শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১০:০৫
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, January 19, 2017 11:01 pm
A- A A+ Print

যুবরাজ-ধোনির জবাব দিতে পারলেন না মরগান

৫৩

ইংল্যান্ড হয়তো আক্ষেপই করছে, ‘ইশ! এউইন মরগান যদি শেষ ওভার পর্যন্ত থাকতেন!’ যতক্ষণ ক্রিজে ছিলেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক, ইংল্যান্ডের অবিশ্বাস্য জয়ের সম্ভাবনাও ভালোই ছিল। বুমরা-কুমার-পান্ডিয়াদের একের পর এক আছড়ে ফেলছিলেন বাউন্ডারিতে। দুর্দান্ত সেঞ্চুরিও করেছেন মাত্র ৮১ বলে। কিন্তু ৪৯তম ওভারের তৃতীয় বলে দ্রুত সিঙ্গেল নিতে গিয়ে হলেন রানআউট। ইংল্যান্ডের জয়ের কোনো সম্ভাবনা থেকেও যদি থেকে থাকে, সেটি সেখানেই শেষ! মরগানের লড়াইটা ম্লান হয়ে গেল যুবরাজ সিং ও মহেন্দ্র সিং ধোনির দুর্দান্ত দুটি সেঞ্চুরির কাছে। সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ভারতের ৩৮১ রান তাড়া করতে নেমে ইংল্যান্ড থেমে গেল ৩৬৬ রানে। ১৫ রানে ম্যাচ জিতল ভারত। প্রথম দুই ওয়ানডে জিতে সিরিজটাও জিতে গেল বিরাট কোহলির দল। শুধু মরগানের কথা বললে অবশ্য ইংল্যান্ডের আরও তিন ব্যাটসম্যানকে খাটো করে দেখানো হবে। ওপেনার জেসন রয়, তিনে নামা জো রুট, এরপর মঈন আলী—তিনজনই করেছেন ফিফটি। চতুর্থ ওভারে অ্যালেক্স হেলস আউট হওয়ার পর দ্বিতীয় উইকেটে ঠিক ১০০ রানের জুটি গড়েন রয় ও রুট। রানরেটও রেখেছিলেন বেশ ভালো। ২০তম ওভারের পঞ্চম বলে রুট যখন ৫৪ রান করে আউট হচ্ছেন, ইংল্যান্ডের রান হয়ে যায় ১২৮! রুট যেতেই শুরু হয় মরগানের পাল্টা আক্রমণ। প্রথমে রয়কে নিয়ে, পরে আলীকে নিয়ে লড়াই চালিয়ে যান ইংল্যান্ড অধিনায়ক। রয় ও মরগানের আক্রমণের তোড়ে ইনিংসের ২৫তম ওভারে ইংল্যান্ডের রান ছিল ১৬২, যা ঠিক ২৫ ওভার শেষে ভারতের রানের চেয়ে ৩০ রান বেশি ছিল। কিন্তু ২৭তম ওভারের প্রথম বলে ব্যক্তিগত ৮২ রানে আউট হয়ে যান রয়। দ্রুত ফিরে যান স্টোকস আর বাটলারও। এই সময় মনে হচ্ছিল, ভারতের জয়টাই এই ম্যাচের একমাত্র ফল। কিন্তু সেটিকে আবার সংশয়ে ফেলে দেয় মরগানের সঙ্গে আলীর ষষ্ঠ উইকেট জুটি। দুজনই ছিলেন আক্রমণাত্মক, ৭৩ বলের জুটিতে দুজনে মিলে তোলেন ৯৩ রান। তবে ৪৪তম ওভারে আলী (৪৩ বলে ৫৫ রান) আউট হয়ে গেলে ম্যাচটা হেলে পড়ে ভারতের দিকে। এরপরও লড়াই চালিয়ে গেছেন মরগান। নিজে সেঞ্চুরি পূরণ করেছেন, তবু জয়টা রয়ে যায় ইংল্যান্ডের নাগালের বাইরে। এর আগে ভারতের ইনিংসে ‘হাইলাইটস’ বলতে যুবরাজ ও ধোনির দুটি দুর্দান্ত ইনিংস। যুবরাজ ১২৭ বলে করেছেন ১৫০ রান। ইংলিশদের বিপক্ষে যেটি ওয়ানডেতে ভারতের হয়ে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ইনিংস। আর এই সিরিজের আগে অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেওয়া ধোনি ব্যাটিং করেছেন ‘পুরোনো ধোনি’র মতো। ১০ চার, এক ছক্কায় ১৩৪ রান করেছেন মাত্র ১২০ বলে। যুবরাজ আলাদা করে নজর কেড়েছেন। ২০ মার্চ ২০১১ থেকে ১৯ জানুয়ারি ২০১৭—প্রায় অর্ধযুগ পর ওয়ানডেতে সেঞ্চুরির দেখা পেলেন, সেটিই ক্যারিয়ার সেরা। চেন্নাইয়ে ২০১১ বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলেছিলেন ১১৩ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস, সেটাই ছিল তাঁর সর্বশেষ সেঞ্চুরি। ধোনির সেঞ্চুরিও অপেক্ষাও কম নয়। সাড়ে তিন বছর পর পেলেন তিন অঙ্কের দেখা। পঞ্চম ওভারেই ২৫ রানে তিন উইকেট পড়ে যাওয়ার পর চতুর্থ উইকেটে দুজন গড়েছেন ২৫৬ রানের জুটি। এই দুজনের বাইরে অন্যদের সর্বোচ্চ অবদান? কেদার যাদবের ২২ রান! অবশ্য যুবরাজ-ধোনির দিনে অন্য কাউকে দরকারও হয় না! সূত্র: স্টার স্পোর্টস ওয়ান।

Comments

Comments!

 যুবরাজ-ধোনির জবাব দিতে পারলেন না মরগানAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

যুবরাজ-ধোনির জবাব দিতে পারলেন না মরগান

Thursday, January 19, 2017 11:01 pm
৫৩

ইংল্যান্ড হয়তো আক্ষেপই করছে, ‘ইশ! এউইন মরগান যদি শেষ ওভার পর্যন্ত থাকতেন!’
যতক্ষণ ক্রিজে ছিলেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক, ইংল্যান্ডের অবিশ্বাস্য জয়ের সম্ভাবনাও ভালোই ছিল। বুমরা-কুমার-পান্ডিয়াদের একের পর এক আছড়ে ফেলছিলেন বাউন্ডারিতে। দুর্দান্ত সেঞ্চুরিও করেছেন মাত্র ৮১ বলে। কিন্তু ৪৯তম ওভারের তৃতীয় বলে দ্রুত সিঙ্গেল নিতে গিয়ে হলেন রানআউট। ইংল্যান্ডের জয়ের কোনো সম্ভাবনা থেকেও যদি থেকে থাকে, সেটি সেখানেই শেষ!
মরগানের লড়াইটা ম্লান হয়ে গেল যুবরাজ সিং ও মহেন্দ্র সিং ধোনির দুর্দান্ত দুটি সেঞ্চুরির কাছে। সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ভারতের ৩৮১ রান তাড়া করতে নেমে ইংল্যান্ড থেমে গেল ৩৬৬ রানে। ১৫ রানে ম্যাচ জিতল ভারত। প্রথম দুই ওয়ানডে জিতে সিরিজটাও জিতে গেল বিরাট কোহলির দল।
শুধু মরগানের কথা বললে অবশ্য ইংল্যান্ডের আরও তিন ব্যাটসম্যানকে খাটো করে দেখানো হবে। ওপেনার জেসন রয়, তিনে নামা জো রুট, এরপর মঈন আলী—তিনজনই করেছেন ফিফটি। চতুর্থ ওভারে অ্যালেক্স হেলস আউট হওয়ার পর দ্বিতীয় উইকেটে ঠিক ১০০ রানের জুটি গড়েন রয় ও রুট। রানরেটও রেখেছিলেন বেশ ভালো। ২০তম ওভারের পঞ্চম বলে রুট যখন ৫৪ রান করে আউট হচ্ছেন, ইংল্যান্ডের রান হয়ে যায় ১২৮!
রুট যেতেই শুরু হয় মরগানের পাল্টা আক্রমণ। প্রথমে রয়কে নিয়ে, পরে আলীকে নিয়ে লড়াই চালিয়ে যান ইংল্যান্ড অধিনায়ক। রয় ও মরগানের আক্রমণের তোড়ে ইনিংসের ২৫তম ওভারে ইংল্যান্ডের রান ছিল ১৬২, যা ঠিক ২৫ ওভার শেষে ভারতের রানের চেয়ে ৩০ রান বেশি ছিল। কিন্তু ২৭তম ওভারের প্রথম বলে ব্যক্তিগত ৮২ রানে আউট হয়ে যান রয়। দ্রুত ফিরে যান স্টোকস আর বাটলারও।
এই সময় মনে হচ্ছিল, ভারতের জয়টাই এই ম্যাচের একমাত্র ফল। কিন্তু সেটিকে আবার সংশয়ে ফেলে দেয় মরগানের সঙ্গে আলীর ষষ্ঠ উইকেট জুটি। দুজনই ছিলেন আক্রমণাত্মক, ৭৩ বলের জুটিতে দুজনে মিলে তোলেন ৯৩ রান। তবে ৪৪তম ওভারে আলী (৪৩ বলে ৫৫ রান) আউট হয়ে গেলে ম্যাচটা হেলে পড়ে ভারতের দিকে। এরপরও লড়াই চালিয়ে গেছেন মরগান। নিজে সেঞ্চুরি পূরণ করেছেন, তবু জয়টা রয়ে যায় ইংল্যান্ডের নাগালের বাইরে।
এর আগে ভারতের ইনিংসে ‘হাইলাইটস’ বলতে যুবরাজ ও ধোনির দুটি দুর্দান্ত ইনিংস। যুবরাজ ১২৭ বলে করেছেন ১৫০ রান। ইংলিশদের বিপক্ষে যেটি ওয়ানডেতে ভারতের হয়ে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ইনিংস। আর এই সিরিজের আগে অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেওয়া ধোনি ব্যাটিং করেছেন ‘পুরোনো ধোনি’র মতো। ১০ চার, এক ছক্কায় ১৩৪ রান করেছেন মাত্র ১২০ বলে।
যুবরাজ আলাদা করে নজর কেড়েছেন। ২০ মার্চ ২০১১ থেকে ১৯ জানুয়ারি ২০১৭—প্রায় অর্ধযুগ পর ওয়ানডেতে সেঞ্চুরির দেখা পেলেন, সেটিই ক্যারিয়ার সেরা। চেন্নাইয়ে ২০১১ বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলেছিলেন ১১৩ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস, সেটাই ছিল তাঁর সর্বশেষ সেঞ্চুরি। ধোনির সেঞ্চুরিও অপেক্ষাও কম নয়। সাড়ে তিন বছর পর পেলেন তিন অঙ্কের দেখা। পঞ্চম ওভারেই ২৫ রানে তিন উইকেট পড়ে যাওয়ার পর চতুর্থ উইকেটে দুজন গড়েছেন ২৫৬ রানের জুটি। এই দুজনের বাইরে অন্যদের সর্বোচ্চ অবদান? কেদার যাদবের ২২ রান!
অবশ্য যুবরাজ-ধোনির দিনে অন্য কাউকে দরকারও হয় না! সূত্র: স্টার স্পোর্টস ওয়ান।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X