বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ভোর ৫:৩৬
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, January 12, 2017 4:37 pm
A- A A+ Print

মুমিনুলে অবাক তামিম, মুগ্ধ তামিম

25

গত এক বছরে বাংলাদেশ খেলেছে ৩১টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ। আর এই সময়ে মুমিনুল ম্যাচ খেলেছেন তিনটি। তিন নম্বর ম্যাচটি চলছে আসলে। মুমিনুল যে টেস্ট ছাড়া কিছুই খেলেন না! বাংলাদেশ এমনিতেই টেস্ট খেলার সুযোগ পায় কম। ইংল্যান্ড সফরে টানা দুই সেঞ্চুরির পর ১৪ মাস অপেক্ষায় ছিলেন তামিম ইকবাল, পরের টেস্টটা খেলতে! তামিমেরা তবু ওয়ানডে বা টি-টোয়েন্টি নিয়মিত খেলেন। কিন্তু মুমিনুল? ২০১৬ সালের পুরো ১২ মাসে খেলেছেন মাত্র দুটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ! ফর্ম বা ছন্দ ধরে রাখা দূরের​ কথা, বছরে মাত্র দুটি ম্যাচ খেলার জন্য নিজেকে উজ্জীবিত রাখাই তো কঠিন। সেই কঠিন কাজটা নিয়মিত করে যাচ্ছেন মুমিনুল। ২০তম টেস্ট খেলতে নেমে নিজের ব্যাটিং গড়টা নিয়ে গেছেন টেস্ট ইতিহাসে সেরা ২০-এ। কমপক্ষে ২০ টেস্ট খেলেছেন এমন ব্যাটসম্যানদের মধ্যে তাঁর ব্যাটিং গড় ঠিক শচীন টেন্ডুলকারের ওপরে। ওয়েলিটংন টেস্টের সবুজ উইকেট, বৃষ্টিভেজা কন্ডিশন আর ঝোড়ো বাতাসে ৬৪ রানের অপরাজিত ইনিংসটা ​দেখে একবারও মনে হয়নি, প্রথমবারের মতো মাঠে নামলেন। কীভাবে নিজেকে মানিয়ে নেন ‘পকেট ডায়নামো’? তামিমের বিস্ময় আছে। মুগ্ধতা আছে। আছে আফসোসও, ‘মুমিনুল গত দুই-আড়াই বছর ধরেই খুব ভালো করছে। যদিও সে কেবল একটি সংস্করণেই খেলে। তাকে একটি টেস্ট খেলতে ছয় মাস অথবা এক বছর বসে থাকতে হয়। এসব বিবেচনায় নিলে সে দুর্দান্ত।’ মুমিনুলকে শুরু থেকেই দলের সঙ্গে রাখাটা কাজে দিয়েছে বলে মনে করেন তামিম, ‘আমাদের দলের সঙ্গে প্রথম থেকেই সে আছে, এটি খুব কাজে এসেছে। অস্ট্রেলিয়াতেও সে ছিল। সেখানে সে অনুশীলন করেছে দলের সঙ্গে। যদিও আমরা ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি আগে খেলেছি, কিন্তু বিসিবি ওকে দলের সঙ্গে রেখে দিয়ে খুব ভালো করেছে। সে অনুশীলনের সুযোগ-সুবিধা ব্যবহার করতে পেরেছে। এগুলো এই কন্ডিশনে ভালো খেলতে সহায়তা করেছে।’ কিন্তু তামিমের বিস্ময় তাতেও কমছে না, ‘ক্ষুদ্র টেস্ট ক্যারিয়ারে অদ্ভুত ভালো খেলে চলেছে। আমি নিশ্চিত, সে আগামীকালও ভালো করবে। সে এমন একজন ব্যাটসম্যান, যে নিজের সীমাবদ্ধতা ও সামর্থ্যের বাইরে খুব বেশি শট খেলে না। নিজের সামর্থ্য ভালো করে বোঝে। খেলেও সে অনুযায়ী। যা ওকে খুব ভালো ক্রিকেটার হিসেবে গড়ে উঠতে সাহায্য করেছে।’ আর কাল মুমিনুলের ভালো করা মানে ম্যাচে বাংলাদেশেরও ভালো অবস্থান নিশ্চিত হওয়া, ‘কাল সকালে প্রথম ঘণ্টাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। মুমিনুল যদি নিজের ইনিংসটা বড় করতে পারে, তাহলে আমরা অবশ্যই একটা সুবিধাজনক জায়গায় চলে যেতে পারব।’

Comments

Comments!

 মুমিনুলে অবাক তামিম, মুগ্ধ তামিমAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

মুমিনুলে অবাক তামিম, মুগ্ধ তামিম

Thursday, January 12, 2017 4:37 pm
25

গত এক বছরে বাংলাদেশ খেলেছে ৩১টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ। আর এই সময়ে মুমিনুল ম্যাচ খেলেছেন তিনটি। তিন নম্বর ম্যাচটি চলছে আসলে। মুমিনুল যে টেস্ট ছাড়া কিছুই খেলেন না!

বাংলাদেশ এমনিতেই টেস্ট খেলার সুযোগ পায় কম। ইংল্যান্ড সফরে টানা দুই সেঞ্চুরির পর ১৪ মাস অপেক্ষায় ছিলেন তামিম ইকবাল, পরের টেস্টটা খেলতে! তামিমেরা তবু ওয়ানডে বা টি-টোয়েন্টি নিয়মিত খেলেন। কিন্তু মুমিনুল? ২০১৬ সালের পুরো ১২ মাসে খেলেছেন মাত্র দুটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ! ফর্ম বা ছন্দ ধরে রাখা দূরের​ কথা, বছরে মাত্র দুটি ম্যাচ খেলার জন্য নিজেকে উজ্জীবিত রাখাই তো কঠিন।
সেই কঠিন কাজটা নিয়মিত করে যাচ্ছেন মুমিনুল। ২০তম টেস্ট খেলতে নেমে নিজের ব্যাটিং গড়টা নিয়ে গেছেন টেস্ট ইতিহাসে সেরা ২০-এ। কমপক্ষে ২০ টেস্ট খেলেছেন এমন ব্যাটসম্যানদের মধ্যে তাঁর ব্যাটিং গড় ঠিক শচীন টেন্ডুলকারের ওপরে। ওয়েলিটংন টেস্টের সবুজ উইকেট, বৃষ্টিভেজা কন্ডিশন আর ঝোড়ো বাতাসে ৬৪ রানের অপরাজিত ইনিংসটা ​দেখে একবারও মনে হয়নি, প্রথমবারের মতো মাঠে নামলেন।
কীভাবে নিজেকে মানিয়ে নেন ‘পকেট ডায়নামো’? তামিমের বিস্ময় আছে। মুগ্ধতা আছে। আছে আফসোসও, ‘মুমিনুল গত দুই-আড়াই বছর ধরেই খুব ভালো করছে। যদিও সে কেবল একটি সংস্করণেই খেলে। তাকে একটি টেস্ট খেলতে ছয় মাস অথবা এক বছর বসে থাকতে হয়। এসব বিবেচনায় নিলে সে দুর্দান্ত।’
মুমিনুলকে শুরু থেকেই দলের সঙ্গে রাখাটা কাজে দিয়েছে বলে মনে করেন তামিম, ‘আমাদের দলের সঙ্গে প্রথম থেকেই সে আছে, এটি খুব কাজে এসেছে। অস্ট্রেলিয়াতেও সে ছিল। সেখানে সে অনুশীলন করেছে দলের সঙ্গে। যদিও আমরা ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি আগে খেলেছি, কিন্তু বিসিবি ওকে দলের সঙ্গে রেখে দিয়ে খুব ভালো করেছে। সে অনুশীলনের সুযোগ-সুবিধা ব্যবহার করতে পেরেছে। এগুলো এই কন্ডিশনে ভালো খেলতে সহায়তা করেছে।’
কিন্তু তামিমের বিস্ময় তাতেও কমছে না, ‘ক্ষুদ্র টেস্ট ক্যারিয়ারে অদ্ভুত ভালো খেলে চলেছে। আমি নিশ্চিত, সে আগামীকালও ভালো করবে। সে এমন একজন ব্যাটসম্যান, যে নিজের সীমাবদ্ধতা ও সামর্থ্যের বাইরে খুব বেশি শট খেলে না। নিজের সামর্থ্য ভালো করে বোঝে। খেলেও সে অনুযায়ী। যা ওকে খুব ভালো ক্রিকেটার হিসেবে গড়ে উঠতে সাহায্য করেছে।’
আর কাল মুমিনুলের ভালো করা মানে ম্যাচে বাংলাদেশেরও ভালো অবস্থান নিশ্চিত হওয়া, ‘কাল সকালে প্রথম ঘণ্টাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। মুমিনুল যদি নিজের ইনিংসটা বড় করতে পারে, তাহলে আমরা অবশ্যই একটা সুবিধাজনক জায়গায় চলে যেতে পারব।’

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X