শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১:৫২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, December 11, 2016 3:35 pm
A- A A+ Print

যশোরে গুলিতে যুবক নিহত, পরিবারের দাবি ‘পুলিশ মেরেছে’

163812_1

শনিবার গভীর রাতে  যশোরে ‘দুগ্রুপের গোলাগুলিতে’ এক যুবকের নিহত হওয়ার খবর দিয়েছে পুলিশ, কিন্তু পরিবারের দাবি, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী দুই দিন আগে তাকে আটক করেছিল। নিহতের নাম ইফসুফ (৩০)। যশোর শহরের ঘোপ সেন্ট্রাল রোডের আব্দুল লতিফের ছেলে। পুলিশ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় যশোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করার পর রবিবার সকালে ইউসুফের মৃত্যু হয়। পরিবারের দাবি, গত শুক্রবার ইউসুফকে আটক করে ‘টাকা চেয়ে না পাওয়ায়’ পুলিশ তাকে ‘গুলি করে হত্যা করেছে’।
এ ব্যাপারে কোতোয়ালি থানার এসআই এইচএম শহিদুল ইসলাম বলেন, শনিবার গভীর রাতে শহরের বেজপাড়া টিবি ক্লিনিক মোড়ে দুই দল সন্ত্রাসীর মধ্যে গোলাগুলির খবর পান তারা। রাত পৌনে ১২টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। এ সময় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ইউসুফকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ইউসুফ আলী জানান, গভীর রাতে ওই যুবককে সঙ্কটাপন্ন অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়। তার ডান হাঁটুর উপরে গুলি লেগে প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল সোয়া ৯টার দিকে ইউসুফের মৃত্যু হয় বলে সার্জারি বিভাগের ডা. তুহিন জানান। ইফসুফের বড় ভাই ওমর শরীফ রাজার দাবি, শুক্রবার রাতে শহরের চাঁচড়া মোড় থেকে তার ভাইকে আটক করে পুলিশ। ওইদিন থানার এসআই ইউসুফ পাঁচ লাখ টাকা নিয়ে দেখা করতে বলে। পরে শনিবার আবার তিন লাখ টাকা নিয়ে দেখা করার জন্য বলে। কিন্তু আমরা টাকা দিইনি। এরপর রবিবার সকালে ইউসুফের গুলিবিদ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার খবর পান বলে জানান রাজা। তিনি বলেন, তার ভাইয়ের বিরুদ্ধে কোনো মামলা নেই। একটি ছিনতাইয়ের ঘটনায় সে জড়িত বলে পুলিশ দাবি করলেও ওই এজাহারে আসামি হিসেবে কারো নাম নেই। আমার ভাইতো গুলি করে মারার মত কোনো অপরাধী নয়, তবে কেন তাকে গুলি করে মারা হল, প্রশ্ন করেন রাজা। এ ঘটনায় মামলা করবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি। ইউসুফের পরিবারের কাছে টাকা চাওয়ার কথা অস্বীকার করে কোতোয়ালি থানার ওসি ইলিয়াস হোসেন বলেন, ইউসুফের বিরুদ্ধে সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা ছিনতাই করার অভিযোগ রয়েছে। কয়েক মাস আগে ঘোপ এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে। ওই টাকার ভাগাভাগি নিয়ে গোলযোগে সৃষ্ট গোলাগুলিতে সে জখম হয়েছিল। এছাড়া সে একটি সন্ত্রাসী দলের হোতা। তার বিরুদ্ধে আরো ক’টি মামলা আছে, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।
 

Comments

Comments!

 যশোরে গুলিতে যুবক নিহত, পরিবারের দাবি ‘পুলিশ মেরেছে’AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

যশোরে গুলিতে যুবক নিহত, পরিবারের দাবি ‘পুলিশ মেরেছে’

Sunday, December 11, 2016 3:35 pm
163812_1

শনিবার গভীর রাতে  যশোরে ‘দুগ্রুপের গোলাগুলিতে’ এক যুবকের নিহত হওয়ার খবর দিয়েছে পুলিশ, কিন্তু পরিবারের দাবি, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী দুই দিন আগে তাকে আটক করেছিল।

নিহতের নাম ইফসুফ (৩০)। যশোর শহরের ঘোপ সেন্ট্রাল রোডের আব্দুল লতিফের ছেলে। পুলিশ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় যশোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করার পর রবিবার সকালে ইউসুফের মৃত্যু হয়।

পরিবারের দাবি, গত শুক্রবার ইউসুফকে আটক করে ‘টাকা চেয়ে না পাওয়ায়’ পুলিশ তাকে ‘গুলি করে হত্যা করেছে’।

এ ব্যাপারে কোতোয়ালি থানার এসআই এইচএম শহিদুল ইসলাম বলেন, শনিবার গভীর রাতে শহরের বেজপাড়া টিবি ক্লিনিক মোড়ে দুই দল সন্ত্রাসীর মধ্যে গোলাগুলির খবর পান তারা। রাত পৌনে ১২টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। এ সময় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ইউসুফকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ইউসুফ আলী জানান, গভীর রাতে ওই যুবককে সঙ্কটাপন্ন অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়। তার ডান হাঁটুর উপরে গুলি লেগে প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছিল।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল সোয়া ৯টার দিকে ইউসুফের মৃত্যু হয় বলে সার্জারি বিভাগের ডা. তুহিন জানান।

ইফসুফের বড় ভাই ওমর শরীফ রাজার দাবি, শুক্রবার রাতে শহরের চাঁচড়া মোড় থেকে তার ভাইকে আটক করে পুলিশ। ওইদিন থানার এসআই ইউসুফ পাঁচ লাখ টাকা নিয়ে দেখা করতে বলে। পরে শনিবার আবার তিন লাখ টাকা নিয়ে দেখা করার জন্য বলে। কিন্তু আমরা টাকা দিইনি।

এরপর রবিবার সকালে ইউসুফের গুলিবিদ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার খবর পান বলে জানান রাজা।

তিনি বলেন, তার ভাইয়ের বিরুদ্ধে কোনো মামলা নেই। একটি ছিনতাইয়ের ঘটনায় সে জড়িত বলে পুলিশ দাবি করলেও ওই এজাহারে আসামি হিসেবে কারো নাম নেই।

আমার ভাইতো গুলি করে মারার মত কোনো অপরাধী নয়, তবে কেন তাকে গুলি করে মারা হল, প্রশ্ন করেন রাজা। এ ঘটনায় মামলা করবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

ইউসুফের পরিবারের কাছে টাকা চাওয়ার কথা অস্বীকার করে কোতোয়ালি থানার ওসি ইলিয়াস হোসেন বলেন, ইউসুফের বিরুদ্ধে সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা ছিনতাই করার অভিযোগ রয়েছে। কয়েক মাস আগে ঘোপ এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে। ওই টাকার ভাগাভাগি নিয়ে গোলযোগে সৃষ্ট গোলাগুলিতে সে জখম হয়েছিল। এছাড়া সে একটি সন্ত্রাসী দলের হোতা। তার বিরুদ্ধে আরো ক’টি মামলা আছে, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X