শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ২:০২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, September 10, 2017 7:27 am
A- A A+ Print

রোহিঙ্গাদের জন্য চাই ৭ কোটি ৭০ লাখ ডলার : জাতিসংঘ

4

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের সহায়তার জন্য শিগগির ৭ কোটি ৭০ লাখ ডলারের প্রয়োজন বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। শনিবার জাতিসংঘের ঢাকা কার্যালয় থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়, সীমান্ত পেরোনো লোকজনের সংখ্যা দ্রুত বেড়ে যাওয়ায় এখানকার আশ্রয় শিবির ও বসতিগুলোর ওপর ব্যাপক চাপ সৃষ্টি হয়েছে। পাশাপাশি স্থানীয় জনগোষ্ঠীও নতুন আসা ব্যাপক সংখ্যক মানুষের চাপ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে। রাখাইনে নির্যাতনের মুখে ২৫ অগাস্ট থেকে অন্তত ২ লাখ ৯০ হাজার রোহিঙ্গা সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে ঢুকেছে বলে জাতিসংঘের ধারণা। এর ফলে সীমান্ত জেলা কক্সবাজারে রোহিঙ্গার সংখ্যা বেড়ে তিনগুণ হয়েছে। রোহিঙ্গাদের জন্য নতুন বসতি স্থাপন ও সম্প্রসারণ দ্রুত হলেও ছিন্নমূল এসব মানুষের জন্য মৌলিক সেবা খুবই অপ্রতুল। পরিস্থিতি মোকাবিলায় জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক ত্রাণসংস্থাগুলো তিন লাখ শরণার্থী ধরে ২০১৭ সাল পর্যন্ত তাদের থাকার ব্যবস্থা নেওয়ার পরিকল্পনা করেছে। এসব রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মৌলিক সেবা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে আন্তর্জাতিক মানবিক সাহায্য সংস্থাগুলোও কাজ করে যাচ্ছে। নতুন পরিকল্পনার আওতায় এই ৭ কোটি ৭০ লাখ ডলার দিয়ে নতুন করে আসা এসব মানুষের জন্য দ্রুত প্রয়োজনীয় সেবা পৌঁছে দেবে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো। ঢাকায় নিযুক্ত জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি রবার্ট ওয়াটকিনস বিবৃতিতে আরো বলেন, অত্যন্ত দুরবস্থায় পড়া এসব মানুষ প্রাণের ভয়ে ঘরবাড়িসহ সবকিছু ছেড়ে নিঃস্ব অবস্থায় পালিয়ে বাংলাদেশে আসছে। এটা থামবে না বলেই মনে হচ্ছে, তাই তাদের জরুরি প্রয়োজনে সাড়া দিতে গেলে কক্সবাজারে কর্মরত সংস্থাগুলোর কাছে পর্যাপ্ত সম্পদ থাকা চাই। সর্বশেষ সংকটের আগে থেকেই সংস্থাগুলো মাঠে সক্রিয় থাকলেও রোহিঙ্গাদের এবারে ঢল তাদের হতভম্ব করে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেন ওয়াটকিনস। নতুন আসা এসব মানুষের জন্য জরুরি ভিত্তিতে ৬০ হাজার ঘর তৈরির প্রয়োজন। তার সঙ্গে দরকার খাদ্য, সুপেয় পানি এবং মানবিক স্বাস্থ্যসেবা বিশেষজ্ঞ ও যৌন সহিংসতা থেকে বেঁচে যাওয়াদের জন্য সহায়তাসহ সার্বিক স্বাস্থ্যসেবার ব্যবস্থা করাও জরুরি। জরুরি ত্রাণ সহায়তার জন্য এর মধ্যে জাতিসংঘের জরুরি ত্রাণ তহবিল থেকে ৭০ লাখ ডলার বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এই অর্থ দিয়ে শরণার্থী শিবিরের ভেতরে ও বাইরে ৭৫ হাজার মানুষের জীবন বাঁচানোসহ মৌলিক সেবা নিশ্চিত করা হবে বলে জানান তিনি।  

Comments

Comments!

 রোহিঙ্গাদের জন্য চাই ৭ কোটি ৭০ লাখ ডলার : জাতিসংঘAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

রোহিঙ্গাদের জন্য চাই ৭ কোটি ৭০ লাখ ডলার : জাতিসংঘ

Sunday, September 10, 2017 7:27 am
4

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের সহায়তার জন্য শিগগির ৭ কোটি ৭০ লাখ ডলারের প্রয়োজন বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

শনিবার জাতিসংঘের ঢাকা কার্যালয় থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, সীমান্ত পেরোনো লোকজনের সংখ্যা দ্রুত বেড়ে যাওয়ায় এখানকার আশ্রয় শিবির ও বসতিগুলোর ওপর ব্যাপক চাপ সৃষ্টি হয়েছে। পাশাপাশি স্থানীয় জনগোষ্ঠীও নতুন আসা ব্যাপক সংখ্যক মানুষের চাপ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে। রাখাইনে নির্যাতনের মুখে ২৫ অগাস্ট থেকে অন্তত ২ লাখ ৯০ হাজার রোহিঙ্গা সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে ঢুকেছে বলে জাতিসংঘের ধারণা। এর ফলে সীমান্ত জেলা কক্সবাজারে রোহিঙ্গার সংখ্যা বেড়ে তিনগুণ হয়েছে।

রোহিঙ্গাদের জন্য নতুন বসতি স্থাপন ও সম্প্রসারণ দ্রুত হলেও ছিন্নমূল এসব মানুষের জন্য মৌলিক সেবা খুবই অপ্রতুল। পরিস্থিতি মোকাবিলায় জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক ত্রাণসংস্থাগুলো তিন লাখ শরণার্থী ধরে ২০১৭ সাল পর্যন্ত তাদের থাকার ব্যবস্থা নেওয়ার পরিকল্পনা করেছে। এসব রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মৌলিক সেবা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে আন্তর্জাতিক মানবিক সাহায্য সংস্থাগুলোও কাজ করে যাচ্ছে। নতুন পরিকল্পনার আওতায় এই ৭ কোটি ৭০ লাখ ডলার দিয়ে নতুন করে আসা এসব মানুষের জন্য দ্রুত প্রয়োজনীয় সেবা পৌঁছে দেবে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো।

ঢাকায় নিযুক্ত জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি রবার্ট ওয়াটকিনস বিবৃতিতে আরো বলেন, অত্যন্ত দুরবস্থায় পড়া এসব মানুষ প্রাণের ভয়ে ঘরবাড়িসহ সবকিছু ছেড়ে নিঃস্ব অবস্থায় পালিয়ে বাংলাদেশে আসছে। এটা থামবে না বলেই মনে হচ্ছে, তাই তাদের জরুরি প্রয়োজনে সাড়া দিতে গেলে কক্সবাজারে কর্মরত সংস্থাগুলোর কাছে পর্যাপ্ত সম্পদ থাকা চাই।

সর্বশেষ সংকটের আগে থেকেই সংস্থাগুলো মাঠে সক্রিয় থাকলেও রোহিঙ্গাদের এবারে ঢল তাদের হতভম্ব করে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেন ওয়াটকিনস।

নতুন আসা এসব মানুষের জন্য জরুরি ভিত্তিতে ৬০ হাজার ঘর তৈরির প্রয়োজন। তার সঙ্গে দরকার খাদ্য, সুপেয় পানি এবং মানবিক স্বাস্থ্যসেবা বিশেষজ্ঞ ও যৌন সহিংসতা থেকে বেঁচে যাওয়াদের জন্য সহায়তাসহ সার্বিক স্বাস্থ্যসেবার ব্যবস্থা করাও জরুরি। জরুরি ত্রাণ সহায়তার জন্য এর মধ্যে জাতিসংঘের জরুরি ত্রাণ তহবিল থেকে ৭০ লাখ ডলার বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এই অর্থ দিয়ে শরণার্থী শিবিরের ভেতরে ও বাইরে ৭৫ হাজার মানুষের জীবন বাঁচানোসহ মৌলিক সেবা নিশ্চিত করা হবে বলে জানান তিনি।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X