মঙ্গলবার, ২৫শে এপ্রিল, ২০১৭ ইং, ১২ই বৈশাখ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ভোর ৫:০১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, March 20, 2017 9:41 am
A- A A+ Print

যেকোনো সময় মুফতি হান্নানের ফাঁসি

13

বাংলাদেশে নিযুক্ত সাবেক বৃটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলায় তিনজনের মৃত্যুর ঘটনায় নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন হরকাতুল জিহাদের (হুজি) শীর্ষ নেতা মুফতি হান্নানসহ তিনজনের মৃত্যুদণ্ডের রায় বহাল রেখেছে আপিল বিভাগ। তাদের রিভিউ আবেদন খারিজ করে দেয়া হয়েছে। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে গঠিত আপিল বিভাগ গতকাল এ আদেশ দেন। সর্বোচ্চ আদালতের এ  আদেশের ফলে এ মামলার আইনি লড়াই শেষ হলো। এখন প্রাণদণ্ড থেকে বাঁচতে শেষ সুযোগ হিসেবে নিজেদের দোষ স্বীকার করে প্রেসিডেন্টের কাছে প্রাণ ভিক্ষার আবেদন করতে পারবেন মুফতি হান্নানসহ অন্য দুই আসামি। যদি দণ্ডপ্রাপ্তরা তা না করেন তাহলে জেলকোড অনুযায়ী যেকোনো সময় ফাঁসি কার্যকর করা যাবে বলে গতকাল সাংবাদিকদের জানান অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। মৃত্যুদণ্ড থেকে খালাসের আরজি জানিয়ে গত ২৩শে ফেব্রুয়ারি ১০০ পৃষ্ঠার এ রিভিউ আবেদন করেন। আদালতে দণ্ডপ্রাপ্তদের পক্ষে রিভিউ শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী নিখিল কুমার সাহা। ২০০৪ সালের ২১শে মে সিলেটে হজরত শাহজালাল (রহ.)-এর মাজারে তৎকালীন বৃটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলা করা হয়। এতে দুই পুলিশসহ তিনজন নিহত হন। আনোয়ার চৌধুরীসহ  বেশ কয়েকজন আহত হন। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ২০০৮ সালের ২৩শে ডিসেম্বর সিলেটের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল মুফতি হান্নানসহ জঙ্গি শরিফ শাহেদুল ওরফে বিপুল ও দেলোয়ার হোসেন ওরফে রিপনকে মৃত্যুদণ্ড এবং মহিবুল্লাহ ওরফে মফিজুর রহমান ও আবু জান্দালকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেন। ডেথ রেফারেন্স (মৃত্যুদণ্ড অনুমোদন) ও আপিল শুনানি শেষে গত বছরের ১১ই ফেব্রুয়ারি হাইকোর্র্ট এক রায়ে মুফতি হান্নান, শরীফ শাহেদুল ও দেলোয়ারকে নিম্ন আদালতের দেয়া (মৃত্যুদণ্ড) রায় বহাল রাখেন। আর আপিল না করায় অন্য দুই আসামি মহিবুল্লাহ ও আবু জান্দালের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় বহাল থাকে। হাইকোর্টের দেয়া রায়ের বিরুদ্ধে মুফতি হান্নানসহ তিন জঙ্গির আপিল শুনানি শেষে গত বছরের ৭ই ডিসেম্বর খারিজ করে মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রাখেন আপিল বিভাগ। গত ১৭ই জানুয়ারি আপিল বিভাগের ৬৫ পৃষ্ঠার এ পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়। পরে মৃত্যু পরোয়ানা জারি হলে গাজীপুরের কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে মুফতি হান্নানকে তা পড়ে শোনানো হয়। পরে আপিল বিভাগের এ রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ আবেদনের সিদ্ধান্ত জানান তিনি। রমনা বটমূলে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে বোমা হামলার মামলায়ও জঙ্গি নেতা মুফতি হান্নানের বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছিলেন নিম্ন আদালত। ওই হত্যা মামলায় হাইকোর্টে মুফতি হান্নানসহ আসামিদের ডেথ রেফারেন্স (মৃত্যুদণ্ড অনুমোদন) ও আসামিদের করা আপিল শুনানি চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।

Comments

Comments!

 যেকোনো সময় মুফতি হান্নানের ফাঁসিAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

যেকোনো সময় মুফতি হান্নানের ফাঁসি

Monday, March 20, 2017 9:41 am
13

বাংলাদেশে নিযুক্ত সাবেক বৃটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলায় তিনজনের মৃত্যুর ঘটনায় নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন হরকাতুল জিহাদের (হুজি) শীর্ষ নেতা মুফতি হান্নানসহ তিনজনের মৃত্যুদণ্ডের রায় বহাল রেখেছে আপিল বিভাগ। তাদের রিভিউ আবেদন খারিজ করে দেয়া হয়েছে। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে গঠিত আপিল বিভাগ গতকাল এ আদেশ দেন। সর্বোচ্চ আদালতের এ  আদেশের ফলে এ মামলার আইনি লড়াই শেষ হলো। এখন প্রাণদণ্ড থেকে বাঁচতে শেষ সুযোগ হিসেবে নিজেদের দোষ স্বীকার করে প্রেসিডেন্টের কাছে প্রাণ ভিক্ষার আবেদন করতে পারবেন মুফতি হান্নানসহ অন্য দুই আসামি। যদি দণ্ডপ্রাপ্তরা তা না করেন তাহলে জেলকোড অনুযায়ী যেকোনো সময় ফাঁসি কার্যকর করা যাবে বলে গতকাল সাংবাদিকদের জানান অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। মৃত্যুদণ্ড থেকে খালাসের আরজি জানিয়ে গত ২৩শে ফেব্রুয়ারি ১০০ পৃষ্ঠার এ রিভিউ আবেদন করেন। আদালতে দণ্ডপ্রাপ্তদের পক্ষে রিভিউ শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী নিখিল কুমার সাহা।
২০০৪ সালের ২১শে মে সিলেটে হজরত শাহজালাল (রহ.)-এর মাজারে তৎকালীন বৃটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলা করা হয়। এতে দুই পুলিশসহ তিনজন নিহত হন। আনোয়ার চৌধুরীসহ  বেশ কয়েকজন আহত হন। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ২০০৮ সালের ২৩শে ডিসেম্বর সিলেটের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল মুফতি হান্নানসহ জঙ্গি শরিফ শাহেদুল ওরফে বিপুল ও দেলোয়ার হোসেন ওরফে রিপনকে মৃত্যুদণ্ড এবং মহিবুল্লাহ ওরফে মফিজুর রহমান ও আবু জান্দালকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেন। ডেথ রেফারেন্স (মৃত্যুদণ্ড অনুমোদন) ও আপিল শুনানি শেষে গত বছরের ১১ই ফেব্রুয়ারি হাইকোর্র্ট এক রায়ে মুফতি হান্নান, শরীফ শাহেদুল ও দেলোয়ারকে নিম্ন আদালতের দেয়া (মৃত্যুদণ্ড) রায় বহাল রাখেন। আর আপিল না করায় অন্য দুই আসামি মহিবুল্লাহ ও আবু জান্দালের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় বহাল থাকে। হাইকোর্টের দেয়া রায়ের বিরুদ্ধে মুফতি হান্নানসহ তিন জঙ্গির আপিল শুনানি শেষে গত বছরের ৭ই ডিসেম্বর খারিজ করে মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রাখেন আপিল বিভাগ। গত ১৭ই জানুয়ারি আপিল বিভাগের ৬৫ পৃষ্ঠার এ পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়। পরে মৃত্যু পরোয়ানা জারি হলে গাজীপুরের কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে মুফতি হান্নানকে তা পড়ে শোনানো হয়। পরে আপিল বিভাগের এ রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ আবেদনের সিদ্ধান্ত জানান তিনি। রমনা বটমূলে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে বোমা হামলার মামলায়ও জঙ্গি নেতা মুফতি হান্নানের বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছিলেন নিম্ন আদালত। ওই হত্যা মামলায় হাইকোর্টে মুফতি হান্নানসহ আসামিদের ডেথ রেফারেন্স (মৃত্যুদণ্ড অনুমোদন) ও আসামিদের করা আপিল শুনানি চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X