বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সন্ধ্যা ৭:০১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, September 17, 2017 8:54 pm
A- A A+ Print

মন্ত্রীর নির্দেশের পর অভিযান: রশিদের চালের মিল ফাঁকা, খালি হাতে ফেরত এলো টাস্কফোর্স

kushtia_pic-3_58164_1505658338

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের নির্দেশের পরপরই রোববার বিকালে কুষ্টিয়ার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ও এসপির নেতৃত্বে বাংলাদেশ চালকল মালিক সমিতির চেয়ারম্যান আবদুর রশিদের গুদামে অভিযান চালায় টাস্কফোর্স।
বিকাল সোয়া ৪টার দিকে কুষ্টিয়ার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান ও পুলিশ সুপার এসএম মেহেদী হাসানের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম চালের মোকাম কুষ্টিয়ার খাজানগরে অবস্থিত রশিদ এগ্রো ফুড লিমিটেডে অভিযান চালায়।
তবে গুদামে কোনো কিছু না পেয়ে খালি হাতে ফেরৎ আসেন টাস্কফোর্সের সদস্যরা।
এরপর টাস্কফোর্স সদস্যরা পাশের জোয়ার্দার রাইস মিলে অভিযান চালান। সেখানেও কোনো কিছুর সন্ধান না পেয়ে ফিরে আসে টাস্কফোর্স সদস্যরা।
অভিযান প্রসঙ্গে কুষ্টিয়ার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান জানান, চালের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে কঠোর মনিটরিংয়ের পাশাপাশি নিয়মিত টাস্কফোর্সের অভিযান চলছে। এরই অংশ হিসেবে আবদুর রশিদের গুদামে অভিযান চালানো হয়েছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।
সূত্র জানায়, রোববার সচিবালয়ে আটোমিল মালিক অ্যাসোসিয়েশনের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ অতিরিক্ত চাল মজুদের অভিযোগে বাংলাদেশ চালকল মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি 'রাইস কিং' খ্যাত কুষ্টিয়ার আবদুর রশিদ এবং সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক নওগাঁ জেলার লায়েক আলীকে গ্রেফতারের নির্দেশ দেন।
সচিবালয়ে বাংলাদেশ অটো রাইস মিল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন নেতাদের সঙ্গে বৈঠককালে তিনি মোবাইলফোনে সংশ্লিষ্ট জেলার ডিসি ও এসপিদের এ নির্দেশ দেন। বৈঠকে খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলামও উপস্থিত ছিলেন।
জানা গেছে, বৈঠকে চাল সংকট কাটাতে দেশের কোথায় এবং কোন গুদামে চাল মজুদ আছে সে বিষয়টি জানতে চান বাণিজ্যমন্ত্রী। এক পর্যায়ে বাংলাদেশ চালকল মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি 'রাইস কিং' খ্যাত কুষ্টিয়ার আবদুর রশিদ এবং সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক নওগাঁ জেলার লায়েক আলীর নাম উঠে আসে। নওগাঁসহ দেশের কয়েকটি জেলায় তার একাধিক চালের মিল ও গুদাম রয়েছে।
সম্প্রতি সরকারি একটি গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্রায় দু লাখ মেট্রিকটন চাল মজুদ রাখা আছে রশিদের গুদামে এমন তথ্যের ভিত্তিতে গত ১১ সেপ্টেম্বর কুষ্টিয়া সদর এসিল্যান্ড সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে টাস্কফোর্স সদস্যরা আবদুর রশিদের গুদামে অভিযান চালায়। সেখানে টাস্কফোর্স টিম তার ১৩টি গোডাউনে বিপুল পরিমাণ ধান ও চাল মজুদের প্রমাণ পান।
সেখানে উপস্থিত সাংবাদিকদের টাস্কফোর্স টিমের প্রধান সদর এসিল্যান্ড সাইফুল ইসলাম জানান, অবৈধ মজুদদারির মাধ্যমে আবদুর রশিদ প্রতিদিন অন্তত ২৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। কিন্তু মজুদদারির অভিযোগে রশিদকে গ্রেফতার না করে টাস্কফোর্স মাত্র ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে।
সূত্র জানায়, অভিযানের পর চালকল মালিক সমিতির এই নেতা কুষ্টিয়ার গোডাউনগুলোতে রাখা বিপুল পরিমাণ ধান-চাল দেশের অন্যান্য গোডাউনে সরিয়ে ফেলেছেন।
বিষয়টি জানতে পেরে বাণিজ্যমন্ত্রী তাৎক্ষণিকভাবে কুষ্টিয়ার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ও নওগাঁর ডিসি এবং দুই জেলার এসপির সঙ্গে ফোনে কথা বলেন।
এ সময় বাণিজ্যমন্ত্রী তাদের বলেন, ‘রশিদের মতো লোকরে কোন আইনে মাত্র ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। তিনি অতিরিক্ত চাল মজুদ করে যে অপরাধ করেছেন তাতে তাকে তাৎক্ষণিকভাবে গ্রেফতার করা উচিত ছিল । এ মুহূর্তে আবারও তার গুদামে অভিযান চালান। সেখানে মজুদ করা অতিরিক্ত চাল ও ধান জব্দ করে তাকে গ্রেফতার করুন।’
বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, অতিরিক্ত মজুদ রাখলে মিল মালিকদের তাৎক্ষণিক গ্রেফতার করা হবে। কারণ তারা সিন্ডিকেট করে বাজারে চাল সংকটের গুজব ছড়িয়েছে। তারাই সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে ষড়যন্ত্র করছে।
এ সময় বাণিজ্যমন্ত্রী সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক লায়েক আলীর গুদামেও অভিযান পরিচালনার নির্দেশ দিয়ে বলেন, এটা আমাদের সিদ্ধান্ত ও নির্দেশ। চালের ইস্যুটি ধৈর্যের চরম সীমায় পৌঁছেছে।এ সময় লায়েক আলী জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত বলে অভিযোগ করেন খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম।
এদিকে মাত্র দু’দিনের ব্যবধানে আবারও কুষ্টিয়ায় চালের দাম কেজি প্রতি দুই থেকে পাঁচ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। বাজারে যে মিনিকেট চাল ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছিল এখন তা ৬৫ টাকা কেজি, ২৮ চাল ৫২ টাকা থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ৫৬ টাকা, স্বর্ণা চাল ৪২ টাকা থেকে ৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এ নিয়ে গত এক মাসেরও কম সময়ের ব্যবধানে কুষ্টিয়ায় চালের দাম চতুর্থ দফায় কেজি প্রতি সর্বনিম্ন ৮ টাকা থেকে ১৫ টাকা পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে।

Comments

Comments!

 মন্ত্রীর নির্দেশের পর অভিযান: রশিদের চালের মিল ফাঁকা, খালি হাতে ফেরত এলো টাস্কফোর্সAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

মন্ত্রীর নির্দেশের পর অভিযান: রশিদের চালের মিল ফাঁকা, খালি হাতে ফেরত এলো টাস্কফোর্স

Sunday, September 17, 2017 8:54 pm
kushtia_pic-3_58164_1505658338
বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের নির্দেশের পরপরই রোববার বিকালে কুষ্টিয়ার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ও এসপির নেতৃত্বে বাংলাদেশ চালকল মালিক সমিতির চেয়ারম্যান আবদুর রশিদের গুদামে অভিযান চালায় টাস্কফোর্স।
বিকাল সোয়া ৪টার দিকে কুষ্টিয়ার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান ও পুলিশ সুপার এসএম মেহেদী হাসানের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম চালের মোকাম কুষ্টিয়ার খাজানগরে অবস্থিত রশিদ এগ্রো ফুড লিমিটেডে অভিযান চালায়।
তবে গুদামে কোনো কিছু না পেয়ে খালি হাতে ফেরৎ আসেন টাস্কফোর্সের সদস্যরা।
এরপর টাস্কফোর্স সদস্যরা পাশের জোয়ার্দার রাইস মিলে অভিযান চালান। সেখানেও কোনো কিছুর সন্ধান না পেয়ে ফিরে আসে টাস্কফোর্স সদস্যরা।
অভিযান প্রসঙ্গে কুষ্টিয়ার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান জানান, চালের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে কঠোর মনিটরিংয়ের পাশাপাশি নিয়মিত টাস্কফোর্সের অভিযান চলছে। এরই অংশ হিসেবে আবদুর রশিদের গুদামে অভিযান চালানো হয়েছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।
সূত্র জানায়, রোববার সচিবালয়ে আটোমিল মালিক অ্যাসোসিয়েশনের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ অতিরিক্ত চাল মজুদের অভিযোগে বাংলাদেশ চালকল মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি ‘রাইস কিং’ খ্যাত কুষ্টিয়ার আবদুর রশিদ এবং সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক নওগাঁ জেলার লায়েক আলীকে গ্রেফতারের নির্দেশ দেন।
সচিবালয়ে বাংলাদেশ অটো রাইস মিল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন নেতাদের সঙ্গে বৈঠককালে তিনি মোবাইলফোনে সংশ্লিষ্ট জেলার ডিসি ও এসপিদের এ নির্দেশ দেন। বৈঠকে খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলামও উপস্থিত ছিলেন।
জানা গেছে, বৈঠকে চাল সংকট কাটাতে দেশের কোথায় এবং কোন গুদামে চাল মজুদ আছে সে বিষয়টি জানতে চান বাণিজ্যমন্ত্রী। এক পর্যায়ে বাংলাদেশ চালকল মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি ‘রাইস কিং’ খ্যাত কুষ্টিয়ার আবদুর রশিদ এবং সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক নওগাঁ জেলার লায়েক আলীর নাম উঠে আসে। নওগাঁসহ দেশের কয়েকটি জেলায় তার একাধিক চালের মিল ও গুদাম রয়েছে।
সম্প্রতি সরকারি একটি গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্রায় দু লাখ মেট্রিকটন চাল মজুদ রাখা আছে রশিদের গুদামে এমন তথ্যের ভিত্তিতে গত ১১ সেপ্টেম্বর কুষ্টিয়া সদর এসিল্যান্ড সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে টাস্কফোর্স সদস্যরা আবদুর রশিদের গুদামে অভিযান চালায়। সেখানে টাস্কফোর্স টিম তার ১৩টি গোডাউনে বিপুল পরিমাণ ধান ও চাল মজুদের প্রমাণ পান।
সেখানে উপস্থিত সাংবাদিকদের টাস্কফোর্স টিমের প্রধান সদর এসিল্যান্ড সাইফুল ইসলাম জানান, অবৈধ মজুদদারির মাধ্যমে আবদুর রশিদ প্রতিদিন অন্তত ২৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। কিন্তু মজুদদারির অভিযোগে রশিদকে গ্রেফতার না করে টাস্কফোর্স মাত্র ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে।
সূত্র জানায়, অভিযানের পর চালকল মালিক সমিতির এই নেতা কুষ্টিয়ার গোডাউনগুলোতে রাখা বিপুল পরিমাণ ধান-চাল দেশের অন্যান্য গোডাউনে সরিয়ে ফেলেছেন।
বিষয়টি জানতে পেরে বাণিজ্যমন্ত্রী তাৎক্ষণিকভাবে কুষ্টিয়ার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ও নওগাঁর ডিসি এবং দুই জেলার এসপির সঙ্গে ফোনে কথা বলেন।
এ সময় বাণিজ্যমন্ত্রী তাদের বলেন, ‘রশিদের মতো লোকরে কোন আইনে মাত্র ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। তিনি অতিরিক্ত চাল মজুদ করে যে অপরাধ করেছেন তাতে তাকে তাৎক্ষণিকভাবে গ্রেফতার করা উচিত ছিল । এ মুহূর্তে আবারও তার গুদামে অভিযান চালান। সেখানে মজুদ করা অতিরিক্ত চাল ও ধান জব্দ করে তাকে গ্রেফতার করুন।’
বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, অতিরিক্ত মজুদ রাখলে মিল মালিকদের তাৎক্ষণিক গ্রেফতার করা হবে। কারণ তারা সিন্ডিকেট করে বাজারে চাল সংকটের গুজব ছড়িয়েছে। তারাই সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে ষড়যন্ত্র করছে।
এ সময় বাণিজ্যমন্ত্রী সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক লায়েক আলীর গুদামেও অভিযান পরিচালনার নির্দেশ দিয়ে বলেন, এটা আমাদের সিদ্ধান্ত ও নির্দেশ। চালের ইস্যুটি ধৈর্যের চরম সীমায় পৌঁছেছে।এ সময় লায়েক আলী জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত বলে অভিযোগ করেন খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম।
এদিকে মাত্র দু’দিনের ব্যবধানে আবারও কুষ্টিয়ায় চালের দাম কেজি প্রতি দুই থেকে পাঁচ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। বাজারে যে মিনিকেট চাল ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছিল এখন তা ৬৫ টাকা কেজি, ২৮ চাল ৫২ টাকা থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ৫৬ টাকা, স্বর্ণা চাল ৪২ টাকা থেকে ৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এ নিয়ে গত এক মাসেরও কম সময়ের ব্যবধানে কুষ্টিয়ায় চালের দাম চতুর্থ দফায় কেজি প্রতি সর্বনিম্ন ৮ টাকা থেকে ১৫ টাকা পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X