রবিবার, ১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৬ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ভোর ৫:১৮
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, September 22, 2017 6:42 am
A- A A+ Print

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক সমর্থন চাইলেন রাষ্ট্রপতি

6

ঢাকা: রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ রোহিঙ্গাদের যথাযথ মর্যাদার সঙ্গে তাদের নিজস্ব আবাসভূমি রাখাইন রাজ্যে ফিরিয়ে নিতে মায়ানমার সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টির জন্য যুক্তরাজ্যসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়, বিভিন্ন সংস্থাও রাষ্ট্রের অব্যাহত সমর্থন চেয়েছেন। বৃহস্পতিবার বঙ্গভবনে কনজার্ভেটিভ ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশ (সিএফওবি)-এর নয় সদস্যের একটি প্রতিনিধিদলের রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতকালে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ অত্যন্ত ছোট একটি দেশ হওয়া সত্ত্বেও মায়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী কর্তৃক চরম নৃশংসতার শিকার রোহিঙ্গাদের মানবিক কারণে এদেশে আশ্রয় দেয়া হয়েছে।’ খবর বাসসের। এই সাক্ষাত শেষে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে বলেন, মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংখ্যালঘু মুসলমানদের ওপর নির্যাতনের বিরুদ্ধে জোরালো বক্তব্য দেয়ার জন্য রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ বৃটিশ সরকারের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন অংশিদার হিসেবে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে তার সম্পর্ককে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে থাকে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকালে বৃটিশ সরকার ও সেদেশের জনগণের সমর্থন এবং পরবর্তীকালে এখানে উন্নয়ন কার্যক্রমে সহায়তার কথাও অত্যন্ত কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন। এ্যানি মেইন এমপির নেতৃত্বাধীন নয় সদস্যের প্রতিনিধিদলটি রোহিঙ্গার বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত বিভিন্ন বাস্তবধর্মী পদক্ষেপের প্রশংসা করেন। এর আগে তারা কক্সবাজার সীমান্তবর্তী বাংলাদেশ এলাকা এবং সেখানে অবস্থিত বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন। তারা জানান, বাংলাদেশ ও বৃটিশ সরকার এবং দু’দেশের জনগণের মধ্যে সেতু হিসেবে কর্মরত সিইওবি উভয় দেশের মধ্যকার বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রমে সমর্থন বজায় রাখবে। প্রতিনিধিদলে আরো রয়েছেন- পাওল স্কুলি এমপি, উইল কুইন্স এমপি, সাবেক এমপি ডেভিড ম্যাকিন্টোশ ও সিএফওবি’র চেয়ারম্যান মেহফুজ আহমেদ।

Comments

Comments!

 রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক সমর্থন চাইলেন রাষ্ট্রপতিAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক সমর্থন চাইলেন রাষ্ট্রপতি

Friday, September 22, 2017 6:42 am
6

ঢাকা: রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ রোহিঙ্গাদের যথাযথ মর্যাদার সঙ্গে তাদের নিজস্ব আবাসভূমি রাখাইন রাজ্যে ফিরিয়ে নিতে মায়ানমার সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টির জন্য যুক্তরাজ্যসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়, বিভিন্ন সংস্থাও রাষ্ট্রের অব্যাহত সমর্থন চেয়েছেন।

বৃহস্পতিবার বঙ্গভবনে কনজার্ভেটিভ ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশ (সিএফওবি)-এর নয় সদস্যের একটি প্রতিনিধিদলের রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতকালে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ অত্যন্ত ছোট একটি দেশ হওয়া সত্ত্বেও মায়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী কর্তৃক চরম নৃশংসতার শিকার রোহিঙ্গাদের মানবিক কারণে এদেশে আশ্রয় দেয়া হয়েছে।’ খবর বাসসের।

এই সাক্ষাত শেষে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে বলেন, মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংখ্যালঘু মুসলমানদের ওপর নির্যাতনের বিরুদ্ধে জোরালো বক্তব্য দেয়ার জন্য রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ বৃটিশ সরকারের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন অংশিদার হিসেবে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে তার সম্পর্ককে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে থাকে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকালে বৃটিশ সরকার ও সেদেশের জনগণের সমর্থন এবং পরবর্তীকালে এখানে উন্নয়ন কার্যক্রমে সহায়তার কথাও অত্যন্ত কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন।

এ্যানি মেইন এমপির নেতৃত্বাধীন নয় সদস্যের প্রতিনিধিদলটি রোহিঙ্গার বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত বিভিন্ন বাস্তবধর্মী পদক্ষেপের প্রশংসা করেন। এর আগে তারা কক্সবাজার সীমান্তবর্তী বাংলাদেশ এলাকা এবং সেখানে অবস্থিত বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন।

তারা জানান, বাংলাদেশ ও বৃটিশ সরকার এবং দু’দেশের জনগণের মধ্যে সেতু হিসেবে কর্মরত সিইওবি উভয় দেশের মধ্যকার বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রমে সমর্থন বজায় রাখবে।

প্রতিনিধিদলে আরো রয়েছেন- পাওল স্কুলি এমপি, উইল কুইন্স এমপি, সাবেক এমপি ডেভিড ম্যাকিন্টোশ ও সিএফওবি’র চেয়ারম্যান মেহফুজ আহমেদ।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X