বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১:২২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, September 16, 2017 5:45 pm
A- A A+ Print

মিয়ানমারে কারা সবচেয়ে বেশি অস্ত্র বিক্রি করে?

myanmar-army_58052_1505556445

সব মানবিক আবেদন ধুলোয় লুটিয়ে রাখাইন রাজ্যের মুসলিম রোহিঙ্গা নিধন অভিযানে নেমেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। কয়েক দশক আগেও মিয়ানমার সেনাবাহিনী সামরিক দিক থেকে ক্ষমতাশালী ছিল না। ১৯৯০ সালের পর থেকেই ক্রমাগত শক্তিশালী হয়ে ওঠে মিয়ানমার সামরিক জান্তা। মালিক হয়ে ওঠে যুদ্ধবিমান, মিসাইল, সামরিক যানসহ বিভিন্ন অত্যাধুনিক মারণাস্ত্রের। মোট জাতীয় বাজেটের এক-চতুর্থাংশ ব্যয় করে সামরিক বাহিনীর পেছনে মিয়ানমার। দীর্ঘদিনের এই খরচে দেশটির সেনাবাহিনীকে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় দ্বিতীয় বৃহৎ শক্তিতে পরিণত করেছে। এই শক্তিশালী সেনারা নিরস্ত্র রোহিঙ্গাদের ওপর অত্যাধুনিক অস্ত্রের বহর নিয়ে ঝাপিয়ে পড়েছে ধর্ষণ ও হত্যাযজ্ঞে। প্রশ্ন জাগতে পারে- কোন দেশগুলো মিয়ানমারের কাছে অস্ত্র বিক্রি করে? এ তালিকায় রয়েছে- রাশিয়া, চীন, ইসরাইল, ইউক্রেন, ভারতের  মতো প্রভাবশালী দেশ। স্টকহোম আন্তর্জাতিক শান্তি গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (এসআইপিআরপি) বরাত দিয়ে কাতারি সংবাদমাধ্যম আলজাজিরার এক প্রতিবেদনে মিয়ানমারের কাছে অস্ত্র বিক্রেতাদের নাম তুলে ধরা হয়। এতে দেখা যায়, ১৯৯০ সালের পর থেকে মিয়ানমারে সবচেয়ে বেশি অস্ত্র বিক্রি করেছে চীন। তারা ১২০টি যুদ্ধবিমান, ৬৯৬ সাঁজোয়া যান, ১২৫ কামান, ১০২৯ মিসাইল, ২১টি নৌ-জাহাজসহ অন্যান্য সমরাস্ত্র বিক্রি করেছে। এর পরেই বেশি অস্ত্র বিক্রি করে রাশিয়া। তারা ৬৪টি যুদ্ধবিমান, ১০০ কামান ও ২৯৭১টি মিসাইলসহ অন্যান্য সমরাস্ত্র বিক্রি করেছে। মিয়ানমারের কাছে অস্ত্র বিক্রিতে ভারতও এগিয়ে গেছে। যুদ্ধবিমান, কামান, নৌ-জাহাজসহ সেকেন্ডহ্যান্ড অস্ত্রশস্ত্র বিক্রি করে দেশটি। ইসরাইল মিয়ানমারের কাছে অনেক আগে থেকেই অস্ত্র বিক্রি করে আসছে। তারা সাঁজোয়া যান, কামানসহ বিভিন্ন মারণাস্ত্র বিক্রি করছে সামরিক জান্তার কাছে। এ ছাড়া তারা মিয়ানমারের সেনাদের প্রশিক্ষণও দিয়ে থাকে। এ ছাড়া ইউক্রেন ও সার্বিয়া মিয়ানমারে অস্ত্র বিক্রি করে থাকে। ইউরোপের কিছু দেশ জার্মানি, পোল্যান্ড, সুইজারল্যান্ডও মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর কাছে অস্ত্র বিক্রি করে থাকে।

Comments

Comments!

 মিয়ানমারে কারা সবচেয়ে বেশি অস্ত্র বিক্রি করে?AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

মিয়ানমারে কারা সবচেয়ে বেশি অস্ত্র বিক্রি করে?

Saturday, September 16, 2017 5:45 pm
myanmar-army_58052_1505556445

সব মানবিক আবেদন ধুলোয় লুটিয়ে রাখাইন রাজ্যের মুসলিম রোহিঙ্গা নিধন অভিযানে নেমেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। কয়েক দশক আগেও মিয়ানমার সেনাবাহিনী সামরিক দিক থেকে ক্ষমতাশালী ছিল না।

১৯৯০ সালের পর থেকেই ক্রমাগত শক্তিশালী হয়ে ওঠে মিয়ানমার সামরিক জান্তা। মালিক হয়ে ওঠে যুদ্ধবিমান, মিসাইল, সামরিক যানসহ বিভিন্ন অত্যাধুনিক মারণাস্ত্রের।

মোট জাতীয় বাজেটের এক-চতুর্থাংশ ব্যয় করে সামরিক বাহিনীর পেছনে মিয়ানমার। দীর্ঘদিনের এই খরচে দেশটির সেনাবাহিনীকে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় দ্বিতীয় বৃহৎ শক্তিতে পরিণত করেছে।

এই শক্তিশালী সেনারা নিরস্ত্র রোহিঙ্গাদের ওপর অত্যাধুনিক অস্ত্রের বহর নিয়ে ঝাপিয়ে পড়েছে ধর্ষণ ও হত্যাযজ্ঞে।

প্রশ্ন জাগতে পারে- কোন দেশগুলো মিয়ানমারের কাছে অস্ত্র বিক্রি করে? এ তালিকায় রয়েছে- রাশিয়া, চীন, ইসরাইল, ইউক্রেন, ভারতের  মতো প্রভাবশালী দেশ।

স্টকহোম আন্তর্জাতিক শান্তি গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (এসআইপিআরপি) বরাত দিয়ে কাতারি সংবাদমাধ্যম আলজাজিরার এক প্রতিবেদনে মিয়ানমারের কাছে অস্ত্র বিক্রেতাদের নাম তুলে ধরা হয়।

এতে দেখা যায়, ১৯৯০ সালের পর থেকে মিয়ানমারে সবচেয়ে বেশি অস্ত্র বিক্রি করেছে চীন। তারা ১২০টি যুদ্ধবিমান, ৬৯৬ সাঁজোয়া যান, ১২৫ কামান, ১০২৯ মিসাইল, ২১টি নৌ-জাহাজসহ অন্যান্য সমরাস্ত্র বিক্রি করেছে।

এর পরেই বেশি অস্ত্র বিক্রি করে রাশিয়া। তারা ৬৪টি যুদ্ধবিমান, ১০০ কামান ও ২৯৭১টি মিসাইলসহ অন্যান্য সমরাস্ত্র বিক্রি করেছে।

মিয়ানমারের কাছে অস্ত্র বিক্রিতে ভারতও এগিয়ে গেছে। যুদ্ধবিমান, কামান, নৌ-জাহাজসহ সেকেন্ডহ্যান্ড অস্ত্রশস্ত্র বিক্রি করে দেশটি।

ইসরাইল মিয়ানমারের কাছে অনেক আগে থেকেই অস্ত্র বিক্রি করে আসছে। তারা সাঁজোয়া যান, কামানসহ বিভিন্ন মারণাস্ত্র বিক্রি করছে সামরিক জান্তার কাছে। এ ছাড়া তারা মিয়ানমারের সেনাদের প্রশিক্ষণও দিয়ে থাকে।

এ ছাড়া ইউক্রেন ও সার্বিয়া মিয়ানমারে অস্ত্র বিক্রি করে থাকে। ইউরোপের কিছু দেশ জার্মানি, পোল্যান্ড, সুইজারল্যান্ডও মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর কাছে অস্ত্র বিক্রি করে থাকে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X