শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ২:০০
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, September 29, 2016 12:08 am
A- A A+ Print

যেখানে শীর্ষ চারে মোসাদ্দেক

252779-3

১১৯তম ওয়ানডে ক্রিকেটার হিসেবে বুধবার আফগানিস্তানের বিপক্ষে অভিষেক হয়েছে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের। অভিষেকেই ডানহাতি এ ব্যাটসম্যান দূত্যি ছড়িয়েছেন। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৫ রান করেছেন ২১ বছর বয়সি এ ক্রিকেটার। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ২০৮ রানে অলআউট বাংলাদেশ। সেখানে মোসাদ্দেক অনন্য। ৪৫ বলে ৪ চার ও ২ ছক্কায় সাজিয়েছেন ৪৫ রানের ইনিংস। এ ইনিংস খেলে মোসাদ্দেক অভিষিক্ত ক্রিকেটারদের তালিকায় সর্বোচ্চ রান সংগ্রহে শীর্ষ চারে চলে এসেছেন। বাংলাদেশের হয়ে অভিষেকে সর্বোচ্চ ৬৩ রান করেছেন নাসির হোসেন। ২০১১ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারারেতে আটে নেমে অভিষেকে দূত্যি ছড়ান নাসির। অভিষেকে হাফসেঞ্চুরি পাওয়া আরেক ক্রিকেটার হলেন ফরহাদ রেজা। ২০০৬ সালে জিম্বাবুয়েতে ফরহাদ রেজা পেয়েছিলেন হাফসেঞ্চুরির স্বাদ। জাতীয় দলের বর্তমান ম্যানেজার ও প্রাক্তন অধিনায়ক খালেদ মাহমুদ সুজন নিজের অভিষেকে মাত্র ৩ রানের জন্য হাফসেঞ্চুরি মিস করেন। ১৯৯৮ সালে ভারতের বিপক্ষে অভিষেক হয় সুজনের। ছয়ে নেমে ৮০ বলে করেছিলেন ৪৭ রান। তালিকায় পরের অবস্থানে মোসাদ্দেক হোসেন। সাতে নেমে মোসাদ্দেক করেছেন ৪৫ রান। ১ রান কম নিয়ে সাব্বির রহমান আছেন পাঁচ নম্বরে। বুধবার সাকিব আল হাসান আউট হওয়ার পর ক্রিজে আসেন মোসাদ্দেক। মিনিট দুয়ের ব্যবধানে মোসাদ্দেককে একা রেখে সাজঘরে ফিরে আসেন সাব্বির রহমান। অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাও বেশিক্ষণ মোসাদ্দেকের পাশে থাকতে পারেননি। অষ্টম উইকেটে মোসাদ্দেকে সঙ্গ দেন তাইজুল। উইকেটে সেট হয়ে ধীরে ধীরে স্বরূপে আসতে থাকেন মোসাদ্দেক। এরপর তিন সতীর্থ একে একে বিদায় নিলেও মোসাদ্দেক শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থেকে যান। নাভীন-উল-হক ও দাওলাত জারদানকে চোখ ধাঁধানো ২টি ছয় মেরেছেন ডিপ স্কয়ার লেগ দিয়ে; ৪টি বাউন্ডারিতে ছিল অভিজ্ঞতার নিদর্শন। রুবেল হোসেন রান আউট না হলে নিশ্চিতভাবেই প্রথম ইনিংসেই হাফসেঞ্চুরির স্বাদ পেতেন মোসাদ্দেক। তবুও তার দূর্দান্ত ইনিংসে ভর করে আফগানিস্তানের বিপক্ষে দুইশ রানের লড়াকু পুঁজি পেয়েছে বাংলাদেশ। মোসাদ্দেকের জন্য এ প্রাপ্তিও কম কিসের!  

Comments

Comments!

 যেখানে শীর্ষ চারে মোসাদ্দেকAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

যেখানে শীর্ষ চারে মোসাদ্দেক

Thursday, September 29, 2016 12:08 am
252779-3

১১৯তম ওয়ানডে ক্রিকেটার হিসেবে বুধবার আফগানিস্তানের বিপক্ষে অভিষেক হয়েছে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের।

অভিষেকেই ডানহাতি এ ব্যাটসম্যান দূত্যি ছড়িয়েছেন। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৫ রান করেছেন ২১ বছর বয়সি এ ক্রিকেটার।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে ২০৮ রানে অলআউট বাংলাদেশ। সেখানে মোসাদ্দেক অনন্য। ৪৫ বলে ৪ চার ও ২ ছক্কায় সাজিয়েছেন ৪৫ রানের ইনিংস। এ ইনিংস খেলে মোসাদ্দেক অভিষিক্ত ক্রিকেটারদের তালিকায় সর্বোচ্চ রান সংগ্রহে শীর্ষ চারে চলে এসেছেন।

বাংলাদেশের হয়ে অভিষেকে সর্বোচ্চ ৬৩ রান করেছেন নাসির হোসেন। ২০১১ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারারেতে আটে নেমে অভিষেকে দূত্যি ছড়ান নাসির। অভিষেকে হাফসেঞ্চুরি পাওয়া আরেক ক্রিকেটার হলেন ফরহাদ রেজা।

২০০৬ সালে জিম্বাবুয়েতে ফরহাদ রেজা পেয়েছিলেন হাফসেঞ্চুরির স্বাদ। জাতীয় দলের বর্তমান ম্যানেজার ও প্রাক্তন অধিনায়ক খালেদ মাহমুদ সুজন নিজের অভিষেকে মাত্র ৩ রানের জন্য হাফসেঞ্চুরি মিস করেন। ১৯৯৮ সালে ভারতের বিপক্ষে অভিষেক হয় সুজনের। ছয়ে নেমে ৮০ বলে করেছিলেন ৪৭ রান।

তালিকায় পরের অবস্থানে মোসাদ্দেক হোসেন। সাতে নেমে মোসাদ্দেক করেছেন ৪৫ রান। ১ রান কম নিয়ে সাব্বির রহমান আছেন পাঁচ নম্বরে।

বুধবার সাকিব আল হাসান আউট হওয়ার পর ক্রিজে আসেন মোসাদ্দেক। মিনিট দুয়ের ব্যবধানে মোসাদ্দেককে একা রেখে সাজঘরে ফিরে আসেন সাব্বির রহমান। অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাও বেশিক্ষণ মোসাদ্দেকের পাশে থাকতে পারেননি। অষ্টম উইকেটে মোসাদ্দেকে সঙ্গ দেন তাইজুল। উইকেটে সেট হয়ে ধীরে ধীরে স্বরূপে আসতে থাকেন মোসাদ্দেক। এরপর তিন সতীর্থ একে একে বিদায় নিলেও মোসাদ্দেক শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থেকে যান। নাভীন-উল-হক ও দাওলাত জারদানকে চোখ ধাঁধানো ২টি ছয় মেরেছেন ডিপ স্কয়ার লেগ দিয়ে; ৪টি বাউন্ডারিতে ছিল অভিজ্ঞতার নিদর্শন।

রুবেল হোসেন রান আউট না হলে নিশ্চিতভাবেই প্রথম ইনিংসেই হাফসেঞ্চুরির স্বাদ পেতেন মোসাদ্দেক। তবুও তার দূর্দান্ত ইনিংসে ভর করে আফগানিস্তানের বিপক্ষে দুইশ রানের লড়াকু পুঁজি পেয়েছে বাংলাদেশ। মোসাদ্দেকের জন্য এ প্রাপ্তিও কম কিসের!

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X