সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৬:১৭
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, December 15, 2016 2:57 pm | আপডেটঃ December 15, 2016 3:00 PM
A- A A+ Print

যে ক্ষোভে যুবরাজের বিয়েতে যাননি তার বাবা

10

ভারতের ক্রিকেটার যুবরাজ সিং বিয়ের পিঁড়িতে বসেছেন নভেম্বরে। পাত্রী বলিউড অভিনেত্রী দীর্ঘদিনের বান্ধবী হাজেল কিচ। যুবরাজের বিয়ের অনুষ্ঠানে ছিলেন তা তার বাবা জোগরাজ সিং। ভারতের হয়ে এক টেস্ট ও ৬ ওয়ানডে খেলা যুবরাজের বাবা তার বিয়ের অনুষ্ঠানে যাননি নিজের ক্ষোভ থেকে। ভারতের এ ক্রিকেটারের অতি গুরুভক্তিতে বিরক্ত তার বাবা। গুরু বলতে ধর্মীয় গুরু। নিজের মনের বাসনা পূরণ ও সুস্থ্য থাকার জন্য নিজের বিশ্বাস থেকে হিন্দু ধর্মের অনেক গুরুকে যুবরাজ অঢেল সম্পদ দান করেন। নিয়মিতই তিনি এটা করে আসছেন। এমন কি, এক ধর্মীয় গুরু তাকে ক্যানসার থেকে সুস্থ্য করে তুলেছেন বলে বিশ্বাস যুবরাজের। বিষয়টি নিয়ে বিরক্ত যুবরাজের বাবা যোগরাজ সিং। যুবরাজ তার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সারেন একটি গুরুদুয়ারার ধর্ম গুরুর অধীনে। বিয়ের আগেই যোগরাজ সিং স্পষ্ট জানিয়ে দেন যে, বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা কোনো গুরুর অধীনে তার আস্তানায় হলে তিনি অনুষ্ঠানে থাকবেন না। কিন্তু যুবরাজ তার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সারেন এক গুরুদুয়ারায়। তাই তিনি নিজ পুত্র যুবরাজের বিয়ের অনুষ্ঠানে যাননি। এ থেকে নিজের ক্ষোভের কথা জানালেন জোগরাজ। বলেন, ‘আমি ঈশ্বরে বিশ্বাস করি। কিন্তু কোনো গুরুতে বিশ্বাস করি না। ওসব ভুয়া। যুবরাজের বিয়ের আগে আমি তার মা’কে বলেছিলাম- কোনো ধর্মগুরুর অধীনে তার আস্তানায় বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা হলে আমি তাতে অংশ নিবো না। আমার ভাগ্য খারাপ। আমার কথা তারা মানেনি। আমি আমার ছেলের বিয়েতে অংশ নেইনি।’ গুরুকে যুবরাজের অঢেল সম্পদ দান করা নিয়ে জোগরাজ বলেন, ‘তাকে আমি ১৬ বছর ক্রিকেট শিখিয়েছি। কিন্তু আমাকে কোনোদিন সে একটি জামা পর্যন্ত উপহার দেয়নি। কিন্তু সে গুরুদেরকে গাড়ি পর্যন্ত উপহার দিয়েছে। শিক্ষিত মানুষ যখন এইসব গুরুর পেছনে ছোটে তখন আমি খুবই অবাক হই। অন্যদের নিয়ে কী বলবো- আমার নিজের পরিবারই তো এমন অযৌক্তিক করছে।’ নিজের ছেলের বিশ্বাস দেখে আরো অবাক জোগরাজ বলেন, ‘আমার ছেলের কাছে আমার প্রশ্ন- তাকে কে ক্রিকেট শিখিয়েছে? তার বাবা নাকি ওই গুরু? ওই গুরু কি তাকে ক্যানসার থেকে সুস্থ্য করে তুলেছে? অথচ সে বিশ্বাস করে- ওই গুরুই নাকি তাকে ক্যানসার থেকে সুস্থ্য করে তুলেছে। আমি খুবই অবাক হচ্ছি।’

Comments

Comments!

 যে ক্ষোভে যুবরাজের বিয়েতে যাননি তার বাবাAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

যে ক্ষোভে যুবরাজের বিয়েতে যাননি তার বাবা

Thursday, December 15, 2016 2:57 pm | আপডেটঃ December 15, 2016 3:00 PM
10

ভারতের ক্রিকেটার যুবরাজ সিং বিয়ের পিঁড়িতে বসেছেন নভেম্বরে। পাত্রী বলিউড অভিনেত্রী দীর্ঘদিনের বান্ধবী হাজেল কিচ। যুবরাজের বিয়ের অনুষ্ঠানে ছিলেন তা তার বাবা জোগরাজ সিং। ভারতের হয়ে এক টেস্ট ও ৬ ওয়ানডে খেলা যুবরাজের বাবা তার বিয়ের অনুষ্ঠানে যাননি নিজের ক্ষোভ থেকে। ভারতের এ ক্রিকেটারের অতি গুরুভক্তিতে বিরক্ত তার বাবা। গুরু বলতে ধর্মীয় গুরু। নিজের মনের বাসনা পূরণ ও সুস্থ্য থাকার জন্য নিজের বিশ্বাস থেকে হিন্দু ধর্মের অনেক গুরুকে যুবরাজ অঢেল সম্পদ দান করেন। নিয়মিতই তিনি এটা করে আসছেন। এমন কি, এক ধর্মীয় গুরু তাকে ক্যানসার থেকে সুস্থ্য করে তুলেছেন বলে বিশ্বাস যুবরাজের। বিষয়টি নিয়ে বিরক্ত যুবরাজের বাবা যোগরাজ সিং। যুবরাজ তার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সারেন একটি গুরুদুয়ারার ধর্ম গুরুর অধীনে। বিয়ের আগেই যোগরাজ সিং স্পষ্ট জানিয়ে দেন যে, বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা কোনো গুরুর অধীনে তার আস্তানায় হলে তিনি অনুষ্ঠানে থাকবেন না। কিন্তু যুবরাজ তার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সারেন এক গুরুদুয়ারায়। তাই তিনি নিজ পুত্র যুবরাজের বিয়ের অনুষ্ঠানে যাননি। এ থেকে নিজের ক্ষোভের কথা জানালেন জোগরাজ। বলেন, ‘আমি ঈশ্বরে বিশ্বাস করি। কিন্তু কোনো গুরুতে বিশ্বাস করি না। ওসব ভুয়া। যুবরাজের বিয়ের আগে আমি তার মা’কে বলেছিলাম- কোনো ধর্মগুরুর অধীনে তার আস্তানায় বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা হলে আমি তাতে অংশ নিবো না। আমার ভাগ্য খারাপ। আমার কথা তারা মানেনি। আমি আমার ছেলের বিয়েতে অংশ নেইনি।’ গুরুকে যুবরাজের অঢেল সম্পদ দান করা নিয়ে জোগরাজ বলেন, ‘তাকে আমি ১৬ বছর ক্রিকেট শিখিয়েছি। কিন্তু আমাকে কোনোদিন সে একটি জামা পর্যন্ত উপহার দেয়নি। কিন্তু সে গুরুদেরকে গাড়ি পর্যন্ত উপহার দিয়েছে। শিক্ষিত মানুষ যখন এইসব গুরুর পেছনে ছোটে তখন আমি খুবই অবাক হই। অন্যদের নিয়ে কী বলবো- আমার নিজের পরিবারই তো এমন অযৌক্তিক করছে।’ নিজের ছেলের বিশ্বাস দেখে আরো অবাক জোগরাজ বলেন, ‘আমার ছেলের কাছে আমার প্রশ্ন- তাকে কে ক্রিকেট শিখিয়েছে? তার বাবা নাকি ওই গুরু? ওই গুরু কি তাকে ক্যানসার থেকে সুস্থ্য করে তুলেছে? অথচ সে বিশ্বাস করে- ওই গুরুই নাকি তাকে ক্যানসার থেকে সুস্থ্য করে তুলেছে। আমি খুবই অবাক হচ্ছি।’

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X