মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ২:০২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, November 24, 2016 6:39 pm
A- A A+ Print

রাগীব আলীকে ফেরত পাঠাল ভারত

1111

সিলেট থেকে পালিয়ে যাওয়া শিল্পপতি রাগীব আলীকে আজ বৃহস্পতিবার ভারতে আটক করার পর বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। বেলা পৌনে তিনটার দিকে ভারতের করিমগঞ্জ ইমিগ্রেশন পুলিশ তাঁকে বাংলাদেশের শেওলা স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে বেলা তিনটার দিকে তাঁকে জেলা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। রাগীব আলীকে হস্তান্তরের সময় বিয়ানীবাজার থানা-পুলিশের একটি দল উপস্থিত ছিল। যোগাযোগ করা হলে বিয়ানীবাজার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) চন্দন চক্রবর্তী প্রথম আলোকে বলেন, আদালতের গ্রেপ্তারি পরোয়ানায় রাগীব আলীর উল্লিখিত ঠিকানা অনুযায়ী তাঁকে বিশ্বনাথ থানা-পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে। সেখান থেকে তাঁকে আদালতে হাজির করা হবে। সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুজ্ঞান চাকমা বলেন, রাগীব আলীর ভিসার মেয়াদ ছিল ৯০ দিন। ১০ নভেম্বর তাঁর ভিসার মেয়াদ শেষ হয়। আজ সকালে ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর জন্য তিনি ভারতের করিমগঞ্জ ইমিগ্রেশন পুলিশ দপ্তরে যান। তখন তাঁকে আটক করে জকিগঞ্জ ইমিগ্রেশন পুলিশকে জানানো হয়। তারা বিষয়টি সিলেটের পুলিশকে জানায়। পরে তাঁকে সিলেটের বিয়ানীবাজারের সুতারকান্দি ইমিগ্রেশনের মাধ্যমে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরু হয়। দেবোত্তর সম্পত্তি তারাপুর চা-বাগান জালিয়াতির মাধ্যমে দখল এবং এক হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে করা দুটি মামলায় রাগীব আলী ও তাঁর ছেলে আবদুল হাই অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি। সিলেট মহানগর মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতে মামলা দুটির বিচারকাজ চলছে। গত ১০ আগস্ট আদালত থেকে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হলে ওই দিন সন্ধ্যায় পালিয়ে ভারতে চলে যান বাবা-ছেলে। ভারতের করিমগঞ্জে আবদুল হাইয়ের শ্বশুরবাড়ি। গত ১০ অক্টোবর আবদুল হাই দেশে ফেরার সময় জকিগঞ্জ ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে ধরা পড়েন। জকিগঞ্জের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ইমিগ্রেশন পুলিশ সদস্য বলেন, গত ১০ আগস্ট বাবা-ছেলে পালিয়ে যাওয়ার পরপরই তাঁদের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা করিমগঞ্জ ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে পাঠানো হয়েছিল।

Comments

Comments!

 রাগীব আলীকে ফেরত পাঠাল ভারতAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

রাগীব আলীকে ফেরত পাঠাল ভারত

Thursday, November 24, 2016 6:39 pm
1111

সিলেট থেকে পালিয়ে যাওয়া শিল্পপতি রাগীব আলীকে আজ বৃহস্পতিবার ভারতে আটক করার পর বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। বেলা পৌনে তিনটার দিকে ভারতের করিমগঞ্জ ইমিগ্রেশন পুলিশ তাঁকে বাংলাদেশের শেওলা স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে বেলা তিনটার দিকে তাঁকে জেলা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

রাগীব আলীকে হস্তান্তরের সময় বিয়ানীবাজার থানা-পুলিশের একটি দল উপস্থিত ছিল। যোগাযোগ করা হলে বিয়ানীবাজার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) চন্দন চক্রবর্তী প্রথম আলোকে বলেন, আদালতের গ্রেপ্তারি পরোয়ানায় রাগীব আলীর উল্লিখিত ঠিকানা অনুযায়ী তাঁকে বিশ্বনাথ থানা-পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে। সেখান থেকে তাঁকে আদালতে হাজির করা হবে।

সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুজ্ঞান চাকমা বলেন, রাগীব আলীর ভিসার মেয়াদ ছিল ৯০ দিন। ১০ নভেম্বর তাঁর ভিসার মেয়াদ শেষ হয়। আজ সকালে ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর জন্য তিনি ভারতের করিমগঞ্জ ইমিগ্রেশন পুলিশ দপ্তরে যান। তখন তাঁকে আটক করে জকিগঞ্জ ইমিগ্রেশন পুলিশকে জানানো হয়। তারা বিষয়টি সিলেটের পুলিশকে জানায়। পরে তাঁকে সিলেটের বিয়ানীবাজারের সুতারকান্দি ইমিগ্রেশনের মাধ্যমে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরু হয়।

দেবোত্তর সম্পত্তি তারাপুর চা-বাগান জালিয়াতির মাধ্যমে দখল এবং এক হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে করা দুটি মামলায় রাগীব আলী ও তাঁর ছেলে আবদুল হাই অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি। সিলেট মহানগর মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতে মামলা দুটির বিচারকাজ চলছে। গত ১০ আগস্ট আদালত থেকে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হলে ওই দিন সন্ধ্যায় পালিয়ে ভারতে চলে যান বাবা-ছেলে। ভারতের করিমগঞ্জে আবদুল হাইয়ের শ্বশুরবাড়ি। গত ১০ অক্টোবর আবদুল হাই দেশে ফেরার সময় জকিগঞ্জ ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে ধরা পড়েন।

জকিগঞ্জের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ইমিগ্রেশন পুলিশ সদস্য বলেন, গত ১০ আগস্ট বাবা-ছেলে পালিয়ে যাওয়ার পরপরই তাঁদের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা করিমগঞ্জ ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে পাঠানো হয়েছিল।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X