শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ২:৪১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, November 8, 2016 7:36 am
A- A A+ Print

মাদার তেরেসা পুরস্কারে ভূষিত ফারাজ হোসেন

678

ঢাকার গুলশানে জঙ্গি হামলার সময় বন্ধুদের জন্য আত্মোৎসর্গকারী ফারাজ আইয়াজ হোসেনকে মাদার তেরেসা পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে। হারমনি ফাউন্ডেশন নামের একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ওই ঘটনায় সাহসী ভূমিকা রাখার স্বীকৃতিস্বরূপ ফারাজকে মাদার তেরেসা ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড ফর সোশ্যাল জাস্টিসে ভূষিত করেছে। ভারতের মুম্বাইভিত্তিক হারমনি ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম মাথাই বলেন, গত ১ জুলাই ফারাজ সাহসিকতার সঙ্গে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছিলেন। তিনি তাঁর বন্ধুদের সন্ত্রাসীদের শিকার হতে দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে তাঁদের পক্ষে দাঁড়িয়েছিলেন। এ কারণে তিনি ‘বীর’ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছেন। তাঁকে মরণোত্তর পুরস্কার দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফাউন্ডেশন। ফারাজের অভিভাবকেরা সন্তানের পক্ষে পুরস্কার গ্রহণ করতে ২০ নভেম্বর মুম্বাই যাবেন। এবারই প্রথম কাউকে মরণোত্তর এ পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে। আর্তমানবতার সেবায় নিবেদিতপ্রাণ মাদার তেরেসার আদর্শকে প্রচার করার লক্ষ্যেই মাদার তেরেসা ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হচ্ছে ২০০৫ সাল থেকে। এবার দেওয়া হচ্ছে দ্বাদশ পুরস্কার। গত ৪ সেপ্টেম্বর মিশনারি মাদার তেরেসাকে সেইন্ট (সন্তু) ঘোষণা করেন পোপ ফ্রান্সিস। এর আগে মাদার তেরেসা পুরস্কার পাওয়া উল্লেখযোগ্য ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান হলো ডক্টরস উইদাউট বর্ডার, দালাই লামা, মাহাথির মোহাম্মদ, ব্যারনেস ক্যারোলাইন কক্স, মালালা ইউসুফজাই প্রমুখ। এই পুরস্কারের সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়ে ফারাজের পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘এই পুরস্কার গ্রহণ আমাদের জন্য বিশাল সম্মান ও সৌভাগ্যের ব্যাপার। গভীর শোকে মুহ্যমান হওয়া সত্ত্বেও ফারাজের জন্য আমাদের হৃদয় গর্বে ভরে উঠেছে। সে ন্যায়ের পক্ষে দাঁড়িয়েছিল। এর জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করেছে সে। প্রতিদিন আমরা আশা করি, যেন তার আত্মত্যাগ বৃথা না যায়।’ আব্রাহাম মাথাই বলেন, ২০ বছর বয়সী ফারাজ এ পুরস্কারের জন্য সবচেয়ে যোগ্য ছিলেন। বিশ্বে এ ধরনের বীরের প্রয়োজন রয়েছে। অপরের জন্য তাঁর এই ত্যাগ এবং বন্ধুর জন্য জীবন উৎসর্গ করা সর্বোচ্চ পর্যায়ের ভালোবাসার প্রমাণ।

Comments

Comments!

 মাদার তেরেসা পুরস্কারে ভূষিত ফারাজ হোসেনAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

মাদার তেরেসা পুরস্কারে ভূষিত ফারাজ হোসেন

Tuesday, November 8, 2016 7:36 am
678

ঢাকার গুলশানে জঙ্গি হামলার সময় বন্ধুদের জন্য আত্মোৎসর্গকারী ফারাজ আইয়াজ হোসেনকে মাদার তেরেসা পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে। হারমনি ফাউন্ডেশন নামের একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ওই ঘটনায় সাহসী ভূমিকা রাখার স্বীকৃতিস্বরূপ ফারাজকে মাদার তেরেসা ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড ফর সোশ্যাল জাস্টিসে ভূষিত করেছে।
ভারতের মুম্বাইভিত্তিক হারমনি ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম মাথাই বলেন, গত ১ জুলাই ফারাজ সাহসিকতার সঙ্গে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছিলেন। তিনি তাঁর বন্ধুদের সন্ত্রাসীদের শিকার হতে দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে তাঁদের পক্ষে দাঁড়িয়েছিলেন। এ কারণে তিনি ‘বীর’ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছেন। তাঁকে মরণোত্তর পুরস্কার দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফাউন্ডেশন।
ফারাজের অভিভাবকেরা সন্তানের পক্ষে পুরস্কার গ্রহণ করতে ২০ নভেম্বর মুম্বাই যাবেন। এবারই প্রথম কাউকে মরণোত্তর এ পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে।
আর্তমানবতার সেবায় নিবেদিতপ্রাণ মাদার তেরেসার আদর্শকে প্রচার করার লক্ষ্যেই মাদার তেরেসা ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হচ্ছে ২০০৫ সাল থেকে। এবার দেওয়া হচ্ছে দ্বাদশ পুরস্কার। গত ৪ সেপ্টেম্বর মিশনারি মাদার তেরেসাকে সেইন্ট (সন্তু) ঘোষণা করেন পোপ ফ্রান্সিস।
এর আগে মাদার তেরেসা পুরস্কার পাওয়া উল্লেখযোগ্য ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান হলো ডক্টরস উইদাউট বর্ডার, দালাই লামা, মাহাথির মোহাম্মদ, ব্যারনেস ক্যারোলাইন কক্স, মালালা ইউসুফজাই প্রমুখ।
এই পুরস্কারের সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়ে ফারাজের পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘এই পুরস্কার গ্রহণ আমাদের জন্য বিশাল সম্মান ও সৌভাগ্যের ব্যাপার। গভীর শোকে মুহ্যমান হওয়া সত্ত্বেও ফারাজের জন্য আমাদের হৃদয় গর্বে ভরে উঠেছে। সে ন্যায়ের পক্ষে দাঁড়িয়েছিল। এর জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করেছে সে। প্রতিদিন আমরা আশা করি, যেন তার আত্মত্যাগ বৃথা না যায়।’
আব্রাহাম মাথাই বলেন, ২০ বছর বয়সী ফারাজ এ পুরস্কারের জন্য সবচেয়ে যোগ্য ছিলেন। বিশ্বে এ ধরনের বীরের প্রয়োজন রয়েছে। অপরের জন্য তাঁর এই ত্যাগ এবং বন্ধুর জন্য জীবন উৎসর্গ করা সর্বোচ্চ পর্যায়ের ভালোবাসার প্রমাণ।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X