মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৫:৩২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, September 7, 2017 6:46 pm
A- A A+ Print

রোহিঙ্গাদের পাশে থাকবে তুরস্ক : ফার্স্ট লেডি

11

মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের পাশে থাকবে তুরস্ক। একই সঙ্গে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশন প্রস্তাব উত্থাপন করবেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট। কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে তুরস্কের ফার্স্ট লেডি এমিনি এরদোয়ান এ কথা বলেন। এ সময় তিনি রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারের মানবিক সিদ্ধান্তকে ধন্যবাদ জানান। সেই সঙ্গে মিয়ানমার সরকারের প্রতি আন্তর্জাতিক চাপ প্রয়োগ করা কথাও তিনি বলেছেন। তার সঙ্গে আসা তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেগলুত কাভাসোগলু বলেন, মিয়ানমারে যে নির্যাতনের কথা বলা হচ্ছে, এটা বন্ধে আন্তর্জাতিকভাব কাজ করছে তার সরকার। রোহিঙ্গাদের সহযোগিতার পাশাপাশি এ সমস্যা সমাধানে চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টার পরে বিমানযোগে তুরস্কের ফার্স্ট লেডি এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী কক্সবাজার পৌঁছান। তাদের সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, পররাষ্ট্রপ্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। প্রতিনিধিদল দুপুরে কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পৌঁছান। ওখানে নতুন করে আসা রোহিঙ্গাদের মধ্যে স্বজনহারা, আহত রোহিঙ্গাদের পাশাপাশি সাধারণ রোহিঙ্গাদের সঙ্গেও কথা বলেন ফার্স্ট লেডি। মিয়ানমারে নির্যাতন-নিপীড়নের মুখে পালিয়ে আসা দেশটির মুসলিম নাগরিকদের সঙ্গে সাক্ষাতের উদ্দেশে বৃহস্পতিবার ভোররাত ৩টার দিকে ঢাকা পৌঁছান এমিনি এরদোয়ান। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বিমানবন্দরে তাকে অভ্যর্থনা জানান। ঢাকা ছাড়ার আগে বৃহস্পতিবারই এমিনি এরদোয়ান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। গত ২৪ অগাস্ট রাতে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে পুলিশ পোস্ট ও সেনা ক্যাম্পে আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির হামলার পর সেখানে নতুন করে অভিযান শুরু করে দেশটির সেনাবাহিনী। এরপর বাংলাদেশ সীমান্তে নতুন করে রোহিঙ্গাদের ঢল নামে। জাতিসংঘের হিসাবে, বুধবার পর্যন্ত এই দফায় প্রায় এক লাখ ৪৬ হাজার মানুষ মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে ঢুকেছে। গুলিবিদ্ধ হয়ে পালিয়ে আসা কয়েকজন রোহিঙ্গা বলেছেন, রাখাইনে রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকায় নির্বিচারে গুলি করে মানুষ মারছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী ও পুলিশ। এই প্রেক্ষাপটে মঙ্গলবার মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন দলের নেত্রী অং সান সুচির সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিজেপ তায়েপ এরদোয়ান। রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনকালে একটি শিশুকে বুকে আঁকড়ে ধরে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন ফার্স্ট লেডি এমিনি। এ সময় মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের মুখে তাদের ওপর দেশটির সেনা বাহিনীর নির্যাতনের বর্ণনা শুনে তিনি কেঁদে ফেলেন। সঙ্গে থাকা বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী গণমাধ্যমের সঙ্গে কোনো কথা বলেননি। বিকেলে বিশেষ বিমানে প্রতিনিধিদল ঢাকা ফিরেছেন। পরিদর্শনকালে মহেশখালী-কুতুবদিয়ার সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন, জেলা পুলিশ সুপার ড. ইকবাল হোসেন, উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাঈন উদ্দিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চাইলাউ মারমা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Comments

Comments!

 রোহিঙ্গাদের পাশে থাকবে তুরস্ক : ফার্স্ট লেডিAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

রোহিঙ্গাদের পাশে থাকবে তুরস্ক : ফার্স্ট লেডি

Thursday, September 7, 2017 6:46 pm
11

মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের পাশে থাকবে তুরস্ক। একই সঙ্গে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশন প্রস্তাব উত্থাপন করবেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট।

কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে তুরস্কের ফার্স্ট লেডি এমিনি এরদোয়ান এ কথা বলেন। এ সময় তিনি রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারের মানবিক সিদ্ধান্তকে ধন্যবাদ জানান। সেই সঙ্গে মিয়ানমার সরকারের প্রতি আন্তর্জাতিক চাপ প্রয়োগ করা কথাও তিনি বলেছেন।

তার সঙ্গে আসা তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেগলুত কাভাসোগলু বলেন, মিয়ানমারে যে নির্যাতনের কথা বলা হচ্ছে, এটা বন্ধে আন্তর্জাতিকভাব কাজ করছে তার সরকার। রোহিঙ্গাদের সহযোগিতার পাশাপাশি এ সমস্যা সমাধানে চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টার পরে বিমানযোগে তুরস্কের ফার্স্ট লেডি এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী কক্সবাজার পৌঁছান। তাদের সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, পররাষ্ট্রপ্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। প্রতিনিধিদল দুপুরে কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পৌঁছান। ওখানে নতুন করে আসা রোহিঙ্গাদের মধ্যে স্বজনহারা, আহত রোহিঙ্গাদের পাশাপাশি সাধারণ রোহিঙ্গাদের সঙ্গেও কথা বলেন ফার্স্ট লেডি।

মিয়ানমারে নির্যাতন-নিপীড়নের মুখে পালিয়ে আসা দেশটির মুসলিম নাগরিকদের সঙ্গে সাক্ষাতের উদ্দেশে বৃহস্পতিবার ভোররাত ৩টার দিকে ঢাকা পৌঁছান এমিনি এরদোয়ান। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বিমানবন্দরে তাকে অভ্যর্থনা জানান।

ঢাকা ছাড়ার আগে বৃহস্পতিবারই এমিনি এরদোয়ান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

গত ২৪ অগাস্ট রাতে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে পুলিশ পোস্ট ও সেনা ক্যাম্পে আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির হামলার পর সেখানে নতুন করে অভিযান শুরু করে দেশটির সেনাবাহিনী। এরপর বাংলাদেশ সীমান্তে নতুন করে রোহিঙ্গাদের ঢল নামে। জাতিসংঘের হিসাবে, বুধবার পর্যন্ত এই দফায় প্রায় এক লাখ ৪৬ হাজার মানুষ মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে ঢুকেছে।

গুলিবিদ্ধ হয়ে পালিয়ে আসা কয়েকজন রোহিঙ্গা বলেছেন, রাখাইনে রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকায় নির্বিচারে গুলি করে মানুষ মারছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী ও পুলিশ। এই প্রেক্ষাপটে মঙ্গলবার মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন দলের নেত্রী অং সান সুচির সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিজেপ তায়েপ এরদোয়ান।

রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনকালে একটি শিশুকে বুকে আঁকড়ে ধরে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন ফার্স্ট লেডি এমিনি। এ সময় মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের মুখে তাদের ওপর দেশটির সেনা বাহিনীর নির্যাতনের বর্ণনা শুনে তিনি কেঁদে ফেলেন।

সঙ্গে থাকা বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী গণমাধ্যমের সঙ্গে কোনো কথা বলেননি। বিকেলে বিশেষ বিমানে প্রতিনিধিদল ঢাকা ফিরেছেন।

পরিদর্শনকালে মহেশখালী-কুতুবদিয়ার সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন, জেলা পুলিশ সুপার ড. ইকবাল হোসেন, উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাঈন উদ্দিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চাইলাউ মারমা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X