শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১০:১১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, October 6, 2017 4:54 pm
A- A A+ Print

রোহিঙ্গা সংকটের দায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে নিতে হবে: সৌদি বাদশাহ

182525_1

মস্কো: মায়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলমানদের সংকটের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে দায় নিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সউদ। রাশিয়া সফরে গিয়ে বৃহস্পতিবার ক্রেমলিনে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে আলোচনার শুরুতেই তিনি এ কথা বলেন। গত আগস্টের শেষ দিকে মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী দমন অভিযান শুরুর পর সেখান থেকে পাঁচ লাখের বেশি রোহিঙ্গা মুসলমান প্রতিবেশি বাংলাদেশে পালিয়ে গেছে। জাতিসংঘ শরণার্থীর এই স্রোতকে বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত-সৃষ্ট শরণার্থী সমস্যা হিসেবে উল্লেখ করে। ২৫ আগস্ট মায়ানমারের সীমান্ত এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনীর কিছু চৌকিতে কথিত রোহিঙ্গা বিদ্রোহীরা হামলা চালালে এর জের ধরে সেনাবাহিনী ওই অঞ্চলে দমন অভিযান শুরু করে। এসময় মায়ানমার বাহিনী ব্যাপকভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘন করে বলে মানবাধিকার সংগঠনগুলো অভিযোগ করে। নির্বিচার হত্যা, ধর্ষণ ও গ্রামের পর গ্রাম জ্বালিয়ে দেয়াসহ অন্যান্য অপরাধ করে সেনাবাহিনী। জাতিসংঘ এই নৃশংস দমন অভিযানকে ‘জাতিগত শুদ্ধি অভিযানের বাস্তব উদাহরণ’ হিসেবে উল্লেখ করে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, রুশ টেলিভিশনের খবরে দেখা যায় সৌদি বাদশাহ তার বক্তব্যের শুরুতে রোহিঙ্গা প্রসঙ্গে কথা বলেন। এরপর তিনি ভৌগলিক অখণ্ডতা বজায় রেখে সিরিয়ার সংকটের একটি রাজনৈতিক সমাধানের ওপর জোর দেন। ইরাকের ভৌগলিক অখণ্ডতা রক্ষা করতে হবে বলেও জানিয়েছেন সৌদি বাদশাহ। প্রেসিডেন্ট পুতিন ক্রেমলিনে বাদশাহ সালমানকে স্বাগত জানান। বিশ্বের তেলবাজার স্থিতিশিল রাখা এবং মধ্যপ্রাচ্যের সংকট নিরসনের জন্য সৌদি আরবের সঙ্গে রাশিয়ার সম্পর্ক জোরদার করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সৌদি আরবের কোনো বাদশাহর মধ্যে এই প্রথম বাদশাহ সালমান রাশিয়া সফর করেন। এই সফরে দুই দেশের মধ্যে কয়েক বিলিয়ন ডলারের যৌথ বিনিয়োগ চুক্তি সই হয়। তেলের নিম্ন মূল্য ও পশ্চিমাদের আরোপ করা নিষেধাজ্ঞার কারণে রাশিয়ার অর্থনীতির জন্য এই বিনিয়োগ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।
 

Comments

Comments!

 রোহিঙ্গা সংকটের দায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে নিতে হবে: সৌদি বাদশাহAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

রোহিঙ্গা সংকটের দায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে নিতে হবে: সৌদি বাদশাহ

Friday, October 6, 2017 4:54 pm
182525_1

মস্কো: মায়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলমানদের সংকটের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে দায় নিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সউদ।

রাশিয়া সফরে গিয়ে বৃহস্পতিবার ক্রেমলিনে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে আলোচনার শুরুতেই তিনি এ কথা বলেন।

গত আগস্টের শেষ দিকে মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী দমন অভিযান শুরুর পর সেখান থেকে পাঁচ লাখের বেশি রোহিঙ্গা মুসলমান প্রতিবেশি বাংলাদেশে পালিয়ে গেছে। জাতিসংঘ শরণার্থীর এই স্রোতকে বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত-সৃষ্ট শরণার্থী সমস্যা হিসেবে উল্লেখ করে।

২৫ আগস্ট মায়ানমারের সীমান্ত এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনীর কিছু চৌকিতে কথিত রোহিঙ্গা বিদ্রোহীরা হামলা চালালে এর জের ধরে সেনাবাহিনী ওই অঞ্চলে দমন অভিযান শুরু করে। এসময় মায়ানমার বাহিনী ব্যাপকভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘন করে বলে মানবাধিকার সংগঠনগুলো অভিযোগ করে।

নির্বিচার হত্যা, ধর্ষণ ও গ্রামের পর গ্রাম জ্বালিয়ে দেয়াসহ অন্যান্য অপরাধ করে সেনাবাহিনী। জাতিসংঘ এই নৃশংস দমন অভিযানকে ‘জাতিগত শুদ্ধি অভিযানের বাস্তব উদাহরণ’ হিসেবে উল্লেখ করে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, রুশ টেলিভিশনের খবরে দেখা যায় সৌদি বাদশাহ তার বক্তব্যের শুরুতে রোহিঙ্গা প্রসঙ্গে কথা বলেন। এরপর তিনি ভৌগলিক অখণ্ডতা বজায় রেখে সিরিয়ার সংকটের একটি রাজনৈতিক সমাধানের ওপর জোর দেন।

ইরাকের ভৌগলিক অখণ্ডতা রক্ষা করতে হবে বলেও জানিয়েছেন সৌদি বাদশাহ।

প্রেসিডেন্ট পুতিন ক্রেমলিনে বাদশাহ সালমানকে স্বাগত জানান। বিশ্বের তেলবাজার স্থিতিশিল রাখা এবং মধ্যপ্রাচ্যের সংকট নিরসনের জন্য সৌদি আরবের সঙ্গে রাশিয়ার সম্পর্ক জোরদার করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

সৌদি আরবের কোনো বাদশাহর মধ্যে এই প্রথম বাদশাহ সালমান রাশিয়া সফর করেন। এই সফরে দুই দেশের মধ্যে কয়েক বিলিয়ন ডলারের যৌথ বিনিয়োগ চুক্তি সই হয়। তেলের নিম্ন মূল্য ও পশ্চিমাদের আরোপ করা নিষেধাজ্ঞার কারণে রাশিয়ার অর্থনীতির জন্য এই বিনিয়োগ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X