সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৪:১৭
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, July 11, 2017 11:38 am
A- A A+ Print

মসুলে আইএসের পতন ঘোষণা

2

ইরাকের মসুল শহরে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) পতনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল-আবাদি। মসুলে ইরাকের পতাকা উড়িয়ে সেনাবাহিনীর বিজয় ঘোষণা করেন আবাদি। বিজয় ঘোষণার সময় আবাদি বলেন, ‘সন্ত্রাসবাদের মিথ্যার সাম্রাজ্যের ব্যর্থতা, পতন ও সমাপ্তি ঘোষণা করলাম।’ সামনে আরো প্রতিকূলতা আসছে উল্লেখ করে আবাদি বলেন, ‘আমাদের সামনে আরেকটি কাজ রয়েছে। সেটি হলো স্থিতিশীলতা বজায় রাখা, সবকিছু নতুনভাবে সৃষ্টি করা ও দায়েশের (আইএস) ঘাঁটিগুলো গুঁড়িয়ে দেওয়া।’ মসুল নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে উল্লেখ করে মার্কিন নেতৃত্বাধীন ইরাকি বাহিনী জানায়, শহরটি থেকে বিস্ফোরকদ্রব্য সরিয়ে ফেলতে হবে। এখনো সেখানে আইএস সদস্যরা লুকিয়ে থাকতে পারে। ইরাকি বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মসুলে এখনো কিছু আইএস সদস্য থাকতে পারে। তারা পরিবার নিয়ে সেখানে অবস্থান করছে। পরিবারের নারী ও শিশুদের মানববর্ম হিসেবে তারা ব্যবহার করতে পারে। স্থানীয় সময় রোববার ইরাকের সেনাবাহিনী ও জনগণকে স্বাগত জানাতে মসুলে সফরে যান আবাদি। আবাদি সেখানে পৌঁছানোর পর রাস্তায় রাস্তায় বিজয় মিছিল নামে, তাঁকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানো হয়। ইরাকি সেনারা মার্কিন নেতৃত্বাধীন বাহিনীর সহায়তায় ২০১৬ সালের ১৭ অক্টোবর থেকে মসুল পুনরুদ্ধারের লড়াই শুরু করেছিল। তাদের সঙ্গে এ যুদ্ধে যোগ দেয় কুর্দিশ পেশমেরগা যোদ্ধা, সুন্নি ও শিয়াদের কয়েকটি গোষ্ঠী। নয় মাসব্যাপী যুদ্ধে শহরটি প্রায় ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়। এ ছাড়া শহর ছাড়ে  নয় লাখ ২০ হাজার জনের বেশি মানুষ। ২০১৪ সালে মসুল দখল করে গ্র্যান্ড আল-নুরি মসজিদ থেকে খেলাফতের ঘোষণা দিয়েছিল আইএস। এর পর থেকে ইরাকে মসুলকে আইএসের কার্যত রাজধানী বিবেচনা করা হতো।

Comments

Comments!

 মসুলে আইএসের পতন ঘোষণাAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

মসুলে আইএসের পতন ঘোষণা

Tuesday, July 11, 2017 11:38 am
2

ইরাকের মসুল শহরে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) পতনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল-আবাদি।

মসুলে ইরাকের পতাকা উড়িয়ে সেনাবাহিনীর বিজয় ঘোষণা করেন আবাদি।

বিজয় ঘোষণার সময় আবাদি বলেন, ‘সন্ত্রাসবাদের মিথ্যার সাম্রাজ্যের ব্যর্থতা, পতন ও সমাপ্তি ঘোষণা করলাম।’

সামনে আরো প্রতিকূলতা আসছে উল্লেখ করে আবাদি বলেন, ‘আমাদের সামনে আরেকটি কাজ রয়েছে। সেটি হলো স্থিতিশীলতা বজায় রাখা, সবকিছু নতুনভাবে সৃষ্টি করা ও দায়েশের (আইএস) ঘাঁটিগুলো গুঁড়িয়ে দেওয়া।’

মসুল নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে উল্লেখ করে মার্কিন নেতৃত্বাধীন ইরাকি বাহিনী জানায়, শহরটি থেকে বিস্ফোরকদ্রব্য সরিয়ে ফেলতে হবে। এখনো সেখানে আইএস সদস্যরা লুকিয়ে থাকতে পারে।

ইরাকি বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মসুলে এখনো কিছু আইএস সদস্য থাকতে পারে। তারা পরিবার নিয়ে সেখানে অবস্থান করছে। পরিবারের নারী ও শিশুদের মানববর্ম হিসেবে তারা ব্যবহার করতে পারে।

স্থানীয় সময় রোববার ইরাকের সেনাবাহিনী ও জনগণকে স্বাগত জানাতে মসুলে সফরে যান আবাদি। আবাদি সেখানে পৌঁছানোর পর রাস্তায় রাস্তায় বিজয় মিছিল নামে, তাঁকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানো হয়।

ইরাকি সেনারা মার্কিন নেতৃত্বাধীন বাহিনীর সহায়তায় ২০১৬ সালের ১৭ অক্টোবর থেকে মসুল পুনরুদ্ধারের লড়াই শুরু করেছিল। তাদের সঙ্গে এ যুদ্ধে যোগ দেয় কুর্দিশ পেশমেরগা যোদ্ধা, সুন্নি ও শিয়াদের কয়েকটি গোষ্ঠী।

নয় মাসব্যাপী যুদ্ধে শহরটি প্রায় ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়। এ ছাড়া শহর ছাড়ে  নয় লাখ ২০ হাজার জনের বেশি মানুষ।

২০১৪ সালে মসুল দখল করে গ্র্যান্ড আল-নুরি মসজিদ থেকে খেলাফতের ঘোষণা দিয়েছিল আইএস। এর পর থেকে ইরাকে মসুলকে আইএসের কার্যত রাজধানী বিবেচনা করা হতো।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X