রবিবার, ১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৬ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৯:০২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, December 4, 2016 2:55 pm
A- A A+ Print

রাগীব আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

18

সিলেটের তারাপুর চা বাগান দখলে ভূমি মন্ত্রণালয়ের স্মারক জালিয়াতি মামলায় শিল্পপতি রাগীব আলী গংদের বিরুদ্ধে পুনরায় সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে।রোববার দুপুরে সিলেট মূখ্য মহানগর হাকিম সাইফুজ্জামান হিরোর আদালতে ছয় সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়। এছাড়া প্রতারণার মাধ্যমে দেবোত্তর সম্পত্তিতে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের মাধ্যমে হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। সিলেট জেলা জজ কোর্টের এপিপি শামসুল ইসলাম জানান, আসামিদের আবেদনের প্রেক্ষিতে আজ আদালতে ছয় সাক্ষী পুনরায় সাক্ষ্য দিয়েছেন। সিলেটের প্রাক্তন জেলা প্রশাসক ফয়সল আলম ও সিনিয়র সহকারী সচিব ইমদাদুল হকসহ ছয় জন সাক্ষ্য দিয়েছেন। মামলায় মোট ১৪ জন সাক্ষী রয়েছেন। তিনি আরো জানান, প্রতারণার মাধ্যমে হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ মামলায় রাগীব আলী, তার ছেলে আবদুল হাই, মেয়ে রুজিনা কাদির, জামাতা আবদুল কাদির, আত্মীয় দেওয়ান মোস্তাক মজিদ ও বাগানের সেবায়েত পংকজ কুমার গুপ্তের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। প্রসঙ্গত, প্রতারণার মাধ্যমে সিলেটের তারাপুর চা বাগানের দেবোত্তর সম্পত্তিতে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের মাধ্যমে হাজার কোটি টাকার ভূমি আত্মসাৎ এবং ভূমি মন্ত্রণালয়ের স্মারক জালিয়াতির আলোচিত দুটি মামলায় রাগীব আলী ও তার ছেলে-মেয়েসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে গত ১০ আগস্ট গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। স্মারক জালিয়াতির মামলায় রাগীব আলী ও তার ছেলে আবদুল হাইয়ের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়। অন্যদিকে প্রতারণার মামলায় রাগীব আলী, তার ছেলে আবদুল হাই, জামাতা আবদুল কাদির, মেয়ে রুজিনা কাদির, রাগীব আলীর আত্মীয় মৌলভীবাজারের দেওয়ান মোস্তাক মজিদ, তারাপুর চা বাগানের সেবায়েত পংকজ কুমার গুপ্তের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়। গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির পরপরই ছেলেকে নিয়ে ভারতে পালিয়ে যান রাগীব আলী। তার আত্মীয় দেওয়ান মোস্তাক মজিদ গত ১০ অক্টোবর আদালতে আত্মসমর্পণ করার পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। গত ১২ নভেম্বর রাগীব আলীর ছেলে আবদুল হাইকে জকিগঞ্জ সীমান্ত থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ওইদিন তাকে আদালতে হাজির করা হলে আদালত কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। গত ২৪ নভেম্বর ভারতের করিমগঞ্জ থেকে রাগীব আলীকে আটক করে সে দেশের পুলিশ। ওইদিন বিকেলেই তাকে বাংলাদেশ পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। মামলা দুটিতে গ্রেপ্তার দেখিয়ে পুলিশ রাগীব আলীকে আদালতে হাজির করার পর তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন বিচারক। মামলার আরেক আসামি পংকজ কুমার গুপ্ত জামিনে রয়েছেন।

Comments

Comments!

 রাগীব আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

রাগীব আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

Sunday, December 4, 2016 2:55 pm
18

সিলেটের তারাপুর চা বাগান দখলে ভূমি মন্ত্রণালয়ের স্মারক জালিয়াতি মামলায় শিল্পপতি রাগীব আলী গংদের বিরুদ্ধে পুনরায় সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে।রোববার দুপুরে সিলেট মূখ্য মহানগর হাকিম সাইফুজ্জামান হিরোর আদালতে ছয় সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়।

এছাড়া প্রতারণার মাধ্যমে দেবোত্তর সম্পত্তিতে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের মাধ্যমে হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে।

সিলেট জেলা জজ কোর্টের এপিপি শামসুল ইসলাম জানান, আসামিদের আবেদনের প্রেক্ষিতে আজ আদালতে ছয় সাক্ষী পুনরায় সাক্ষ্য দিয়েছেন। সিলেটের প্রাক্তন জেলা প্রশাসক ফয়সল আলম ও সিনিয়র সহকারী সচিব ইমদাদুল হকসহ ছয় জন সাক্ষ্য দিয়েছেন। মামলায় মোট ১৪ জন সাক্ষী রয়েছেন।

তিনি আরো জানান, প্রতারণার মাধ্যমে হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ মামলায় রাগীব আলী, তার ছেলে আবদুল হাই, মেয়ে রুজিনা কাদির, জামাতা আবদুল কাদির, আত্মীয় দেওয়ান মোস্তাক মজিদ ও বাগানের সেবায়েত পংকজ কুমার গুপ্তের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত।

প্রসঙ্গত, প্রতারণার মাধ্যমে সিলেটের তারাপুর চা বাগানের দেবোত্তর সম্পত্তিতে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের মাধ্যমে হাজার কোটি টাকার ভূমি আত্মসাৎ এবং ভূমি মন্ত্রণালয়ের স্মারক জালিয়াতির আলোচিত দুটি মামলায় রাগীব আলী ও তার ছেলে-মেয়েসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে গত ১০ আগস্ট গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

স্মারক জালিয়াতির মামলায় রাগীব আলী ও তার ছেলে আবদুল হাইয়ের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

অন্যদিকে প্রতারণার মামলায় রাগীব আলী, তার ছেলে আবদুল হাই, জামাতা আবদুল কাদির, মেয়ে রুজিনা কাদির, রাগীব আলীর আত্মীয় মৌলভীবাজারের দেওয়ান মোস্তাক মজিদ, তারাপুর চা বাগানের সেবায়েত পংকজ কুমার গুপ্তের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির পরপরই ছেলেকে নিয়ে ভারতে পালিয়ে যান রাগীব আলী। তার আত্মীয় দেওয়ান মোস্তাক মজিদ গত ১০ অক্টোবর আদালতে আত্মসমর্পণ করার পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

গত ১২ নভেম্বর রাগীব আলীর ছেলে আবদুল হাইকে জকিগঞ্জ সীমান্ত থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ওইদিন তাকে আদালতে হাজির করা হলে আদালত কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। গত ২৪ নভেম্বর ভারতের করিমগঞ্জ থেকে রাগীব আলীকে আটক করে সে দেশের পুলিশ। ওইদিন বিকেলেই তাকে বাংলাদেশ পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। মামলা দুটিতে গ্রেপ্তার দেখিয়ে পুলিশ রাগীব আলীকে আদালতে হাজির করার পর তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন বিচারক। মামলার আরেক আসামি পংকজ কুমার গুপ্ত জামিনে রয়েছেন।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X