুন মোড় নিচ্ছে, কাতারে সেনা ঘাঁটি স্থাপন করছে তুরস্ক!

3

আঙ্কারা: কাতারের সঙ্গে কয়েকটি দেশের কূটনীতিক সম্পর্ক ছিন্নের ঘটনায় মধ্যপ্রাচ্যের রাজনীতিতে চরম উত্তেজনার মধ্যেই কাতারের নিরাপত্তার জন্য সেনা মোতায়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছে তুরস্ক। এ জন্য কাতারে সামরিক ঘাঁটি স্থাপনে বুধবার একটি আইনও পাস করেছে তুরস্কের পার্লামেন্ট। এতে মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতি নতুন মোড় নিচ্ছে বলেই ধারণা করা হচ্ছে। আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মে মাসে খসড়া প্রস্তুত হওয়া বিলটি ২৪০ ভোটে তুর্কি পার্লামেন্টে পাশ হয়েছে। ক্ষমতাসীন একে পার্টি ও জাতীয়তাবাদী বিরোধী দল এমএইচপি এ বিলের পক্ষে সমর্থন দেয়। তুরস্কের এ সিদ্ধান্তটি এ মুহুর্তের কূটনৈতিক সঙ্কটে এক ঘরে হয়ে যাওয়া কাতারের প্রতি স্পষ্ট সমর্থন। মধ্যপ্রাচ্যের শক্তিধর কিছু রাষ্ট্র সকল ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করে কোণঠাসা করে রেখেছে দেশটিকে। এরই মধ্যে কাতারের অন্যতম মিত্র হিসেবে তুরস্ক দেশটিতে সেনা ঘাঁটি স্থাপন করতে যাচ্ছে। মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় সেনা ঘাঁটিও কিন্তু কাতারেই। আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, সন্ত্রাসী ও চরমপন্থী গোষ্ঠীকে সহযোগীতার অভিযোগে সৌদি আরব, মিশর, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন কাতারের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে এবং সোমবার আকাশপথে সব ধরনের ফ্লাইট বন্ধ করে দিয়েছে। তাদের সাথে কাতারের বিপক্ষে যোগ দিয়েছে সৌদিমিত্র জর্ডান, মিশর, মালদ্বীপও। কাতার জোরালোভাবে তাদের এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে। কয়েক দশকের মধ্যে শক্তিশালী আরব রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে এটিই সবচেয়ে বড় ধরণের দ্বন্দ্ব হিসেবে ধরা হচ্ছে। মূলত হামাস নিয়ন্ত্রিত গাজা পুনর্গঠনে কাতারের বিপুল পরিমান আর্থিক সাহায্যের কারণে আরব দেশগুলো কাতারের বিপক্ষ নিয়েছে। তুরস্কের রাষ্ট্রপতি রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান আরব রাষ্ট্রসমূহের এ পদক্ষেপের সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেন, কাতারকে বিচ্ছিন্ন করা এবং নিষেধাজ্ঞা আরোপের মধ্যে দিয়ে সমস্যার কোনো সমাধান করা হবে না এবং আঙ্কারা এ সঙ্কটের অবসান ঘটাতে তার সাধ্যের সবকিছু করবে। তুরস্ক কাতারের পাশাপাশি তার উপসাগরীয় আরব প্রতিবেশী দেশগুলোরও সাথে ভাল সম্পর্ক বজায় রেখেছে। ২০১৫ সালের শেষের দিকে রয়টার্সের সাথে একটি সাক্ষাৎকারে কাতারের তুরস্কের রাষ্ট্রদূত আহমেদ ডেমিরক বলেন, যৌথ সামরিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপনে তুরস্ক কাতারে ৩০০০ স্থলবাহিনীর একটি ঘাঁটি স্থাপন করবে। এর মধ্যেই কাতারে সামরিক ঘাঁটি স্থাপনে বুধবার একটি আইন পাস করেছে তুরস্কের পার্লামেন্ট। আল জাজিরা অবলম্বনে

Comments

Comments!

 মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতি নতুন মোড় নিচ্ছে, কাতারে সেনা ঘাঁটি স্থাপন করছে তুরস্ক!AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতি নতুন মোড় নিচ্ছে, কাতারে সেনা ঘাঁটি স্থাপন করছে তুরস্ক!

Thursday, June 8, 2017 9:01 am
3

আঙ্কারা: কাতারের সঙ্গে কয়েকটি দেশের কূটনীতিক সম্পর্ক ছিন্নের ঘটনায় মধ্যপ্রাচ্যের রাজনীতিতে চরম উত্তেজনার মধ্যেই কাতারের নিরাপত্তার জন্য সেনা মোতায়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছে তুরস্ক। এ জন্য কাতারে সামরিক ঘাঁটি স্থাপনে বুধবার একটি আইনও পাস করেছে তুরস্কের পার্লামেন্ট। এতে মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতি নতুন মোড় নিচ্ছে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মে মাসে খসড়া প্রস্তুত হওয়া বিলটি ২৪০ ভোটে তুর্কি পার্লামেন্টে পাশ হয়েছে। ক্ষমতাসীন একে পার্টি ও জাতীয়তাবাদী বিরোধী দল এমএইচপি এ বিলের পক্ষে সমর্থন দেয়।

তুরস্কের এ সিদ্ধান্তটি এ মুহুর্তের কূটনৈতিক সঙ্কটে এক ঘরে হয়ে যাওয়া কাতারের প্রতি স্পষ্ট সমর্থন। মধ্যপ্রাচ্যের শক্তিধর কিছু রাষ্ট্র সকল ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করে কোণঠাসা করে রেখেছে দেশটিকে।

এরই মধ্যে কাতারের অন্যতম মিত্র হিসেবে তুরস্ক দেশটিতে সেনা ঘাঁটি স্থাপন করতে যাচ্ছে। মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় সেনা ঘাঁটিও কিন্তু কাতারেই।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, সন্ত্রাসী ও চরমপন্থী গোষ্ঠীকে সহযোগীতার অভিযোগে সৌদি আরব, মিশর, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন কাতারের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে এবং সোমবার আকাশপথে সব ধরনের ফ্লাইট বন্ধ করে দিয়েছে। তাদের সাথে কাতারের বিপক্ষে যোগ দিয়েছে সৌদিমিত্র জর্ডান, মিশর, মালদ্বীপও।

কাতার জোরালোভাবে তাদের এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে। কয়েক দশকের মধ্যে শক্তিশালী আরব রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে এটিই সবচেয়ে বড় ধরণের দ্বন্দ্ব হিসেবে ধরা হচ্ছে। মূলত হামাস নিয়ন্ত্রিত গাজা পুনর্গঠনে কাতারের বিপুল পরিমান আর্থিক সাহায্যের কারণে আরব দেশগুলো কাতারের বিপক্ষ নিয়েছে।

তুরস্কের রাষ্ট্রপতি রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান আরব রাষ্ট্রসমূহের এ পদক্ষেপের সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেন, কাতারকে বিচ্ছিন্ন করা এবং নিষেধাজ্ঞা আরোপের মধ্যে দিয়ে সমস্যার কোনো সমাধান করা হবে না এবং আঙ্কারা এ সঙ্কটের অবসান ঘটাতে তার সাধ্যের সবকিছু করবে।

তুরস্ক কাতারের পাশাপাশি তার উপসাগরীয় আরব প্রতিবেশী দেশগুলোরও সাথে ভাল সম্পর্ক বজায় রেখেছে।

২০১৫ সালের শেষের দিকে রয়টার্সের সাথে একটি সাক্ষাৎকারে কাতারের তুরস্কের রাষ্ট্রদূত আহমেদ ডেমিরক বলেন, যৌথ সামরিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপনে তুরস্ক কাতারে ৩০০০ স্থলবাহিনীর একটি ঘাঁটি স্থাপন করবে।

এর মধ্যেই কাতারে সামরিক ঘাঁটি স্থাপনে বুধবার একটি আইন পাস করেছে তুরস্কের পার্লামেন্ট।

আল জাজিরা অবলম্বনে

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X