শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৮:৫৯
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, January 20, 2017 9:15 am
A- A A+ Print

ষাঁড়ের দৌড় নিয়ে উত্তাল তামিলনাড়ু

12

জাল্লিকাট্টু (ষাঁড়ের দৌড়) ফেরানোর দাবিতে ভারতের তামিলনাড়ু উত্তাল হয়ে উঠেছে। বৃহস্পতিবার তৃতীয় রাতেও চেন্নাইয়ের মেরিনা সৈকতে বিক্ষোভ অব্যাহত ছিল। এ দিন সৈকতে জমায়েত হয়েছিল প্রায় ১৫ হাজার মানুষ। জাল্লিকাট্টু তামিলনাড়ুর একটি প্রাচীন খেলা। এ খেলায় একটি ছুটন্ত-উন্মত্ত ষাঁড়কে নানা কসরতের পরে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসেন একদল মানুষ। তামিলদের নবান্ন উৎসব পোঙ্গলের সময়ে এই খেলা হয়ে থাকে। ভারতের সুপ্রিম কোর্টের আদেশে ২০১৪ সাল থেকে এই প্রথা বন্ধ রয়েছে। এবছর সেই নিষেধাজ্ঞা পুনরায় বহাল রেখেছে শীর্ষ আদালত। পশু-প্রেমীদের সংগঠন পেটার অভিযোগ, ষাঁড়কে আরও ক্ষেপিয়ে তুলতে খেলার আগে মাদক ইনজেকশন দেওয়া হয় এবং চোখে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার সারারাত মেরিনা বিচের ৬ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ১৫ হাজার বিক্ষোভকারী অবস্থান নিয়েছে। এই রাতে কেবল তরুণ শিক্ষার্থীরাই নয়, বরং অনেকে এক বছরের শিশুকে নিয়ে স্বপরিবারে অবস্থান করেছে। শুক্রবার সকালে বিক্ষোভে অংশ নিতে লোকজন মেরিনা বিচের দিকে ছুটে গেছেন। প্রতিবাদীদের পাশে দাঁড়িয়েছেন সঙ্গীত পরিচালক এ আর রহমানসহ তামিলনাড়ুর সবকটি রাজনৈতিক দল, অভিনেতা-অভিনেত্রী ও ক্রিকেটাররা। এ আর রহমান শুক্রবার সকাল থেকে অনশনের ঘোষণা দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার বিক্ষোভের মূল কেন্দ্রে ছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নাম। কারণ মুখ্যমন্ত্রী ও পনীরসেলভম মোদির সঙ্গে দেখা করার পরেও আশার আলো দেখাতে পারেননি। বুধবার প্রতিবাদীদের শান্ত করতে মুখ্যমন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে জাল্লিকাট্টু নিয়ে অর্ডিন্যান্স আনার কথা তুলবেন। কিন্তু নয়াদিল্লিতে বৈঠকের পরে অর্ডিন্যান্স নিয়ে কিছুই জানাতে পারেননি পনীরসেলভম। তিনি দাবি করেন মোদি তাকে বলেছেন, বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টে এখনও বিচারাধীন। তাই কেন্দ্রের পক্ষে অর্ডিন্যান্স জারি সম্ভব নয়। কেন্দ্রীয় সরকার এর আগেই এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, তাদের জাল্লিকাট্টু নিয়ে রাজ্য সরকার যে পথে এগোবে তাতে তাদের কোনও আপত্তি নেই। কিন্তু শেষ কথা বলবে সুপ্রিম কোর্টই।    

Comments

Comments!

 ষাঁড়ের দৌড় নিয়ে উত্তাল তামিলনাড়ুAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ষাঁড়ের দৌড় নিয়ে উত্তাল তামিলনাড়ু

Friday, January 20, 2017 9:15 am
12

জাল্লিকাট্টু (ষাঁড়ের দৌড়) ফেরানোর দাবিতে ভারতের তামিলনাড়ু উত্তাল হয়ে উঠেছে। বৃহস্পতিবার তৃতীয় রাতেও চেন্নাইয়ের মেরিনা সৈকতে বিক্ষোভ অব্যাহত ছিল। এ দিন সৈকতে জমায়েত হয়েছিল প্রায় ১৫ হাজার মানুষ।

জাল্লিকাট্টু তামিলনাড়ুর একটি প্রাচীন খেলা। এ খেলায় একটি ছুটন্ত-উন্মত্ত ষাঁড়কে নানা কসরতের পরে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসেন একদল মানুষ। তামিলদের নবান্ন উৎসব পোঙ্গলের সময়ে এই খেলা হয়ে থাকে। ভারতের সুপ্রিম কোর্টের আদেশে ২০১৪ সাল থেকে এই প্রথা বন্ধ রয়েছে। এবছর সেই নিষেধাজ্ঞা পুনরায় বহাল রেখেছে শীর্ষ আদালত। পশু-প্রেমীদের সংগঠন পেটার অভিযোগ, ষাঁড়কে আরও ক্ষেপিয়ে তুলতে খেলার আগে মাদক ইনজেকশন দেওয়া হয় এবং চোখে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার সারারাত মেরিনা বিচের ৬ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ১৫ হাজার বিক্ষোভকারী অবস্থান নিয়েছে। এই রাতে কেবল তরুণ শিক্ষার্থীরাই নয়, বরং অনেকে এক বছরের শিশুকে নিয়ে স্বপরিবারে অবস্থান করেছে। শুক্রবার সকালে বিক্ষোভে অংশ নিতে লোকজন মেরিনা বিচের দিকে ছুটে গেছেন। প্রতিবাদীদের পাশে দাঁড়িয়েছেন সঙ্গীত পরিচালক এ আর রহমানসহ তামিলনাড়ুর সবকটি রাজনৈতিক দল, অভিনেতা-অভিনেত্রী ও ক্রিকেটাররা। এ আর রহমান শুক্রবার সকাল থেকে অনশনের ঘোষণা দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার বিক্ষোভের মূল কেন্দ্রে ছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নাম। কারণ মুখ্যমন্ত্রী ও পনীরসেলভম মোদির সঙ্গে দেখা করার পরেও আশার আলো দেখাতে পারেননি। বুধবার প্রতিবাদীদের শান্ত করতে মুখ্যমন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে জাল্লিকাট্টু নিয়ে অর্ডিন্যান্স আনার কথা তুলবেন। কিন্তু নয়াদিল্লিতে বৈঠকের পরে অর্ডিন্যান্স নিয়ে কিছুই জানাতে পারেননি পনীরসেলভম। তিনি দাবি করেন মোদি তাকে বলেছেন, বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টে এখনও বিচারাধীন। তাই কেন্দ্রের পক্ষে অর্ডিন্যান্স জারি সম্ভব নয়। কেন্দ্রীয় সরকার এর আগেই এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, তাদের জাল্লিকাট্টু নিয়ে রাজ্য সরকার যে পথে এগোবে তাতে তাদের কোনও আপত্তি নেই। কিন্তু শেষ কথা বলবে সুপ্রিম কোর্টই।

 

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X