রবিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ২:১২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, January 27, 2017 12:01 pm
A- A A+ Print

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পদত্যাগের হিড়িক

16

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্প দায়িত্ব নেওয়ার পর যেন দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পদত্যাগের হিড়িক লেগেছে। ট্রাম্পের দায়িত্ব গ্রহণের প্রথম সপ্তাহেই দেশটির শীর্ষ কূটনীতিক ও জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের অনেকেই পদত্যাগ করেছেন। এই গণপদত্যাগ হবু পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসনকে চাপে ফেলেছে। এখনো মার্কিন সিনেটে সাবেক এই ব্যবসায়ীর পদায়ন নিশ্চিত হয়নি। এরই মধ্যে এই গণপদত্যাগ তাঁকে আরো সমস্যায় ফেলবে বলে মনে করা হচ্ছে। আগামী সপ্তাহেই যুক্তরাষ্ট্রের নতুন সরকারে গুরুত্বপূর্ণ পদে টিলারসনের পদায়নের সিদ্ধান্ত নেবে মার্কিন সিনেট। বিবিসির খবরে জানানো হয়, মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের পদত্যাগের মিছিলে থাকা শীর্ষ কর্মকর্তাদের মধ্যে রয়েছেন প্রশাসনিক পদের আন্ডারসেক্রেটারি প্যাট্রিক কেনেডি, দুজন অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি জয়েস বার ও মিশেল বন্ড। এ ছাড়া বৈদেশিক কূটনীতি বিভাগের পরিচালক জেন্ট্রি স্মিথও পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। এ ছাড়া আরো অনেক কর্মকর্তাই পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। এর আগে ট্রাম্পের ক্ষমতা গ্রহণের দিনই পদত্যাগ করেছিলেন কূটনৈতিক বিভাগের সচিব (সেক্রেটারি অব স্টেট ফর ডিপ্লোম্যাসি) গ্রেগরি স্টার ও বৈদেশিক কূটনীতি বিভাগের (ডিরেক্টর অব ওভারসিজ বিল্ডিং অপারেশন) পরিচালক লিডিয়া মুনিজ। ওয়াশিংটন পোস্টের খবরে জানানো হয়, টিলারসন দায়িত্ব নিলে তাঁর ডেপুটি (প্রধান সহকারী) হতেন প্যাট্রিক কেনেডিই। তিনি প্রেসিডেন্টের পালাবদলের সময়ও সক্রিয়ভাবেই দায়িত্ব পালন করেছিলেন। কিন্তু গত বুধবার হঠাৎই তিনি পদত্যাগপত্র জমা দেওয়ার পর অবাক অনেকেই। আর একে একে প্রায় ৪৫ জন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার পদত্যাগে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর এখন অনেকটাই ফাঁকা। এই ‘জটিল’ পদগুলোতে পদায়নও কঠিন হবে বলে মনে করছেন সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্র সচিব ডেভিড ওয়েন। ওয়াশিংটন পোস্টকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ওয়েন জানান, মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের কর্মপরিচালনা পদ্ধতি অনেক জটিল। আর পদে পদায়ন ও নিয়োগ প্রক্রিয়াটিও অত্যন্ত জটিল। একসঙ্গে এত জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার নজিরবিহীন পদত্যাগে এই দপ্তরের নিরাপত্তা, প্রশাসন, ব্যবস্থাপনা ও কনস্যুলার পদগুলোতে শূন্যতা তৈরি হবে বলেই আশঙ্কা করছেন তিনি।

Comments

Comments!

 যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পদত্যাগের হিড়িকAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পদত্যাগের হিড়িক

Friday, January 27, 2017 12:01 pm
16

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্প দায়িত্ব নেওয়ার পর যেন দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পদত্যাগের হিড়িক লেগেছে। ট্রাম্পের দায়িত্ব গ্রহণের প্রথম সপ্তাহেই দেশটির শীর্ষ কূটনীতিক ও জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের অনেকেই পদত্যাগ করেছেন।

এই গণপদত্যাগ হবু পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসনকে চাপে ফেলেছে। এখনো মার্কিন সিনেটে সাবেক এই ব্যবসায়ীর পদায়ন নিশ্চিত হয়নি। এরই মধ্যে এই গণপদত্যাগ তাঁকে আরো সমস্যায় ফেলবে বলে মনে করা হচ্ছে।

আগামী সপ্তাহেই যুক্তরাষ্ট্রের নতুন সরকারে গুরুত্বপূর্ণ পদে টিলারসনের পদায়নের সিদ্ধান্ত নেবে মার্কিন সিনেট।

বিবিসির খবরে জানানো হয়, মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের পদত্যাগের মিছিলে থাকা শীর্ষ কর্মকর্তাদের মধ্যে রয়েছেন প্রশাসনিক পদের আন্ডারসেক্রেটারি প্যাট্রিক কেনেডি, দুজন অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি জয়েস বার ও মিশেল বন্ড। এ ছাড়া বৈদেশিক কূটনীতি বিভাগের পরিচালক জেন্ট্রি স্মিথও পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। এ ছাড়া আরো অনেক কর্মকর্তাই পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন।

এর আগে ট্রাম্পের ক্ষমতা গ্রহণের দিনই পদত্যাগ করেছিলেন কূটনৈতিক বিভাগের সচিব (সেক্রেটারি অব স্টেট ফর ডিপ্লোম্যাসি) গ্রেগরি স্টার ও বৈদেশিক কূটনীতি বিভাগের (ডিরেক্টর অব ওভারসিজ বিল্ডিং অপারেশন) পরিচালক লিডিয়া মুনিজ।

ওয়াশিংটন পোস্টের খবরে জানানো হয়, টিলারসন দায়িত্ব নিলে তাঁর ডেপুটি (প্রধান সহকারী) হতেন প্যাট্রিক কেনেডিই। তিনি প্রেসিডেন্টের পালাবদলের সময়ও সক্রিয়ভাবেই দায়িত্ব পালন করেছিলেন। কিন্তু গত বুধবার হঠাৎই তিনি পদত্যাগপত্র জমা দেওয়ার পর অবাক অনেকেই।

আর একে একে প্রায় ৪৫ জন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার পদত্যাগে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর এখন অনেকটাই ফাঁকা। এই ‘জটিল’ পদগুলোতে পদায়নও কঠিন হবে বলে মনে করছেন সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্র সচিব ডেভিড ওয়েন।

ওয়াশিংটন পোস্টকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ওয়েন জানান, মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের কর্মপরিচালনা পদ্ধতি অনেক জটিল। আর পদে পদায়ন ও নিয়োগ প্রক্রিয়াটিও অত্যন্ত জটিল। একসঙ্গে এত জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার নজিরবিহীন পদত্যাগে এই দপ্তরের নিরাপত্তা, প্রশাসন, ব্যবস্থাপনা ও কনস্যুলার পদগুলোতে শূন্যতা তৈরি হবে বলেই আশঙ্কা করছেন তিনি।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X