মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৪:০১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, January 3, 2017 6:50 pm
A- A A+ Print

রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থানে ভূমিকম্প,আতঙ্কে সুনামগঞ্জে বৃদ্ধের মৃত্যু সিলেটে আহত ৩ ভবনে ফাঁটল

download

রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা ৩টা ৯ মিনিটের দিকে এ কম্পন অনুভূত হয়। কম্পন স্থায়ী ছিল প্রায় ১০ সেকেন্ড। ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য ত্রিপুরার আমবাসা থেকে ১৯ কিলোমিটার উত্তরপূর্বে ভূপৃষ্ঠের ৩৬ দশমিক ২ কিলোমিটার গভীরে। রিখটার স্কেলেে এর মাত্রা ছিল ৫ দশমিক ৫। ত্রিপুরা বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী হওয়ায় কুমিল্লা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, হবিগঞ্জ, ফেনীসহ আশপাশের জেলায় এ ভূকম্পন বেশি অনুভূত হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে দেশের কোথাও ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। রাজধানীতে অফিস ছুটির প্রায় দুই ঘণ্টা আগে এই ভূকম্পনে ভবনগুলো কেঁপে ওঠে। এতে আতঙ্কে অনেকেই ভবন থেকে রাস্তায় নেমে আসেন। এর আগে গত বছরের জানুয়ারিতে ভারতের মণিপুর রাজ্যের রাজধানী ইম্ফল থেকে ৩৩ কিলোমিটার পূর্ব-উত্তর-পূর্বে এবং ২০১৫ সালের এপ্রিল থেকে মে মাসে নেপালে কয়েকবার বড় মাত্রার ভূমিকম্প হয়। এতে আট হাজারের বেশি প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। আর এ ভূকম্পনে কেঁপে ওঠে বাংলাদেশও। এতে বাংলাদেশে কোনো প্রাণহানি না ঘটলেও দেশের বিভিন্ন স্থানে বহুতল ও পুরাতন ভবনে ফাটল দেখা দেয়; আতঙ্কে মানুষ ঘরবাড়ি ছেড়ে রাস্তায় বের হয়ে আসে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বাংলাদেশও বেশ বড় মাত্রার ভূমিকম্প ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। প্রসঙ্গত, রিখটার স্কেলে ৪ থেকে ৪ দশমিক ৯ মাত্রার কম্পনকে মৃদু ভূম্পিকম্প হিসেবে ধরা হয়। আর ৫ থেকে ৫ দশমিক ৯ মাত্রাকে ‘মাঝারি’, ৬ থেকে ৬ দশমিক ৯ মাত্রা হলে ‘শক্তিশালী’, ৭ থেকে ৭ দশমিক ৯ মাত্রাহলে ‘ভয়াবহ’ এবং  ৮ বা এর বেশি মাত্রায় ভূমিকম্প হলে এক ‘অত্যন্ত ভয়াবহ’ ভূমিকম্প হিসেবে বিবেচনা করা হয়।
 বড় ধরনের কোনো ক্ষয়ক্ষতি না হলেও সুনামগঞ্জে ভূমিকম্প আতঙ্কে হিরণ মিয়া (৬০) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু এবং সিলিটে তিনজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। হিরণ মিয়া জগন্নাথপুর উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের আমাসপুর গ্রামের বাসিন্দা। এছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থানে বাড়ি-ঘর ও বহুতল ভবনে ফাটলের খবর পাওয়া গেছে। স্থানীয়রা জানান, বিকেলে হিরণ মিয়া নিজ ঘরে ঘুমাচ্ছিলেন। হঠাৎ ভূমিকম্প হওয়ায় ঘর থেকে দ্রুত বের হতে গিয়ে তিনি দেওয়ালের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে অজ্ঞান হয়ে মাটিতে পড়ে যান। পরে পরিবারের সদস্যরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. মুধুসূদন ধর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এদিকে, সিলেটে ভূমিকম্পে তিনজন আহত হয়েছে। ভূমিকম্পের সময় আতঙ্কে বের হতে গিয়ে তারা আহত হন। আহতরা হলেন, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ইফতেখার আহমদ রবিন (২২)। অপর দুইজন হলেন, নগরীর বন্দরবাজার এলাকার হোটেল শ্রমিক সাব্বির আহমদ ও আরিফ আহমদ। ভূমিকম্পের সময় রবিন ক্লাসে ছিলেন। আতঙ্কিত হয়ে জানালা দিয়ে বের হতে গিয়ে তিনি আহত হন। তাকে ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হোটেল শ্রমিক সাব্বির ও আরিফ ভূমিকম্পের সময় হোটেল থেকে বের হতে গিয়ে পড়ে আহত হন। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।
 

Comments

Comments!

 রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থানে ভূমিকম্প,আতঙ্কে সুনামগঞ্জে বৃদ্ধের মৃত্যু সিলেটে আহত ৩ ভবনে ফাঁটলAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থানে ভূমিকম্প,আতঙ্কে সুনামগঞ্জে বৃদ্ধের মৃত্যু সিলেটে আহত ৩ ভবনে ফাঁটল

Tuesday, January 3, 2017 6:50 pm
download

রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা ৩টা ৯ মিনিটের দিকে এ কম্পন অনুভূত হয়। কম্পন স্থায়ী ছিল প্রায় ১০ সেকেন্ড।

ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য ত্রিপুরার আমবাসা থেকে ১৯ কিলোমিটার উত্তরপূর্বে ভূপৃষ্ঠের ৩৬ দশমিক ২ কিলোমিটার গভীরে। রিখটার স্কেলেে এর মাত্রা ছিল ৫ দশমিক ৫।

ত্রিপুরা বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী হওয়ায় কুমিল্লা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, হবিগঞ্জ, ফেনীসহ আশপাশের জেলায় এ ভূকম্পন বেশি অনুভূত হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে দেশের কোথাও ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

রাজধানীতে অফিস ছুটির প্রায় দুই ঘণ্টা আগে এই ভূকম্পনে ভবনগুলো কেঁপে ওঠে। এতে আতঙ্কে অনেকেই ভবন থেকে রাস্তায় নেমে আসেন।

এর আগে গত বছরের জানুয়ারিতে ভারতের মণিপুর রাজ্যের রাজধানী ইম্ফল থেকে ৩৩ কিলোমিটার পূর্ব-উত্তর-পূর্বে এবং ২০১৫ সালের এপ্রিল থেকে মে মাসে নেপালে কয়েকবার বড় মাত্রার ভূমিকম্প হয়। এতে আট হাজারের বেশি প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। আর এ ভূকম্পনে কেঁপে ওঠে বাংলাদেশও। এতে বাংলাদেশে কোনো প্রাণহানি না ঘটলেও দেশের বিভিন্ন স্থানে বহুতল ও পুরাতন ভবনে ফাটল দেখা দেয়; আতঙ্কে মানুষ ঘরবাড়ি ছেড়ে রাস্তায় বের হয়ে আসে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বাংলাদেশও বেশ বড় মাত্রার ভূমিকম্প ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।

প্রসঙ্গত, রিখটার স্কেলে ৪ থেকে ৪ দশমিক ৯ মাত্রার কম্পনকে মৃদু ভূম্পিকম্প হিসেবে ধরা হয়। আর ৫ থেকে ৫ দশমিক ৯ মাত্রাকে ‘মাঝারি’, ৬ থেকে ৬ দশমিক ৯ মাত্রা হলে ‘শক্তিশালী’, ৭ থেকে ৭ দশমিক ৯ মাত্রাহলে ‘ভয়াবহ’ এবং  ৮ বা এর বেশি মাত্রায় ভূমিকম্প হলে এক ‘অত্যন্ত ভয়াবহ’ ভূমিকম্প হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

 বড় ধরনের কোনো ক্ষয়ক্ষতি না হলেও সুনামগঞ্জে ভূমিকম্প আতঙ্কে হিরণ মিয়া (৬০) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু এবং সিলিটে তিনজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

হিরণ মিয়া জগন্নাথপুর উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের আমাসপুর গ্রামের বাসিন্দা। এছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থানে বাড়ি-ঘর ও বহুতল ভবনে ফাটলের খবর পাওয়া গেছে।

স্থানীয়রা জানান, বিকেলে হিরণ মিয়া নিজ ঘরে ঘুমাচ্ছিলেন। হঠাৎ ভূমিকম্প হওয়ায় ঘর থেকে দ্রুত বের হতে গিয়ে তিনি দেওয়ালের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে অজ্ঞান হয়ে মাটিতে পড়ে যান।

পরে পরিবারের সদস্যরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. মুধুসূদন ধর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, সিলেটে ভূমিকম্পে তিনজন আহত হয়েছে। ভূমিকম্পের সময় আতঙ্কে বের হতে গিয়ে তারা আহত হন।

আহতরা হলেন, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ইফতেখার আহমদ রবিন (২২)। অপর দুইজন হলেন, নগরীর বন্দরবাজার এলাকার হোটেল শ্রমিক সাব্বির আহমদ ও আরিফ আহমদ।

ভূমিকম্পের সময় রবিন ক্লাসে ছিলেন। আতঙ্কিত হয়ে জানালা দিয়ে বের হতে গিয়ে তিনি আহত হন। তাকে ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হোটেল শ্রমিক সাব্বির ও আরিফ ভূমিকম্পের সময় হোটেল থেকে বের হতে গিয়ে পড়ে আহত হন। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X