মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১:৩৫
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, July 1, 2017 5:50 pm
A- A A+ Print

রানির পুরস্কার নিলেন বাংলাদেশি দুই তরুণ

54f25388070ed1ae0a877426dc93523a-595780683c492

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের হাত থেকে পুরস্কার নিলেন বাংলাদেশি দুই তরুণ রাহাত হোসেন ও সাজিদ ইকবাল। এই পুরস্কারের নাম কুইন্স ইয়াং লিডারস অ্যাওয়ার্ডস। ২৯ জুন লন্ডনের বাকিংহাম প্রাসাদে এক জাঁকালো অনুষ্ঠানে কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর উদীয়মান ৬০ তরুণ নেতৃত্বের হাতে পুরস্কার তুলে দেন রানি। পুরস্কার বিজয়ীদের মধ্যে আজ সাজিদ ইকবালের সঙ্গে কথা হলো প্রথম আলোর। তিনি বলেন, ‘রানির হাত থেকে পদকপ্রাপ্তি স্বপ্নের মতো ব্যাপার। তাঁর সঙ্গে কথাও হলো। তিনি আমার উদ্যোগের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়েছেন।’ রাহাত হোসেন ও সাজিদ ইকবাল দুজনই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় নিজেদের প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। ২০১৪ সালে জেনিফার ফেরেল নামের একজন মার্কিন তরুণীর সঙ্গে রাহাত শুরু করেন স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান ক্রিটিকালিংকের কাজ। দুর্ঘটনায় আহত মানুষকে জরুরি প্রাথমিক চিকিৎসা দেয় তাঁর প্রতিষ্ঠান। তাঁদের এই কার্যক্রমে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করছেন প্রায় এক হাজার তরুণ। অন্যদিকে সাজিদ ইকবাল চেঞ্জ নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান চালু করেছেন ২০১২ সালে। পরিবেশ রক্ষায় নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহার সাজিদের কাজের মূল লক্ষ্য। তাঁর প্রতিষ্ঠান সবার কাছে পরিচিতি পেয়েছিল ‘বোতলবাতি’ নামের একটি প্রকল্পের মাধ্যমে। দিনের বেলায় বস্তির অন্ধকার ঘরে সূর্যের আলো ব্যবহার করে তৈরি হতো এই বোতলবাতি। ২০১৫ সাল থেকে কমনওয়েলথভুক্ত দেশের তরুণদের জন্য রানির এই পুরস্কার প্রবর্তন করা হয়। গত বছর বাংলাদেশ থেকে এই পুরস্কার জিতেছিলেন ওসামা বিন নূর। এ বছর বিজয়ীরা রানির হাত থেকে পদকপ্রাপ্তি ছাড়াও পুরস্কারের আওতায় ২০-২৯ জুন নানা কার্যক্রমে অংশ নিয়েছেন। এর মধ্যে ছিল কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে তিন দিনের প্রশিক্ষণ, বিবিসির প্রধান কার্যালয়সহ যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং সংস্থার কার্যালয় পরিদর্শন ও নেতৃত্বস্থানীয় মানুষের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ। সাজিদ ইকবাল বলেন, ‘রানির পুরস্কার আমাদের যেমন সম্মানিত করল, তেমনি নিজেদের কাজগুলো ভবিষ্যতে আরও এগিয়ে নেওয়ার অনুপ্রেরণাও জোগাল।’d0b89dc0075ce3130cd74d85f7c8ef2f-595780682f7fe

Comments

Comments!

 রানির পুরস্কার নিলেন বাংলাদেশি দুই তরুণAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

রানির পুরস্কার নিলেন বাংলাদেশি দুই তরুণ

Saturday, July 1, 2017 5:50 pm
54f25388070ed1ae0a877426dc93523a-595780683c492

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের হাত থেকে পুরস্কার নিলেন বাংলাদেশি দুই তরুণ রাহাত হোসেন ও সাজিদ ইকবাল। এই পুরস্কারের নাম কুইন্স ইয়াং লিডারস অ্যাওয়ার্ডস। ২৯ জুন লন্ডনের বাকিংহাম প্রাসাদে এক জাঁকালো অনুষ্ঠানে কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর উদীয়মান ৬০ তরুণ নেতৃত্বের হাতে পুরস্কার তুলে দেন রানি।

পুরস্কার বিজয়ীদের মধ্যে আজ সাজিদ ইকবালের সঙ্গে কথা হলো প্রথম আলোর। তিনি বলেন, ‘রানির হাত থেকে পদকপ্রাপ্তি স্বপ্নের মতো ব্যাপার। তাঁর সঙ্গে কথাও হলো। তিনি আমার উদ্যোগের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়েছেন।’
রাহাত হোসেন ও সাজিদ ইকবাল দুজনই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় নিজেদের প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। ২০১৪ সালে জেনিফার ফেরেল নামের একজন মার্কিন তরুণীর সঙ্গে রাহাত শুরু করেন স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান ক্রিটিকালিংকের কাজ। দুর্ঘটনায় আহত মানুষকে জরুরি প্রাথমিক চিকিৎসা দেয় তাঁর প্রতিষ্ঠান। তাঁদের এই কার্যক্রমে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করছেন প্রায় এক হাজার তরুণ।
অন্যদিকে সাজিদ ইকবাল চেঞ্জ নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান চালু করেছেন ২০১২ সালে। পরিবেশ রক্ষায় নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহার সাজিদের কাজের মূল লক্ষ্য। তাঁর প্রতিষ্ঠান সবার কাছে পরিচিতি পেয়েছিল ‘বোতলবাতি’ নামের একটি প্রকল্পের মাধ্যমে। দিনের বেলায় বস্তির অন্ধকার ঘরে সূর্যের আলো ব্যবহার করে তৈরি হতো এই বোতলবাতি।
২০১৫ সাল থেকে কমনওয়েলথভুক্ত দেশের তরুণদের জন্য রানির এই পুরস্কার প্রবর্তন করা হয়। গত বছর বাংলাদেশ থেকে এই পুরস্কার জিতেছিলেন ওসামা বিন নূর। এ বছর বিজয়ীরা রানির হাত থেকে পদকপ্রাপ্তি ছাড়াও পুরস্কারের আওতায় ২০-২৯ জুন নানা কার্যক্রমে অংশ নিয়েছেন। এর মধ্যে ছিল কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে তিন দিনের প্রশিক্ষণ, বিবিসির প্রধান কার্যালয়সহ যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং সংস্থার কার্যালয় পরিদর্শন ও নেতৃত্বস্থানীয় মানুষের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ।
সাজিদ ইকবাল বলেন, ‘রানির পুরস্কার আমাদের যেমন সম্মানিত করল, তেমনি নিজেদের কাজগুলো ভবিষ্যতে আরও এগিয়ে নেওয়ার অনুপ্রেরণাও জোগাল।’d0b89dc0075ce3130cd74d85f7c8ef2f-595780682f7fe

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X