মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ২:০২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, October 28, 2016 6:14 am
A- A A+ Print

র‌্যাব-পুলিশের বিরোধ মিটিয়ে ফেলতে মন্ত্রীর নির্দেশ

253434_1

পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ত্রৈমাসিক অপরাধ সভায়ও আলোচনায় এসেছে র‌্যাব-পুলিশের সাম্প্রতিক সম্পর্কের বিষয়টি। গতকাল দিনব্যাপী পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের সম্মেলন কক্ষে এ অপরাধ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় র‌্যাব-পুলিশের সাম্প্রতিক সম্পর্কের বিষয় নিয়ে কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, মহাপুলিশ পরিদর্শক (আইজিপি) একেএম শহীদুল হক এবং র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ। সভায় উপস্থিত পুলিশ কর্মকর্তাদের র‌্যাবের সঙ্গে সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রেখে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন আইজিপি। এ ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স নীতি পুলিশ হেডকোয়ার্টার্র্সের। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, দেশপ্রেম ও দায়িত্ববোধে উজ্জীবিত হয়ে সাম্প্রতিক সময়ে জঙ্গি দমনে পুলিশ যে সাফল্য দেখিয়েছে তা সত্যিই প্রশংসনীয়। আপনাদের এ কৃতিত্বপূর্ণ অবদান শুধু দেশেই নয়, বিশ্ববাসীর কাছেও প্রশংসিত হয়েছে। জনসেবাধর্মী পুলিশি ব্যবস্থা ধরে রাখার জন্য আপনাদের আরও দায়িত্বশীল আচরণ করতে হবে। তিনি বলেন, র‌্যাব-পুলিশ একই পরিবারের। এখানে কোনো দ্বন্দ্ব নেই। বিরোধ নেই। আইজিপি বলেন, র‌্যাব এবং পুলিশ একই পরিবারের। র‌্যাবের প্রতি কোনো বিরোধপূর্ণ আচরণ থাকতে পারে না। দুটি অর্গানাইজেশনের সদস্যদের সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রেখে কাজ করতে হবে। র‌্যাব-পুলিশকে আলাদা করে দেখার কোনো সুযোগ নেই। একই কথা র‌্যাবের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। কেউ যদি অনিয়ম করে তাহলে তাদের ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স। আইজিপির পরই র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, র‌্যাব পুলিশের প্রতিপক্ষ নয়। র‌্যাবকে প্রতিপক্ষ ভাবার কোনো কারণ নেই। দুপক্ষের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য এক। জনগণকে নিরাপত্তা দেওয়া। মানুষকে শান্তিতে রাখা। দেশকে নিরাপদ রাখা। র‌্যাব এবং পুলিশের মধ্যে কোনো বিরোধপূর্ণ আচরণ থাকবে না। দুপক্ষের প্রতিযোগিতা হবে সুস্থ এবং স্বচ্ছ। বেশকিছু ইস্যু নিয়ে গত কিছুদিন ধরে র‌্যাব ও পুলিশের বিদ্যমান সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা হচ্ছে বিভিন্ন মহলে। আলোচনা হচ্ছে বাহিনী ২টির ভেতরেও। ইতালির নাগরিক তাভেল্লা সিজার হত্যাকা- ও নব্য জেএমবির কথিত বাংলাদেশি প্রধান সারোয়ার জাহানকে নিয়ে র‌্যাব ও পুলিশের পক্ষ থেকে দুরকম বক্তব্য এসেছে। গত শুক্রবার এক প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, সাভারে নিহত জঙ্গি আব্দুর রহমানই নব্য জেএমবির আমির। তার প্রকৃত নাম সারোয়ার জাহান। আর সাংগঠনিক নাম আব্দুর রহমান। সারোয়ার জাহানই কথিত আবু ইব্রাহিম আল হানিফ। প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এও দাবি করেন ইতালি নাগরিক তাভেল্লা সিজার হত্যাকা-ের সঙ্গে নব্য ধারার জেএমবি জড়িত। গত বুধবার ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম বিভাগের প্রধান মনিরুল ইসলাম র‌্যাবের মহাপরিচালকের এই দুই বক্তব্য নাকচ করে দেন। তিনি এও বলেন, সারোয়ার জাহান নব্য জেএমবির তৃতীয় সারির নেতা। গতকাল দুপুরে র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎ শেষে বেরিয়ে আসার পর তার কাছে জানতে চাওয়া হয় বুধবার মনিরুল ইসলামের দেওয়া বক্তব্যের বিষয়ে কিছু বলবেন কিনা? জবাবে বেনজীর আহমেদ বলেন, আমি কোনো পাল্টা বক্তব্য দেব না। মনির জুনিয়র অফিসার। আমার স্নেহের। আমি আগে যা বলেছি তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে। এ নিয়ে বিভ্রান্তির কিছু নেই। তিনি বলেন, ও ফাঁদে পা দিতে পারে, কিন্তু আমি কোনো ফাঁদে পা দেব না। গতকাল পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ত্রৈমাসিক অপরাধ পর্যালোচনাসভায় (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৬) সব পুলিশ কমিশনার, রেঞ্জ ডিআইজি, পুলিশ সুপার, ঢাকাস্থ পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের প্রধানগণ এবং পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভায় আইজিপি মাদকদ্রব্যের চোরাচালান নিয়ন্ত্রণে পুলিশি তৎপরতা বাড়াতে বলেন। মাদক চোরাচালানের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি অনুসরণ করতেও নির্দেশ দেন। এ ছাড়া তিনি উপকূলীয় এলাকায় পুলিশ, র‌্যাব এবং কোস্ট গার্ডকে একত্রে মাদকদ্রব্য বিশেষ করে ইয়াবা চোরাচালান বন্ধের নির্দেশ দেন। আইজিপি বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা নিবিড়ভাবে তদারক করতে হবে। তিনি শিশু হত্যা, অপহরণ, শিশু ধর্ষণ মামলা নিয়মিত তদারকের জন্য জেলার পুলিশ সুপারদের নির্দেশ দেন। আইজিপি জঙ্গিদের বিরুদ্ধে সজাগ ও সতর্ক থাকার জন্যও মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন। সভায় ক্রাইম ডেটা ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (সিডিএমএস) কার্যক্রম সাফল্যের সঙ্গে পরিচালনার জন্য ডিএমপি, মানিকগঞ্জ, সুনামগঞ্জ, মাদারীপুর ও ফেনী জেলায় কর্মরত পাঁচজন কর্মকর্তাকে পুরস্কৃত করা হয়। সভার শুরুতে সাবেক আইজিপি মো. ইসমাইল হুসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করা হয় এবং দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করে তার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানানো হয়।

Comments

Comments!

 র‌্যাব-পুলিশের বিরোধ মিটিয়ে ফেলতে মন্ত্রীর নির্দেশAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

র‌্যাব-পুলিশের বিরোধ মিটিয়ে ফেলতে মন্ত্রীর নির্দেশ

Friday, October 28, 2016 6:14 am
253434_1

পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ত্রৈমাসিক অপরাধ সভায়ও আলোচনায় এসেছে র‌্যাব-পুলিশের সাম্প্রতিক সম্পর্কের বিষয়টি। গতকাল দিনব্যাপী পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের সম্মেলন কক্ষে এ অপরাধ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় র‌্যাব-পুলিশের সাম্প্রতিক সম্পর্কের বিষয় নিয়ে কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, মহাপুলিশ পরিদর্শক (আইজিপি) একেএম শহীদুল হক এবং র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ। সভায় উপস্থিত পুলিশ কর্মকর্তাদের র‌্যাবের সঙ্গে সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রেখে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন আইজিপি। এ ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স নীতি পুলিশ হেডকোয়ার্টার্র্সের।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, দেশপ্রেম ও দায়িত্ববোধে উজ্জীবিত হয়ে সাম্প্রতিক সময়ে জঙ্গি দমনে পুলিশ যে সাফল্য দেখিয়েছে তা সত্যিই প্রশংসনীয়। আপনাদের এ কৃতিত্বপূর্ণ অবদান শুধু দেশেই নয়, বিশ্ববাসীর কাছেও প্রশংসিত হয়েছে। জনসেবাধর্মী পুলিশি ব্যবস্থা ধরে রাখার জন্য আপনাদের আরও দায়িত্বশীল আচরণ করতে হবে। তিনি বলেন, র‌্যাব-পুলিশ একই পরিবারের। এখানে কোনো দ্বন্দ্ব নেই। বিরোধ নেই। আইজিপি বলেন, র‌্যাব এবং পুলিশ একই পরিবারের। র‌্যাবের প্রতি কোনো বিরোধপূর্ণ আচরণ থাকতে পারে না। দুটি অর্গানাইজেশনের সদস্যদের সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রেখে কাজ করতে হবে। র‌্যাব-পুলিশকে আলাদা করে দেখার কোনো সুযোগ নেই। একই কথা র‌্যাবের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। কেউ যদি অনিয়ম করে তাহলে তাদের ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স।

আইজিপির পরই র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, র‌্যাব পুলিশের প্রতিপক্ষ নয়। র‌্যাবকে প্রতিপক্ষ ভাবার কোনো কারণ নেই। দুপক্ষের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য এক। জনগণকে নিরাপত্তা দেওয়া। মানুষকে শান্তিতে রাখা। দেশকে নিরাপদ রাখা। র‌্যাব এবং পুলিশের মধ্যে কোনো বিরোধপূর্ণ আচরণ থাকবে না। দুপক্ষের প্রতিযোগিতা হবে সুস্থ এবং স্বচ্ছ।

বেশকিছু ইস্যু নিয়ে গত কিছুদিন ধরে র‌্যাব ও পুলিশের বিদ্যমান সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা হচ্ছে বিভিন্ন মহলে। আলোচনা হচ্ছে বাহিনী ২টির ভেতরেও। ইতালির নাগরিক তাভেল্লা সিজার হত্যাকা- ও নব্য জেএমবির কথিত বাংলাদেশি প্রধান সারোয়ার জাহানকে নিয়ে র‌্যাব ও পুলিশের পক্ষ থেকে দুরকম বক্তব্য এসেছে। গত শুক্রবার এক প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, সাভারে নিহত জঙ্গি আব্দুর রহমানই নব্য জেএমবির আমির। তার প্রকৃত নাম সারোয়ার জাহান। আর সাংগঠনিক নাম আব্দুর রহমান। সারোয়ার জাহানই কথিত আবু ইব্রাহিম আল হানিফ। প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এও দাবি করেন ইতালি নাগরিক তাভেল্লা সিজার হত্যাকা-ের সঙ্গে নব্য ধারার জেএমবি জড়িত। গত বুধবার ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম বিভাগের প্রধান মনিরুল ইসলাম র‌্যাবের মহাপরিচালকের এই দুই বক্তব্য নাকচ করে দেন। তিনি এও বলেন, সারোয়ার জাহান নব্য জেএমবির তৃতীয় সারির নেতা। গতকাল দুপুরে র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎ শেষে বেরিয়ে আসার পর তার কাছে জানতে চাওয়া হয় বুধবার মনিরুল ইসলামের দেওয়া বক্তব্যের বিষয়ে কিছু বলবেন কিনা?

জবাবে বেনজীর আহমেদ বলেন, আমি কোনো পাল্টা বক্তব্য দেব না। মনির জুনিয়র অফিসার। আমার স্নেহের। আমি আগে যা বলেছি তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে। এ নিয়ে বিভ্রান্তির কিছু নেই। তিনি বলেন, ও ফাঁদে পা দিতে পারে, কিন্তু আমি কোনো ফাঁদে পা দেব না।

গতকাল পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ত্রৈমাসিক অপরাধ পর্যালোচনাসভায় (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৬) সব পুলিশ কমিশনার, রেঞ্জ ডিআইজি, পুলিশ সুপার, ঢাকাস্থ পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের প্রধানগণ এবং পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় আইজিপি মাদকদ্রব্যের চোরাচালান নিয়ন্ত্রণে পুলিশি তৎপরতা বাড়াতে বলেন। মাদক চোরাচালানের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি অনুসরণ করতেও নির্দেশ দেন। এ ছাড়া তিনি উপকূলীয় এলাকায় পুলিশ, র‌্যাব এবং কোস্ট গার্ডকে একত্রে মাদকদ্রব্য বিশেষ করে ইয়াবা চোরাচালান বন্ধের নির্দেশ দেন।

আইজিপি বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা নিবিড়ভাবে তদারক করতে হবে। তিনি শিশু হত্যা, অপহরণ, শিশু ধর্ষণ মামলা নিয়মিত তদারকের জন্য জেলার পুলিশ সুপারদের নির্দেশ দেন। আইজিপি জঙ্গিদের বিরুদ্ধে সজাগ ও সতর্ক থাকার জন্যও মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন। সভায় ক্রাইম ডেটা ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (সিডিএমএস) কার্যক্রম সাফল্যের সঙ্গে পরিচালনার জন্য ডিএমপি, মানিকগঞ্জ, সুনামগঞ্জ, মাদারীপুর ও ফেনী জেলায় কর্মরত পাঁচজন কর্মকর্তাকে পুরস্কৃত করা হয়।

সভার শুরুতে সাবেক আইজিপি মো. ইসমাইল হুসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করা হয় এবং দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করে তার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানানো হয়।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X